আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

জাল সনদধারী ১৫ শিক্ষককে সাড়ে ৭৩ লাখ টাকা ফেরতের নির্দেশ

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ মে ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
রেদওয়ানুল হক মিলন, ঠাকুরগাঁও

Image

ঠাকুরগাঁও জেলায় জাল সনদে নিয়োগ পাওয়া ১৪টি প্রতিষ্ঠানের ১৫ জন শিক্ষককে চাকরিচ্যুত করার নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। একইসাথে জাল সনদধারীদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করতেও বলেছে মন্ত্রণালয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সহকারী সচিব (অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষা শাখা) মো: সেলিম শিকদার স্বাক্ষরিত একটি আদেশে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

যে ১৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ১৫জন শিক্ষকের জাল সনদের প্রমাণ পাওয়া গেছে তার মধ্যে ১০ জন এমপিওভুক্ত। তারা সরকারি বেতন তুলেছেন। বাকি পাঁচ শিক্ষক ননএমপিও। তারা কোনো সরকারি আর্থিক সুবিধা পাননি। জাল সনদে এমপিওভুক্ত হওয়া ওই দশ শিক্ষক বেতন বাবদ সরকারি তহবিল থেকে ৭৩ লাখ ৫১ হাজার টাকা অবৈধভাবে গ্রহণ করেছেন।

জাল সনদধারী এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের মধ্যে ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার বরমপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) আব্দুল খালেককে ৯ লাখ ৫১ হাজার টাকা, সদরের দারাজগাঁও হামিদ আলী খান উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার)  দুলাল চন্দ্র বর্মনকে ১৪ লাখ ৪৪ হাজার টাকা, বৈরাগী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা (কম্পিউটার) মিনু রানী কুন্ডকে ১১ লাখ ৩০ হাজার টাকা, হরিপুর তোররা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) জসিম উদ্দিনকে ৭ লাখ ৬৩ হাজার টাকা, পীরগঞ্জ সাটিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা (কম্পিউটার) খাতুনকে ৭ লাখ ৭৩ হাজার টাকা, রানীশংকৈল উপজেলার জওগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (কৃষি শিক্ষা) মীর রায়হানকে ৭ লাখ ৪২ হাজার টাকা, সদরের রুহিয়া ডিগ্রি কলেজের  প্রভাষক (ইংরেজি) আতিকুর রহমানকে ২ লাখ ২৬ হাজার টাকা, সিন্দুর্না উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) ফাইশাল আলীকে ৪ লাখ ২২ হাজার টাকা, পারপুগী দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) সাইদা ইসলামকে ৭ লাখ ৭৯  হাজার, সালন্দর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (সমাজ বিজ্ঞান) আতিয়ার রহমানকে ১ লাখ ৮৫ হাজার টাকা ফেরত দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ননএমপিও পাঁচ জাল সনদধারী শিক্ষক হলেন- বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার লোলপুকুর ডি এম উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ( হিন্দু ধর্ম)  জসোদা বালা দেবী, রানীশংকৈলের নেকমরদ বঙ্গবন্ধু ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক (দর্শন) মোশাররফ হোসেন, হরিপুরের ভাতুড়িয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ( শরীরচর্চা)  জিল্লুর রহমান, ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ মহিলা কলেজের প্রভাষক (ইতিহাস ও সংস্কৃতি) জগবন্ধু রায়, একই কলেজের প্রভাষক (দর্শন) দীপিকা রানী রায়।

আরও পড়ুন>> ছাত্রলীগ নেতা জসিম হত্যার দায়ে আটজনের মৃত্যুদণ্ড

আদেশে জাল সনদধারী শিক্ষক-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে সাত দফা শাস্তি গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়। এর মধ্যে রয়েছে এমপিও বন্ধ এবং বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে চাকরিচ্যুত করা, গ্রহণ করা বেতন-ভাতা সরকারি কোষাগারে ফেরত দেওয়া, ফৌজদারি অপরাধে মামলা করা, নিয়োগ কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া, অবসরপ্রাপ্তদের অবসর সুবিধাপ্রাপ্তি বাতিল, স্বেচ্ছায় অবসর নেওয়াদের অর্থ অধ্যক্ষ/প্রধান শিক্ষকের মাধ্যমে আদায় এবং অবসর ভাতা/কল্যাণ ট্রাস্টের ভাতা বন্ধ।

