আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

জামালপুরে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:সোমবার ২০ জুন ২০22 | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জামালপুরে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। এতে প্লাবিত হয়েছে জেলা সব উপজেলার নিম্নাঞ্চল। রোববার (১৯ জুন) সন্ধ্যা পর্যন্ত যমুনা নদীর বাহাদুরাবাদ পয়েন্টে পানি বেড়ে বিপৎসীমার ৩২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল বলে জানিয়েছেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) জামালপুর কার্যালয়ের পানি পরিমাপক আবদুল মান্নান।

পাউবো সূত্র জানিয়েছে, পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে আরও দু-একদিন। পানি বাড়ার ফলে দেওয়ানগঞ্জ, ইসলামপুর, মেলান্দহ, মাদারগঞ্জ, সরিষাবাড়ী, বকশিগঞ্জসহ জামালপুর সদর উপজেলার নতুন নতুন এলাকা বন্যার পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে। আর নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে ছুটছে সাধারণ মানুষ।

এদিকে বন্যার পানিতে এ পর্যন্ত ৫০৪ হেক্টর জমির ফসল নিমজ্জিত হয়েছে। এর মধ্যে আউশ ধান ৬৪ হেক্টর, পাট ৩৭০ হেক্টর, শাকসবজি ৫৯ হেক্টর ও মরিচ ১১ হেক্টর। এসব তথ্য জানিয়েছেন জামালপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক জাকিয়া সুলতানা।

ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তানভীর হাসান জানান, পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় তা লোকালয়ে ঢুকছে। দুর্গম ও চরাঞ্চলে খোঁজখবর রাখা হচ্ছে, কোনো পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়ছে কি না। বন্যা মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

জামালপুর জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো.আলমগীর হোসাইন জানান, বন্যা মোকাবিলায় প্রতিটি উপজেলায় ৫০ মেট্রিক টন চাল ও ১ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। শুকনা খাবারের বরাদ্দও পাওয়া গেছে। দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় দুটি স্কুলে বেশ কিছু পরিবার আশ্রয় নিয়েছে। তাদের মধ্যে দুই মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়েছে। 


আরও খবর



অবশেষে বিচ্ছেদের ঘোষণা দিলেন পিকে-শাকিরা

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৪ জুন ২০২২ | ৩৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কলম্বিয়ান সুপারস্টার শাকিরা ও বার্সেলোনার ডিফেন্ডার জেরার্ড পিকে শনিবার তাদের দীর্ঘদিনের সম্পর্কের ইতি টানার ঘোষণা দিয়েছেন। বার্তা সংস্থা এএফপি শনিবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

এক যৌথ বিবৃতিতে সদ্য বিচ্ছেদের পথে হাঁটা এই তারকা জুটি জানান, আমরা দুঃখিত যে আমরা আমাদের বিচ্ছেদের বিষয়টি নিশ্চিত করছি। আমাদের সর্বাধিক অগ্রাধিকার, আমাদের সন্তান। তাদের ভালোর জন্য আমরা আমাদের গোপনীয়তাকে সম্মান জানানোর অনুরোধ করছি।

অবশ্য যতটা সোজাসাপ্টা ভাবে তারা বিচ্ছেদের ঘোষণা দিয়েছেন, বিষয়টা মোটেও ততটা সহজ নয়।  শোনা যাচ্ছে পিকের পরকীয়াই বিচ্ছেদের পর্দা টেনে দিয়েছে এই যুগলের মাঝে।

এমনকি বিচ্ছেদের কারণে শাকিরাকে অ্যাংজাইটি অ্যাটাক কারণে হাসপাতালে পর্যন্ত যেতে হয়। অ্যাম্বুলেন্সে উঠার সময়ও নাকি জনপ্রিয় এই তারকা কাঁদছিলেন!

