আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

হ্যালোইন কী, কেন পালিত হয় এ উৎসব?

প্রকাশিত:বুধবার ০১ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০১ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

প্রতি বছরের ৩১ অক্টোবর পালিত হয় ঐতিহ্যবাহী হ্যালোইন উৎসব। বিশ্বের প্রায় সব দেশেই বর্তমানে পালিত হয় দিবসটি। তবে পশ্চিমা বিশ্বে জাঁকজমকতার সঙ্গে পালন করা হয় হ্যালোইন। তবে অনেকেরই হয়তো ধারণা নেই আসলে কী এই হ্যালোইন!

জানলে অবাক হবেন, এই ভুতুড়ে উৎসবের ইতিহাস ২০০০ বছরেরও বেশি পুরোনো। অনেকেই ভাবেন, এ দিনটি হয়তো ভূতের মতো সাজতেই পালন করা হয়। আসলে মৃত আত্মাদের স্মরণে পালন করা হয় দিনটি। হ্যালোইন ডের ইতিহাস জানলে আপনি চমকে উঠবেন!

হ্যালোইন শব্দের উৎপত্তি ১৭৪৫ সালের দিকে। খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের মধ্যে এর উৎপত্তি। হ্যালোইন বা হ্যালোউইন শব্দটি এসেছে স্কটিশ ভাষার শব্দ অল হ্যালোজ ইভ থেকে। হ্যালোইন শব্দের অর্থ শোধিত সন্ধ্যা বা পবিত্র সন্ধ্যা

সময়ের সঙ্গে পরিবর্তিত হয়ে হ্যালোজ ইভ শব্দটি এক সময় হ্যালোইনএ রূপান্তরিত হয়। হ্যালোইন উৎসবের মূল থিম হলো, হাস্যরস ও উপহাসের মাধ্যমে মৃত্যুর ক্ষমতার মুখমুখি হওয়া

প্রায় ২০০০ বছর আগে বর্তমান আয়ারল্যান্ড, ইংল্যান্ড ও উত্তর ফ্রান্সে বসবাস করতো কেল্টিক জাতি। নভেম্বরের প্রথম দিনটি তারা নববর্ষ বা সাহ-উইন হিসেবে পালন করতো। গ্রীষ্মের শেষ ও অন্ধকার বা শীতের শুরু বলে মনে করতো তারা।

অবাক করা বিষয় হলো, কেল্টিক জাতির ধারণা ছিলো অক্টোবরের শেষ দিনের রাত সবচেয়ে খারাপ। যে রাতে সব প্রেতাত্মা ও অতৃপ্ত আত্মারা মানুষের ক্ষতি করতে পারে। আর তাই কেল্টিক জাতির সদস্যরা এই রাতে বিভিন্ন ধরনের ভূতের মুখোশ ও কাপড় পরতো।

তারা নির্ঘুম রাত কাটাতে আগুন জ্বালিয়ে মুখোশ পরে বৃত্তাকারে একসঙ্গে ঘুরতেন ও মন্ত্র যপতেন। আর সময়ের পরিক্রমায় কেল্টিক জাতির সাহ-উইন উৎসবই বর্তমানে হ্যালোইন উৎসব হিসেবে পালিত হচ্ছে। হ্যালোইনের রাত নিয়ে অনেক ধরনের মিথ আছে।

তেমনই এক প্রচলিত মিথ হলো, এই রাতে দেবতা সামান সব মৃত আত্মাদের পৃথিবীতে আহ্বান জানান। উড়ন্ত ঝাড়ুতে করে হ্যালোইন ডাইনি উড়ে বেড়ায় আকাশ জুড়ে। কখনো বা তিনি কড়া নাড়েন বিভিন্ন বাড়ির দরজায়।

কবে থেকে শুরু হয়েছে হ্যালোইন?

