আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

খারকিভে রুশ হামলায় নিহত ২৫

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | ২৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভের বিভিন্ন এলাকায় গোলাবর্ষণ অব্যাহত রেখেছে রুশ বাহিনী। মঙ্গল ও বুধবারের হামলায় অন্তত ২৫ জন নিহত এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন খারকিভের গভর্নর ওলেহ সিনহুবভ। খবর আল-জাজিরার।

তিনি বলেন, ইউক্রেনের বেসামরিক লোকদের ওপর গোলাবর্ষণ অব্যাহত রেখেছে রাশিয়া। এটি প্রমাণ করে যে আমরা চেরনিহিভ বা কিয়েভের মতো একই পরিস্থিতি আশা করতে পারি না।

ইউক্রেনের রাষ্ট্রপতির উপদেষ্টা ওলেক্সি আরেস্তোভিচ একটি ভিডিও ভাষণে বলেন, জনসাধারণকে আতঙ্কিত করতে এবং ইউক্রেনকে সেনা সরিয়ে নিতে বাধ্য করতে খারকিভে আঘাত করছে রুশ বাহিনী।


আরও খবর



কুমিল্লা সিটি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | ৩৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের (কুসিক) ভোটগ্রহণ আজ বুধবার সকাল ৮টায় শুরু হয়েছে। বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)।

বহুলপ্রত্যাশিত এ ভোট কাজী হাবিবুল আউয়ালের নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) প্রথম পরীক্ষা। কুমিল্লা সিটির ভোটকে কেন্দ্র করে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে ইসি। বেশ কঠোর মনোভাব পোষণ করতেও দেখা গেছে ইসিকে। এটিকে ইসির সক্ষমতা ও গ্রহণযোগ্যতা প্রমাণের বড় সুযোগ বলে মনে করছেন নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা। ফলে, ইসির জন্য এ নির্বাচন একটি চ্যালেঞ্জ।

যদিও স্থানীয় সংসদ সসদ্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারকে নির্বাচনি এলাকা ছাড়তে বলার পরও তিনি এলাকা ছাড়েননি। বাহারের এলাকা ছাড়া নিয়ে অসহায়ত্ব প্রকাশ করতে দেখা গেছে ইসিকে। বাহার ইস্যুকে কেন্দ্র করে কেউ কেউ বলার চেষ্টা করছেন, বাহারই ইসির প্রথম ধাক্কা।

কুমিল্লা সিটি ভোটকে ঘিরে রাজনৈতিক অঙ্গন উত্তপ্ত। চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা ও ভোট সুষ্ঠু করতে ইসিও তৎপর। এদিকে, কুমিল্লার ভোটে সাধারণ ছুটি ঘোষণা না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন প্রার্থীরা।

কুমিল্লা সিটির ভোট নিয়ে প্রধান দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ-বিএনপির ভোটারেরা দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েছেন। এ পরিস্থিতিতে সদ্য সাবেক মেয়র বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত মনিরুল ইসলাম সাক্কুর হ্যাটট্রিক বিজয় না কি প্রথম বার জয়ের মুকুট আওয়ামী লীগের প্রার্থী আরফানুল হক রিফাতের নিশ্চিত হবে, তা দেখার জন্য অপেক্ষা করতে হবে আজ রাতে ভোটের ফলাফল পাওয়া পর্যন্ত।

কুমিল্লা সিটির ভোটের সঙ্গে আজ পাঁচটি পৌরসভা, চারটি উপজেলা পরিষদ এবং দেড়শতাধিক ইউনিয়ন পরিষদের ভোটও অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ইসির জনসংযোগ পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান।

এবারের কুমিল্লায় চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার নির্বাচনকে ঘিরে কেন্দ্র দখল কিংবা পেশি শক্তির ব্যবহারসহ কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা বা সহিংসতা যাতে ঘটতে না পারে, সেজন্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চার সহস্রাধিক সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। পুরো সিটিকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হয়েছে।

