আজঃ শুক্রবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ: ডা. জাফরুল্লাহ

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | ৩৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রর ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী জানিয়েছেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছে, মাঝে মাঝে রক্ত বমি করছেন।

বুধবার (২৪ নভেম্বর) রাজধানীর ধানমন্ডিতে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে নাগরিক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

এর আগে মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) সন্ধ্যায় খালেদা জিয়াকে দেখতে হাসপাতালে যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ বেশ কয়েকজন রাজনৈতিক নেতা।

সংবাদ সম্মেলনে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আমরা মঙ্গলবার বিকেলে খালেদা জিয়াকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলাম। যা দেখেছি সম্প্রতিককালে এমন মর্মান্তিক ঘটনা আমাদের নজরে আসেনি। খালেদা জিয়া কতক্ষণ, কয় মিনিট, কয় দিন বাঁচবেন সেটা আমি বলতে পারব না। তবে এটা বলতে পারি খালেদা জিয়া চরম ক্রান্তিকালে আছেন।

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবস্থা বর্ণনা করতে গিয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, তিনি অত্যন্ত ক্রিটিক্যাল অবস্থার মধ্যে আছেন। যে কোনো মুহূর্তে মারা যেতে পারেন। মেডিক্যাল বোর্ডের ৬ চিকিৎসক আমাকে বিস্তারিত বলেছেন। আমি তাদের ফাইলের প্রত্যেকটা লেখা পড়ে দেখেছি। ওনার মুখ দিয়ে রক্তপাত হচ্ছে। পায়খানার রাস্তা দিয়ে রক্তপাত হচ্ছে। ব্লাড প্রেসার একশোর নিচে নেমে এসেছে। আমি সেখানে দেখেছি খালেদা জিয়াকে রক্ত দেওয়া হচ্ছে। আমি ফাইলের প্রত্যেকটা লাইন দেখেছি, কারো মুখের কথায় কিছু বলছি না। সম্ভব হলে আজ (২৪ নভেম্বর) রাতেই ওনাকে বিদেশে ফ্লাই করা উচিত। আর না হলে যে কোনো কিছু ঘটে যেতে পারে।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টুর পরিচালনায় এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণসংতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের সদস্য অ্যাডভোকেট হাসনাত কাইয়ুম, নাগরিক ঐক্যের সমন্বয়ক শহিদুল্লাহ কায়সার প্রমুখ।


আরও খবর
আরও ১০৮ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি

বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1

করোনায় মৃত্যু ৩, শনাক্ত ২৬১ জন

বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1




নাটক সম্প্রচার নীতিমালা কেন করা হবে না জানতে চেয়ে রুল

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ২৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
গত কোরবানির ঈদের বিশেষ নাটক ‘ঘটনা সত্য’র বিরুদ্ধে বিশেষ শিশুদের বাবা-মায়ের ‘পাপ কর্মের ফল’ বলে বার্তা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। যা একেবারে নৈতিকতা বিরোধী বলে দাবি করা হচ্ছে

নাটক সম্প্রচার নীতিমালা কেন করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। টিভি এবং ইউটিউবসহ সামাজিক মাধ্যমে নাটক, শর্ট ফিল্ম এবং ওয়েব সিরিজ প্রচারে কেন একটি সেন্সর বোর্ড গঠন করা হবে না তা নিয়েও রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সচিব, বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান, ঘটনা সত্যর প্রযোজক এবং পরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

এ সংক্রান্ত এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে রোববার (২৮ নভেম্বর) বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

রিট আবেদনের পক্ষে আজ শুনানি করেন আইনজীবী নুসরাত জাহান, মো. তারিকুল ইসলাম তারেক ও মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন মনির। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার। রিট আবেদনকারী আইনজীবী তারিকুল ইসলাম তারেক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত কোরবানির ঈদের বিশেষ নাটক ঘটনা সত্যর বিরুদ্ধে বিশেষ শিশুদের বাবা-মায়ের পাপ কর্মের ফল বলে বার্তা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। যা একেবারে নৈতিকতা বিরোধী বলে দাবি করা হচ্ছে। এটা নাকের নীতিমালায় পড়ে না দাবি করে করা এক রিটের প্রেক্ষিতে এ রায় দেন আদালত।

এর আগে গত ৪ নভেম্বর পিএফডিএ-ভোকেশনাল ট্রেইনিং সেন্টার ট্রাস্টের চেয়ারম্যান এ রিট করেন।

আদেশের বিষয়ে রোববার (২৮ নভেম্বর) মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন মনির সাংবাদিকদের বলেন, সম্প্রচার নীতিমালা-২০১৪ এর ৬ষ্ঠ অধ্যায় অনুযায়ী একটি সম্প্রচার কমিশন গঠন করার কথা। কিন্তু এ কমিশনটি এখন পর্যন্ত গঠন হয়নি। আপনারা অবগত আছেন কোরবানির ঈদের সময় একটি নাটক প্রচারিত হয়েছিলো, ঘটনা সত্য নামে । ওই নাটকে একটি সংলাপ এসেছে। এটা মৌলিক মানবাধিকারের লংঘন। এটা ‍খুবই আপত্তিকর (প্রতিবন্ধী শিশুদের নিয়ে)। এ কারণে জনস্বার্থে এ রিট করা হয়েছে। আমরা চেয়েছি যাতে সম্প্রচার কমিশন করা হয়। আদালত রুল জারি করেছেন।