অভিযুক্ত শিক্ষকদের কাছ থেকে ৩৫ কোটি ৫৬ হাজার ১১৮ টাকা ফেরত নেওয়ার সুপারিশ করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে যারা এমপিওভুক্ত নন তারা সরকারি কোনো বেতন-ভাতা না নেওয়ায় তাদের টাকা ফেরত দেওয়ার কোনো সুপারিশ করা হয়নি।

মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তর যাচাই-বাছাই করে ৬৭৮ জন শিক্ষক-কর্মচারীর জাল সনদ শনাক্ত করেছে। গত ৮ ফেব্রুয়ারি সনদ প্রদানকারী দপ্তরপ্রধান প্রতিনিধি সমন্বয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের সনদের সত্যতা যাচাই করে জাল সনদের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে।

শিক্ষা অধিদপ্তর জানিয়েছে, আগে সব ধরনের শিক্ষক নিয়োগ গভর্নিং বডি, ম্যানেজিং কমিটির মাধ্যমে হতো। তখন অনৈতিক সুবিধা দিয়ে অনেক প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ দেওয়া হতো। ফলে সনদ যাচাইয়ের কোনো প্রয়োজনও বোধ করা হয় না। বর্তমানেও যখন নিয়োগ দেওয়া হয় তখন স্ব স্ব সংস্থার মাধ্যমে সনদ যাচাই করা হয় না। যাচাই করা হলে শুরুতেই জাল সনদধারীরা বাদ পড়ে যেত।

বৈরাগী হাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অমূল্য সরকার বলেন, বিভিন্ন মাধ্যমে এই খবরটি জেনেছি। কিন্তু সরকারিভাবে এখন পর্যন্ত কোনো চিঠিপত্র আসেনি। সরকারিভাবে বা বোর্ড কর্তৃক কোনো চিঠি পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রুহিয়া ডিগ্রি কলেজের উপাধ্যক্ষ মজিবর রহমান জানান, ২০১৫ সালে নিরীক্ষা দফতরের যুগ্ম পরিচালক বিপুল চন্দ্র সরকার ও অডিটর মাহমুদুল হক কলেজ পরিদর্শন করেন। ওই নিরীক্ষায় আতিকুর রহমানের বেসরকরি শিক্ষক নিবন্ধন সনদ জাল বলে ধরা পড়ে। এরপর কলেজের (অব) অধ্যক্ষ মামুনুর রশিদ ২০১৯ সালে এ বিষয়ে সাত দিনের মধ্যে ব্যাখ্যা চেয়ে নোটিশ দিলেও আতিকুর রহমান কোনো জবাব দেননি। পরে কলেজ পরিচালনা কমিটি তাকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে।

ঠাকুরগাঁও জেলা শিক্ষা অফিসার খন্দকার মো: আলাউদ্দীন আল আজাদ বলেন, জাল সনদধারী শিক্ষকদের অফিস আদেশ এখনো হাতে আসেনি। আদেশের পর নির্দেশনা মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও খবর



বাবার রহস্যজনক মৃত্যুর আধাঘণ্টা পর মেয়ের আত্মহত্যা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

