আজঃ মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

কেন বিশ্বের ৮০ কোটি মানুষ ক্ষুধা নিয়ে ঘুমান?

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ মে ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বের ৮২ কোটি ৮০ লাখ মানুষ, অর্থাৎ মোট জনসংখ্যার ১০ শতাংশ প্রতি রাতে ক্ষুধার্ত অবস্থায় ঘুমাতে যায়। বর্তমানে এই সংখ্যা আগের বছরের চেয়ে ৪ কোটি ৬০ লাখ বেশি।

ক্ষুধায় আক্রান্তদের মধ্যে দুই-তৃতীয়াংশ নারী এবং ৮০ শতাংশ জলবায়ু পরিবর্তনপ্রবণ এলাকায় বসবাস করেন। বিশ্বব্যাপী ক্ষুধার মাত্রা সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে অলাভজনক সংস্থা দ্য হাঙ্গার প্রজেক্ট ২৮ মে'কে বিশ্ব ক্ষুধা দিবস হিসেবে ঘোষণা করেছে।

আরও পড়ুন: যুক্তরাষ্ট্রে মোটরসাইকেল মিছিলে গুলিতে নিহত ৩

যখন শরীর একটি বর্ধিত সময়ের জন্য খাদ্য থেকে বঞ্চিত হয়, তখন ক্ষুধা লাগে। দীর্ঘসময় ধরে ক্ষুধা স্বাস্থ্য সমস্যার কারণ হতে পারে। ক্ষুধা আজীবন শারীরিক ও মানসিক ক্ষতির কারণ হতে পারে, বিশেষ করে শিশুদের।

২০১৯ থেকে ২০২১ সালের মধ্যে অপুষ্টিতে ভোগা মানুষের সংখ্যা ১৫ কোটিরও বেশি বেড়েছে। মূলত যুদ্ধ-সংঘাত, জলবায়ু পরিবর্তন, অর্থনৈতিক ধাক্কা ও কোভিড-১৯ মহামারির কারণে ক্ষুধার্ত মানুষ আরও বাড়ছে।

আরও পড়ুন: শক্তিশালী ভূমিকম্পে কাঁপল পাকিস্তান

বিশ্বব্যাপী আগের চেয়ে খাবারের দামও বেড়েছে। ২০১৯ থেকে ২০২২ সালের মধ্যে এফএও ফুড প্রাইস ইনডেক্স (এফপিআই)- ৯৫.১ পয়েন্ট থেকে ১৪৩.৭ পয়েন্টে বৃদ্ধি পেয়েছে। এফপিআই মূলত চিনি, মাংস, দুগ্ধ এবং উদ্ভিজ্জ তেলসহ বিশ্বব্যাপী খাদ্য পণ্যগুলোর দামের পরিবর্তন পরিমাপ করে।

জাতিসংঘের ফুড সিকিউরিটি অ্যান্ড নিউট্রিশন ইন দ্য ওয়ার্ল্ডের (এসওএফআই) সর্বশেষ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বের বেশিরভাগ অপুষ্ট জনগোষ্ঠী এশিয়ায় বাস করে। যেখানে ২০২১ সালে প্রায় ৪২৫ মিলিয়ন মানুষ ক্ষুধার্ত। তবে আফ্রিকায় ক্ষুধার প্রকোপ সবচেয়ে বেশি, ২০২১ সালে ২৭ কোটি ৮০ লাখ মানুষ ক্ষুধার প্রকোপে পড়ে।

আরও পড়ুন: পাকিস্তানে তুষারধসে চার বছরের শিশুসহ নিহত ১১

২০২২ সালে রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধ শুরু হয়। এই দুই দেশ খাদ্যশস্য, তেলবীজ ও সারের দুটি বৃহত্তম বৈশ্বিক উৎপাদনকারী। যুদ্ধের ফলে আন্তর্জাতিক সরবরাহ শৃঙ্খলে ব্যাঘাত ঘটে। এর ফলে শস্য, সার ও জ্বালানীর দাম বেড়ে যায়।


আরও খবর



ইসরায়েলের উত্তরাঞ্চলে হিজবুল্লাহর হামলা

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ইসরায়েলের উত্তরাঞ্চলের একটি সামরিক ঘাঁটিতে হামলা চালিয়েছে বলে জানিয়েছে লেবাননভিত্তিক হিজবুল্লাহ সংগঠন। হিজবুল্লাহর এক কমান্ডারকে হত্যার প্রতিশোধ হিসেবেই সশস্ত্র ড্রোন দিয়ে ওই হামলা চালানো হয়েছে। বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে রবিবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের সীমান্তে প্রবেশ করে আকস্মিক হামলা চালায় ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। এরপরই গাজায় অভিযান শুরু করে ইসরায়েল। সেখানে অভিযানের নামে প্রতিদিনই নিরীহ ফিলিস্তিনিদের হত্যা করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত ৩৭ হাজার ৫০০ জনের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। এর মধ্যে অধিকাংশই নারী এবং শিশু।

