আজঃ বুধবার ২৪ জুলাই 20২৪
শিরোনাম

জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | পত্রিকায় প্রকাশিত
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে কর্মক্ষেত্রে অসামান্য অবদানের জন্য চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামানকে বিভাগীয় পর্যায়ে জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার ২০২৩-২৪ প্রদান করা হয়েছে।

সোমবার (২৪ জুন) দুপুরে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক বিশেষ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোঃ তোফায়েল ইসলামের কাছ থেকে এই সম্মাননা গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক।

জাতীয় শুদ্ধাচার সম্মাননা গ্রহণ শেষে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান বলেন, এই সম্মাননা আমার জন্য নিরন্তর অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে। আমি বরাবরের মতই সততা, নিষ্ঠা এবং নির্ভরযোগ্যতার সাথে আমার পেশাগত দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট থাকব।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোঃ তোফায়েল ইসলাম বলেন, শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রদানে বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়, চট্টগ্রামের নৈতিকতা কমিটি ও বাছাই কমিটির সভায় সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর কার্যাবলী পর্যালোচনা করা হয়। যাচাই-বাছাইয়ের পর চট্টগ্রাম বিভাগের ১১জন জেলা প্রশাসকের মধ্যে নির্বাচিত হয়েছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক। কর্মক্ষেত্রে তার পদচারণা নিঃসন্দেহে সকলের জন্য অনুসরণীয় এবং একই সাথে অনুপ্রেরণাদায়ক।

উল্লেখ্য, সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল শিরোনামে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল ২০১২ সালে মন্ত্রীসভা বৈঠকে অনুমোদন করা হয় এবং ২০১৭ সালের ৬ এপ্রিল শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রদান নীতিমালা-২০১৭ সংক্রান্ত গেজেট জারি করা হয়।

শুদ্ধাচার পুরস্কারের জন্য বিবেচ্য ১৮টি গুনণাবলি হচ্ছে- কর্মচারীর পেশাগত জ্ঞান ও দক্ষতা, সততার নিদর্শন স্থাপন করা, নির্ভরযোগ্যতা ও কর্তব্যনিষ্ঠা, শৃঙ্খলাবোধ, সহকর্মীদের সঙ্গে আচরণ, সেবাগ্রহীতার সঙ্গে আচরণ, প্রতিষ্ঠানের বিধিবিধানের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকা, সমন্বয় ও নেতৃত্বদানের ক্ষমতা, তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারে পারদর্শিতা, পেশাগত স্বাস্থ্য ও পরিবেশ বিষয়ক নিরাপত্তা সচেতনতা, ছুটি গ্রহণের প্রবণতা, উদ্ভাবনী চর্চার সক্ষমতা, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বাস্তবায়নে তৎপরতা, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার, স্বপ্রণোদিত তথ্য প্রকাশে আগ্রহ, উপস্থাপন দক্ষতা, ই-ফাইল ব্যবহারে আগ্রহ, অভিযোগ প্রতিকারে সহযোগিতা করা। বিবেচিত কর্মচারীদের মধ্যে সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া কর্মকর্তা-কর্মচারী শুদ্ধাচার পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হন।


আরও খবর



জামালপুরে যমুনার পানি বিপদসীমার ওপরে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জামালপুর প্রতিনিধি

Image

টানা ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে জামালপুরে যমুনা নদীর পানি বেড়ে বিপদসীমার ৬৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সব নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। নদীতীরবর্তী অঞ্চলের মানুষেরা পানিবন্দী হয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। ইতিমধ্যে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক ২৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) দুপুরে যমুনা নদীর বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ৬৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়াও পুরাতন ব্রহ্মপুত্র, ঝিনাই ও জিঞ্জিরামসহ সব নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে।

এদিকে জেলার ইসলামপুর, দেওয়ানগঞ্জ ও মাদারগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চলে পানি ঢুকেছে। যমুনার পানি দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পাওয়ায় সড়ক ভেঙে ইসলামপুর ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের সঙ্গে উপজেলা শহরের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

জামালপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস কার্যালয় ও ইসলামপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, ইসলামপুর উপজেলার ১১টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ১২ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়াও মেলান্দহ উপজেলায় দুই টি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ রয়েছে। দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ১৫ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে পানি ঢুকেছে। তবে এখন পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়নি। পানি আর একটু বৃদ্ধি পেলে সেগুলো বন্ধ করা হবে।