নোয়াখালীর সদর উপজেলায় বাবার মৃত্যুর আধাঘণ্টা পর গলায় ফাঁস দিয়ে মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। বৃহস্পতিবার (৬ জুন) দুপুরের দিকে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ দুটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এর আগে বুধবার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে ৯টার মধ্যে নোয়াখালীর পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের উকিল পাড়ার নরেশ চন্দ্র দে’র বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলেন, নোয়াখালীর পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের উকিল পাড়ার নরেশ চন্দ্র দে (৫০) ও তার মেয়ে তিশা দে (১৯)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নরেশ চন্দ্রের মেয়ে তিশা ফেনীর একটি কলেজে পড়ত। সেখানে একটি মুসলিম ছেলেকে ধর্মান্তরিত করে বিয়ে করে। বিষয়টি তার বাবা জানতে পেরে তাকে ফেনী থেকে নোয়াখালীর জেলা শহর মাইজদীর নিজবাড়িতে নিয়ে আসে। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে এ নিয়ে মেয়েকে বোঝানোর অনেক চেষ্টা করেন বাবা। সে যেন তার স্বামীর সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করে। কিন্তু মেয়ে তার স্বামীর পক্ষে অনড় ছিল।

বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে নরেশের ছোট ছেলে স্কুলে যাওয়ার সময় টাকার জন্য বাবার কাছে গেলে দেখে তার নিথর দেহ কক্ষে পড়ে আছে। আশেপাশে রক্ত। ডায়ালাইসিসের ফিস্টুলার স্থান থেকে রক্ত বের হচ্ছে। পরে তার চিৎকার শুনে পরিবারের অন্য সদস্যরা এগিয়ে আসে। তিশা বাবার এ অবস্থা দেখে পরিবারের সদস্যদের অগোচরে আলাদা একটা কক্ষ গিয়ে দরজা বন্ধ করে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দেয়। পরে পরিবারের সদস্যরা দরজা ভেঙে তার মরদেহ উদ্ধার করে। খবর পেয়ে দুপুর দেড়টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহের সুরতহাল সম্পন্ন করে।

এ বিষয়ে সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি বলেন, নরেশ কিডনি রোগী ছিলেন। তিনি বাসায় ডায়ালাইসিস করতেন। তার মেয়ে ফেনী মেডিকেলে পড়ত। সেখানে একজন মুসলিম ছেলেকে ধর্মান্তরিত করে বিয়ে করে। বিষয়টি নরেশ ভালোভাবে নেননি। এ জন্য মেয়েকে ফেনী থেকে নিয়ে আসেন।

তিনি বলেন, মেয়েকে সারারাত বোঝানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু মেয়ে নাছোড় বান্দা। এ নিয়ে চিল্লাচিল্লি করে তিনি স্ট্রোক করে মারা যান। পরে মেয়ে ভাবল সে কাজটি ঠিক করেনি। তাই বাবার মৃত্যুর আধাঘণ্টা পর মেয়ে গিয়ে আত্মহত্যা করে। বুধবার বিকেল ৪টার দিকে দুটি মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।


আরও খবর



গাজীপুরে তুরাগ কমিউটার ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
গাজীপুর প্রতিনিধি

Image

গাজীপুর মহানগরীর ধীরাশ্রম রেলস্টেশন সংলগ্ন এলাকায় ঢাকাগামী তুরাগ এক্সপ্রেসের বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

জয়দেবপুর রেল জংশনের স্টেশন মাস্টার হানিফ আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ট্রেনের যাত্রী ও রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, ঢাকাগামী তুরাগ এক্সপ্রেস ট্রেনটি ধীরাশ্রম স্টেশনে পৌঁছানোর পর ট্রেনের দ্বিতীয় বগিটি লাইনচ্যুত হয়ে যায়। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। তবে ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হওয়ায় ঢাকা-জয়দেবপুর রেলরুটের একটি লাইন বন্ধ হয়ে গেছে।

এ বিষয়ে স্টেশন মাস্টার হানিফ আলী বলেন, বিকল্প লাইন দিয়ে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। বগি উদ্ধার করার জন্য ঢাকায় রিলিফ ট্রেন আসার খবর দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



ট্রেনে ঈদযাত্রা: কাল থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আগামী ১৭ জুনকে পবিত্র ঈদুল আজহার সম্ভাব্য দিন ধরে আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট অগ্রিম বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। বরাবরের মতো এবারও ঈদের আগে বিশেষ ব্যবস্থায় ৫ দিনের ট্রেনের আসন বিক্রি করা হবে।