এদিকে গাজায় যুদ্ধ শুরুর পর থেকেই ইরান সমর্থিত এবং হামাসের মিত্র হিজবুল্লাহর সদস্যদের সঙ্গে প্রতিদিনই ইসরায়েলি সেনাদের সংঘাতের খবর পাওয়া যাচ্ছে।

এর আগে গত শনিবার (২২ জুন) জামা ইসলামিয়া গ্রুপ তাদের কমান্ডার আয়মান গোতমেহের মৃত্যুর খবর ঘোষণা করে। লেবাননের পূর্বাঞ্চলীয় বেকা এলাকার খিয়ারায় অভিযান চালিয়ে তাকে হত্যা করা হয়।

পরে ইসরায়েল নিশ্চিত করেছে যে তারা সেখানে বিমান হামলা চালিয়েছে। ইসরায়েল দাবি করেছে যে, ফজর ফোর্স, জামা ইসলামিয়া সশস্ত্র শাখা এবং হামাসকে অস্ত্র সরবরাহের জন্য দায়ী ছিলেন আয়মান গোতমেহের।

এদিকে রোববার হিজবুল্লাহ জানিয়েছে যে, তার যোদ্ধারা খিয়ারা শহরে ইসরায়েলি শত্রুদের হাতে তাদের কমান্ডার হত্যার জবাবে বেইত হিলেল ব্যারাকে একটি সামরিক ঘাঁটিতে ড্রোন দিয়ে হামলা চালিয়েছে।

এক বিবৃতিতে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী স্বীকার করেছে যে, লেবানন থেকে একটি ড্রোন বেইত হিলেল এলাকায় আঘাত হেনেছে। তবে এই ঘটনায় কারো আহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।

সম্প্রতি হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে সর্বাত্মক যুদ্ধের ঘোষণা দিয়েছে তেল আবিব। এমন পরিস্থিতিতে লেবাননে হামলা চালানো হলে তার পরিণত কতটা ভয়াবহ হতে পারে সে বিষয়ে ইসরায়েলকে সতর্ক করেছে ইরান।

শুক্রবার (২১ জুন) ইরানের পক্ষ থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে ইসরায়েলকে সতর্ক করে বলা হয়েছে, হিজবুল্লাহ নিজেকে ও লেবাননকে রক্ষা করার ক্ষমতা রাখে। ইসরায়েল যদি হিজবুল্লাহর সঙ্গে সর্বাত্মক যুদ্ধে জড়াতে চায়, তাহলে তা হবে দেশটির চূড়ান্ত পরাজয়।


আরও খবর



যুক্তরাজ্যের নগরমন্ত্রী হলেন টিউলিপ, গড়লেন ইতিহাস

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
প্রবাসে বাংলা

Image

যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রী স্যার কিয়ার স্টারমারের মন্ত্রিসভায় স্থান করে নিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট বোন শেখ রেহানার মেয়ে টিউলিপ সিদ্দিক। তাকে নগরমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। গতকাল লন্ডনের স্থানীয় সময় বিকাল ৪টায় টিউলিপ এ সংবাদ পান। এর মাধ্যমে যুক্তরাজ্যের মন্ত্রিসভায় প্রথম কোনো ব্রিটিশ বাংলাদেশি হিসেবে নাম লিখিয়ে ইতিহাস গড়লেন ৪১ বছর বয়সী লেবার পার্টির এই নেতা।

যুক্তরাজ্যে ১৪ বছর ধরে ক্ষমতায় আসীন কনজারভেটিভ পার্টিকে সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনে বিশাল ব্যবধানে হারায় লেবার পার্টি। এ নির্বাচনে টানা চতুর্থবারের মতো জয় পান টিউলিপ। লন্ডনের মিচামে জন্মগ্রহণ করেছেন শেখ রেহানা ও শফিক সিদ্দিকীর মেয়ে টিউলিপ। তার শৈশব কেটেছে বাংলাদেশ, ভারত ও সিঙ্গাপুরে। লন্ডনের কিংস কলেজ থেকে পলিটিক্স, পলিসি ও গভর্মেন্ট বিষয়ে তিনি স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নিয়েছেন। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল গ্রেটার লন্ডন এবং সেভ দ্য চিলড্রেনের সঙ্গে যুক্ত টিউলিপ মাত্র ১৬ বছর বয়সে লেবার পার্টির সদস্য হন। ২০১০ সালে ক্যামডেন কাউন্সিলে প্রথম বাঙালি নারী কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত হন তিনি। ২০১৫ সালে প্রথমবারের মতো এমপি নির্বাচিত হন।


আরও খবর



প্রেমর টানে বাংলাদেশে আসা যুবতীকে বিএসএফের কাছে হস্তান্তর

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
এম এ রহিম, বেনাপোল (যশোর)

