আজঃ মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্মপরিকল্পনা ২০২৩-২০২৪ এর আওতায় গণশুনানী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

Image

বিআরটিসির তেজগাঁও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট চত্বরে গতকাল বুধবার জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্মপরিকল্পনা ২০২৩-২০২৪ এর আওতায় গণশুনানি আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী। সভাপতি ছিলেন বিআরটিসির চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম (অতিরিক্ত সচিব)।

আরো উপস্থিত ছিলেন বিআরটিসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ, স্টেকহোল্ডারগণ, বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সংবাদকর্মী, শিক্ষার্থী ও সাধারণ যাত্রীসহ অনেকে।

আলোচনা সভা সঞ্চালনা করেন মোহাম্মাদ সাইদুর রহমান (উপসচিব), জিএম (প্রশা ও পার্সো.)। স্বাগত বক্তব্য দেন বিআরটিসি চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম (অতিরিক্ত সচিব)। তিনি বলেন, এ অনুষ্ঠানের মূল উদ্দেশ্য সেবার মান আরও কিভাবে বৃদ্ধি করা যায়, সে বিষয়ে আলোচনা এবং সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে যথাযথ পদক্ষেপের মাধ্যমে সমাধান করে বিআরটিসির সেবার মান বৃদ্ধি করা। ২০২১ সালের পূর্বে বিআরটিসি কখনো লাভজনক প্রতিষ্ঠান হতে পারেনি। মন্ত্রী মহোদয় ও সচিব মহোদয়ের নির্দেশনায় বিভিন্ন পলিসি গ্রহণের মাধ্যমে বর্তমানে বিআরটিসি লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরিত হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বিআরটিসির মুখ্য উদ্দেশ্য হলো সর্বোচ্চ সেবা প্রদান করা। পাশাপাশি লাভ করা, কেননা আয় করে বেতন দিতে হয়। পূর্বে নতুন গাড়ি আসা সত্ত্বেও কোনো প্রাপ্য সুযোগ-সুবিধা পেত না বরং মাসের পর মাস কর্মচারীদের বেতন বকেয়া থাকত।

২০২৩ সালে দীর্ঘ ২৩ বছর পর বিআরটিসিতে শ্রান্তি বিনোদন ভাতা প্রদান করা হয়। ইতোমধ্যে নগর পরিবহন সেবা, মেট্রোরেল সার্ভিস, পর্যটক বাস সার্ভিস সেবা, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েতে বাস সার্ভিস, স্মার্ট স্কুল বাস সার্ভিস সেবা চালু হয়েছে। ঢাকা শহরে শৃঙ্খলা আনয়নে নগর পরিবহনের ২১ ও ২৬ নম্বর রুটে প্রচুর ঘাটতি দিয়ে বিআরটিসি বাস চলাচল করছে। কোরিয়া থেকে ৩৪০টি সিএনজি বাস আসলে আরো উন্নত সেবা প্রদান সম্ভব হবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী বলেন, আজ আমরা সেবাগ্রহীতাদের কাছ থেকে শুনব। সেবার মান আর কিভাবে বৃদ্ধি করা যায়, সেবা দেওয়াই বিআরটিসির মুখ্য উদ্দেশ্য। হরতাল ও অবরোধের মধ্যেও বিআরটিসির ৪০০ ট্রাকসহ অধিকাংশ বাস চলাচল করছে।

গণশুনানিতে রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস খান বলেন, বিআরটিসির সেবার মান উন্নত হয়েছে জেনে আমি খুব খুশি হয়েছি। তিনি চালক এবং হেলপারদের মার্জিত ব্যবহারের জন্য অনুরোধ জানান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী অনিক বলেন, বিআরটিসির লাল বাসে চড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে যাই এটি খুবই ভালো লাগে। তিনি বিআরটিসির স্টাফ বাসে ভিটিএস চালু করার অনুরোধ জানান। মিডিয়াকর্মী শিমুল খান বিআরটিসি চালকদের ওভারটেকিং না করার পরামর্শ দেন।

অবশেষে বিআটিসির চেয়ারম্যান ও সচিব সেবা গ্রহীতাদের পরামর্শগুলো মনোযোগ দিয়ে শোনেন। প্রশ্নোত্তর পর্বে চেয়ারম্যান বলেন দক্ষ চালক তৈরির জন্য প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। বিআরটিসির বিভিন্ন ডিপো/ ইউনিটসহ বাস এবং ট্রাক পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ড্রাইভার এবং হেলপারদের আচরণ পরিবর্তন করার জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।

