আজঃ বুধবার ২৪ জুলাই 20২৪
শিরোনাম

জুলাইয়ে চীন সফরে যাবেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৮ থেকে ১১ জুলাইয়ের মধ্যে চীন সফর করবেন বলে প্রাথমিকভাবে সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সোমবার (২৪ জুন) দুপুরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

এর আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন চীনের কমিউনিস্ট পার্টির আন্তর্জাতিক বিভাগের মন্ত্রী লিউ জিয়ানশাও।

বৈঠক শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর চীন সফরে দুই দেশের মধ্যে কয়েকটি চুক্তি স্বাক্ষর ও সমঝোতা স্বারক সই হবে বলে আশা করছি। যা দুই দেশের সম্পর্কের মাইলফলক হতে পারে। আর প্রধানমন্ত্রী ৮ থেকে ১১ জুলাইয়ের মধ্যে চীন সফর করবেন বলে প্রাথমিকভাবে সিদ্ধান্ত হয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, উৎপাদন এবং বাণিজ্য বৃদ্ধির বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। স্মার্ট বাংলাদেশের যে লক্ষ্য নিয়ে দেশ এগুচ্ছে, সে পথে আমাদের পাশে থাকতে চায় চীন। এছাড়াও বাণিজ্য ঘাটতি কমানোর বিষয়ে আলোচনা হয়েছে সফররত চীনা কমিউনিস্ট পার্টির প্রতিনিধিদের সঙ্গে। এ বৈঠকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে চীনের সহযোগিতা কামনা করেছে বাংলাদেশ বলেও জানান হাছান মাহমুদ।

চীনের কমিউনিস্ট পার্টির আন্তর্জাতিক বিভাগের মন্ত্রী লিউ জিয়ানশাও বলেন, রোহিঙ্গাদের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে, তাদের আশ্রয় দেয়ার বিষয়টি দিন দিন কঠিন হয়ে পড়ছে। এ ব্যাপারে বাংলাদেশকে সহায়তা করার প্রতিশ্রুতি দেন জিয়ানশাও।


আরও খবর
ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




মতিউর পরিবারের নামে ৪ ফ্ল্যাট ও ৮৬৬ শতক জমি ক্রোকের আদেশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

ছাগলকাণ্ডে আলোচনায় আসা জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) কর্মকর্তা মতিউর রহমান ও তার পরিবারের চারটি ফ্ল্যাট ও ৮৬৬ শতাংশ জমি ক্রোকাদেশ দিয়েছেন আদালত।

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

দুদকের পক্ষে অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা উপপরিচালক আনোয়ার হোসেন এ আবেদন করেন। দুদকের আইনজীবী প্রসিকিউটর মীর আহমেদ আলী সালাম তা আদালতে উপস্থাপন করেন।

আবেদনে বলা হয়, মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মাধ্যমে দেশে ও বিদেশে অবৈধ সম্পদ অর্জনসহ হুন্ডি ও আন্ডারইনভয়েসিং/ওভারইনভয়েসিংয়ের মাধ্যমে অর্থ পাচার করে শত শত কোটি টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। অনুসন্ধানকালে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যাচ্ছে, অভিযোগ সংশ্লিষ্ট মতিউর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যরা তাদের মালিকানাধীন স্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তরের চেষ্টা করছেন যা করতে পারলে অনুসন্ধানের ধারাবাহিকতায় মামলা দায়ের, আদালতে চার্জশিট দাখিল, আদালতে বিচার শেষে সাজার অংশ হিসেবে অপরাধলব্ধ আয় হতে অর্জিত সম্পত্তি সরকারের অনুকূলে বাজেয়াপ্তকরণসহ সকল উদ্দেশ্যই ব্যর্থ হবে। তাই অনুসন্ধান শেষে মামলা দায়ের ও মামলা তদন্ত সম্পন্ন করে আদালতে চার্জশিট দাখিলের পর আদালত কর্তৃক বিচার শেষে সরকারের অনুকূলে সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের সুবিধার্থে সুষ্ঠু অনুসন্ধান ও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার স্বার্থে তালিকায় উল্লেখিত স্থাবর সম্পত্তিসমূহ ক্রোক করা একান্ত প্রয়োজন।


আরও খবর
কোটা নিয়ে আপিল বিভাগে শুনানি রোববার

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




পদ্মা সেতু প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক পরিসমাপ্তি ঘোষণা করবেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

