আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

কাউন্সিলরের হামলার শিকার এস আই ফারিয়াদ

প্রকাশিত:বুধবার ২৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ মে ২০২২ | ১২৪০জন দেখেছেন

Image

রাকিব হোসেন

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৩৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিল আবুসাইদ এর হামলার শিকার হয়েছেন ৩৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বংশালে মিল্লাত স্কুলের অ্যাডহক কমিটির সভাপতি এস আই ফারিয়াদ। মঙ্গলবার (২৪ শে) মে রাজধানীর বংশালে মিল্লাত স্কুলের সামনে এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, এস আই ফারিয়াদ মিল্লাত স্কুলের অ্যাডহক কমিটির সভাপতি হিসেবে সুনামের সাথে স্কুলটি পরিচালনা করে আসছেন। কিন্তু ৩৫ নং ওয়ার্ড  কাউন্সিল আবুসাইদ আধিপত্য বিস্তার এবং নিজের লোকজনকে এই স্কুলের পরিচলনা কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য উদ্দেশ্যমূলক ভাবে এস আই ফারিয়াদের উপর হামলা চালায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার কাউন্সিলর আবু সাইদ ও ওয়ার্ডের যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আশিকের নেতৃত্বে ২৫ থেকে ৩০ জন এস আই ফারিয়াদের উপর হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে ফেলে রেখে চলে যান। পরে তারা ও স্বজনরা উদ্ধার করে একটি বে-সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ঘটনা শুনে আহত এস আই ফারিয়াদকে দেখতে ছুটে যান ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ হুমায়ূন কবির ও ঢাকা ৭ আসনের সাংসদ সদস্য হাজী সেলিম এর বড় ছেলে সোলাইমান সেলিম।

আহত এস আই ফারিয়াদ জানান, আমি স্থানীয় সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের এর ডিও লেটার নিয়ে মিল্লাত স্কুলের অ্যাডহক কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছি। এ কারণে কাউন্সিল আবুসাইদ আমাকে বিভিন্ন সময় দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়ে আসছে এবং প্রকাশ্যে বলে বেড়িয়েছে কোন এমপি-মন্ত্রীকে গোনার সময় নাই। এই এলাকায় আমি যা বলবো তাই চলবে। আমি এর প্রতিবাদ করায় সে আমার উপর হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালিয়েছে। আমি স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের কাছে এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার চাই।

এস আই ফারিয়াদ এর পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন এঘটনার পর থেকে আমরা নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে আছি। কারণ এর পূর্বেও দেশের বিভিন্ন স্থানে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে হামলা ও হত্যার ঘটনা ঘটেছে। আমরা ফারিয়াদের উপর হামলার বিষয়ে সঠিক তদন্ত ও দোষীদের সুষ্ঠ বিচার চাই।


আরও খবর



এবছর আসছে না ফোল্ডিং ফোন

প্রকাশিত:বুধবার ০১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০১ জুন ২০২২ | ৩৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গুগলের ফোল্ডিং ফোন দিয়ে প্রযুক্তিপ্রেমীদের আগ্রহের শেষ নেই। কিন্তু আগ্রহ যেনো আরও অধীর হচ্ছে। কেননা, এবছরই আসছে না ফোল্ডিং ফোন। ফোনটি হাতে পেতে আরও খানিকটা সময় অপেক্ষা করতে হবে।  আগামী বছর গুগল পিক্সেল ফোল্ড নামের ডিভাইসটি বাজারে পাওয়া যাবে। মোবাইল ফোন অ্যানালিস্ট রস ইয়ং এমনটাই জানালেন। প্রথমে জানা গিয়েছিল চলতি বছরেই আসবে গুগলের ফোল্ডেবল ফোন। কিন্তু সে আশায় গুড়েবালি।

এ বিষয়ে একটি রিপোর্ট প্রকাশ হয়েছে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, ফোল্ডেবল স্মার্টফোনটি আগামী বছরের স্প্রিংয়ের বাজারে ছাড়া হবে। যদিও ঠিক কবে ফোনটি বাজারে লঞ্চ করা হবে সেবিষয়ে নির্দিষ্ট করে জানানো হয়নি। মনে করা হচ্ছে আগামী মাসের মধ্যে এবিষয়ে বেশ কিছু তথ্য প্রকাশ্যে আসবে।