১৪৪০ সিসি ক্যামেরা

ইসি সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে (কুসিক), পাঁচটি (গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর ও গোপালগঞ্জ, রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি, সিলেটের বিয়ানীবাজার এবং মেহেরপুর পৌরসভা) পৌরসভা এবং ১৩২টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে কুসিক ও পাঁচ পৌরসভার ভোটকেন্দ্রে ও ভোটকক্ষের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণের জন্য এক হাজার ৪৪০টি সিসি ক্যামেরা ব্যবহার করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ইসি জানিয়েছে, কুমিল্লা সিটি, পাঁচটি পৌরসভা এবং ১২৫টি ইউপিতে ইভিএম-এর মাধ্যমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। আর সাতটি ইউপিতে প্রচলিত ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এ ছাড়া একই দিনে বগুড়ার গাবতলী পৌরসভার ৯ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে উপনির্বাচন; একটি উপজেলা পরিষদে সাধারণ এবং তিনটিতে বিভিন্ন শূন্য পদের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

এবার কুমিল্লা নির্বাচনে মেয়র পদে নির্বাচন করছেন পাঁচ জন। মেয়রপ্রার্থীরা হলেনকুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত (নৌকা), টানা দুবারের সদ্য সাবেক মেয়র এবং বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মনিরুল হক সাক্কু (টেবিল ঘড়ি), স্বেচ্ছাসেবক দল থেকে বহিষ্কৃত স্বতন্ত্র প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সার (ঘোড়া), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী রাশেদুল ইসলাম (হাতপাখা) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী কামরুল আহসান বাবুল (হরিণ)। তাঁদের মধ্যে প্রথম তিন প্রার্থী বেশ আলোচিত। এ ছাড়া সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করছেন ১০৮ জন প্রার্থী।

এখন পর্যন্ত কোনো নির্বাচনে হারেননি মনিরুল হক সাকু। হ্যাটট্রিক বিজয়ের প্রত্যাশা করছেন তিনি। ২০০৫ সালের ২১ সেপ্টেম্বর কুমিল্লা পৌরসভার চেয়ারম্যান পদে প্রথম বার নির্বাচনে অংশ নিয়ে জয়ী হন। এরপর ২০১২ সালের ৫ জানুয়ারি এবং ২০১৭ সালের ৩০ মার্চ কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে দ্বিতীয় বারের মতো তিনি মেয়র হিসেবে বিজয়ী হন। এবার তিনি স্বতন্ত্রভাবে সিটি নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হন। সুষ্ঠু ভোট হলে এবারও জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী মনিরুল হক সাক্কু।

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত এবারই প্রথমবারের এমন পদে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। ১৯৮১ সালে তিনি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের বহিঃক্রীড়া সম্পাদক পদে ছাত্রলীগ থেকে নির্বাচন করে জয়ী হন। তিনি কুমিল্লা ক্লাবে সাধারণ সম্পাদক ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করে একাধিক বার জয়ী হন। তবে, স্থানীয় সরকার নির্বাচনে এটি তাঁর প্রথম নির্বাচন।

রিফাত বলেন, প্রথমবার নির্বাচন করছি। জনগণ আমার পক্ষে রায় দেবেন। জয়ের ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদী।

তৃতীয় বারের মতো এবার হচ্ছে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ভোট। ২৭টি ওয়ার্ডে বিভক্ত এ সিটির মোট ভোটার সংখ্যা দুই লাখ ২৯ হাজার ৯২০। নারী ভোটার এক লাখ ১৭ হাজার ৯২ এবং পুরুষ ভোটার এক লাখ ১২ হাজার ৮২৬ জন। তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার দুজন। মোট ১০৫টি ভোটকেন্দ্রের ৬৪০টি কক্ষে ভোট হবে। ভোটকেন্দ্রগুলোর মধ্যে ৮৯টি অতিঝুঁকিপূর্ণ, নয়টি ঝুঁকিপূর্ণ ও সাতটি সাধারণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