বিআরটিসির পরিচালক(অর্থ ও হিসাব) ড. অনুপম সাহা (যুগ্মসচিব) প্রধান অতিথিসহ উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সেবার মান বৃদ্ধি করার জন্য গণশুনানির আয়োজন করে যে অভিযোগ ও পরামর্শ পাওয়া গেছে সেগুলো সচিব ও চেয়ারম্যানের নির্দেশনা মোতাবেক সমাধান করার চেষ্টা করা হবে। প্রতিষ্ঠানের স্বচ্ছতা ও শুদ্ধতা নিশ্চিত করার মাধ্যমে সর্বোচ্চ লক্ষ্য পৌছানোর যে প্রয়াস সেটা অব্যাহত থাকবে।

নিউজ ট্যাগ: বিআরটিসি

আরও খবর



ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে প্রায় ১০.৭৩ কেজি স্বর্ণ জব্দ

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ভারত-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সীমান্ত থেকে ১০.৭৩ কেজি স্বর্ণ জব্দ করেছে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিএসএফ। জব্দকৃত এই স্বর্ণের আন্তর্জাতিক বাজার মূল্য প্রায় ৬.৭০ কোটি রুপি। বিএসএফ জানিয়েছে সাম্প্রতিককালে একটি মাত্র ঘটনায় এত বিপুল পরিমাণ অর্থমূল্যের স্বর্ণ এর আগে জব্দ করা যায়নি।

রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) বিএসএফএর দক্ষিণবঙ্গ ফ্রন্টিয়ারের অন্তর্গত ৩২ নম্বর ব্যাটালিয়নের বিএসএফ সদস্যরা পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার হোরান্দিপুর সীমান্ত চৌকি এলাকায় অভিযান চালিয়ে এই স্বর্ণ উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃত মালামালের মধ্যে ১৬টি বড় আকৃতির স্বর্ণের বার ও ৪টি ছোট আকৃতির স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। জব্দ করা স্বর্ণের ওজন আনুমানিক ১০ কেজি ৭৩৭ গ্রাম এবং এর আনুমানিক মূল্য ৬ কোটি ৬৯ লাখ ৪৬ হাজার ৫০৪  রুপি। পাচারকারী সন্দেহে এক চোরাকারবারীকেও আটক করা হয়েছে। চোরাকারবারীরা এসব স্বর্ণ বাংলাদেশ থেকে ভারতে পাচারের চেষ্টা করছিল বলে জানা গেছে।

বিএসএফ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়ার সাথে সাথে কমান্ডারের নেতৃত্বে সদস্যদের দুটি দল রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সন্দেহজনক এলাকায় অতর্কিত অভিযান চালায়। দুপুর প্রায় ১.৩০ মিনিট নাগাদ দুই সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে গোপনে ভুট্টা ক্ষেতে আসতে দেখে। তারা কাছাকাছি আসলে সদস্যরা তাদের থামাতে বললে তারা দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। কিন্তু এক ব্যক্তি পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও অন্যজন ধরা পড়ে। এরপর ওই ব্যক্তিকে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে তল্লাশি করার সময় তার কোমরে বাঁধা কাপড়ের পুঁটলির ভেতর থেকে বিভিন্ন আকারের ২০ টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়।

আটক করা হয় ইমাদুল বিশ্বাস নামে পাচারে অভিযুক্ত ভারতীয় ব্যক্তিকেও, তার বাড়ি নদীয়া জেলার ভীমপুর থানার অধীন মালুয়াপাড়া গ্রামে।

জিজ্ঞাসাবাদে ইমাদুল জানায়, সে এবং তার এক সহযোগী রাজু মন্ডল বাংলাদেশের আলমগীরের কাছ থেকে এই স্বর্ণ গ্রহণ করে। মালুয়াপাড়া এলাকায় প্রসেনজিত বিশ্বাসের হাতে সেই স্বর্ণ তুলে দিতেই তারা যাচ্ছিল।

পরবর্তী আইনি প্রক্রিয়ার জন্য গ্রেফতারকৃত চোরাকারবারি এবং জব্দ করা স্বর্ণ কলকাতার ডিরেক্টরেট অফ রেভিনিউ ইন্টেলিজেন্স (ডিআরআই) এর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সাম্প্রতিককালে সীমান্তে একের পর এক স্বর্ণ উদ্ধারের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বিএসএফ। যদিও বিএসএফের ডিআইজি (জনসংযোগ) এ কে আর্য জানিয়েছেন, সীমান্তে বাহিনীর কড়া নজরদারির ফলে এই চোরাচালান রুখে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে। এজন্য সদস্যদের কাজের প্রশংসাও করেছেন তিনি।


