আজঃ বুধবার ২৫ মে ২০২২
শিরোনাম

খুলনায় দুই লাখ ৩৬ হাজার লিটার তেল জব্দ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

খুলনার তিনটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে দুই লাখ ৩৬ হাজার ৬৪০ লিটার ভোজ্যতেল মজুত রাখার অভিযোগে জরিমানা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১২ মে) খুলনার বড় বাজারে র‍্যাব ও জেলা প্রশাসন অভিযান চালিয়ে তাদের জরিমানা করে। অভিযানের নেতৃত্ব দেন খুলনা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ বসাক।

তিনি জানান, জব্দকৃত তেলের মধ্যে সয়াবিন ৭৩ হাজার ৩২ লিটার এবং এক লাখ ৬৩ হাজার ৬০৮ লিটার পাম তেল। তিন ব্যবসায়ীকে মোট এক লাখ ৬০ হাজার টাকা জ‌রিমানা করা হয়েছে। সকাল সোয়া ১০টা থে‌কে অ‌ভিযান চলে দুপুর সোয়া ১২টা পর্যন্ত চলে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, গোপন খবরের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার বড় বাজারের তিনটি প্রতিষ্ঠানের ৬টি গোডাউনে অভিযান চালানো হয়। এ সময় সোনালী এন্টারপ্রাইজের ৩টি গোডাউনে ১৪৪ ব্যারেল সয়াবিন ও ১৭১ ব্যারেল সুপার পামওয়েল, সাহা ট্রেডার্সে ১৬৭ ব্যারেল সয়াবিন ও ৩৩৯ ব্যারেল সুপার পামওয়েল এবং রণজিৎ অ্যান্ড সন্স নামক প্রতিষ্ঠানে ৩০৪ ব্যারেল তেল পাওয়া যায়। এ অভিযোগে সোনালী এন্টারপ্রাইজের মালিক প্রদীপ সাহাকে ৩০ হাজার টাকা, সাহা ট্রেডার্সের মালিক দিলীপ কুমার সাহাকে ৯০ হাজার টাকা এবং রণজিৎ অ্যান্ড সন্স নামক প্রতিষ্ঠানকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।


আরও খবর



সিরাজগঞ্জে বাড়ছে যমুনার পানি, ভয়াবহ বন্যার আশঙ্কা

প্রকাশিত:শনিবার ২১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ২৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সিরাজগঞ্জে বেড়েই চলেছে যমুনা নদীর পানি। এতে ভয়াবহ বন্যার আশঙ্কা করছেন শহরবাসী। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে আজ শনিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ১২ ঘণ্টায় যমুনা নদীর পানি সিরাজগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধ এলাকায় ২৪ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়েছে। পানি বৃদ্ধির কারণে প্রতিদিন নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। এতে বন্যার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের পানি পরিমাপক হাসানুর রহমান বলেছেন, সিরাজগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধ এলাকায় পানির বিপৎসীমা ধরা হয় ১৩ দশমিক ৩৫ সেন্টিমিটার। আজ শনিবার সকাল ৬টায় পানি রেকর্ড করা হয় ১২ দশমিক ১৬ সেন্টিমিটার। গত ১২ ঘণ্টায় ২৪ সেন্টিমিটার পানি বেড়ে বিপৎসীমার ১ দশমিক ১৯ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

যমুনা নদীর সিরাজগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধ এলাকায় গত বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় পানি রেকর্ড করা হয়েছে ১১ দশমিক ৩৪ সেন্টিমিটার, গতকাল শুক্রবার বিকেল ৩টায় পানি রেকর্ড করা হয়েছে ১১ দশমিক ৮৮ সেন্টিমিটার, আজ শনিবার সকাল ৬টায় পানি রেকর্ড করা হয়েছে ১২ দশমিক ১৬ সেন্টিমিটার, যা বিপৎসীমার ১ দশমিক ১৯ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এদিকে, পানি বৃদ্ধির কারণে প্রতিদিন সিরাজগঞ্জের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে। তীব্র স্রোতের কারণে নদী-তীরবর্তী অঞ্চল কাজীপুর, সদর, বেলকুচি, শাহজাদপুর ও চৌহালীতে নদীভাঙন দেখা দিয়েছে। ভাঙনে ঘরবাড়ি, ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে জেলার কাজীপুর ও এনায়েতপুরে ভাঙনের তীব্রতা বেশি। এতে করে বন্যার আশঙ্কা করছে শহরবাসী। ভাঙন রোধে পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে বালুর বস্তা ফেলা হচ্ছে।

সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম বলেন, যমুনা নদীতে পানি বাড়ার কারণে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে।  কিছু স্থানে নদী ভাঙন রয়েছে। তবে ভাঙন রোধে বালুর বস্তা ফেলা হচ্ছে।


আরও খবর



সঠিক উপায়ে ইনডোর প্লান্টের যত্ন নিন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৪ মে ২০২২ | ১৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শহুরে জীবনে একটু সবুজের ছোঁয়া পেতে ঘরের কোণে অনেকেই ইনডোর প্লান্ট লাগান। জায়গার স্বল্পতায় শহরের সবুজপ্রেমীরা বাগান করার স্বাদ ইনডোর প্লান্টের মাধ্যমেই মিটিয়ে থাকেন। এতে ঘরের ভেতর বা বেলকনিই একমাত্র জাগয়া হিসেবে ব্যবহার করা হয়। বর্তমানে আমাদের দেশে বিভিন্ন ধরনের ইনডোর প্লান্ট পাওয়া যায়। তাই ঘর সাজাতে ইনডোর প্লান্টের চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু সঠিক যত্নের অভাবে সেগুলো বেড়ে উঠতে পারছে না।

ইনডোর প্লান্ট ভালো রাখার জন্য সঠিক পরিচর্যা প্রয়োজন। যেহেতু ইনডোর প্লান্ট ঘরের ভেতরে থাকে, তাই বাগানে বেড়ে ওঠা গাছের পরিচর্যার মধ্যে অনেক পার্থক্য রয়েছে। এসব বিষয় জানা থাকলে আপনার ঘর বা বেলকনিই হয়ে উঠতে পারে এক টুকরো সবুজ বাগান। যা আপনার মনে আনন্দ এনে দেবে। ইনডোর প্লান্ট ভালো রাখতে প্রথমে পানি দেওয়ার ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে। নিয়ম মেনে গাছে নির্দিষ্ট পরিমাণে পানি দিতে হবে। বেশি পানি গাছের ক্ষতি করে। খেয়াল রাখতে হবে, অনেক সময় ধরে গাছের গোড়ায় যেন পানি জমে না থাকে। এতে গোড়ায় পচন ধরতে পারে। প্রতিদিন পানি না দিলেও চলবে। বিশেষ করে বর্ষাকালে পানি দেওয়ার ক্ষেত্রে অনেক সতর্ক থাকতে হবে।

প্লান্টের টবের মাটি দেখে বুঝতে হবে গাছে পানির আদৌ প্রয়োজন আছে কিনা। গাছে পানি দেওয়ার আগে হাত দিয়ে মাটি চেপে চেপে দেখুন। ভেজা ভাব থাকলে পানি দেওয়ার দরকার নেই। আরও একটি সহজ উপায় আছে, একটা লম্বা সুচ টবের মাটিতে ঢুকিয়ে তুলে আনুন। যদি সুচের গায়ে ভেজা মাটি লেগে থাকে তাহলে বুঝবেন আর পানি দেওয়ার দরকার নেই। ইনডোর প্লান্টে পানি দেওয়ার সঠিক সময় সকাল ও বিকেল বেলা। এই সময় রোদের তেজ কম থাকে। গ্রীষ্মকালে গাছে বেশি পানি দিতে হয়। তবে পানি খুবই ধীর গতিতে দিতে হবে। সবসময় খেয়াল রাখতে হবে টবের মাটি যেন কখোনোই শুকিয়ে না যায়।

ঘরের যেখানে পর্যাপ্ত আলো-বাতাস রয়েছে, তেমন জায়গায় গাছ রাখুন। খুব অন্ধকার ঘর কিংবা যেখানে বেশি রোদ আসে, তেমন জায়গায় না রাখাই ভালো। গাছের নতুন চারা অবশ্যই বারান্দায় বা যেখানে আলো-বাতাস আসে, সেখানে রাখুন। এতে চারা ঠিকমতো বাড়বে। গাছে ফাঙ্গাসও হবে না। যেখানে এসি চলে এমন ঘরে গাছ না রাখাই ভালো। এতে সহজে গাছের পাতা ঝরে পড়ে। গাছ অতিরিক্ত রোদ পেলে অনেক সময় পাতার সামনের অংশ শুকিয়ে কুঁকড়ে যায়।