পিকে আর শাকিরার গল্পের শুরুটা ২০১০ সালে। সে বছর বিশ্বকাপ ফুটবলের থিম সং গেয়েছিলেন এই পপ তারকা। বিশ্ব আক্রান্ত হয়েছিল শাকিরা জ্বরে। সেই আঁচ লেগেছিল স্প্যানিয়ার্ড ডিফেন্ডার জেরার্ড পিকেরও। ১০ বছরের বড় শাকিরার সঙ্গে প্রণয়ে জড়ান তিনি। এরপর একই ছাদের নিচে কেটে গেছে ১২টি বছর। দুই সন্তানও রয়েছে এই দম্পতির। তবে টান কমে যাবে ভেবে বিয়ের পিঁড়িতে না বসলেও বন্ধনটা শেষমেস টুটেই গেল।

সম্প্রতি শাকিরার একটি গানে তাদের বিচ্ছেদের ইঙ্গিত ছিল। শাকিরা গানের নতুন অ্যালবামের কাজ নিয়ে ব্যস্ত। একটি নাচের অনুষ্ঠানের বিচারকও তিনি। পিকে বার্সেলোনার হয়ে খেলছেন ২০০৮ সাল থেকে। তিনি রক্ষণভাগের ফুটবলার হলেও বার্সেলোনার হয়ে লা লিগায় ২৯টি গোল করেছেন। স্পেনের হয়েও ১০২টি ম্যাচ খেলছেন পিকে।


আরও খবর



কুমিল্লায় পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ১১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১১ জুন ২০২২ | ৩৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলায় দুপুরে খাবারের পর ব্যস্ত পরিবার খেলতে গিয়ে নিজেদের ডোবাতে পড়ে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (১০ জুন) বিকাল ৪টায় বিপুলাসার ইউনিয়ন সাইকচাইল উত্তরপাড়া  এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মৃত দুই শিশু হলো- সাইকচাইল উত্তর পাড়া রুস্তম আলী বাড়ির মহিন উদ্দিনের মেয়ে ইফতিয়া আক্তার মীম (৭) ও প্রবাসী রুবেল মিয়ার মেয়ে রেহানা আক্তার রিয়া (৬)।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ইফতিয়া আক্তার মিম ও রেহানা আক্তার রিয়া শুক্রবার দুপুরের পরিবারের সঙ্গে খাওয়া দাওয়া শেষে খেলতে যায়। খাওয়ার শেষে এই দিকে মিম ও রিয়ার মা-বাবা সংসারের কাজে ব্যস্ত পড়েন। সবার অজান্তে বাড়ির সামনে ডোবাতে পড়ে যায় ওই দুই শিশু। বিকাল ৩ টায় ডোবায় দুই শিশুর লাশ ভেসে ওঠে। শিশুদের ভাসতে দেখে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে কর্মরত চিকিৎসকরা তাদেরকে মৃত ঘোষণা করেন।

পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন বিপুলাসার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহবুব।

নাথেরপেটুয়া পুলিশ ফাঁড়ির এসআই ডালিম রাতে জানান, পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু খবর শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি লাশ দাফনের কাজ শেষ হয়ে গেছে।


আরও খবর



ইতিহাসের এই দিনে ১১ জুন

প্রকাশিত:শনিবার ১১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১১ জুন ২০২২ | ৩৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ ১১ জুন ২০২২, শনিবার। ২৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ। গ্রেগরিয়ান বর্ষপঞ্জী অনুসারে বছরের ১৬২ তম (অধিবর্ষে ১৬৩ তম) দিন।

এক নজরে দেখে নিন ইতিহাসের এ দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

ঘটনাবলি:

১৪২৯ - ইয়ারগু যুদ্ধের মাধ্যমে শত বছরের যুদ্ধ (হানড্রেড ইয়ার্স ওয়ার)শুরু হয়।

১৪৮৮ - চতুর্থ জেমস স্কটল্যান্ডের রাজা নিযুক্ত।

১৫০৯ - ক্যাথরিনকে ইংল্যান্ডের রাজা ৮ম হেনরির বিয়ে।

১৭২৭ - দ্বিতীয় জর্জ ইংল্যান্ডের রাজা হিসেবে অভিষিক্ত।

১৭৬০ - মহীশুরের নবাব হায়দার আলির সঙ্গে ব্রিটিশদের যুদ্ধ শুরু হয়।

১৭৮৮ - রাশিয়ার অভিযাত্রী গেরাসিম ইসমাইলভ আলাস্কায় পৌঁছেন।

১৮৪৬ - মৌলবি ফরিদ উদ্দিন খাঁর সম্পাদনায় বহুভাষিক সাপ্তাহিক পত্রিকা জগদুদ্দীপক ভাস্কর’ প্রকাশিত হয়।

১৮৫৫ - বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক যন্ত্রপাতি ব্যবহারের মাধ্যমে প্রথম বারের মত সূর্য রশ্মির বিভাজন আবিস্কার করা হয়।

