আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

করোনা: ২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে সংক্রমণ-মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | ২৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলমান করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে। একইসঙ্গে আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন সাত শতাধিক মানুষ। একই সময়ে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩ লাখ।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে ব্রাজিলে। অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে রয়েছে তাইয়োন। প্রাণহানির তালিকায় এরপরই রয়েছে ব্রাজিল, ইতালি, রাশিয়া ও ফ্রান্স। এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫৪ কোটি ৪৭ লাখের ঘর। অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৬৩ লাখ ৪১ হাজার।

মঙ্গলবার (২১ জুন) সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭২৭ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে দেড় শতাধিক। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৬৩ লাখ ৪১ হাজার ৭৩২ জনে।

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ১ হাজার ১ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ৪৫ হাজার। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৪ কোটি ৪৭ লাখ ৯৮ হাজার ৯৬৮ জনে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে ব্রাজিলে। লাতিন আমেরিকার এই দেশটি করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১০৮ জন এবং নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৫১ হাজার ৯২৫ জন। অপরদিকে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৩ কোটি ১৭ লাখ ৫৬ হাজার ১১৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ৬৯ হাজার ২১৭ জনের।

অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে রয়েছে তাইওয়ান। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৪৪ জন এবং নতুন করে ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৩৫ হাজার ৬৩২ জন। এছাড়া মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৩৩ লাখ ৩০ হাজার ৬৯৫ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৩৬৫ জনের।

রাশিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫৪ জন এবং নতুন করে ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ২ হাজার ৬৬৭ জন। এছাড়া মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৮৪ লাখ ৯২৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৮০ হাজার ৫১৭ জনের।

ফ্রান্সে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১১ হাজার ৫৬৬ জন এবং মারা গেছেন ৪৫ জন। করোনা মহামারির শুরু থেকে এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩ কোটি ১ লাখ ৮১ হাজার ৪১৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৪৯ হাজার ১০৬ জন মারা গেছেন। একইসময়ে দক্ষিণ আফ্রিকায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২৯১ জন এবং মারা গেছেন ১৬ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাজ্যে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১২ হাজার ১৪২ জন এবং মারা গেছেন ২২ জন। করোনা মহামারির শুরু থেকে এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২ কোটি ২৫ লাখ ৮ হাজার ৯২৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৭৯ হাজার ৬০১ জন মারা গেছেন। একইসময়ে কানাডায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৮০২ জন এবং মারা গেছেন ১৫ জন।

জার্মানিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৬ হাজার ৯১১ জন। করোনা মহামারির শুরু থেকে ইউরোপের এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২ কোটি ৭২ লাখ ১১ হাজার ৮৬৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৪০ হাজার ২৯২ জন মারা গেছেন। একইসময়ে উত্তর কোরিয়ায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৮ হাজার ৮২০ জন এবং দেশটিতে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৭৩ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২২ হাজার ৫৯০ জন এবং মারা গেছেন ৩১ জন। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৮ কোটি ৮০ লাখ ৫৩ হাজার ৯০৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১০ লাখ ৩৮ হাজার ৩৮৫ জন মারা গেছেন। একইসময়ে মেক্সিকোতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৫০৯ জন এবং মারা গেছেন ১০ জন।

ইতালিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ হাজার ৫৭১ জন এবং মারা গেছেন ৫৯ জন। করোনা মহামারির শুরু থেকে ইউরোপের এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১ কোটি ৭৮ লাখ ৯৬ হাজার ৬৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৬৭ হাজার ৭৮০ জন মারা গেছেন। একইসময়ে জাপানে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১২ হাজার ৮৮৪ জন এবং মারা গেছেন ৯ জন।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় অস্ট্রেলিয়ায় নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২০ হাজার ২১৪ জন এবং মারা গেছেন ১৩ জন। একইসময়ে থাইল্যান্ডে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৭৮৪ জন এবং মারা গেছেন ১৮ জন। চিলিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৪৮৯ জন এবং মারা গেছেন ২৬ জন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ২০২০ সালের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর আগে একই বছরের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে সংস্থাটি।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



উত্তরায় ফেনসিডিলসহ ৩ মাদককারবারি আটক

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | ২৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর উত্তরায় ১৯৮ বোতল ফেনসিডিলসহ তিন মাদককারবারিকে আটক করেছে র্যাব-১। মঙ্গলবার (১৪ জুন) ঢাকার উত্তরা পশ্চিম থানার আশুলিয়া টু আব্দুল্লাহপুর মহাসড়কের উত্তর পাশে তাসিন সিএনজি অ্যান্ড ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে তাদের আটক করা হয়।

এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান সহকারী পরিচালক (মিডিয়া অফিসার) ও সহকারী পুলিশ সুপার নোমান আহমদ। এতে বলা হয়, র‌্যাব-১ এর একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে, ডিএমপি ঢাকার উত্তরা পশ্চিম থানার আশুলিয়া টু আব্দুল্লাহপুর মহাসড়কের উত্তর পাশে তাসিন সিএনজি অ্যান্ড ফিলিং স্টেশনের সামনে পাঁকা রাস্তার ওপর তিনিজন ফেনসিডিল কেনাবেচা করছে।

এমন তথ্যের ভিত্তিতে দুপুর পৌনে ১২টার দিকে ফিলিং স্টেশনের সামনে মো. ফারুক আলী (২৮), পিতা- মৃত আলম, জেলা- ঠাকুরগাঁও ২) মো. মালেক (৪৭), পিতা- মৃত মজবুল হক, জেলা- ঠাকুরগাঁও ও ৩) মো. রেজাউল করিম (২৬), পিতা- নাজির হোসেনকে, জেলা- ঠাকুরগাঁও আটক করা হয়।

এ সময় তাদের কাছ থেকে ১৯৮ বোতল ফেনসিডিল, তিনটি মোবাইল ফোন ও নগদ ৩০০ টাকা জব্দ করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, তারা দীর্ঘদিন ধরে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় ফেনসিডিল বিক্রি করতো। জব্দ মাদকসহ তাদের সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

 

নিউজ ট্যাগ: মাদককারবারি আটক

আরও খবর



মোংলা বন্দর ব্যবসায়ীদের ১২ ঘণ্টা সময় বাঁচাবে পদ্মা সেতু

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ জুন ২০২২ | ২১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধনের খবরে উচ্ছ্বসিত গোটা দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ। বিশেষ করে ব্যবসায়ীরা। কারণ এই সেতুর কারণে সড়ক পথের উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গে যেমন দক্ষিণাঞ্চলের অবকাঠামোগত উন্নয়ন হবে তেমনি শিল্প-কারখানা গড়ে ওঠার পাশাপাশি ব্যবসা-বাণিজ্যেরও প্রসার ঘটবে। মোংলা বন্দর ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলাপকালে জানা গেছে, পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর এ বন্দর থেকে ঢাকায় পণ্য রফতানিতে সময় লাগবে মাত্র ৩ ঘণ্টা। যা আগে লাগতো ৮ থেকে ৯ ঘণ্টা। এখানে তাদের সময় কমবে ৬ ঘণ্টা। আর মোংলা বন্দর থেকে সরাসরি চট্টগ্রাম বন্দরে সময় লাগত ১৪ ঘণ্টা। সেতুর কারণে তা কমে এখন হবে ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা। এখনেও সময় বাঁচবে ৬ ঘণ্টা। সবমিলিয়ে ব্যবসায়ীদের মোট ১২ ঘণ্টা সময় এগিয়ে থাকবে। যা তাদের ব্যবসার ক্ষেত্রে বড় ধরনের পুঁজি তো বটেই অর্থনৈতিকভাবে লাভবানও হবেন তারা।

মোংলা বন্দর ব্যবহারকারী ও ব্যবসায়ীদের সংগঠন খুলনা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সহ-সভাপতি মোস্তফা জেসান ভূট্রো বলেন, সময় নষ্ট তাদের ব্যবসায় বড় ধরনের সমস্যা। পণ্য নিয়ে ঢাকা বা চট্রগ্রামে গেলে পদ্মার ফেরিতেই আটকে থাকতো হত কয়েক ঘণ্টা। এতে একদিকে যেমন সময় ও অর্থ নষ্ট হত, অন্যদিকে ভোগান্তিতে পড়তে হত তাদের। এখন পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর তাদের ব্যবসা-বাণিজ্যে বহুগুণে ত্বরান্বিত হবে বলে এই ব্যবসায়ী নেতার প্রত্যাশা।