নগরীর ১০৫টি কেন্দ্রে সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণের জন্য সোমবার থেকে নগরীতে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবিসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ৪ হাজার ২৬০ জন সদস্যকে মোতায়েন রয়েছে। এদের মধ্যে ২২৯টি টিমে পুলিশ সদস্য দুই হাজার ৪৬০ জন, ১২ প্লাটুন বিজিবির ২৪০ জন সদস্য, র‌্যাবের ৩০টি টিমে ২৫০ জন, ১০৫ কেন্দ্রে এক হাজার ২৬০ জন আনসার, এপিবিএন-এর নয়টি গ্রুপে ৫০ সদস্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় দায়িত্ব পালন করবেন বলে পুলিশ সূত্র জানিয়েছে। স্ট্রাইকিং ফোর্স ও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার জন্য ৫০ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে থাকবেন। এ ছাড়া নগরীর প্রবেশপথে থাকবে ৭৫টি চেকপোস্ট। পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের পাশাপাশি মাঠ তদারকিতে নিয়োজিত থাকবেন ছয় জন এডিসি ও ডিডিএলজি। ভোটের দিন কিংবা এর আগে-পরে সন্ত্রাসীরা যাতে কোনো ধরনের সহিংস ঘটনা না ঘটাতে পারে সেজন্য কুমিল্লা আদর্শ সদরের ৯০ জন ও সদর দক্ষিণের ২০ জনসহ ১১০ জন তালিকাভুক্ত চিহ্নিত সন্ত্রাসীকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর নজরদারিতে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে পলিটিক্যাল ক্যাডার, অস্ত্রধারীসহ নানান অপরাধে অভিযুক্তরা এ তালিকায় রয়েছেন।


আরও খবর



অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে শ্রীলংকার সিরিজ জয়

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ জুন 20২২ | ২৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে শ্রীলংকার জয়। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এ নিয়ে টানা তিন ম্যাচে জয় পেল স্বাগতিকরা। হ্যাটট্রিক জয়ে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করল লংকানরা। মঙ্গলবার কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমেই ৩৪ রানে ৩ উইকেট হারায় স্বাগতিক শ্রীলংকা। 

চতুর্থ উইকেটে ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে সঙ্গে নিয়ে ১০০ বলে ১০১ রানের জুটি গড়েন চারিথ আসালঙ্কা। ডি সিলভা দলীয় ১৩৫ রানে ৬১ বলে ৭টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৬০ রান করে ফেরেন।

এরপর একাই লড়াই করে যান আসালঙ্কা। অষ্টম ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফেরার আগে ক্যারিয়ারের ১৫তম ওয়ানডেতে ১০৬ বলে ১০টি চার আর এক ছক্কায় মেইডেন সেঞ্চুরি (১১০) করে ফেরেন তিনি। আসালঙ্কার সেঞ্চুরির সুবাদে ৪৯ ওভারে ২৫৮ রানে অলআউট হয় শ্রীলংকা।

টার্গেট তাড়া করতে নেমে তৃতীয় ওভারে মাত্র ৩ রানেই অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চের উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। এরপর মিচেল মার্শকে সঙ্গে নিয়ে ৬৩ রানের জুটি গড়েন অন্য ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। ২৭ বলে ২৬ রান করে ফেরেন মার্শ।

এরপর উইকেটের এক প্রান্ত আগলে রাখেন ডেভিড ওয়ার্নার। অন্য প্রান্তে আসা-যাওয়ার মিছিলে অংশ নেন মার্নাস লাবুশেন (১৪), অ্যালেক্স ক্যারি (১৯), ট্রাভিস হেড (২৭) ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলরা (১)। 

জয়ের জন্য শেষ দিকে ১৩ ওভারে অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ছিল ৬৭ রান। খেলার এমন অবস্থায় আউট হয়ে ফেরেন ডেভিড ওয়ার্নার। ইনিংসের শুরু থেকে দুর্দান্ত খেলার পরও মাত্র ১ রানের সেঞ্চুরির আক্ষেপ নিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি। ৯৯ রানে ওয়ার্নার আউট হওয়ার পরই ম্যাচ ঝুঁকে যায় শ্রীলংকার দিকে। তবে পেসার প্যাট কামিন্স দলকে জয় উপহার দিতে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যান।

শেষ ১২ বলে অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ছিল ২৫ রান। ৪৯তম ওভারে কামিন্স আউট হলে ম্যাচ থেকে কার্যত ছিটকে যায় অসিরা। শেষ ওভারে ১৯ রানের টার্গেট তাড়ায় ম্যাথিউ কুহনিম্যান লংকান পেসার দাসুন শানাকার করা ওভারের দ্বিতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে খেলা জমিয়ে দেন। শেষ বলে জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ছিল ৫ রান। ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে আউট হন ম্যাথিউ কুহনিম্যান। শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ৫ রানে জয় পায় শ্রীলংকা।