এছাড়া গাছের ফুল বা পাতার রং হালকা হয়ে যেতে পারে। এ রকম হলে গাছ সরাসরি রোদে না রেখে অপেক্ষাকৃত ঠান্ডা জায়গায় সরিয়ে রাখুন। অনেক সময় বেশি সার দেওয়ার ফলে গাছের চারা খুব তাড়াতাড়ি বাড়লেও কাণ্ড হলুদ হয়ে যায়। হঠাৎ করে গাছ নেতিয়ে পড়ে। এ রকম ক্ষেত্রে দিনে কয়েকবার গাছের গোড়ায় পানি দিন। সার ধুয়ে বেরিয়ে গেলে সমস্যা ঠিক হয়ে যাবে। ঝরে পড়া ফুল, শুকনো পাতা টবের মধ্যে যেন জমে না থাকে। টব সব সময় পরিষ্কার রাখুন। এতে গাছ ভালো থাকবে। গাছের পাতায় ধুলো বা ঝুল জমলে শুকনো সুতির নরম কাপড় বা স্পঞ্জ দিয়ে হালকা হাতে পাতাগুলো মুছে দিন। গাছে ছোটছোট অনেক পাতা থাকলে স্প্রে বোতলে পানি দিয়ে পরিষ্কার করে দিতে হবে। এসব নিয়ম মেনে চললে ইনডোর প্লান্ট অনেক দিন ভালো থাকবে।

নিউজ ট্যাগ: ইনডোর প্লান্ট

আরও খবর



জাতিসংঘ মহাসচিব-পুতিনের মধ্যে সাক্ষাৎ আজ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে আজ মঙ্গলবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করবেন জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। ২৬ এপ্রিল দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভের সঙ্গেও বৈঠক ও মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেবেন তিনি।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, এই সাক্ষাৎ থেকে কিছু প্রত্যাশা করার সম্ভাবনা কম। কারণ, এখন পর্যন্ত অনেকগুলো কূটনেতিক প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। 

খবরে আরও বলা হয়েছে,পুতিন-গুতেরেসের আলোচনার মূল ফোকাস থাকবে অবরুদ্ধ শহর মারিউপোল। রাশিয়া এই শহরটি বিজয়ের দাবি করেছে। যদিও তারা এখনো শহরটিতে অবস্থিত আজভস্তাল ইস্পাত কারখানার নিয়ন্ত্রণ নিতে পারেনি।

এই কারখানায় কয়েকশ বেসামরিক নাগরিকের সঙ্গে বেশ সংখ্যক ইউক্রেনীয় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য আশ্রয় নিয়েছে।

জাতিসংঘের কাছে ইউক্রেন আজভস্তাল কারখানা থেকে বেসামরিক নাগরিকদের সরিয়ে নিতে মানবিক করিডোর খেলার নিশ্চয়তা (গ্যারান্টি) চেয়েছে। 

এছাড়া জাতিসংঘ মহাসচিব আগামী বৃহস্পতিবার কিয়েভ সফর করবেন বলেও ধারণা করা হচ্ছে। সেখানে তিনি প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। 

রাশিয়া এবং ইউক্রেন উভয় দেশই জাতিসংঘের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। 

প্রসঙ্গত, ২১ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় ডোনেটস্ক ও লুহানস্ক অঞ্চলকে আলাদা স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া। প্রায় দুই মাস ধরে চলা অভিযানে ইউক্রেনের বেশ কয়েকটি নগরী দখলে নিয়েছে রুশ বাহিনী। 

এদিকে, ইউক্রেন নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টা করছে।  


আরও খবর



আজ আত্মসমর্পণ করবেন হাজী সেলিম

প্রকাশিত:রবিবার ২২ মে 20২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২২ মে 20২২ | ২৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দুর্নীতির মামলায় ১০ বছরের দণ্ডপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য হাজি সেলিম আজ রোববার (২২ মে) আদালতে আত্মসমর্পণ করতে পারেন। এ তথ্য জানিয়েছেন হাজি সেলিমের আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা। তিনি বলেন, যদি রোববার সংশ্লিষ্ট আদালত বসে খুব সম্ভবত তিনি আজ আদালতে আত্মসমর্পণ করবেন।

এর আগে, গত ২ মে দণ্ড মাথায় নিয়ে পুরান ঢাকার এই সংসদ সদস্য থাইল্যান্ড গেলে তা আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দেয়। পরে ৫ মে দুপুরে দেশে ফিরে আসেন হাজি সেলিম। জানান, শিগগিরই আদালতে আত্মসমর্পণ করবেন তিনি। তার আগামী ২৫ মের মধ্যে নিম্ন আদালতে (ঢাকার বিশেষ জজ আদালত) আত্মসমর্পণ করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা বলেন, গত ৫ মে বিমানবন্দর থেকে সরাসরি উনি (হাজী সেলিম) আমার চেম্বারে এসেছিলেন। তিনি এখনই আত্মসমর্পণ করতে চান। কিন্তু ১৫ মে পর্যন্ত আদালত বন্ধ। তা ছাড়া হাইকোর্ট উনাকে ৩০ দিনের মধ্যে আত্মসমর্পণ করার নির্দেশ দিয়েছেন। আত্মসমর্পণ করে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আপিলও করা হবে। সে প্রস্তুতি চলছে।