আরও খবর
বিশ্ববাজারে আবারো কমেছে জ্বালানি তেলের দাম

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পিরোজপুরে মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মলীগ সভাপতিকে কুপিয়ে জখম

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মশিউর রাহাত (পিরোজপুর)

Image

পিরোজপুর শহরতলীর নামাজপুর এলাকায় নৌকার এজেন্ট ও জেলা মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মলীগের সভাপতি ফয়সাল আকনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) রাতে শহরতলীর নামাজপুরে ইমরুল কায়েসের দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ বিচারের দাবিতে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। এ সময় সন্ত্রাসীদের মদদদাতাসহ দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে তারা। ফয়সাল আকন মধ্য নামাজপুরের মোফাজ্জেল আকনের ছেলে।

ফয়সালের পারিবারের অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ফয়সাল বাড়ি থেকে বের হওয়া মাত্রই স্বতন্ত্র প্রার্থী একেএম আউয়ালের ঈগল প্রতীকের সমর্থক (ক্যাডার) সাইদুল ফরাজি, মিজান, সাইদুল ফকির ও ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী জামালসহ আরও ১০-১২ জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এতে গুরুতর আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে সন্ত্রাসীরা তাকে মৃত ভেবে ফেলে রেখে চলে যায়। ঘটনার পর এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কর্তব্যরত ডাক্তার প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফয়সালকে খুলনায় পাঠিয়ে দেন।

জেলা হাসপাতালের চিকিৎসক আরিফ হাসান জানান, রোগীর অবস্থা যথেষ্ট সংকটাপন্ন। তার মাথা, গাল, পিঠের নিচে থেকে পাকস্থলির কিছু অংশ বের হয়ে এসেছে। ডান হাতের পেশি পুরাপুরি কেটে গেছে। বাম হাতের তর্জনীর মাঝখানের অংশটা সম্পূর্ণ পড়ে গেছে। এতে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। আমরা প্রথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে খুলনা পাঠিয়েছি।

এ ব্যাপারে পিরোজপুর সদর থানার ওসি তদন্ত মোহাম্মদ জুলফিকার বলেন, আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ভিকটিমের বাবার সঙ্গে কথা বলেছি। আসামি গ্রেপ্তারের জন্য আমাদের একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে। গ্রেপ্তার না হওয়া পর্যন্ত আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




গুগল ওয়ানের সাবস্ক্রাইবার ১০০ কোটি ছাড়াল

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক

Image

গুগল ওয়ানের সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা ১০০ কোটি ছাড়াল। এক্স (টুইটার) প্ল্যাটফর্মে গত শুক্রবার গুগলের সিইও সুন্দর পিচাই এই এ তথ্য জানান।

সম্প্রতি গুগল ওয়ানে একটি নতুন সাবস্ক্রিপশন প্ল্যান যোগ করার জন্য কোম্পানিটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা এআইভিত্তিক চ্যাটবট বার্ডের নাম পরিবর্তন করে জেমিনি রেখেছে। তাই এই সময়ে সাবস্ক্রাইবার সংখ্যার এই বৃদ্ধি কোম্পানির জন্য একটি মাইলফলক হয়ে দাঁড়িয়েছে।

টেক জায়ান্ট গুগলের বিভিন্ন পণ্যের (ডকস, জিমেইল, ফটোজ, ড্রাইভ, ম্যাপস) অতিরিক্ত স্টোরেজ ও উন্নত ফিচার ব্যবহারের সুবিধা এক প্ল্যাটফর্মে আনতেই গুগল ওয়ানের যাত্রা শুরু। ২০১৮ সালের মে মাসে এই সেবার উন্মোচন করে গুগল। মাত্র কয়েক বছরের মধ্যেই প্ল্যাটফর্মটির সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা এত বাড়ল।

এ ছাড়া কোম্পানিটির নতুন এআই প্রিমিয়াম প্ল্যানে সাবস্ক্রিপশন করলে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ভিত্তিক বিভিন্ন ফিচার ব্যবহারের সুযোগ দেবে গুগল।

গুগল ক্লাউডে ১৫ জিবি স্টোরেজ বিনা মূল্যে ব্যবহার করা যায়। একটি অ্যাকাউন্টের বিপরীতে জিমেইল, ড্রাইভ ও ম্যাপসসহ বিনা মূল্যের সব অ্যাপের জন্য মোট ১৫ জিবি ক্লাউড স্টোরেজ দেয় গুগল।