রুলে টিভি এবং ইউটিউবসহ সামাজিক মাধ্যমে নাটক, শর্ট ফিল্ম এবং ওয়েব সিরিজ প্রচারে কেন একটি সেন্সর বোর্ড/রেগুলেটরি কমিশন/কন্ট্রোলটিং বডি বা অথরিটি বা বোর্ড গঠন করার নির্দেশ দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

নিউজ ট্যাগ: হাইকোর্ট

আরও খবর



ইসি গঠনে আইন আসছে দুই অধিবেশনের মধ্যে: আইনমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৩০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‌শিগগির নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন আনা হচ্ছে। এক্ষেত্রে জাতীয় সংসদের আগামী দুটি অধিবেশনের মধ্যেই এটাকে বিল আকারে আনা হবে। তবে এবারের কমিশন এই আইনের অধীনে হবে না।

আজ রবিবার (২৮ নভেম্বর) জাতীয় সংসদে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের বিচারক (পারিতোষিক ও বিশেষাধিকার) বিল ২০২১ বাছাই কমিটিতে পাঠানোর প্রস্তাবের ওপর বক্তব্য দিতে গিয়ে এ তথ্য জানান তিনি।

এর আগে, বিলটি বাছাই কমিটিতে পাঠানোর প্রস্তাবের ওপর বক্তব্য দিতে গিয়ে বিএনপির হারুনুর রশিদ ও জাতীয় পার্টির মুজিবুল হক চুন্নু নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়নের কথা বলেন। চুন্নু এই আইনটির পাশাপাশি উচ্চ আদালতে বিচারপতি নিয়োগেও আইন করার দাবি করেন।

জবাবে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানান, বিচারক নিয়োগ আইন এবং নির্বাচন কমিশন গঠন দুটি আইনেরই খসড়া করা হচ্ছে।

সম্প্রতি সুশাসনের জন্য নাগরিক, সুজনের প্রতিনিধিদের সাক্ষাতের প্রসঙ্গ টেনে আইনমন্ত্রী বলেন, তারা একটা আইনের ড্রাফট (নির্বাচন কমিশন গঠনে) করেছে, সেটা দিতে এসেছিলেন। তারা বলছিলেন এটাতে সবই আছে। এটা অধ্যাদেশ আকারে করে দিলেও তো হয়ে যায়। তখন আমি পরিষ্কার বলেছি, নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের এই আইন সংসদে আলোচিত না হওয়া পর্যন্ত আইনটি করা ঠিক হবে না। এতে আমি বোধ হয় সংসদ সদস্যদের সম্মান কমাইনি, বাড়িয়েছি। আমি মনে করি, এটা সংসদে আলোচিত হওয়া উচিত।


আরও খবর
দেশবাসীকে শপথ পড়াবেন প্রধানমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1

এএসপি হলেন ২২ পুলিশ কর্মকর্তা

বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1




রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইলে খালেদা বিদেশ যেতে পারেন: হানিফ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৫৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেছেন, খালেদা জিয়া একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি। সেই হিসেবে তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইতে পারেন। রাষ্ট্রপতি তাকে ক্ষমা করে দিলেই তো তিনি বিদেশে যেতে পারেন।

তিনি বলেন, বিএনপি নিজেই এ নিয়ে রাজনীতি ও স্ট্যান্ডবাজি করছে। খালেদা জিয়ার সুস্থতার চয়ে তাদের কাছে রাজনীতি বড়। সে জন্য খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় বাধা বিএনপিই।

শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে বিশ্ব সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ ও হলি আর্টিজান- মুম্বাই হামলা শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ফোরাম (বোয়াফ) এ সভার আয়োজন করে।

মাহবুবউল আলম হানিফ বলেন, ১৯৭৫ সালে জাতির পিতাকে হত্যার মধ্য দিয়েই দেশে জঙ্গিবাদের উত্থান হয়েছিল। আমরা অসাম্প্রদায়িক চেতনা নিয়েই মুক্তিযুদ্ধ করেছিলাম। মহান স্বাধীনতার ওপর আঘাত মুক্তিযুদ্ধের পরেই আনা হয়। পঁচাত্তরে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়েই এর চূড়ান্ত রূপ পাই। পরবর্তীতে যারা ক্ষমতায় আসে, সেই অপশক্তিকেই তারা মাথাচাড়া দিয়ে ওঠার সাহস দিয়েছিল। জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে পাকিস্তানের দোসরদের গাড়িতে তারা বাংলাদেশের পতাকা তুলে দিয়েছিল।

তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ শুধু বাংলাদেশেই নয়, এটা বিশ্বব্যাপী। বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের ধারাবাহিকতা আমরা দেখেছি, হলি আর্টিজান হামলার মধ্য দিয়ে। ধর্মীয় উগ্রবাদ থেকেই তারা এটা ঘটিয়েছিল।’