প্রসঙ্গত, জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের দায়ে হাজি সেলিমের ১০ বছর সাজা বহাল রেখে হাইকোর্টের দেওয়া পূর্ণাঙ্গ গত ১০ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত হয়। রায়ের অনুলিপি পাওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে হাজি সেলিমকে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৭ এ আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

এ মামলায় এক যুগ আগে বিচারিক আদালতের রায়ে হাজি সেলিমের ১৩ বছরের কারাদণ্ড হয়েছিল। সাজার রায়ের বিরুদ্ধে হাজি সেলিম হাইকোর্টে আপিল করেন। এই আপিলের শুনানি নিয়ে গত বছরের ৯ মার্চ বিচারপতি মো. মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ রায় ঘোষণা করেন।

নিউজ ট্যাগ: হাজী সেলিম

আরও খবর



২ রানে ম্যাচ জিতে প্লে অফে লক্ষ্মৌ, বাদ কলকাতা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৩৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ডি কক ও লোকেশ রাহুলের কাছে পাত্তাই পাননি কলকাতা নাইট রাইডার্সের বোলাররা। ২০ ওভারে ফেলতে পারেননি একটি উইকেটও। কিন্তু রোমাঞ্চ যে অপেক্ষায় তখনও।

কলকাতার ব্যাটারদের দৃঢ়তায় ম্যাচটা প্রায় নিজেদেরই করে ফেলেছিল তারা। শেষ দুই বলে দরকার ছিল কেবল ৩ রান। কিন্তু সেটা করতে পারেনি কলকাতা। বুধবার রাতে ডিওয়াই প্যাটেল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে তাদের ২ রানে হারিয়েছে লক্ষ্মৌ। 

এই ম্যাচের পর ১৪ ম্যাচ শেষে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে উঠে গেছে লোকেশ রাহুলের দল। অন্যদিকে সমান ম্যাচ খেলে ১২ পয়েন্ট নিয়ে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে গেছে কলকাতা।

টস জিতে ব্যাট করতে নামা লক্ষ্মৌর হয়ে পুরো ইনিংসেই ব্যাট করেন দুই ওপেনার। এর মধ্যে সমান ১০টি করে চার ও ছক্কায় ৭০ বল খেলে ১৪০ রান করেন ডি কক। ৩ চার ও ৪ ছক্কায় ৫১ বলে ৬৮ রান আসে রাহুলের ব্যাট থেকেও। কলকাতার সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ২১১ রানের।

এই লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুতেই অবশ্য ধাক্কা খায় কলকাতা। ইনিংসের চতুর্থ বলে কোনো রান না করেই সাজঘরে ফেরেন ভেঙ্কাটেশ আয়ার। আরেক ওপেনার অভিজিৎ তুমারও ৮ বলে ৪ রানের বেশি করতে পারেননি। 

এরপর নিতিশ রানাকে সঙ্গে নিয়ে ৫৬ রানের জুটি গড়েন অধিনায়ক শ্রেয়াস আয়ার। ২২ বলে ৪২ রান করে কৃষ্ণাপ্পা গৌতমের বলে নিতিশ আউট হলে এই জুটি ভেঙে যায়। ২৯ বলে ৫০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে আউট হয়ে যান অধিনায়ক আয়ারও।

এই দুজনের বিদায়ের পর কিছুটা বিপদে পড়ে কলকাতা। দলটির বড় ভরসা আন্দ্রে রাসেল ১১ বলে ৫ রান করে আউট হন। তবে কলকাতাকে আবার খেলায় ফেরান রিঙ্কু সিং। ২ চার ও ৪ ছক্কায় ১৫ বলে ৪০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে শেষ ওভারের পঞ্চম বলে আউট হন তিনি।

আরেক প্রান্তে ৭ বলে ২১ রান করা সুনীল নারিনও স্ট্রাইকে থাকতে পারেননি। শেষ বলে ৩ রান নেওয়ার দায়িত্ব তাই পান উমেশ ইয়াদব। কিন্তু স্টয়নিসের বলে এই রান নিয়ে দলকে জেতাতে পারেননি তিনি, উল্টো হয়ে যান বোল্ড। এবারের আইপিএল থেকেই বিদায় নিশ্চিত হয় কলকাতার।


আরও খবর