মোংলা বন্দর বার্থ-শিপ অপারেটর অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ খোকন সেরনিয়াবাত এবং বন্দর ব্যবহারকারী এস এম মোস্তাক মিঠু, এইচ এম দুলাল ও মশউর রহমান বলেন, রুপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, মেট্রোরেল ও রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ দেশের বড় বড় মেগা প্রকল্প নির্মাণের মালামাল এই বন্দরের মাধ্যমে আমদানি হয়েছে। আমরাই আবার এখান থেকে আমদানি হওয়া পণ্য খালাস করে নদী ও সড়ক পথে সংশ্লিষ্ট প্রকল্পে পৌঁছে দিয়েছি। কিন্তু পদ্মায় সেতুর অভাবে সেসব মালামাল দেরিতে পৌঁছেছে। মাদারিপুরের কাঁঠালবাড়ি নৌ ফেরিতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা তা আটকে থাকত।  কিন্তু এখন পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর সেই সমস্যায় আর পড়তে হবে না জানিয়ে এই ব্যবসায়ীরা বলেন, তাদের অনেক সময় বাঁচবে। এই সময়ে সমুদ্র বন্দর মোংলা থেকে যে কোনো পণ্য খালাস হওয়ার পর তা খুব সহজেই পৌঁছে দেওয়া যাবে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায়।

পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর দেশের দক্ষিণের অর্থনৈতিক দ্বারকে খুলে দেবে। ফলে এ অঞ্চলে গড়ে উঠবে বিভিন্ন শিল্প কারখানা। এ প্রসঙ্গে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল মোহাম্মদ মুসা বলেন, পদ্মা সেতু চালুর পর এই বন্দরের গতিশীলতা বেড়ে যাবে এবং একই সঙ্গে সড়ক পথে সময় কমে দ্রুত এ বন্দর থেকে পণ্যবাহী কন্টেইনার ও কার্গো হ্যান্ডিং করা যাবে। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) ও বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টস অ্যাসোসিয়েশন (বিকিএমইএ) তার সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পর এখানে তারা বিনিয়োগ করবেন। তারা এই বন্দরের সক্ষমতা সম্পর্কে অবহিত হয়েছেন। এছাড়া বেশ কয়েকটি বড় ব্যবসায়ী কোম্পানিও যোগাযোগ করেছেন বলেও চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল মুসা জানান।

মোংলা রফতানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল ইপিজেডের মহাব্যবস্থাপক মাহাবুব আহম্মেদ সিদ্দিক বলেন, সেতু হওয়ার পর ব্যবসায়ীদের যোগাযোগ ব্যবস্থা অনেক কমে যাবে। এখানকার বিনিয়োগকারীদের কাঁচামাল পণ্য আগে যেখানে জাহাজে করে আসতো এখন আসবে সড়ক পথে। সেতুটি চালু হলেই এই ইপিজেডে বিনিয়োগকারীও বাড়বে বলে জানান তিনি।

নিউজ ট্যাগ: পদ্মা সেতু

আরও খবর



পুলিশ ব্যাটালিয়নের সঙ্গে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গোলাগুলি

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | ৪০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী ক্যাম্পে আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সঙ্গে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে বালুখালী ক্যাম্পে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ভারী অস্ত্রসহ বিপুল পরিমাণ বুলেট উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ৮ এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরান হোসেন। তিনি জানান, বালুখালী ক্যাম্প-১৮ তে ৮ এপিবিএনের সঙ্গে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। ওই সময় সন্ত্রাসীদের ব্যবহৃত একটি অটোমেটিক রাইফেল ও ৪৯১টি গুলি জব্দ করা হয়।

তিনি আরও বলেন, বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ১০টার দিকে ক্যাম্প-১৮-১৭ এর মাঝামাঝি পাহাড়ি এলাকায় টহল দেওয়ার সময় একদল সন্ত্রাসীকে দেখতে পায় এপিবিএনের সদস্যরা। তাদের থামার সংকেত দিলে তারা না থেমে এপিবিএনকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। আত্মরক্ষার্থে এপিবিএনও পাল্টা গুলি চালায়।

প্রায় এক ঘণ্টার বেশি সময় গোলাগুলির পর পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। পরে ওই স্থান তল্লাশি করে অস্ত্র ও গুলি জব্দ করা হয়। সন্ত্রাসীদের ধরতে অভিযান চলছে।