Image

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রেম করে ভারত থেকে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করে চুয়াডাঙ্গায় আসা যুবতী পিংকি সরকার (২১)কে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বেনাপোল বর্ডার দিয়ে ভারতে হস্তান্তর করেছে বিজিবি।

আজ বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) সকালে বেনাপোল-পেট্রাপোল নোম্যান্সল্যান্ডে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বেনাপোল চেকপোস্ট আইসিপি ক্যাম্পের বিজিবি সদস্যরা হরিদাসপুর পেট্রাপোল বিএসএফের কাছে হস্তান্তর করেন।

বেনাপোল আইসিপি ক্যাম্পের কমান্ডার সুবেদার মো.মিজানুর রহমান জানান, ভারতের উত্তর ২৪ পরগনা জেলার রায়গঞ্জ থানার কুলুউসারা গ্রামের মানিক সরকারের মেয়ে পিংকি সরকার (২১) এর সাথে বাংলাদেশের চুয়াডাঙ্গা সীমান্ত এলাকার সমর সরকার নামে এক যুবকের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পরিচয় হয়। এরপর দুজনের মধ্যে দুই বছর ধরে গড়ে ওঠে প্রেমের সম্পর্ক। সেই সূত্রে গত ২৯ জুন ভারত থেকে চুয়াডাঙ্গা সীমান্ত দিয়ে পালিয়ে বাংলাদেশে আসে পিংকি।

৩ দিন ধরে চুয়াডাঙ্গায় সমরের সাথে অবস্থান করছিলেন পিংকি। এক পর্যায়ে সমর তার বন্ধুকে দিয়ে গতকাল ২ জুলাই মঙ্গলবার বিকালে পিংকিকে পাঠিয়ে দেয় বেনাপোল বর্ডারে এবং বলে তুমি আমার বন্ধুর সাথে যাও আমি আসছি। প্রেমিক বন্ধু সমর না আসলেও ঠিকই পিংকিকে বেনাপোল বর্ডারে ফেলে পালিয়ে যায় সমরের বন্ধু। মেয়েটির কান্না কাটি দেখে স্থানীয় ও বিজিবি সদস্যরা একটি বাড়িতে রাখে।বিজিবি সব ঘটনা বিএসএফকে জানালে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ওই মেয়েটিকে ফেরত নিতে রাজি হয়। বিএসএফ পরে তার পরিবারের হাতে হস্তান্তর করবেন বলে জানা গেছে।

নিউজ ট্যাগ: যশোর বিজিবি

আরও খবর



বাগেরহাটে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী দিবস পালিত

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বাগেরহাট প্রতিনিধি

Image

‘মাদকের আগ্রাসন দৃশ্যমান প্রতিরোধেই সমাধান -এই প্রতিপাদ্যে বাগেরহাটে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালিত হয়েছে। রোববার (১৪ জুলাই) সকালে দিবসটি উপলক্ষে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়।

পরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বাগেরহাট মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো: মো: বুলু শেখের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো: খালিদ হোসেন।

এসময় অন্যন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, বাগেরহাটের পুলিশ সুপার আবুল হাসনাত খান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট প্রশাসক মো: আরিফুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডা: জালাল উদ্দিন আহম্মেদ, সদর হাসপাতালের তত্তাবধায়ক ডা: অসীম কুমার সমাদ্দার, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিদর্শক মিলন মুখার্জী, মোংলা উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, মোরেলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী খান প্রমূখ।

বক্তারা, মাদকের ভয়াবহতা থেকে দেশকে রক্ষা করার জন্য সকলকে একসাথে কাজ করার আহবান জানান।

আলোচনা সভা শেষে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস বিষয়ে রচনা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

নিউজ ট্যাগ: বাগেরহাট

আরও খবর



মতিঝিলে মন্দিরের জমি উদ্ধারে জেলা প্রশাসনের অভিযান

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ব্রিটিশ আমল থেকে দখলে থাকা রাজধানীর মতিঝিলের টয়েনবি সার্কুলার রোডের প্রায় ৩০ শতাংশ জমি উদ্ধারে অভিযান চালাচ্ছে জেলা প্রশাসন।

শনিবার (১৩ জুলাই) সকাল ৯টা থেকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহামুদুল হাসানের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।

হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের নেতারা জানান, শ্রী শ্রী লক্ষ্মীনারায়ণ মন্দিরের জায়গাটি দীর্ঘ দিন ধরে হাত বদল হয়ে বিভিন্ন পক্ষের দখলে ছিল। পরবর্তীতে জেলা প্রশাসনের কাছে আবেদন করা হয়।

এ আবেদনের পর তদন্ত করে জায়গাটি হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের কাছে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত নেয় জেলা প্রশাসন বলেও জানান তারা।


আরও খবর