পদ্মা সেতু প্রকল্পের সমাপনী অনুষ্ঠান আজ শুক্রবার (৫ জুলাই)। পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্পের আনুষঙ্গিক সব কাজ শেষ হওয়ায় এর আনুষ্ঠানিক পরিসমাপ্তি ঘোষণা করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ উপলক্ষে আজ বিকেল ৪টায় মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মাওয়ায় পদ্মাসেতু উত্তর প্রান্তে সুধী সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী।

পদ্মা বহুমুখী সেতুর প্রকল্পের পরিচালক শফিকুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, নানা অনিশ্চয়তার মধ্যেই আমাদের কাজটি সম্পন্ন করতে হয়েছে। বিশ্ব ব্যাংকসহ বিভিন্ন সংস্থার সরে যাওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চেষ্টায় আমরা সেতুর কাজ সম্পূর্ণ করতে পেরেছি। মানুষকে একটি সুন্দর সেতু তৈরি করে দিতে পেরেছি। আলহামদুলিল্লাহ, আমাদের সবশেষ বরাদ্দ থেকে ১ হাজার ৮৩৫ কোটি ৬৮ লাখ টাকা কম খরচ হয়েছে। আমরা ওই টাকা নিয়ম অনুযায়ী সরকারি কোষাগারে জমা দিয়ে দেব।

তিনি আরও বলেন, এটি অনেক বড় একটি প্রকল্প। আমাদের কিছু ক্লেইম ছিল। নদীশাসন ও কারিগরি কিছু কাজ বাকি ছিল। বড় কাঠামো তৈরির পর ডিফেক্ট লাইবিলিটি পিরিয়ড থাকে। এই সময়ে অবকাঠামোর ত্রুটি-বিচ্যুতি থাকলে (যেমন কোথাও রং উঠে গেছে, কোথাও কিছুটা কাজ বাকি থেকে গেছে ইত্যাদি) তা সংশোধন করা হয়। ঠিকাদারেরও বেশ কিছু ক্লেইম ছিল। যে কারণে বারবার আমাদের মিটিং করতে হয়েছে। অর্থাৎ এই সবগুলো কাজ এই সময়ের মধ্যে সম্পূর্ণ করা হয়েছে। সবমিলিয়ে আমাদের কাজ এখন সম্পূর্ণ। গত ৩০ জুনই সম্পন্ন হয়েছে।

জানা গেছে, পদ্মা সেতু প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক পরিসমাপ্তি উপলক্ষে সুধী সমাবেশে অংশ নেবেন দুই থেকে আড়াই হাজার মানুষ। বিভিন্ন পর্যায়ের অতিথি ছাড়াও থাকবেন প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীকে বরণে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা আর সর্বাত্মক প্রস্তুতি থাকার কথা জানিয়ে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক আবু জাফর রিপন গণমাধ্যমকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী ৫ জুলাই বিকেলে পদ্মা সেতু প্রকল্পের মাওয়া এলাকায় আসার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন। মূলত পদ্মা সেতু প্রকল্পের কাজের মেয়াদ সমাপ্তি উদযাপনে প্রধানমন্ত্রী আসবেন। বিভিন্ন পর্যায়ের অতিথিসহ যারা এই সেতুর কাজে বিভিন্ন সময় অংশ নিয়েছেন, তাদের নিয়ে সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে সংশ্লিষ্টদের কথা শোনার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসন ও সব দপ্তরের অংশগ্রহণে সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীকে বরণ করে নিতে প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০০১ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাওয়ায় প্রথম পদ্মা সেতুর ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন। এরপর নানা প্রতিবন্ধকতায় আর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা শেষে যাত্রা শুরু হয় দেশের আলোচিত প্রকল্পটির মূল কাজ। যার সবশেষ মোট বরাদ্দ ছিল ৩২ হাজার ৬০৭ কোটি টাকা।


আরও খবর
মেট্রোরেল চলাচল পুরোপুরি বন্ধ

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




কুমিল্লায় পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর, এএসপি অবরুদ্ধ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

কুমিল্লায় পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর করেছেন কোটাবিরোধী আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। এসময় পুলিশের এক এএসপিসহ দুই পুলিশ সদস্যকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) বিকেল ৪টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা কোটবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কোটা ইস্যুতে বিকেল পৌনে ৪টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কোটবাড়ি এলাকা অবরোধ করেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। খবর পেয়ে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানা পুলিশ এবং কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) কামরান হোসেন সেখানে যান।