১৯৪২ - সোভিয়েত ইউনিয়ন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে ফ্যাসিবাদ বিরোধী সামরিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

১৯৬৩ - রাজা পলের ব্রিটেনে রাষ্ট্রীয় সফরের প্রতিবাদে গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী কনস্টান্টিন কারমানসিসের পদত্যাগ।

১৯৮১ - ইরানে ভূমিকম্পে দেড় হাজার লোক নিহত ।

১৯৯১ - নোবেল শান্তি পুরস্কার ভূষিত মাদার তেরেসা বাগদাদ সফরে যান।

২০০৭ - বাংলাদেশে চট্টগ্রাম মহানগরীতে ভয়াবহ প্লাবন ও পাহাড় ধ্বসের ঘটনায় কমপক্ষে ৮৪ জন নিহত হয়েছিল।

২০১৭ - চট্টগ্রামসহ রাঙামাটি ও বান্দরবানে দুই দিনের টানা বর্ষণে পাহাড় ধসের ঘটনায় কমপক্ষে ১২৫ জন নিহত হয়েছিল।

জন্ম:

১৫৭২ - ইংরেজ কবি নাট্যকার বেন জনসন।

১৮৯৭ - ভারতের বিপ্লবী রাম প্রসাদ বিসমিল।

১৮৯৯ - নোবেলজয়ী (১৯৬৮) জাপানি সাহিত্যিক ইয়াসুনারি কাওয়াবাতা।

১৯০১ - সাহিত্যিক ও প্রাবন্ধিক প্রমথনাথ বিশী।

১৯৪৭ - বিহারের রাজনীতিবিদ লালু প্রসাদ যাদব।

মৃত্যু:

১৮৬০ - পণ্ডিত ও গ্রন্থকার রামকমল ভট্টাচার্যের আত্মহত্যা।

১৯০৩ - সার্বিয়ার রাজা আলেকজান্ডার ও রানী দ্রাগা বেলগ্রেডে আততায়ীর হাতে নিহত।

১৯৩৬ - আমেরিকার লেখক রবার্ট ই. হাওয়ার্ড।

১৯৬২ - চলচ্চিত্র ও নাট্যাভিনেতা ছবি (শচীন্দ্রনাথ) বিশ্বাস।

১৯৭০ - নারীনেত্রী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ছাত্রী ও দেশব্রতী লীলা রায়ের (নাগ)।

নিউজ ট্যাগ: ইতিহাসে এই দিনে

আরও খবর
২১ জুন: ইতিহাসের এই দিনে

মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২




পুঁজিবাজারের জন্য ৩ ‘সুখবর’ থাকছে বাজেটে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ জুন 2০২2 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০২ জুন 2০২2 | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পুঁজিবাজারের জন্য তিন সুখবর নিয়ে আসছে আগামী ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট। যা বাজারে গতি ফেরাবে, নতুন নতুন কোম্পানি বাজারে আসতে উৎসাহিত হবে, বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগ করতে আকৃষ্ট হবেন, বাজারে স্থিতিশীলতা আসবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। পাশাপাশি বাড়বে সরকারের রাজস্ব। এগুলো হলো- করপোরেট কর হার কমানো, অপ্রর্দশিত অর্থ (কালো টাকা) বিনিয়োগের সুযোগ এবং ডলারের সংকট মেটাতে রপ্তানি পণ্যের জন্য রাখা হচ্ছে বিশেষ প্রণোদনা; যার বেশিরভাগই পাবে তৈরি পোশাক ও ওষুধ খাতের কোম্পানি।

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অর্থ উপদেষ্টা ও বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এবি মির্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, করপোরেট কর কমানো সুখবর। তবে ঢালাওভাবে না কমিয়ে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানির ক্ষেত্রে বেশি সুবিধা দিতে হবে। এতে ভালো কোম্পানি তালিকাভুক্ত হতে আগ্রহী হবে। কালো টাকা বিনিয়োগের সুযোগ দেওয়ার পর খুব বেশি অর্থ পুঁজিবাজারে যে আসছে তা নয়, তবে মনস্তাত্ত্বিকভাবে পুঁজিবাজারে ইতিবাচক প্রভাব পড়ে। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ডলারের সংকট মেটাতে রপ্তানি পণ্যের জন্য বিশেষ প্রণোদনা দেওয়ার বিষয়টি বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগের ক্ষেত্রে উৎসাহিত করবে বলে মনে করেন তিনি।