এবিষয়ে রস ইয়ং জানিয়েছেন, প্রথমে জানা গিয়েছিল ডিসপ্লে সমস্যার জন্য ফোনটি বাজারে আসতে দেরি হচ্ছে। কিন্তু পরে জানা গেছে ডিসপ্লে সমস্যার জন্য ফোনটি লঞ্চ হতে দেরি হচ্ছে না। বরং নেক্সট জেনারেশন টেনিসর চিপসেটের সমস্যা দেখা দিয়েছে। আর সেকারণে এই সমস্যা তৈরি হয়েছে। প্রায় সব মোবাইল প্রস্তুতকারী সংস্থাগুলি ইতিমধ্যে ফোল্ডেবল স্মার্টফোন তৈরি করেছে। এরমধ্যে ফোল্ডেবল স্মার্টফোনের মধ্যে স্যামসাং এখনও পর্যন্ত শীর্ষে রয়েছে। বর্তমানে গ্যালাক্সি জেড ফোল্ড ৪ এবং গ্যালাক্সি ফ্লিপ ৪ ফোন দুইটি বাজারে আসছে বলে জানিয়েছে স্যামসাং।

নিউজ ট্যাগ: ফোল্ডিং ফোন

আরও খবর



এজিএম পদে চাকরি দেবে মদিনা গ্রুপ

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | ১৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শীর্ষস্থানীয় শিল্পপ্রতিষ্ঠান মদিনা গ্রুপে অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার (এজিএম) পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ০৭ জুলাই পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: মদিনা গ্রুপ

বিভাগের নাম: সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং (পাইপ অ্যান্ড ফাইটিংস)

পদের নাম: অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার (এজিএম)

পদসংখ্যা: নির্ধারিত নয়

শিক্ষাগত যোগ্যতা: এমবিএ (মার্কেটিং)/স্নাতক

অভিজ্ঞতা: ১২-২০ বছর

বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

চাকরির ধরন: ফুল টাইম

প্রার্থীর ধরন: পুরুষ

বয়স: ৩৮-৪৮ বছর

কর্মস্থল: ঢাকা

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা jobs.bdjobs.com এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময়: ০৭ জুলাই ২০২২

নিউজ ট্যাগ: চাকরির খবর

আরও খবর



রাজধানীতে ১৫ গাঁজাসহ দুই মাদক কারবারি গ্রেফতার

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৩ জুন ২০২২ | ৩৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর বাড্ডা থানা এলাকা থেকে ১৫ গাঁজাসহ দুই মাদক কারবারিকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা গুলশান বিভাগ। শুক্রবার (০৩ জুন) দুই মাদক কারবারিকে গ্রেফতার করে ডিএমপি।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মো. ইয়ামিন শারাফাত ও মো. হাসিবুর রহমান শিশির।

ডিএমপির গোয়েন্দা গুলশান বিভাগের সহকারী কমিশনার (এসি) দেবাশীষ কর্মকার জানান, বৃহস্পতিবার রাতে বাড্ডা থানার গুলশান লেক এলাকায় অভিযান চালিয়ে গাঁজাসহ ইয়ামিন ও শিশিরকে গ্রেফতার করা হয়। তারা বাড্ডা থানার লিংক রোড থেকে শাহজাদপুর যাওয়ার রাস্তায় গুলশান লেকের অপর পাশে আল্লাহর দান খাবার হোটেলের সামনে অবস্থান করছিলেন। তাদের উদ্দেশ্য ছিল সেখানে গাঁজা বিক্রি করা।

গোপন এ সংবাদের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান চালানো হয়। টের পেয়ে আসামিরা পালাতে চেষ্টা করে। কিন্তু ধাওয়া করে তাদের ধরে ফেলা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১৫ কেজি গাঁজা জব্দ করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা গাঁজা বিক্রির বিষয়ে নিশ্চিত করেছে। আসামিরা জানিয়েছে, সীমান্তবর্তী জেলা ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে তারা গাঁজা সংগ্রহ করে ঢাকা নিয়ে আসতেন। পরে রাজধানীসহ আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করতেন। তাদের বিরুদ্ধে বাড্ডা থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেন এসি দেবাশীষ কর্মকার।