এসময় আন্দোলনকারীরা সদর দক্ষিণ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) মোহাম্মদ আলমগীর ভূঁইয়ার ব্যবহৃত গাড়ি লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেন। একপর্যায়ে গাড়িটি ভাঙচুর করা হয়। এসময় পাশের একটি ভবনে অবস্থান নেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) কামরান হোসেন। পরে ওই ভবনে তাকেসহ দুই পুলিশ সদস্যকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়।

এ বিষয়ে কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নামজুল হাসান বলেন, শিক্ষার্থীরা বিনা উসকানিতে পুলিশের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও পুলিশের একটি গাড়ি ভাঙচুর করেন। এসময় পুলিশ ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছে। অবরুদ্ধ পুলিশ সদস্যদের উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।


আরও খবর



শেরপুরে বকেয়া বিদ্যুৎ বিল আদায়ে হিমশিম খাচ্ছে বিদ্যুৎ বিভাগ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মো. নাজমুল হোসাইন, শেরপুর

Image

শেরপুর জেলার বিভিন্ন সরকারি, আধা-সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান ও দপ্তর গুলোর অনীহার কারণে সংশ্লিষ্ট বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থা বিল আদায়ের সামগ্রিক লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে পারছেনা। কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান ও দপ্তর দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যুৎ বিল বকেয়া রাখছে। বকেয়া বিল আদায়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে বিদ্যুৎ বিভাগকে।

ফলে বিদ্যুৎ বিতরণে নিয়োজিত বোর্ড-কোম্পানিগুলো গ্রাহক সেবার মান বৃদ্ধি এবং উন্নয়ন কার্যক্রমে নতুন ভাবে গতি সৃষ্টি করতে পারছে না, এমনকি অনেক ক্ষেত্রে গতি হারাচ্ছে। বিদ্যুৎ বিভাগ সংশ্লিষ্ট সূত্রে এমন তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, বর্তমানে দেশে ৬টি সরকারি প্রতিষ্ঠান বিদ্যুৎ বিতরণ করছে। প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি), বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (আরইবি), ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি), ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি (ডেসকো), ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ওজোপাডিকো) এবং নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি (নেসকো)। এসব কোম্পানির মধ্যে শেরপুর জেলার সকল উপজেলায় বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি), বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (আরইবি) বিদ্যুৎ সরবরাহ করে।

শেরপুর পিডিবি অফিস সূত্রে জানা গেছে, জেলা প্রশাসকের দপ্তরের প্রায় ১০ লক্ষ, জেলা হাসপাতালের কাছে ২৪ লক্ষ, শেরপুর পৌরসভার ৪৪ লক্ষ, শেরপুর স্টেডিয়ামের ১০ লক্ষ, শেরপুর সদর মডেল মসজিদে সাড়ে ৩ লক্ষাধিক, নালিতাবাড়ী পৌরসভার কাছে ৫৪ লক্ষ,  যুগানিয়া ইউনিয়ন পরিষদের প্রায় এক লক্ষ, নালিতাবাড়ী মডেল মসজিদে আড়াই লক্ষাধিক, গোসাইপুর ইউনিয়ন ও নন্নী ইউনিয়ন পরিষদে দেড় লক্ষাধিক করে, ঝিনাইগতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দেড় লক্ষ, নকলা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে ৩ লক্ষাধিক, উপজেলা কৃষি অফিসের ৩ লক্ষাধিক, উপজেলা ভূমি অফিস তথা সহকারী কমিশনার এর কার্যালয়ের কাছে লক্ষাধিক টাকা, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের  প্রায় এক লক্ষা টাকা এবং বানেশ্বরদী ইউনিয়ন পরিষদের কাছে ৪২ হাজার টাকা বকেয়া রয়েছে।