আরও খবর



প্রেমের কথা স্বীকার করলেন সন্দীপ্তা

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | ১১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী সন্দীপ্তা সেন নতুন প্রেমে মজেছেন। এ গুঞ্জন কিছুদিন ধরেই শোনা যাচ্ছিল। অবশেষে তিনি নিজেই স্বীকার করে নিলেন। প্রেমিকের সঙ্গে ছবি শেয়ার করে জানান দিলেন, গল্প হলেও সত্যি। সন্দীপ্তার প্রেমিকের নাম সৌম্য মুখার্জি। তিনি ওটিটি প্ল্যাটফর্ম হইচই-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। কয়েক মাস ধরেই তারা দুজন সম্পর্কে জড়িয়ে আছেন।

প্রেমের কথা স্বীকার করে ভারতীয় গণমাধ্যমকে সন্দীপ্তা বলেন, এক বন্ধুর মিউজিক ভিডিও প্রকাশনা অনুষ্ঠানে গিয়ে সৌম্যর সঙ্গে দেখা হয়। এটি প্রায় বছরখানেক আগের ঘটনা। প্রথমে বন্ধুত্ব, পরে প্রেম। আমি ও সৌম্য গত কয়েক মাস ধরে সম্পর্কে রয়েছি।

আপাতত প্রেমেই ডুবে আছেন সন্দীপ্তা ও সৌম্য। বিয়ে নিয়ে এখনই কিছু ভাবছেন না। সন্দীপ্তা জানালেন, বিয়ের পরিকল্পনা করলে তা সবাইকে জানাবেন।

এর আগে অভিনেতা রাহুল ব্যনার্জির সঙ্গে প্রেম ছিল সন্দীপ্তার। তারা দীর্ঘদিন সম্পর্কে লিপ্ত ছিলেন। একসঙ্গে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে যেতেন। একে-অপরের পারিবারিক আয়োজনেও উপস্থিত থাকতেন। যদিও সম্পর্ক নিয়ে সরাসরি তেমন কিছুই বলতেন না। তবে সেই সম্পর্কের ইতি ঘটেছে অনেক আগেই। রাহুল পর্বের ইতি টেনে সৌম্যের সঙ্গে মনের লেনাদেনা করছেন সন্দীপ্তা। কিছুদিন আগে প্রেমিকের সঙ্গে ফিলিপাইন থেকে ঘুরে এসেছেন অভিনেত্রী।

নিউজ ট্যাগ: সন্দীপ্তা সেন

আরও খবর



হাইকোর্টে দাখিল প্রতিবেদনে ‘সংবিধানে থাকা ৭ মার্চের ভাষণে শতাধিক ভুল’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণে শতাধিক ভুল পেয়েছে হাই কোর্টের নির্দেশে গঠিত উচ্চ পর্যায়ের কমিটি। বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) বিচারপতি মুজিবুর রহমান ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাই কোর্ট বেঞ্চে কমিটির প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ সংবিধানের পঞ্চম তফসিলে অসম্পূর্ণভুলভাবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে ২০২০ সালের ১০ মার্চ উচ্চ পর্যায়ের একটি কমিটি করতে নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট।

১৯৭১ সালের ৭ মার্চ তখনকার রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক সেই ভাষণের সময় সমাবেশে উপস্থিত থেকে যারা ভাষণটি সরাসরি শুনেছেন, তাদের কাউকে অন্তর্ভুক্ত করে কমিটি গঠন করতে বলা হয়। এ সংক্রান্ত এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের হাই কোর্ট বেঞ্চ রুলসহ ওই আদেশ দিয়েছিল।

প্রতিবেদন দাখিলের পর রিটকারীর আইনজীবী আব্দুল আলীম মিঞা জুয়েল বলেন, সংবিধানে জাতির জনকের ৭ মার্চের ভাষণে কমিটি ১১৭টি ভুল পেয়েছে।

স্বাধীনতার প্রাক্কালে ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেওয়া ওই ভাষণ সংবিধান ও পাঠ্যপুস্তকে ভুলভাবে অন্তর্ভুক্ত করার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাই কোর্টে রিট আবেদনটি করেন রাজবাড়ীর কাশেদ আলী। এরপর ভুলগুলো সংশোধনের জন্য ১০ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব বরাবরে একটি আবেদন করেন। কিন্তু তাতে সাড়া না পেয়ে ৫ মার্চ হাই কোর্টে এই রিট করেন।