আরও খবর



তবে কী শ্রীলঙ্কার পথেই যাচ্ছে পাকিস্তান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিদেশি ঋণে জর্জরিত পাকিস্তানের অর্থনৈতিক অবস্থা নজিরবিহীন সংকটের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে। বেহাল এই অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড় করানোর চেষ্টায় দেশটির বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকার বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) আরেক দফা পেট্রল, ডিজেল, কেরোসিনের দাম বৃদ্ধি করেছে। দেশটিতে এখন প্রতি লিটার পেট্র্রল ২৩৪, ডিজেল ২৬৩ আর কেরোসিন ২১২ রুপিতে বিক্রি হচ্ছে। এর পাশাপাশি পাকিস্তানি রুপির দরে একের পর এক পতন ঘটেছে। একই দিনে অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে পাকিস্তানি ২০৭ রুপির বিনিময়ে মিলছে ১ ডলার। ১৯৪৭ সালে দেশটি স্বাধীনতা লাভের পর পাকিস্তানি রুপির এমন পতন কখনই দেখেনি। এমন পরিস্থিতিতে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, দেউলিয়া হয়ে যাওয়া দক্ষিণ এশিয়ার দেশ শ্রীলঙ্কার পথে রয়েছে পাকিস্তান।

সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী ও পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) চেয়ারম্যান বলেছেন, পাকিস্তান যদি বর্তমান অর্থনৈতিক নীতিতে চলতে থাকে, তাহলে শ্রীলঙ্কার মতো পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে আর দেরী নেই। বুধবার রাওয়ালপিণ্ডিতে পিটিআইয়ের এক অনুষ্ঠানে দেশটির ভবিষ্যৎ অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে এই সতর্কবার্তা দিয়েছেন তিনি।  পাকিস্তানের রপ্তানি ১০ শতাংশ কমে গেছে। স্টক এক্সচেঞ্জ থেকে বেরিয়ে গেছে ৭০০ বিলিয়ন রুপি। পাকিস্তানের অর্থনীতি সম্পর্কে রেটিংও কমিয়েছে বিশ্বের শীর্ষ ক্রেডিট রেটিং প্রতিষ্ঠান মুডিস। দেশ শ্রীলঙ্কার মতো পরিস্থিতির পথে রয়েছে। এই দেশকে বাঁচানোর একমাত্র উপায় আগাম ও স্বচ্ছ নির্বাচন।

পাকিস্তানের বর্তমান সরকারের তীব্র ভর্ৎসনা করে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, ক্ষমতাসীনরা পাঞ্জাবের ২০টি আসনের আসন্ন উপনির্বাচনে পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশনের (ইসিপি) সহায়তা চায়। দেশের বর্তমান নির্বাচন কমিশনের অধীনে সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ নির্বাচন হতে পারে না। আমি যখনই লংমার্চের ডাক দেব, তখনই আপনাদের পুরোপুরি প্রস্তুত থাকতে হবে। পিটিআইয়ের লং মার্চের সময় লোকজনকে লক্ষ্য করে অপরাধী, সন্ত্রাসীদের মতো গুলি করা হয়েছিল এবং আমরা ইসলামাবাদে অধিকৃত-কাশ্মিরের মতো নৃশংস দৃশ্য দেখেছি। আল্লাহ কাউকে নিরপেক্ষ অবস্থানে থাকার অনুমতি দেননি। যারা সঠিক পথে আছেন আপনাকে তাদের পাশে অথবা অন্য পক্ষের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

এর আগে, সাবেক এই পাক প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, পাকিস্তানের সবচেয়ে জনবহুল পাঞ্জাব প্রদেশ একেবারে রাজনৈতিক বিশৃঙ্খলার মধ্যে রয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ, পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী হামজা শেহবাজের সমালোচনা করে ইমরান খান বলেন, পাঞ্জাবে ভুয়া নির্বাচনের মাধ্যমে হামজা শেহবাজ অবৈধভাবে ক্ষমতায় আসার পর থেকে পাকিস্তানের সবচেয়ে জনবহুল প্রদেশটি রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে রয়েছে। জনগণের দুর্ভোগের মুখোমুখি হয়েছে। কৃষকের ফসল হুমকিতে রয়েছে। কিন্তু মাফিয়ারা সর্বত্রই সরকারের রিটকে চ্যালেঞ্জ করছে এবং ক্ষমতাসীনরা তাদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না।