এবষিয়ে বানেশ্বরদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাজহারুল আনোয়ার মহব্বত বলেন, আমার দপ্তরের কাছে বিদ্যুৎ বিভাগের কোন বকেয়া নেই। আমি গত বছর কয়েক ধাপে প্রায় পৌণে একলক্ষ টাকা বিল পরিশোধ করে প্রিপেইড মিটার লাগিয়েছি। আমার দপ্তরের কাছে বিদ্যুৎ বিভাগের বকেয়ার বিষয়টি সঠিক নয়। বরং সরকার কর্তৃক সরবরাহ করা আমার পরিষদ কমপ্লেক্স ভবনে ব্রডব্যান্ড লাইনের সেফটিনেট কক্ষে সবসময় চলমান বৈদিুতিক পাখা, আইপিএস ও শক্তিশালী মেশিন থাকায় বিদ্যুৎ বিল বেশি হয়। তাদের বিল সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বা অফিস পরিশোধ করার কথা থাকলেও তারা পরিশোধ করছেনা। তাই বাধ্য হয়ে নিজের ইউপির সুনাম রক্ষায় আমার দপ্তর থেকেই পরিশোধ করে আসছি। তিনি আরো জানান, উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে একমাত্র বানেশ্বরদী ইউনিয়ন পরিষদের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা এবং প্রথম প্রিপেইড মিটার লাগানো হয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ শাহরিয়ার মোরসালিন মেহেদী বলেন, আমি নকলায় যোগদানের আগে উপজেলা কৃষি অফিসসহ উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স ভবনের সকল দপ্তরের বিদ্যুৎ লাইন উপজেলা নির্বাহী অফিসার কার্যালয়ের লাইন থেকে নেওয়া ছিলো। ফলে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধে সকল দপ্তরের মধ্যে যথাসময়ে আলোচনা না হওয়ায় হয়তোবা বকেয়া হয়েছিলো। তবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া উম্মুল বানিনের একান্ত প্রচেষ্ঠায় সকল দপ্তরের বিদ্যুৎ লাইন আলাদা করা হয়েছে। বর্তমানে কোন দপ্তরের নতুন করে বকেয়া হচ্ছে না বলে তিনি জানান।

নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মুহাম্মদ গোলাম মোস্তফা বলেন, আমার তত্বাবধানের নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কাছে কোন বিল বকেয়া নেই। তবে কিছু বিল বাকি ছিলো তা আবাসিক ভবনের বসবাসকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছে। ওইসব আবাসিক ভবনের বকেয়াও পরিশোধ করানো হয়েছে।

জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মানিক দত্ত জানান, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ হতে ৫ লক্ষ ৮০০ টাকা জেলা ক্রীড়া সংস্থার জন্য বার্ষিক আর্থিক বরাদ্দ দেওয়া হয় যা প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম। এই টাকা দিয়ে খেলার আয়োজন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে জেলা, বিভাগ ও জাতীয় পর্যায়ে খেলায় অংশ গ্রহন করা, জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভাতাদি, বিদ্যুৎ বিল, পৌরকর, ভুমি উন্নয়ন কর, ক্রীড়া সামগ্রী ক্রয় ও রক্ষনাবেক্ষণসহ সবকিছু মিটাতে হয়। কাঁচাবাজারের ইজারা ও বাসের আয় ছাড়া জেলা ক্রীড়া সংস্থার অন্যকোন আয়ের উৎস নেই বললেই চলে। কাঁচাবাজারের জায়গা পৌরসভায় ইজারা দেয়া হয়েছে। গত বছর ১ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা ছিলো, তবে চলতি বছর প্রায় ৩ লক্ষ টাকার মত পাওয়া যাবে। এসব দিয়ে জেলা ক্রীড়া সংস্থার ব্যয় বহন করা খুবই কঠিন হয়ে পড়েছে। তিনি দায়িত্ব পাওয়ার পর প্রায় পৌণে ৫ লাখ টাকার মত পরিশোধ করেছেন।

তিনি আরো জানান, গত মাসে তথা জুন মাসেও এক লক্ষ টাকা বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা হয়েছে। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ বা সরকারি ভাবে বরাদ্দ বাড়ানো বা জেলা ক্রীড়া সংস্থার নিজস্ব আয়ের পথ না হলে বকেয়াগুলো পরিশোধ করা কঠিন। তবুও বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের ক্ষেত্রে জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্মকর্তাগন সদা তৎপর রয়েছেন বলে তিনি জানান।

এবিষয়ে নকলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া উম্মুল বানিন বলেন, আমি নকলায় যোগদানের আগে থেকেই বিদ্যুতের এই তিন লক্ষ টাকা বকেয়া রয়েছে। নতুন উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স ভবনে আমার কার্যালয়সহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ দপ্তর রয়েছে। সেকল দপ্তরের বিদ্যুৎ সংযোগ আমার অফিস থেকে নেওয়া হয়েছে। এজন্যই হয়তোবা সকল দপ্তরের সাথে বিল সমন্বয়ের সময়ের অভাবে বিল বেশি বকেয়া রয়েছে। নতুবা এতো বিল বকেয়া থাকার কথা নয়।