ইসলামপুর ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে যমুনার পানি বাড়তে শুরু করে। রাত থেকে বিভিন্ন খাল, বিল ও যমুনার ছোট ছোট শাখা প্লাবিত হয়। এ সময় পানি লোকালয়ে ঢুকতে শুরু করে। পানি বাড়ায় ইসলামপুর উপজেলার চিনাডুলী, কুলকান্দি, বেলগাছা, নোয়ারপাড়া ও সাপধরী ইউনিয়ন; দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চুকাইবাড়ী, বাহাদুরাবাদ ও চিকাজানী ও মেলান্দহ উপজেলার ঘোষেরপাড়ক, মাহমুদপুর, নাংলা ইউনিয়নের নদীতীরবর্তী নিম্নাঞ্চল এবং দুর্গম চরাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে। বিভিন্ন গ্রামের ফসলি মাঠ তলিয়ে গেছে। পানি গ্রামের কিছু বাসিন্দার আঙিনায় যেতে শুরু করেছে। এভাবে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে হাজারো মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়ার শঙ্কা করছেন তারা।

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফাতেমা সুলতানা বলেন, উপজেলার ১৫ টি প্রাথমিক শিক্ষা বিদ্যালয়ের মাঠে পানি ঢুকেছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। শুক্রবার ও শনিবার যেহেতু বন্ধ তাই এখনো বন্ধ ঘোষণা করা হয়নি। তবে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস কার্যালয়ের চারপাশে বন্যার পানি চলে এসেছে।

ইসলামপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা বলেন, বন্যার পানি বিদ্যালয়ে ঢুকে পড়ায় ১২ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

জামালপুর জেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা অবু তারেক মো. রওনাক আখতার বলেন, বন্যার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ইসলামপুর উপজেলায় ১২টি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এবং মেলান্দহ উপজেলায় ২ টি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

জামালপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. রফিকুল ইসলাম জানান, দেওয়ানগঞ্জের যমুনার বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৬৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। আরো কয়েকদিন পানি বৃদ্ধির আশংকা রয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: জামালপুর

আরও খবর



দেশে ফিরেছেন ৫৬ হাজার ৩৩১ হাজি, মৃত্যু বেড়ে ৬২

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পবিত্র হজ পালন শেষে এখন পর্যন্ত ৫৬ হাজার ৩৩১ হাজি দেশে ফিরেছেন। এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৬২ জন। সোমবার (৮ জুলাই) হজ পোর্টালের সবশেষ বুলেটিনে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে জানানো হয়, সৌদি থেকে ১৪৪টি ফ্লাইটে এসব হাজি বাংলাদেশে এসেছেন। এর মধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ৬৬টি ফ্লাইটে ২৪ হাজার ১৪৪ জন, সৌদি এয়ারলাইনসের ৫২টি ফ্লাইটে ১৯ হাজার ৭০২ এবং ফ্লাইনাস এয়ারলাইনস ২৬টি ফ্লাইটে ৯ হাজার ৭১৫ হাজি দেশে ফিরেছেন।

চলতি বছর হজ পালন করতে গিয়ে এখন পর্যন্ত ৬২ জন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে পুরুষ ৪৯ এবং নারী ১৩ জন।

হজ শেষে গত ২০ জুন থেকে দেশে ফেরার ফ্লাইট শুরু হয়। ওইদিন বাংলাদেশ বিমানের প্রথম ফিরতি ফ্লাইট ৪১৭ হাজি নিয়ে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। আগামী ২২ জুলাই পর্যন্ত হাজিদের ফিরতি ফ্লাইট অব্যাহত থাকবে।

এদিকে, আগামী বছর (২০২৫) বাংলাদেশের জন্য এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জনের কোটা দিয়েছে সৌদি আরব।

বিষয়টি নিশ্চিত করে হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম জানান, নির্ধারিত সংখ্যার মধ্যে কতজন সরকারি ব্যবস্থাপনায় আর কতজন বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যাবেন তা বাংলাদেশ সরকার পরে নির্ধারণ করে দেবে।