তবে গুগল ওয়ানের নির্দিষ্ট প্ল্যান সাবস্ক্রাইব করলে অতিরিক্ত স্টোরেজের পাশাপাশি গুগল ফটোজের এডিটিং ফিচার, স্টোরেজে শেয়ারিং অপশন, গুগল ওয়ান ভিপিএনসহ বিভিন্ন সুবিধা পাওয়া যায়।

গুগল ওয়ানের বেসিক প্ল্যানের জন্য প্রতি মাসে ১ দশমিক ৯৯ ডলার, প্রিমিয়াম প্ল্যানের জন্য ৯ দশমিক ৯৯ ডলার যুক্তরাষ্ট্রের গ্রাহকদের খরচ করতে হবে। আর নতুন এআই প্রিমিয়াম প্ল্যানের দাম মাসিক ১৯ দশমিক ৯৯ ডলার। এআই প্রিমিয়াম প্ল্যানে জেমিনি অ্যাডভান্স মডেলের বিভিন্ন ফিচার ডকস, জিমেইলসহ গুগলের অন্যান্য অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করা যাবে। সেই সঙ্গে গুগল মিটের ভিডিও কলের মানও উন্নত হবে।

গুগলের চ্যাটবট মডেল জেমিনি প্রো ১.০ প্ল্যান ইউরোপের গ্রাহকদের জন্য গত সপ্তাহে উন্মোচন করা হয়েছে। এটি বিনা মূল্যে ব্যবহার করা যাবে। কানাডাতেও এই ভার্সন চালু করা হয়েছে। শিগগিরই অন্যান্য দেশেও এই ফ্রি প্ল্যান চালু করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 


আরও খবর



শরীর নিয়ে কটাক্ষ পরিচালকের, জবাবে যা বলেন ম্রুনাল ঠাকুর

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

দক্ষিণ ভারতের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ম্রুণাল ঠাকুর। দক্ষিণী সিনেমা সীতা রামম থেকে হাই নান্নার মতো জনপ্রিয় সিনেমা দিয়ে দর্শক থেকে সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছেন। তবে নিজের শারীরিক গড়ন নিয়ে ক্যারিয়ারে কিছু ঘটনার সম্মুখীন হতে হয়েছে অভিনেত্রীকে। এমন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি নিয়ে এবার মুখ খুললেন তিনি।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বডি শেমিং নিয়ে কথা বলেছেন ম্রুণাল। তিনি জানান, এক পরিচালক একবার মুখের ওপর তাঁকে বলেন, সে দেখতে একটুও সেক্সি নয়। অভিনেত্রী তখন পালটা জানতে চান, মন্তব্যটি কি তাঁর অভিনীত চরিত্রটির জন্য নাকি পরিচালক বাস্তব জীবনে ম্রুণালকে দেখে এ মন্তব্য করেছেন।

ম্রুণালের প্রশ্নে পরিচালক তখন জবাব দেন, হ্যাঁ, খুব সেক্সি একটা চরিত্র। তুমি তো এর ধারেকাছেও নেই। ম্রুনাল ছেড়ে দেওয়ার পাত্রী নন, পরিচালককে তখন লুক টেস্ট নেওয়ার কথা বলেন অভিনেত্রী। ফটোশুটের শুরুতে ফটোগ্রাফারও অপমান করেন ম্রুণালকে। বলে ওঠেন, এই গেঁয়ো মেয়েটা কে? মুখে জবাব দেননি ম্রুনাল, জবাব দিয়েছেন কাজে। পরে মত বদলে ক্ষমা চান ওই ফটোগ্রাফার। ম্রুণালের কথায়, অভিনেতা হিসেবে জরুরি হল ন্যাচারাল থাকা। হাসিমুখে তিনি বলেন, যখন সেক্সি কথাটা বলা হয়, আর সেটা যদি আমি ভাবি, তাহলে আমার পায়ের মরা চামড়াও তখন সেক্সি লাগবে।

যৌন আবেদন ব্যাপারটা সবার কাছে সমান নয় জানান অভিনেত্রী। ম্রুনাল যোগ করেন, আমি একবার একটা গান করেছিলাম। সেখানে লোকজন বলছিল আমাকে ওজন কমাতে হবে। আমি পালটা বলি, আমার থাই মোটা এবং সেটা একান্ত আমার নিজের। সেটা নিয়ে যদি আমার কোনও সমস্যা না হয়, তাহলে আপনাদের সমস্যাটা কোথায়?