এ বিষয়ে বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, করপোরেট কর কমানো এবং অপ্রর্দশিত অর্থ বিনিয়োগের সুবিধাসহ বেশি কিছু বিষয় বাজেটে রাখার জন্য প্রস্তাব করেছি। দেশের অর্থনীতি, পুঁজিবাজার ও বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে আমরা সরকারের কাছে এই প্রস্তাব রেখেছি, আশা করছি বিষয়গুলো বাজেটে থাকবে।

বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (এমবিএ) সভাপতি ছায়েদুর রহমান বলেন, পুঁজিবাজারে ভালো কোম্পানি তালিকাভুক্ত করতে হলে করপোরেট কর হার কমাতে হবে। এক্ষেত্রে তালিকাভুক্ত ও অতালিকাভুক্ত কোম্পানির করপোরেট কর হারের ব্যবধান ন্যূনতম ১৫ শতাংশ রাখতে হবে। তাহলেই বিদেশি ও দেশি ভালো ভালো কোম্পানি পুঁজিবাজারে আসবে। শেয়ারহোল্ডাররা ভালো কোম্পানিতে বিনিয়োগ করতে পারবেন। করপোরেট কর ছাড়াও বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করতে দ্বৈত কর প্রত্যাহার করতে হবে। পাশাপাশি বিনা প্রশ্নে পুঁজিবাজারে অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগের সুযোগ অব্যাহত রাখতে হবে।

করপোরেট কর

আসন্ন বাজেটে করপোরেট কর ২ দশমিক ৫ শতাংশ কমানো হতে পারে। এক্ষেত্রে কোম্পানিগুলোর পরিশোধিত মূলধন ১০ শতাংশের বেশি প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজারে ছাড়তে হবে। পাশাপাশি বার্ষিক ১২ লাখ টাকা পর্যন্ত নগদ ব্যয় ও বিনিয়োগ ছাড়া সব ধরনের লেনদেন ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমে করতে হবে। বর্তমানে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সাধারণ কোম্পানির কর হার ২২ দশমিক ৫ শতাংশ থেকে আড়াই শতাংশ কমে ২০ শতাংশ করা হতে পারে। এক ব্যক্তির মালিকানার কোম্পানির কর ২৫ শতাংশ থেকে কমে ২২ দশমিক ৫০ শতাংশ করা হতে পারে।  পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংক-বিমা, মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস সেবাদানকারী কোম্পানি ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের করহার ৩৭ দশমিক ৫ শতাংশ। বর্তমানে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত নয় এমন কোম্পানির কর হার ৪০ শতাংশ, মার্চেন্ট ব্যাংকের করহার ৩৭ দশমিক ৫ শতাংশ রয়েছে। এছাড়া সিগারেট, বিড়ি, জর্দাসহ তামাকজাত কোম্পানির ৪৫ শতাংশ এবং মোবাইল অপারেটরদের কর হার ৪৫ শতাংশ। সেখান থেকে আড়াই শতাংশ কমিয়ে ৪২ দশমিক ৫০ শতাংশ করা হতে পারে।

কালো টাকা বিনিয়োগ

চলতি অর্থবছরের ৩০ জুন পর্যন্ত সময়ে বিনা প্রশ্নে পুঁজিবাজারে কালো টাকা (অপ্রদর্শিত অর্থ) বিনিয়োগের সুযোগ দেওয়া হয়েছে। ২০২১ সালের জুলাই থেকে গত এপ্রিল পর্যন্ত সময়ে মাত্র ২৮৬ জন বিনিয়োগের সুযোগ কাজে লাগিয়েছেন। প্রত্যাশা অনুসারে বিনিয়োগকারীরা কালো টাকা বিনিয়োগ না করায় নতুন অর্থবছর থেকে সাধারণ ক্ষমার (ট্যাক্স অ্যামনেস্টি) সুবিধা বাতিল করছে সরকার। তবে ২০২২-২৩ অর্থবছর থেকে আয়কর অধ্যাদেশের ১৯(ই) ধারা অনুযায়ী, নির্ধারিত করের অতিরিক্ত ১০ শতাংশ জরিমানা দিয়ে পুঁজিবাজারে কালো টাকা বিনিয়োগ করা যাবে। এক্ষেত্রে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এবং দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) কোনো প্রশ্ন করবে না এমন সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। এর ফলে বিনিয়োগকারীদের আর ন্যূনতম এক বছর পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ ধরতে রাখতে হবে এই নিয়ম থাকছে না। পাশাপাশি মিউচ্যুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগের বিধানও মানতে হবে না। চলতি বছরের বাজেটে অ্যামনেস্টি (সাধারণ ক্ষমা) সুবিধা বহাল রেখে ১০ শতাংশের পরিবর্তে নির্ধারিত করের অতিরিক্ত ৫ শতাংশ জরিমানা আরোপ করা হয়। যারা এই সুবিধা নিয়ে বিনিয়োগ করছেন তাদেরকে পুঁজিবাজারে ন্যূনতম এক বছর বিনিয়োগ রাখতে হচ্ছে। পাশাপাশি মিউচ্যুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করার নির্দেশ না রয়েছে।