আরও খবর



দুই সন্তানসহ ৩ সহোদর বোনের আত্মহত্যা

প্রকাশিত:রবিবার ২৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৯ মে ২০২২ | ৫১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতের রাজস্থান রাজ্যে একসঙ্গে যৌতুকের বলি হলেন তিন বোন এবং তাঁদের দুই সন্তান। তাঁরা একসঙ্গে আত্মহত্যা করেছেন। এই ঘটনা রাজ্যজুড়ে তোলপাড় তুলেছে।

শিশু দুটির মধ্যে একটির বয়স ৪ বছর, অপরটির মাত্র ২৭ দিন। আর নিহত তিন বোনের মধ্যে দুজন ছিলেন অন্তঃসত্ত্বা। তিন বোন কালু মীনা (২৫), মমতা (২৩) এবং কমলেশ (২০) দুদু জয়পুর জেলার চাপিয়া গ্রামের একই পরিবারের তিন ভাইকে বিয়ে করেছিলেন।

তাঁদের পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, শ্বশুরবাড়ির লোকজন যৌতুকের জন্য নিয়মিত নির্যাতন করতেন। কথায় কথায় মারধরও করতেন।

তাঁদের চাচাতো বোন হেমরাজ মীনা সাংবাদিকদের বলেন, যৌতুকের জন্য আমার বোনদের নিয়মিত মারধর করা হতো এবং নানাভাবে নির্যাতন করত। গত ২৫ মে তারা নিখোঁজ হয়। আমরা হন্যে হয়ে তাদের খুঁজতে থাকি। স্থানীয় পুলিশ স্টেশন, হেল্পলাইন এবং জাতীয় মহিলা কমিশনে এফআইআর করি। কিন্তু কারও কাছ থেকে তেমন সহযোগিতা পাইনি।

তিন বোনের কেউই কোনো সুইসাইড নোট রেখে যাননি। তবে তাঁদের পরিবারের সদস্যরা কনিষ্ঠ বোন কমলেশের একটি হোয়াটসঅ্যাপ স্ট্যাটাস শেয়ার করেছেন। সেখানে তিনি হিন্দিতে লিখেছেন, আমরা এখন চলে যাচ্ছি, তোমরা খুশি থাকো, আমাদের মৃত্যুর কারণ আমাদের শ্বশুরবাড়ি, প্রতিদিন মরার চেয়ে একবার মরে যাওয়াই ভালো! তাই, আমরা একসঙ্গে মরার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা আশা করি, পরবর্তী জীবনে আমরা তিনজন একসঙ্গে থাকব। আমরা মরতে চাই না। কিন্তু আমাদের শ্বশুরবাড়ির লোকজন আমাদের নির্যাতন করে। আমাদের মৃত্যুর জন্য আমাদের বাবা-মাকে দায়ী করবেন না।

সন্তানসহ তিন বোন নিখোঁজ হওয়ার চার দিন পর আজ শনিবার সকালে দুদু গ্রামের একটি কুয়া থেকে পুলিশ তিন বোন এবং দুই শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করে।

পুলিশ সূত্র জানিয়েছে, নির্যাতিতাদের স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির লোকদের বিরুদ্ধে একটি মামলা করা হয়েছে। যৌতুকের কারণে মৃত্যুর একটি মামলা এখন মূল এফআইআরে যুক্ত করা হবে। তাঁদের মৃত্যুর ঘটনায় তিন স্বামী, শাশুড়ি ও পরিবারের অন্য সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

রাজস্থানের নারী অধিকার কর্মীরা এই মামলার উচ্চ-পর্যায়ের তদন্তের দাবি করেছেন। তাঁরা বলছেন, রাজস্থানের এমন ঘটনা অত্যন্ত লজ্জার। এমন আচরণে এটা স্পষ্ট যে এখানে নারীদের জীবনের কোনো মূল্য নেই। মরদেহ উদ্ধারে চার দিন সময় নেওয়ায় পুলিশের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তাঁরা।


নিউজ ট্যাগ: আত্মহত্যা

আরও খবর