উল্লেখ্য, ২০২৩ সালে একাধিক কাজে দেখা গেছে ম্রুণালকে। এ বছরই বিজয় দেবেরাকোন্ডা এবং পরিচালক পরশুরাম পেটলার সঙ্গে ফ্যামিলি স্টারে অভিনয় করবেন তিনি। এ ছাড়াও সামনে তাঁকে পূজা মেরি জান সিনেমায়ও দেখা যাবে।


আরও খবর
ফের বিয়ে করছেন অনুপম রায়, পাত্রী কে?

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বেআইনি বিয়ের দায়ে ইমরান খান ও বুশরা বিবির ৭ বছরের কারাদণ্ড

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

এবার বিয়ের কারণে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) নেতা ইমরান খান ও তার স্ত্রী বুশরা বিবিকে ৭ বছর কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে করা হয়েছে জরিমানাও। এর আগে তোশাখানা মামলায় উভয়কে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

জাতীয় নির্বাচনের মাত্র পাঁচ দিন আগে শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) এই রায় দিয়েছে পাকিস্তানের একটি আদালত। রায়ে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালে বুশরা বিবির সাথে ইমরান খানের হওয়া বিয়েতে আইন লঙ্ঘন হয়েছে।

চলতি সপ্তাহে আদালতের পক্ষ থেকে ইমরান খানের বিরুদ্ধে এটা তৃতীয় কোনো রায়। ৭১ বছর বয়সী পিটিআই নেতা এখন কারাগারে রয়েছেন। ফলে তিনি আসন্ন নির্বাচনে অংশ নিতে পারছেন না।

নির্বাচন সামনে করে রাষ্ট্রীয় গোপন নথি প্রকাশ করার অভিযোগে করা মামলায় তাকে ও তার বিশ্বস্ত সহযোগী সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশিকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়।

গত ৩০ জানুয়ারি আদিয়ালা কারাগারে দুই নেতার উপস্থিতিতে দফতর গোপনীয়তা আইনে গঠিত বিশেষ আদালতের বিচারক আবুল হাসনাত জুলকারনাইন এ রায় ঘোষণা দেন। পরদিন ৩১ জানুয়ারি রাষ্ট্রীয় উপহার বিক্রির অভিযোগে (তোশাখানা মামলা) ইমরান খান ও তার স্ত্রী বুশরা বিবিকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়। ইসলামাবাদের জবাবদিহিতা আদালতের (অ্যাকাউন্টিবিলিটি কোর্ট) বিচারক মুহাম্মদ বশির এ রায় দেন।

তিনদিন পর দেয়া হলো বিয়ে সম্পর্কিত মামলার রায়। রায়ে ইমরান ও তার স্ত্রী বুশরাকে সাত বছর করে কারাদণ্ডের পাশাপাশি ৫ লাখ রুপি জরিমানা করা হয়েছে।

২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসে বুশরা বিবিকে বিয়ে করেন ইমরান খান। এটা তার তৃতীয় বিয়ে। নির্বাচনে বড় জয় ও প্রধানমন্ত্রী হওয়ার মাত্র সাত মাস আগে অনেকটা গোপনে এক পারিবারিক অনুষ্ঠানে ইমরান খান ও বুশরা বিবির বিয়ে হয়।

এরপর গত ছয় বছর ধরে সংসার করছেন এই দম্পতি। এতদিন পর সম্প্রতি নির্বাচন সামনে করে ইমরান খান ও বুশরার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন বুশরা বিবির সাবেক স্বামী খাওয়ার ফরিদ মানেকা। তার অভিযোগ, বুশরা বিবি ইদ্দত পালন করেননি এবং ইদ্দত পালন না করেই বিয়ে করার মাধ্যমে তারা ব্যভিচার করেছেন।

ইসলামি শরিয়া আইন অনুসারে, স্ত্রীর তালাক হলে বা তার স্বামীর মৃত্যু হলে যে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য স্ত্রীকে এক বাড়িতে থাকতে হয় কিংবা তিনি অন্য কোথাও যেতে পারেন না বা অন্য কোথাও বিয়ে করতে পারেন না; সেই সময়কালকে ইদ্দত বলা হয়।

তবে এই অভিযোগ দুজনই নাকচ করে দিয়েছেন। এরপরও মামলা চলে এবং গত মাসে এর শুনানি শুরু হয়। গত ১৬ জানুয়ারি রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা কারাগারে বিশেষ ব্যবস্থায় কারাবন্দী ইমরান খানকে উপস্থিত রেখে এই মামলার অভিযোগ গঠন করেন বিচারক। তবে স্বাস্থ্যগত কারণে বুশরা বিবি উপস্থিত ছিলেন না।


আরও খবর
বিশ্ববাজারে আবারো কমেছে জ্বালানি তেলের দাম

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