আরও খবর



সড়ক দুর্ঘটনায় ইউপি সদস্য নিহত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | ৩৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পটুয়াখালীর বসাক বাজারে মোটরসাইকেলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তায় পড়ে গিয়ে মারা গেছেন ইউপি সদস্য মোহাম্মদ হানিফ গাজী। গুরুতর আহত অবস্থায় বরিশাল মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে ওই মোটরসাইকেলের চালক মোঃ শামীমকে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত হানিফ গাজী গলাচিপা উপজেলার আমখোলা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য। তার মরদেহ পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নিজ বাড়ি থেকে ভাড়া মোটরসাইকেল যোগে পটুয়াখালীতে আসার পথে ৫২ বছর বয়সি ইউপি সদস্য হানিফ গাজী দুর্ঘটনায় পতিত হন। বসাক বাজারে পথচারী এক শিশুকে বাঁচাতে গিয়ে মোটরসাইকেল চালক শামীম নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে পড়ে যায়। তখন রাস্তায় ছিটকে পড়ে হানিফ গাজী মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়ে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারাযন। আহত চালক শামীমকে প্রথমে পটুয়াখালী মেডিকেলে ও পরে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

নিহত হানিফ গাজী আমখোলা ইউনিয়নের বলইকাঠী গ্রামের বাসিন্দা এবং ওই এলাকার তিনবার নির্বাচিত ইউপি সদস্য। তিনি স্ত্রী ও ৮ ছেলেমেয়ে রেখে গেছেন। তার মৃত্যুতে হাসপাতলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।


আরও খবর



সীতাকুণ্ডে অগ্নিকাণ্ড : নিহতদের পরিবারকে ১০ লাখ টাকা করে দেবে বিএম ডিপো

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | ২৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে অগ্নিকাণ্ডে নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে ১০ লাখ টাকা করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে বিএম কনটেইনার ডিপো কর্তৃপক্ষ। এছাড়া এ দুর্ঘটনায় যারা অঙ্গ হারিয়েছেন তাদের ৬ লাখ এবং আহতদের ৪ লাখ টাকা করে দেওয়া হবে।

রোববার (৫ জুন) সন্ধ্যায় স্মার্ট গ্রুপের জিএম মেজর (অব.) শামসুল হায়দার সিদ্দিকী এ ঘোষণা দেন বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। বিএম কনটেইনার স্মার্ট গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।

এতে বলা হয়, অগ্নিকাণ্ডে যেসব কর্মচারী নিহত হয়েছেন তাদের পরিবারে শিশু থাকলে তারা প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত পরিবারকে ওই কর্মচারীর বেতনের সমপরিমাণ অর্থ প্রদান করা হবে। এছাড়া নিহতের পরিবারে উপার্জনক্ষম কোনো সদস্য থাকলে তাদের চাকরির ব্যবস্থা করা হবে।পাশাপাশি ঘটনা তদন্তে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এদিকে ডিপোতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ও আগুনে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৯ জনে দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. ইলিয়াছ চৌধুরী। তবে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান জানিয়েছেন, এ দুর্ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪৫ জন নিহত ও ১৬৩ জন আহত হয়েছেন।

শনিবার (৪ জুন) রাত ৯টার দিকে সীতাকুণ্ডের সোনাইছড়ি এলাকায় বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুন লাগে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করার সময় রাসায়নিক থাকা একটি কনটেইনারে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে চার শতাধিক মানুষ আহত হন। তাদের মধ্যে ডিপোর শ্রমিক, স্থানীয় বাসিন্দাদের পাশাপাশি পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরাও রয়েছেন।

রাতেই আহতদের অধিকাংশকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এছাড়া চট্টগ্রামের অন্যান্য হাসপাতালেও অনেককে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়। নিহতদের মধ্যে ফায়ার সার্ভিসের ৯ কর্মীও রয়েছেন। এছাড়া রোববার (৫ জুন) সকালেও বিস্ফোরণস্থল থেকে কয়েকজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

রোববার রাত ৯টা পর্যন্ত চমেক হাসপাতালের সর্বশেষ তথ্যমতে, এ অগ্নিকাণ্ডে আহতদের মধ্যে মুমূর্ষু ১৬৩ জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (চমেক), চট্টগ্রাম সিএমএইচ ও অন্যান্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে মুমূর্ষু ১৪ জনকে ভর্তি করা হয়েছে।

এ দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৯ জনে। তাদের মধ্যে ২১ জনের পরিচয় শনাক্ত করা হয়েছে। এই ২১ জনের মধ্যে ৬ জনের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এছাড়া নিহতদের মধ্যে ৯ জন ফায়ার সার্ভিস কর্মী রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৮ জনের পরিচয় শনাক্ত করা হয়েছে।


আরও খবর