বিশেষ প্রণোদনা

ডলার ও বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলা করে রপ্তানি পণ্যের বাজার সম্প্রসারণের লক্ষ্যে ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটে ৮ হাজার ৩০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে। যা আগের বছরের জন্য ছিল ৭ হাজার ৮২৫ কোটি টাকা। অর্থাৎ নতুন অর্থবছরে ৪৭৫ কোটি টাকা বরাদ্দ বাড়ানো হচ্ছে। রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক, চামড়া এবং ওষুধ খাতসহ ৪২টি পণ্যের কারখানাগুলো এ সুবিধা পাবে। এতে  ডলারের সংকটের ক্ষতি কিছুটা হলেও পুষিয়ে নিতে পারবেন ব্যবসায়ীরা।

নিউজ ট্যাগ: পুঁজিবাজার

আরও খবর



ভুল খাবার কি বধিরতা ডেকে আনতে পারে?

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৩ জুন ২০২২ | ৪২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শ্রবণশক্তি হ্রাস বয়স বাড়ার একটি অনিবার্য অংশ। তবে এর তীব্রতা সবার জন্য সমান নয়। শ্রবণশক্তি কখনও ধীরে খারাপ হয়, কখনও আকস্মিক প্রভাবেও কেউ কেউ হারাতে পারেন শ্রবণশক্তি। কিন্তু শ্রবণশক্তি হ্রাস পাওয়ার সঙ্গে পুষ্টি এবং খাদ্যাভ্যাসের কি কোনও যোগ রয়েছে?

বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে, কোনও একটি নির্দিষ্ট খাবার খেলে বা না খেলে তার প্রভাব শ্রবণশক্তির উপর পড়ে কি না, তা নিশ্চিত ভাবে বলা যায় না। কিন্তু সাধারণ ভাবে পটাশিয়াম, জিঙ্ক এবং ফলিক অ্যাসিড সমৃদ্ধ খাবার শ্রবণশক্তি ভাল রাখতে সহায়তা করে, কাজেই খাদ্যাভ্যাসে এই ধরনের উপাদানগুলি না থাকলে শ্রবণশক্তি হ্রাস পাওয়ার আশঙ্কা বেশি বলে মনে করেন কেউ কেউ।

পাশাপাশি, ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অব এপিডেমিওলজিতে প্রকাশিত একটি সাম্প্রতিক গবেষণা বলছে, পশ্চিম দুনিয়ার প্রচলিত বেশ কিছু খাবারের সঙ্গে ইডিওপ্যাথিক বা আকস্মিক বধিরতার যোগ রয়েছে। এই খাবারগুলির মধ্যে মূলত প্যাকেটজাত এবং প্রক্রিয়াজাত খাবার, চর্বিযুক্ত মাংস এবং অতিরিক্ত চিনিসমৃদ্ধ খাবারের কথা বলা হয়েছে।

১৬৪ জন মানুষের উপর করা এই গবেষণায় বলা হয়েছে, এই ধরনের খাদ্যাভ্যাস হঠাৎ শ্রবণশক্তি হারানোর ঝুঁকি কিছুটা হলেও বাড়িয়ে দিতে পারে। অন্য দিকে, জাপানে প্রচলিত খাবারদাবার শ্রবণশক্তি ভাল রাখতে সবচেয়ে উপযোগী বলেও মত গবেষকদের। তবে এ বিষয়ে নিশ্চিত করে কোনও সিদ্ধান্তে আসতে আরও বিশদ গবেষণার প্রয়োজন বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।


আরও খবর
বিফ সাসলিক তৈরির রেসিপি

সোমবার ২৭ জুন ২০২২