জানা যায়, মধ্যযুগ থেকেই হ্যালোইন উৎসব পালিত হয়ে আসছে। আয়ারল্যান্ড, ওয়েলস, স্কটল্যান্ডের উচ্চ ভূমি ও ফ্রান্সের উওর অংশ জুড়ে তখন কেল্টিক সভ্যতার বিস্তার ছিলো। প্রাচীন কেল্টদের পালিত সাহ উইন উৎসব থেকেই মূলত হ্যালোইনের সূত্রপাত।

১৮০০ দশকের শেষের দিকে আমেরিকায় হ্যালোইন ছুটির দিনে পরিণত হয়। শতাব্দীর শুরুতেই শিশু, প্রাপ্তবয়স্ক সবাই ঘটা করে হ্যালোইন উদযাপন শুরু করে। এ উপলক্ষে বিভিন্ন অনুষ্ঠান, খেলাধুলা, মৌসুমী খাবার ও উৎসবমুখর পোশাক পরা হতো।

বর্তমানেও হ্যালোইন পালন করা নিয়ে ইউরোপ-আমেরিকায় মাতামাতির শেষ নেই। রাতটি উদযাপন করতে সেখানে প্রস্তুতি চলে মাসজুড়েই। এ ছাড়াও কানাডা, আয়ারল্যান্ড, পুয়ের্তো রিকোসহ এশিয়ার জাপান, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডেও হ্যালোইন পালিত হয়। এমনকি বাংলাদেশেও পালিত হয় হ্যালোইন উৎসব।

এই উৎসবে হ্যালোইন পোশাক পরে পার্টিতে অংশ নেওয়া থেকে শুরু করে কুমড়ো খোদাই করা, মুখোশ পরা, ভয় দেখানো, ভুতুড়ে গল্প বলা, ভৌতিক সিনেমা দেখা ও ভুতুড়ে সাজসজ্জায় সবাই ব্যস্ত থাকে।

নিউজ ট্যাগ: হ্যালোইন উৎসব

আরও খবর



সংখ্যা নয়, দক্ষ চিকিৎসক তৈরিই মূল লক্ষ্য: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সংখ্যা বাড়ানো নয়, দক্ষ চিকিৎসক তৈরির মূল লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন। শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কলাভবনে ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, গতকালও বলেছি, আজও বলছি। আমরা সংখ্যায় নয়, দক্ষ চিকিৎসক তৈরি করতে চাই। সেই লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছি।

ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠু ও ভালোভাবে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা জানিয়ে ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, সকালে বের হয়ে আমার বাসার কাছে তেজগাঁও কেন্দ্রে যাই। ওখানকার অবস্থা দেখার পর ঢাবিতে আসলাম। এখানে আসার পর রংপুর, সিলেট, চট্টগ্রাম ও খুলনাসহ দেশের সকল কেন্দ্রের দায়িত্বশীলদের সঙ্গে কথা বলেছি। পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে হয়েছে।

তিনি বলেন, আমি খুব কৃতজ্ঞ যে, আমার সহকর্মীরা সর্বাত্মক সহযোগিতা করেছেন। আশা করি, তাদের সহযোগিতায় পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সুন্দরভাবে শেষ করতে পারব।

এবারের পরীক্ষায় যত রকমের পূর্ব সতর্কতা দরকার, সব রকমের ব্যবস্থা নেওয় হয়েছে। পরীক্ষায় প্রবেশে আর্চওয়ের ব্যবহার, সকাল ৮টায় প্রবেশ এবং এক মাস আগে কোচিং সেন্টার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এর আগে, ফাঁস হওয়া প্রশ্নে পরীক্ষা দিয়ে যারা চিকিৎসক হয়েছে, তাদের ব্যাপারে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে- জানতে চাইলে সামন্ত লাল সেন বলেন, আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কোনো রকম ছাড় দেওয়া হবে না। কোনো রকম প্রশ্ন ফাঁস বা জালিয়াতি ছাড় দেব না।

বিষয়টি নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, বিষয়টা আদালতে বিচারাধীন, আদালতের রায় প্রাপ্তির পর উপযুক্ত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

দেশের ১৯টি কেন্দ্রের ৪৪ স্থানে এবারের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয় সকালে। এর মধ্যে ঢাকায় কেন্দ্র পড়েছে পাঁচটি, ঢাকার বাইরে রয়েছে ১৪টি। সরকারি-বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ মিলিয়ে ৬ হাজার ২৯৫ আসনে এবার ১ লাখ ৪ হাজার ৩৭৪ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় বসেছে বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।