আরও খবর
রাজধানীতে তাজিয়া মিছিল শুরু

বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪

আজ পবিত্র আশুরা

বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪




আদানির প্রথম ইউনিট থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু

প্রকাশিত:সোমবার ০১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০১ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ভারতের আদানি গ্রুপের কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রর একটি ইউনিট উৎপাদনে এসেছে৷ আজ সোমবার ভোরে একটি ইউনিট চালু হয়৷ এতে প্রথমে সকাল ১০টায় ৫১০, পরে ১১টা থেকে ৭০০ মেগাওয়াটের মতো বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয় বলে জানা গেছে।

এর আগে গত শুক্রবার কেন্দ্রটি থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়। ঝাড়খণ্ডে নির্মিত এই কেন্দ্র থেকে বাংলাদেশে প্রায় দেড় হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করা হয়। কয়েক দিন থেকে কেন্দ্রটিতে আংশিক উৎপাদন হচ্ছিল।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) সূত্রে জানা গেছে, রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ঈদের ছুটিতে কেন্দ্রের প্রথম ইউনিটটির উৎপাদন বন্ধ করা হয়। এটি ৫ জুলাই উৎপাদনে ফিরতে পারে।

কারিগরি ত্রুটির কারণে ২৫ জুন থেকে দ্বিতীয় ইউনিটের উৎপাদন অর্ধেকে নেমে এসেছিল। ধীরে ধীরে উৎপাদন বাড়ানোর প্রক্রিয়া চলছিল। কিন্তু শুক্রবার সকাল পৌনে ১০টায় উৎপাদন পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়।

দেশের কয়েকটি বড় বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উৎপাদন কমে যাওয়ায় এবং প্রচন্ড গ্যাস সংকটের কারণে গ্যাসভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন কমে যাওয়ায় দেশে প্রচন্ড লোডশেডিং চলছে। দেশীয় উৎপাদিত গ্যাসের সঙ্গে বিদেশ থেকে এলএনজি আমদানি করে গ্যাসের যোগান মেটানো হয়। তবে সামিট গ্রুপের ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল বিকল হয়ে প্রায় এলএনজি সরবরাহ অর্থেকে নেমে আসে। ফলে গ্যাস সংকট চলছে।


আরও খবর
মেট্রোরেল চলাচল পুরোপুরি বন্ধ

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




প্রশ্ন ফাঁসের খবর উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: পিএসসি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৯ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আবারও প্রশ্নবিদ্ধ হলো বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি থেকে প্রশ্ন ফাঁস হওয়ার অভিযোগ ওঠার পর তারা নিজেরাই বলছে, পিএসসিকে প্রশ্নের মুখে ফেলে দিয়েছে। তবে গণমাধ্যমে যে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে তা বস্তুনিষ্ঠ মনে করছে না। বরং নিউজকে উদ্দেশ্যে প্রণোদিত বলছে। এ বিষয়ে পিএসসি চেয়ারম্যান মো. সোহরাব হোসাইন সাংবাদিকদের বলেছেন, আমরা অভিযোগ তদন্ত করব। এজন্য কমিটি গঠন করা হবে। অভিযোগ প্রমাণ হলে করণীয় ঠিক করা হবে কমিশনের সভায়।

এর আগে ২৪তম বিসিএস পরীক্ষার সময় প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ উঠেছিল। একই ভাবে ২৫, ২৬ ও ২৭তম বিসিএসেও প্রশ্ন ফাঁস হয়। পরবর্তী সময়ে ড. সাদাত হোসাইনের নেতৃত্বাধীন কমিশন এসে প্রশ্ন ফাঁস নিয়ন্ত্রণ করে। এরপর দুই-এক বার প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ উঠেছিল। কিন্তু এবারই প্রথম প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় বড় একটি সিন্ডিকেটের সদস্যদের গ্রেফতার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। এতে ভার্বমূতির সংকটের পড়েছে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি।