আগামীকাল রবিবার (০২ জুন) ঈদ উপলক্ষে ঘরমুখো মানুষের এই ট্রেন যাত্রার আসন বিক্রি শুরু হবে। যাত্রীদের সুবিধার্থে এবারও শতভাগ আসন অনলাইনে বিক্রি করা হবে।বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বলছে , এবার ঢাকা থেকে বহির্গামী ট্রেনের মোট আসন সংখ্যা হবে ৩৩ হাজার ৫০০টি। যা শতভাগ অনলাইনে বিক্রি করা হবে। আগামীকাল ২ জুন থেকে যাত্রা শুরুর ১০ দিন আগের আন্তঃনগর ট্রেনের আসন অগ্রিম হিসেবে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় বিক্রি করা হবে। পশ্চিমাঞ্চলে চলাচল করার সকল আন্তঃনগর ট্রেনের আসন সকাল ৮টায় এবং পূর্বাঞ্চলে চলাচল করা সকল ট্রেনের আসন দুপুর ২টায় বিক্রি করা হবে।

এছাড়া ঈদের আগে আন্তঃনগর ট্রেনের ১২ জুনের আসন বিক্রি হবে ২ জুন; ১৩ জুনের আসন বিক্রি হবে ৩ জুন; ১৪ জুনের আসন বিক্রি হবে ৪ জুন; ১৫ জুনের আসন বিক্রি হবে ৫ জুন; ১৬ জুনের আসন বিক্রি হবে ৬ জুন।


আরও খবর



আরও এক হজযাত্রীর মৃত্যু, সৌদি পৌঁছেছেন ৫৮১২১ জন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সৌদি আরবে আরও একজন বাংলাদেশি হজযাত্রী মারা গেছেন। গত রবিবার (২ জুন) হজযাত্রী মাকসুদ আহমেদ (৬১) মদিনায় মারা যান। তার বাড়ি কক্সবাজারের চকরিয়ায়। এ নিয়ে সৌদি আরবে ১০ বাংলাদেশি হজযাত্রী মৃত্যুবরণ করেন।

এছাড়া হজ ফ্লাইট শুরু হওয়ার পর এ পর্যন্ত ৫৮ হাজার ১২১ জন বাংলাদেশি হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। মঙ্গলবার (৪ জুন) হজ পোর্টালে আইটি হেল্পডেস্কের প্রতিদিনের বুলেটিন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

সোমবার দিনগত রাত ৩টা পর্যন্ত সর্বমোট ৫৮ হাজার ১২১ হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রী ৩ হাজার ৭৪৭ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫৪ হাজার ৩৭৪ জন। এখন পর্যন্ত সৌদি আরব যাওয়ার ফ্লাইট পরিচালিত হয়েছে ১৪৯টি।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১৬ জুন এবারের হজ অনুষ্ঠিত হবে। হজযাত্রীদের সৌদি আরবে যাওয়ার প্রথম ফ্লাইট গত ৯ মে শুরু হয়। আগামী ১২ জুন পর্যন্ত সৌদি যাওয়ার ফ্লাইট চলবে। হজ শেষে ২০ জুন ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে। ফিরতি ফ্লাইট শেষ হবে আগামী ২২ জুলাই।

এবার সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনা মিলিয়ে মোট ৮৫ হাজার ২৫৭ জন হজ করতে যাবেন। এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৪ হাজার ৫৬২ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় এজেন্সির মাধ্যমে ৮০ হাজার ৬৯৫ জন হজ করতে যাবেন।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত ১০ জন বাংলাদেশি হজযাত্রী সৌদি আরবে মারা গেছেন। মৃত্যুবরণ করা ১০ জনই পুরুষ। মক্কায় সাত এবং মদিনায় তিনজন বাংলাদেশি হজযাত্রী মারা গেছেন।