আরও খবর



সন্তান নিলেই মিলবে ৮২ লাখ টাকা

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

একটি সন্তান নিলেই মিলবে ৭৫ হাজার ডলার বা ৮২ লাখ ১২ হাজার টাকার বেশি। এমন আকর্ষণীয় সুযোগ দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার একটি কোম্পানি। মূলত দেশটির জন্মহার অস্বাভাবিকভাবে কমে যাওয়ায় দম্পতিদের বাচ্চা নিতে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে কোম্পানিটি।

সিউলভিত্তিক এই কনস্ট্রাকশন কোম্পানিটির নাম বুইয়ং গ্রুপ। গত সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে প্রতিষ্ঠানটি জানায়, তাদের কোনো কর্মীর একটি বাচ্চা হলেই তাকে ১০ কোটি কোরিয়ান ওয়ন বা ৭৫ হাজার ডলার দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে তারা।

প্রতিষ্ঠানটির একজন মুখপাত্র মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে জানিয়েছে, পুরুষ ও নারী সব কর্মীর জন্যই এই সুবিধা প্রযোজ্য হবে।

স্ট্যাটিসটিকস কোরিয়া সূত্রে জানা যায়, ২০২২ সালে ফারটিলিটি বা উর্বরতার হারের দিক থেকে দক্ষিণ কোরিয়ায় বিশ্বের সর্বনিম্ন অবস্থানে রয়েছে, এটি ০.৭৮। এ অনুপাতে একজন নারী তাঁর জীবদ্দশায় গড়ে কতটি সন্তান ধারণ করবেন তা নির্দেশ করে। এটি ২০২৫ সাল নাগাদ ০.৬৫ এ নেমে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

বুইয়ং গ্রুপ ১৯৮৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং কোম্পানির ওয়েবসাইট অনুসারে এখন পর্যন্ত ২ লাখ ৭০ হাজারের বেশি বাড়ি তৈরি করেছে।

নিউজ ট্যাগ: দক্ষিণ কোরিয়া

আরও খবর



প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা হতে পারে ২২ মার্চ

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সারা দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে সহকারী শিক্ষক নিয়োগে তৃতীয় ধাপের লিখিত পরীক্ষা আগামী ২২ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে পারে। এই ধাপের পরীক্ষায় অংশ নেবেন ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগের চাকরিপ্রার্থীরা। আজ বুধবার এ তথ্য জানান প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (পলিসি অ্যান্ড অপারেশন) মণিষ চাকমা।

মণিষ চাকমা বলেন, সহকারী শিক্ষক পদে তৃতীয় ধাপের নিয়োগ পরীক্ষা নেওয়ার সম্ভাব্য তারিখ ২২ মার্চ নির্ধারণ করা হয়েছে। এ লক্ষ্যে প্রস্তুতি চলছে। শিগগির পরীক্ষার তারিখ চূড়ান্ত করা হবে।

এবারই প্রথম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদে বিভাগওয়ারি নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। গুচ্ছভিত্তিক এ নিয়োগে তিন ধাপে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। পরীক্ষাও আলাদাভাবে নেওয়া হচ্ছে।

এর আগে, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি প্রথম ধাপের লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করা হয়। এতে ২ হাজার ৪৯৭ জন প্রার্থীকে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত হন।


আরও খবর
জাবির ‘ডি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পাপুয়া নিউগিনিতে জাতিগত সহিংসতায় নিহত ৬৪

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

পাপুয়া ‍নিউগিনির পার্বত্য অঞ্চলে জাতিগত সহিংসতার ঘটনার কমপক্ষে ৬৪ জন নিহত হয়েছে। এতে এনগা প্রদেশের লোকজনের ওপর এলোপাতাড়ি গুলি চালানো হয়। বলা হচ্ছে, এই অতর্কিত হামলা গত কয়েক বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ। খবর বিবিসির।

অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্রের কারণে সংঘর্ষ আরও তীব্র আকার ধারণ করেছে। রাজধানী পোর্ট মোরেসবি থেকে প্রায় ৬০০ কিলোমিটার (৩৭৩ মাইল) উত্তর-পশ্চিমের ওয়াবাগ শহরের কাছে মরদেহ উদ্ধার করছে পুলিশ।

রয়্যাল পাপুয়া নিউ গিনি কনস্ট্যাবুলারির ভারপ্রাপ্ত সুপার জর্জ কাকাসের বরাত দিয়ে অস্ট্রেলিয়ান ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন (এবিসি) বলছে, এনগাতে এখন পর্যন্ত এটাই সবচেয়ে বড় হামলার ঘটনা। এর আগে এমন ঘটনা দেখা যায়নি। 

আরও পড়ুন>> ইসরায়েলি দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে আজ ঐতিহাসিক শুনানি

তিনি বলেন, আমরা সবাই বিধ্বস্ত, আমরা সবাই মানসিকভাবে চাপে আছি। এটা বোঝানো সত্যিই কঠিন। পুলিশ ঘটনাস্থলের বেশ কিছু ভিডিও এবং ফুটেজ পেয়েছে। সেখানে একটি লাশ বোঝাই ট্রাক দেখা গেছে।

দেশটিতে প্রায়ই জমি এবং সম্পদ ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে জাতিগত দ্বন্দ্বের সূত্রপাত হয়। এর আগে গত বছরের জুলাই মাসে এনগা প্রদেশে তিন মাসের লকডাউন জারি করা হয়। সেই সময় পুলিশ কারফিউ এবং ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল।


আরও খবর



মালদ্বীপের জলসীমায় ভারতীয় সেনা প্রবেশের অভিযোগ, ব্যাখ্যা চায় মুইজ্জু সরকার

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ভারত আগামী মে মাসের মধ্যে মালদ্বীপ থেকে নিজেদের সেনা প্রত্যাহার করে নেবে বলে শনিবার (০৩ ফেব্রুয়ারি) জানিয়েছে মালদ্বীপের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। দুই পক্ষের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের কয়েক দফা আলোচনার মধ্যে এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। এর আগে, গত সপ্তাহে মালদ্বীপের বিশেষায়িত অর্থনৈতিক অঞ্চলে (ইইজেড) ভারতের সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা তিনটি মাছ ধরার নৌকায় করে ঢুকে পড়ার অভিযোগ উঠলো।

এ ঘটনায় ভারতের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে মোহামেদ মুইজ্জুর সরকার। মালদ্বীপের একজন সরকারি কর্মকর্তা বলেন, ভারতের কাছে বিষয়টি নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ব্যাখ্যা চেয়েছে সরকার। বডু কানেলি মাসভেরিঞ্জ ইউনিয়ন এক্স’–এ পোস্ট করা এক বার্তায় লিখেছে, আসুরুমা৩, নিরু৭ ও মাহোয়ারা৩ নৌযানে করে ভারতের সেনারা মালদ্বীপের জলসীমায় প্রবেশ করেছেন।

ইউনিয়ন শুক্রবার একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে, যাতে দেখে মনে হচ্ছে, ওই সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনী। তারা মালদ্বীপের মাছ ধরার নৌকায় ছিলেন। এ সময় তাদের হাতে অস্ত্র ছিল। ওই ভিডিওতে ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনীর একটি জাহাজও দেখা যায়। মালদ্বীপের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, ভারতীয় সৈন্যরা আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে মালদ্বীপের নৌকায় চড়েছেন। যদিও মালদ্বীপের এ অভিযোগ নিয়ে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি ভারত।

উল্লেখ্য, মালদ্বীপে ভারতের প্রায় ৮০ জন সেনা সদস্য নানা দায়িত্বে রয়েছেন। মে মাসে সেনা সদস্যদের প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর বেসামরিক কর্মকর্তারা তাদের স্থলাভিষিক্ত হবেন বলেও উভয় দেশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। ভারতীয় সেনাদের প্রথম দলটি আগামী ১০ মার্চ এবং শেষ দলটি ১০ মে মালদ্বীপ ছেড়ে যাবে বলেও দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়।


আরও খবর