ফের বেড়েছে জ্বালানির দাম: পাকিস্তানের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি ক্রমেই অবনতির দিকে যাচ্ছে। বিদেশি ঋণে জর্জরিত দেশটির অর্থনৈতিক অবস্থার চাপ পড়ছে সাধারণ জনগণের ওপর। অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড় করাতে এবার জনগণের ওপর আরেক দফা বোঝা চাপিয়ে এক লাফে পেট্রলের দাম বাড়ানো হয়েছে ২৪ রুপি। এছাড়া ডিজেলের দামও ফের বেড়েছে ৫৯ রুপি। বৃহস্পতিবার পাকিস্তানে প্রতি লিটার পেট্রল এবং ডিজেলের দাম যথাক্রমে ২৩৪ এবং ২৬৩ রুপিতে পৌঁছেছে।

পেট্রল, ডিজেলের পাশাপাশি পাকিস্তানে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে কেরোসিনের দামও। দেশটিতে বর্তমানে প্রতি লিটার কেরোসিন বিক্রি হচ্ছে ২১১ দশমিক ৪৩ রুপি করে। তবে বর্তমান এই অর্থনৈতিক সংকটের জন্য ইমরান খান সরকারের নীতিকে দায়ী করেছে দেশটির বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকার। ইসলামাবাদে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে পাকিস্তানের অর্থমন্ত্রী মিফতাহ ইসমাইল বলেছেন, ইমরানের খানের সরকারের নীতির কারণে দেশের অর্থনীতির এই বেহাল দশা।

তিনি বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভর্তুকি দিয়ে ইচ্ছাকৃতভাবে পেট্রলের দাম কমিয়েছিলেন এবং বর্তমান সরকারকে সেই সিদ্ধান্তের খেসারত দিতে হচ্ছে। তার মতে, পাকিস্তান প্রতি লিটারে পেট্রলে ২৪ দশমিক ০৩ রুপি, ডিজেলে ৫৯ দশমিক ১৬ রুপি, কেরোসিনে ৩৯ দশমিক ৪৯ রুপি এবং লাইট ডিজেলে ৩৯ দশমিক ১৬ রুপি ভর্তুকি দিচ্ছে। গত মে মাসে জ্বালানি তেল বিক্রিতে যে ক্ষতি হয়েছে, তার পরিমাণ ১২০ বিলিয়ন রুপি ছাড়িয়ে গেছে। যা বর্তমান সরকারের ব্যয়ের চেয়ে তিনগুণ বেশি।

নজিরবিহীন মূল্য পতন পাকিস্তানি রুপির : এদিকে ডলারের বিপরীতে পাকিস্তানি রুপির নজিরবিহীন দর পতন ঘটেছে। আগের সব রেকর্ড ভেঙে বৃহস্পতিবার আরেক দফা নেমেছে পাকিস্তানি রুপির মান। বর্তমানে পাকিস্তানের মুদ্রাবাজারে ২০৭ রুপির বিনিময়ে মিলছে ১ ডলার। দেশটির ইংরেজি দৈনিক ডন বলছে, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) সাথে পাকিস্তানের চুক্তির বিষয়ে অস্পষ্টতা এবং বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ব্যাপক কমে যাওয়ায় বৃহস্পতিবার সকালের দিকে মার্কিন ডলারের দর পতনের আরেকটি রেকর্ড হয়েছে।  গত মে মাস থেকে হু হু করে হ্রাস পেতে শুরু করে পাকিস্তানি রুপির মান। ১৯ মে পাকিস্তানে ১ ডলারের বিপরীতে রুপির মান পৌঁছায় ২০০-তে। ১৯৪৭ সালে ব্রিটেনের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভের পর গত ৭৫ বছরের ইতিহাসে নিজেদের মুদ্রার এই পরিমাণ পতন দেখেনি পাকিস্তান। তবে সেখানেই থেমে থাকেনি রুপির দরপতন, বরং দিন গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে নেমেছে মান। গত মঙ্গলবার পর্যন্ত পাকিস্তানে ১ ডলারের বিপরীতে রুপির মান ছিল ২০৫ দশমিক ২৫। বুধবার তা আরও নেমে পৌঁছায় ২০৬ দশমিক ৫০ রুপিতে। বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) সকালের দিকে তা আগের সব রেকর্ড ভেঙে ২০৭ রুপিতে পৌঁছেছে। তবে এ দিনে খোলা বাজারে ২০৮ দশমিক ৫ রুপিতে মিলেছে ১ ডলার।