আওয়ামী লীগের এ সিনিয়র নেতা বলেন, খালেদা জিয়া ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় হাওয়া ভবনে বসে রাষ্ট্রের ওপর জঙ্গি হামলার পরিকল্পনা করেছিল। গ্রেনেড হামলা চালিয়ে তারা ২৪ জনকে হত্যা করেছিল। ২০০৫ সালে ১৭ আগস্টে সিরিজ বোমা হামলা আমরা দেখেছি। সারাদেশে হামলা চালিয়ে দেশে জঙ্গিদের একটা শক্ত অবস্থান তারা জানান দিয়েছিল। আমরা দেখেছি, বাংলা ভাই প্রকাশ্যে তার এলাকায় মিছিল করেছিল। বিএনপি জোটের মদদেই এটা ঘটেছিল।’

বোয়াফ সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্মযয়ের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অংশ নেন পরিষদের সাবেক সদস্য অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সদস্য মুহাম্মদ শফিকুর রহমান এমপি, স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র রচয়িতা ও স্বাধীন বাংলাদেশের অন্যতম সংবিধান প্রণেতা ব্যারিস্টার আমির-উল ইসলাম, আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, রাজনীতি ও নিরাপত্তা বিশ্লেষক বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অব) মোহাম্মদ আলী সিকদার, নিরাপত্তা বিশ্লেষক ও ইনস্টিটিউট অব কনফ্লিক্ট, সিনিয়র সাংবাদিক ও সাবেক সভাপতি বিএফইউজের সাবেক সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল প্রমুখ।


আরও খবর



গাজীপুর সিটির মেয়র কিরন

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৩৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র হলেন আসাদুর রহমান কিরন। রোববার (২৮ নভেম্বর) বেলা ১১টার দিকে নগর ভবনে এসে দায়িত্ব গ্রহণ করেন তিনি।

ভারপ্রাপ্ত মেয়র কিরন বলেন, এখন সিটি করপোরেশনে শৃঙ্খলা ফেরানো আমার প্রথম কাজ। কাউন্সিলরদের সঙ্গে পরামর্শ করে নগর উন্নয়ন এবং চলমান কাজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবো।

এর আগে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম জানান, আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলমকে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

তিনি বলেছেন, জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে অনেকগুলো অভিযোগ দাখিল হয়েছে। সেগুলো সুষ্ঠু তদন্তের জন্য আমলে নেওয়া হয়েছে। আইনের ধারা অনুযায়ী সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীরকে গত ১৯ নভেম্বর দল থেকে বহিষ্কার করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

জাহাঙ্গীর ছিলেন গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।


আরও খবর



মৎস্য ও প্রাণিসম্পদের সংসদীয় কমিটিতে প্রাণ গোপাল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১ | ৬১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য হলেন কুমিল্লা-৭ আসন থেকে নবনির্বাচিত এমপি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক প্রাণ গোপাল দত্ত।

মঙ্গলবার সংসদে সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে প্রধান হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী পাঁচটি এবং স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী একটি কমিটি পুনর্গঠনের প্রস্তাব তুললে সংসদ তা গ্রহণ করে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটিতে একটি সদস্য পদ ফাঁকা ছিল। সেখানেই স্থান পেলেন প্রাণ গোপাল।

সাবেক ডেপুটি স্পিকার মো. আলী আশরাফের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে সংসদে এসেছেন এ চিকিৎসক।

সিরাজগঞ্জ-৬ থেকে নতুন নির্বাচিত মেরিনা জাহান কবিতার জায়গা হয়েছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে। ওই আসনের সাবেক সংসদ সদস্য হাসিবুর রহমান স্বপনের জায়গায় কবিতা কমিটিতে সদস্য পদ পেলেন।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের স্ত্রী সংরক্ষিত আসনের সদস্য শেরীফা কাদের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সদস্য হয়েছেন। দলটির প্রয়াত সংসদ সদস্য মাসুদা এম রশিদ চৌধুরী ওই কমিটির সদস্য ছিলেন।

বেসরকারি সদস্যদের বিল ও বেসরকারি সদস্যদের সিদ্ধান্ত প্রস্তাব সম্পর্কিত কমিটির একটি পদ সদস্য ফাঁকা ছিল। সেখানে এসেছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু।

১২ সদস্যের কার্যপ্রণালী বিধি সম্পর্কিত কমিটির একটি সদস্য পদ ফাঁকা ছিল। জাতীয় পার্টির আনিসুল ইসলাম মাহমুদ সেখানে সদস্য হয়েছেন।

স্পিকার শিরীন শারমিন পিটিশন কমিটি পুনর্গঠনের প্রস্তাব করেন। ফাঁকা একটি সদস্য পদ থাকায় সেখানে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে আওয়ামী লীগের সুবিদ আলী ভূঁইয়াকে।


আরও খবর
দেশবাসীকে শপথ পড়াবেন প্রধানমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1

এএসপি হলেন ২২ পুলিশ কর্মকর্তা

বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1