আরও খবর



বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে যত রেকর্ড

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জুন 2০২4 | হালনাগাদ:রবিবার ০২ জুন 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

অনেকটা নীরবেই শুরু হলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসর। তবে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচটা হয়েছে দুর্দান্ত। বিশ্বমঞ্চে অভিষেকে আইসিসির দুই সহযোগী দেশ যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা বেশ দাপটই দেখিয়েছে। কানাডার ছুঁড়ে দেওয়ার ১৯৫ রানের লক্ষ্য ১৪ বল হাতে রেখেই পেরিয়েছে বিশ্বকাপের আয়োজকরা।

সবমিলিয়ে দেখে নেওয়া যাক রেকর্ডগুলো-

অভিষেকে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ: প্রথমবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলতে নেমে সর্বোচ্চ ১৯৪ রান তুলেছে কানাডা। এর আগে, ২০১৪ আসরে ১৯৩ রান তুলেছিল নেদারল্যান্ডস। ডাচদের সেই রেকর্ড ভেঙে দেয় কানাডা। এরপর লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে কানাডিয়ানদের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্র, রান তাড়ায় নেমে ১৯৭ তুলেছে তারা; যা বিশ্বমঞ্চে অভিষেকে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ।

তৃতীয় সর্বোচ্চ রান তাড়ার রেকর্ড: এই ম্যাচে রান তাড়ায় ইতিহাস গড়েছে স্বাগতিক দল। এর আগে, সর্বোচ্চ ১৬৯ রান তাড়া করে জিতেছিল। দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে এবার ১৭ দশমিক ৪ ওভারেই কানাডার ছুঁড়ে দেওয়া ১৯৫ রানের লক্ষ্য ছুঁয়ে ফেলেছে তারা।

এদিকে রান তাড়ার রেকর্ডে সব মিলিয়ে তৃতীয় স্থানে এটি। সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের এই টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ ২৩০ রান তাড়া করে জিতেছিল ইংল্যান্ড। ২০১৬ আসরে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এই কীর্তি গড়ে ইংলিশরা। এর আগে, ২০০৭ বিশ্বকাপে ২০৬ রান তাড়া করে জিতেছিল প্রোটিয়ারা।

যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় জুটি: তৃতীয় উইকেট জুটিতে ১৩১ রান তুলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের সহ–অধিনায়ক অ্যারন জোন্স ও আন্দ্রিয়েস গুস। তবে বিশ্বমঞ্চে এর আগে আরেকবার তৃতীয় উইকেট জুটিতে এর চেয়ে বেশি রান এসেছে। ২০১৪ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৫২ রানের জুটি গড়েছিলেন ইংল্যান্ডের ইয়ন মরগান ও অ্যালেক্স হেলস। তবে ২০ ওভারের ফরম্যাটে এটাই যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় রানের জুটি।

দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ছক্কা: অপরাজিত ৯৪ রানের পথে ১০টি ছক্কা হাঁকিয়েছেন জোন্স। এই তালিকায় তার সামনে আছেন শুধুই ক্রিস গেইল। ২০১৬ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১১টি ছক্কা মেরেছিলেন ক্যারিবিয়ান এই ইউনিভার্স বস’।

এক ওভারে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান: বিশ্বকাপে এর আগে এক ওভারে সর্বোচ্চ ৩৬ রান দিয়েছিলেন ইংল্যান্ডের পেসার স্টুয়ার্ড ব্রড। ২০০৭ বিশ্বকাপে তার ওভারে ৬ ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন যুবরাজ সিং। এবার এক ওভারে ৩৩ রান খরচ করেছেন কানাডার জেরেমি গর্ডন।

দ্রুততম ফিফটি: দলের জয়ের দিনে দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন জোন্স। মাত্র ২২ বলে হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেওয়া এই ব্যাটার শেষ পর্যন্ত ৯৪ রানে অপরাজিত থেকেছেন। যা এই ফরম্যাটে কোনো আমেরিকান ব্যাটারের সবচেয়ে দ্রুততম ফিফটি।


আরও খবর