মেট্টিস গ্লোবালের পরিচালক সাদ বিন নাসির বলেন, বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম ঋণদাতা সংস্থা আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ঋণ প্রকল্প স্থবির অবস্থায় থাকা, জঙ্গিবাদে অর্থায়ন পর্যবেক্ষণকারী আন্তর্জাতিক সংস্থা ফিন্যান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্কফোর্সের (এফএটিএফ) ধূসর তালিকায় থাকা, চীনের কাছ থেকে নেওয়া ঋণ পরিশোধের চাপ ও জ্বালানি তেলের উচ্চমূল্য এই চার কারণে ব্যাপক চাপে রয়েছে পাকিস্তানের অর্থনীতি। আর তার ফলাফলই হলো রুপির এই ধারাবাহিক দরপতন।

ডন বলছে, ২০১৯ সালের জুলাইয়ে আইএমএফের সঙ্গে একটি ঋণচুক্তি করেছিল পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন পিটিআই সরকার। সেই চুক্তি অনুযায়ী, পাকিস্তানকে সাড়ে তিন বছর (৩৯ মাসে) কিস্তিতে ৬০০ কোটি ডলার ঋণ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল আইএমএফ। তবে তার বিপরীতে আইএমএফের কিছু শর্ত ছিল। এসবের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ একটি শর্ত ছিল যে, সরকারের পক্ষ থেকে পাকিস্তানের জ্বালানি খাতে কোনো ভর্তুকি দেওয়া যাবে না। কিন্তু পিটিআই সরকার ২০২১ সালের শুরুর দিকে জ্বালানিতে ভর্তুকি বিষয়ক শর্ত অমান্য করায় ৩০০ কোটি ডলারের ঋণ ছাড়ের পরই সেই প্রকল্প থামিয়ে দেয় আইএমএফ। গত এপ্রিলে পার্লামেন্টে বিরোধীদের অনাস্থা ভোটে ক্ষমতা হারান ইমরান খান, নতুন প্রধানমন্ত্রী হন দেশটির সাবেক বিরোধী নেতা শেহবাজ শরিফ। কিন্তু তিনি ক্ষমতায় এসেও পূর্ববর্তী সরকারের সিদ্ধান্ত বহাল রাখায় আইএমফ ঋণ প্রকল্পের অচলাবস্থা আর কাটেনি।

অন্যদিকে, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের জেরে আন্তর্জাতিক বাজারে বাড়ছে জ্বালানি তেলের দাম। তাই স্বাভাবিকভাবেই বর্তমান পরিস্থিতিতে জ্বালানির ওপর ভর্তুকি প্রত্যাহার করা কঠিন দেশটির সরকারের জন্য।

নিউজ ট্যাগ: শ্রীলঙ্কা

আরও খবর



বিপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি ১০ কোটি টাকা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | ৫৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কাতার ২০২২ ফুটবল বিশ্বকাপ ও ভারতের বিপক্ষে হোম সিরিজের জন্য ডিসেম্বরে ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ (বিপিএল) শুরু করতে পারছে না বিসিবি।

২০২৩ সালের জানুয়ারিতে লিগ শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে। এবার বিপিএল পুরনো ফরম্যাটে হতে যাচ্ছে। সেক্ষেত্রে ফ্র্যাঞ্চাইজি স্বত্ব বিক্রি করা হবে তিন বছরের জন্য। ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি ধরা হয়েছে ১০ কোটি টাকা। এদিকে বিপিএলের জন্য হুমকি হয়ে উঠতে পারে আরব আমিরাতের ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট (আইএল টি-২০)।

এই টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হলে নিরাপদ সময় খুঁজে বের করা কঠিন হবে বিসিবির জন্য। জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে টুর্নামেন্ট শুরু করতে চায় বোর্ড।

 


আরও খবর