পিএসসির একাধিক সদস্য জানিয়েছেন, গণমাধ্যমে যে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে তাতে বলা হয়েছে গত ৫ তারিখে অনুষ্ঠিত রেলের উপসহকারী প্রকৌশলী পদের নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন আগের রাতে ফাঁস হয়েছে। নন-ক্যাডারের পরীক্ষার প্রশ্ন করা হয় চার সেট। পরীক্ষার আধাঘণ্টা আগে কোন সেটে প্রশ্ন হয় তা লটারি করা হয়, পরে তা পরীক্ষার কেন্দ্রে ও হলে জানানো হয়। তাই কোন সেটে প্রশ্ন হচ্ছেতা আগের রাতে জানা অসম্ভব। পরীক্ষার আগে যদি প্রশ্ন ফাঁসও হয়, তাহলে ঐ অল্প সময়ে সেট জেনে তা পরীক্ষার্থীকে পড়িয়ে প্রস্তুত করে পরীক্ষা কেন্দ্রে এসে পরীক্ষা দেওয়ার বিষয়টি কতটা যুক্তিসংগত, তা নিয়ে প্রশ্ন থাকছে। প্রশ্নের সেট লটারি করার যন্ত্র ঘুরিয়ে লটারি করে যেটি ওঠে আসে সেটিতেই পরীক্ষা হয়। এখানে কারো হাত নেই। তাই প্রশ্ন যদি ফাঁস হতেই হয় তাহলে চার সেট প্রশ্নই ফাঁস হতে হবে। এই পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের কোনো অভিযোগ আমাদের কাছে আসেনি।

৩৩তম বিসিএস থেকে শুরু করে ৪৬তম বিসিএসের প্রশ্নও ফাঁস করেছে একটি চক্রএ বিষয়ে জানতে চাইলে পিএসসির দুই কর্মকর্তার এক জন বলেন, বিসিএসের বেলায় পিএসসির কোনো প্রশ্ন নিয়ে কোনো অভিযোগ আগে আসেনি।

প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়ে মন্তব্য জানতে চাইলে পিএসসির সদস্য হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, পিএসসি একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান। এর মর্যাদা রক্ষা করা আমাদের সবার দায়িত্ব। প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগের প্রতিবেদন আমি দেখেছি। আমরা অভিযোগ খতিয়ে দেখছি। আর ফাঁসের বিষয়টি প্রমাণ হলে কী হবেসেটি কমিশনের সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।


আরও খবর
মেট্রোরেল চলাচল পুরোপুরি বন্ধ

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




১০ লাখ টাকা চুরি, ১ লাখ টাকা খরচের পর ধরা পড়লো চোর

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

Image

টাঙ্গাইলে ১০ লাখ টাকা চুরির রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আন্তঃজেলা চোরচক্রের এক সদস্য গ্রেফতারসহ ৯ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

সোমবার (১৫ জুলাই) সকালে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিং এর মাধ্যমে টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার মোঃ গোলাম সবুর এ তথ্য জানিয়েছেন।

এসময় পুলিশ সুপার জানায়, গত ১১ জুলাই দুপুর ১২ টার দিকে অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক ডাক্তার রতন চন্দ্র সাহা সোনালী ব্যাংক টাঙ্গাইল শাখা হতে তার সঞ্চয় পত্র হতে ১১ লাখ ৫২ হাজার ৮০১ টাকা উত্তোলন করে বাসার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। পরে শহরের ললিতা ফার্মেসীর সামনে থেকে তার ব্যাগে থাকা ১০ লাখ টাকা চুরি হয়ে যায়। এ ঘটনায় ওই চিকিৎসক টাঙ্গাইল সদর থানায় ওইদিনই গত বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পেয়ে তদন্তে নামেন আইনশৃংখলাবাহিনী।

তদন্তে এই চুরি সাথে জড়িত ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার উত্তর কাঠীপাপাড়া গ্রামের মৃত ফটিক মাঝির ছেলে মোঃ শহিদ মাঝির (৫৩) নাম বের হয়ে আসে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত রোববার (১৪ জুলাই) ঝালকাঠি থেকে মো. শহিদ মাঝিকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে শহিদ টাকা চুরির কথা স্বীকার করেন এবং তার বাড়ি থেকে চুরি হওয়া ৯ লাখ টাকা উদ্ধার করে পুলিশ। বাকি এক লাখ টাকা শহিদ মাঝি খরচ করেছেন বলে পুলিশকে জানিয়েছেন।

তিনি আরো জানান, গ্রেপ্তারকৃত শহিদ মাঝিকে আদালতে হাজির করা হবে।


আরও খবর