তিনি জানান, উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স ভবনের সকল দপ্তর প্রধানের সাথে বসে আলোচনা করে বকেয়া পরিশোধের প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেয়া হয়েছে। এরই মধ্যে প্রায় একলক্ষ্য টাকা বকেয়া বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা হয়েছে। সম্প্রতি সকল দপ্তরকে নিজস্ব মিটার দিয়ে আলাদা করে দেওয়া হয়েছে এবং সেসকল দপ্তর সমূহ নিয়মিত বিল পরিশোধ করে আসেছে বলেও ইউএনও সাদিয়া উম্মুল বানিন জানান।

সূত্র জানায়, ব্যক্তি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান গুলোর মোট বকেয়ার পরিমাণ বেশি হলেও তারা অপেক্ষাকৃত কম সময়ের মধ্যে বকেয়া পরিশোধ করে। ফলে তা বিতরণ কোম্পানিগুলোর ওপর বেশি চাপ তৈরি করছে না। কিন্তু অনেক সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, আধা-সরকারি প্রতিষ্ঠান কয়েক বছর ধরে বিল দিচ্ছে না। ফলে কোম্পানিগুলোর ওপর বাড়তি চাপ তৈরি করছে। বকেয়া বিল দেশের বিদ্যুৎ খাতের অগ্রগতির পথে একটি বড় বাধা। স্মার্ট ও প্রিপেইড মিটার পুরোপুরি বাস্তবায়ন করা গেলে বকেয়া নিয়ে অস্বস্থিকর চাপ দূর হতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগন। বিতরণ ব্যবস্থার উন্নয়ন ও প্রিপেইড মিটার স্থাপনে অনেকগুলো প্রকল্প চলমান রয়েছে। তাছাড়া সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো যেন দ্রুত বিল পরিশোধ করে সেজন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করা হয়েছে এবং হচ্ছে। ফলশ্রুতিতে বর্তমান পরিস্থিতি আগের চেয়ে বেশ ভালো হয়েছে। তবে আরো ভালো হওয়া প্রয়োজন বলে তারা মনে করছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শেরপুর জেলার অনেক গ্রাহক জানান, ক্ষমতাধর ব্যক্তি ও বিভিন্ন সরকারি, আধা-সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান ও দপ্তর গুলোর গাফলতির কারণে সাধারণ জনগণকে সেবা প্রাপ্তিতে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। কারণ হিসেবে জানান, তাদের বিল বকেয়া থাকায় স্বাভাবিক কারণেই বিদ্যুৎ বিভাগ সেবার মান বাড়াতে পারছেনা। তাছাড়া সাধারণ গ্রহকদের বিল ২/৩ মাস বকেয় হলেই লাইন কেটে দিয়ে বিভিন্ন ভাবে হয়রানিতে ফেলা হয়। অথচ, ক্ষমতাধর ব্যক্তি ও বিভিন্ন সরকারি, আধা-সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান ও দপ্তরগুলোর বিদ্যুৎ বিল বছরের পর বছর বাকি! এটা দেখার যেন কেউ নেই। এমন অনেক অভিযোগ রয়েছে তাদের।

নিউজ ট্যাগ: শেরপুর

আরও খবর



আশুরা কবে জানা যাবে শনিবার

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ধর্ম ও জীবন

Image

১৪৪৬ হিজরি সনের মহররম মাসের চাঁদ দেখা এবং আশুরার তারিখ নির্ধারণে শনিবার (৬ জুলাই) সভায় বসছে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি।

শনিবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে এ সভা হবে। সভায় সভাপতিত্ব করবেন ধর্মবিষয়ক মন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান।

শুক্রবার (৫ জুলাই) ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশের আকাশে কোথাও মহররম মাসের চাঁদ দেখা গেলে তা ০২-২২৩৩৮১৭২৫, ০২-৪১০৫০৯১২, ০২-৪১০৫০৯১৬, ০২-৪১০৫০৯১৭ টেলিফোন ও ০২-২২৩৩৮৩৩৯৭, ০২-৯৫৫৫৯৫১ ফ্যাক্স নম্বরে বা সংশ্লিষ্ট জেলার জেলা প্রশাসক (ডিসি) বা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে (ইউএনও) জানানোর অনুরোধ জানিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন।


আরও খবর
রাজধানীতে তাজিয়া মিছিল শুরু

বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪

আজ পবিত্র আশুরা

বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