আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

হঠাৎ বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ওপরে মনু নদীর পানি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | ৩৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মৌলভীবাজারে মনু নদীর পানি হঠাৎ বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এর ফলে এলাকাবাসীর মধ্যে গভীর আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

সোমবার (২০ জুন) সন্ধ্যা ৬টায় শহরের চাঁদনীঘাট ব্রিজ পয়েন্টে বিপৎসীমার ৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়। 

মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ আক্তারুজ্জামান, দুপুর থেকে মনু নদীর পানি বিপৎসীমার কাছাকাছি ছিল। কিন্তু তিন ঘণ্টা পর তা বেড়ে যায়। আমি এবং পৌরসভার মেয়র মহোদয় সার্বক্ষণিক মৌলভীবাজার সদর উপজেলার চাঁদনিঘাট পয়েন্টে অবস্থান করছি।

মনু নদীর পানি ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাওয়ায় গতকাল রাত থেকে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ এবং স্থানীয় জনগণ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। জেলা প্রশাসন এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা জনগণকে সতর্ক করার জন্য ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা শুরু করেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সন্ধ্যা ৬টায় জেলার প্রধানতম নদীগুলোর মধ্যে কুশিয়ারার পানি বিপৎসীমার ২২ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া ধলাই নদীর পানি বিপৎসীমার ৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তবে চাঁদনীঘাট ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় মনু নদীর পানির বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। প্রতি ঘণ্টায় এসব নদ-নদীতে ৫ সেন্টিমিটার করে পানি বাড়ছে। তবে ২-১ দিনের মধ্যে পরিস্থিতির উন্নতি হবে বলে মন্তব্য করেছেন মৌলভীবাজার পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী আক্তারুজ্জামান।


আরও খবর



মধ্যরাতে শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে হল থেকে বের করে দিল ছাত্রলীগ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ জুন ২০২২ | ২৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাবি প্রতিনিধি:

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) নবাব আব্দুল লতিফ হলের এক আবাসিক শিক্ষার্থীকে মধ্যরাতে মারধর করে হল থেকে বের করে দেয় হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের শামিম হোসেন। তার প্রতিবাদ জানিয়ে হল গেটে অবস্থান নেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

শুক্রবার (২৪ জুন) রাত ২ টায় হলটির ২৪৮ নম্বর কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। তার প্রতিবাদে জানিয়ে সকালে শিক্ষকরা হল গেটে অবস্থান নেয় বলে জানা যায়।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর নাম মো. মুন্না ইসলাম। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। এদিকে অভিযুক্ত শামীম হোসেন নবাব আব্দুল লতিফ হলের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর অভিযোগ, ২৪৮ নম্বর কক্ষের আবাসিক শিক্ষার্থী হওয়া সত্ত্বেও মারধর এবং গালিগালাজ করে তার বিছানাপত্র বের করে বাহিরে ফেলে দেন হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম ও তার অনুসারীরা।

জানতে চাইলে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী মুন্না বলেন, আমি পূর্বে হলের তৃতীয় ব্লকের ৩৫২ নম্বর কক্ষের ফ্লোরিং করে থাকতাম। চলতি মাসের ১২ তারিখে হলের ২৪৮ নম্বর কক্ষটি ফাঁকা হওয়ায় সেই কক্ষে উঠার জন্য হল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করি। কর্তৃপক্ষের নির্দেশনায় আমি হলের এক আবাসিক শিক্ষকের সুপারিশ নিয়ে হল প্রাধ্যক্ষকে লিখিত আবেদন দেই। তার পরিপ্রেক্ষিতে আমাকে ওই রুমে বরাদ্দ দেওয়া হয়। তারপরে ১৫ জুন আমি ২৪৮ নম্বর কক্ষে উঠি।

ভুক্তভোগী আরো বলেন, ১৫ জুন থেকে আমি ২৪৮ নম্বর কক্ষেই অবস্থান করছি। পরে (শুক্রবার)  রাত ২ টায় হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম হোসেন হলের কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মীকে সঙ্গে নিয়ে আমার রুমে আসেন। এখনি এই রুম থেকে বের হয়ে যাবি এই বলে আমাকে হুমকি দিতে থাকে। আমি বের হতে চাইনি বলে আমার ঘার ধরে ধাক্কা মেরে দরজার বাহিরে বের করে দেন তৌহিদ নামে এক ছাত্রলীগ নেতা। আমাকে কিল-ঘুষিও মারেন সাধারণ সম্পাদকের সাথে আসা ওই নেতা। আমার বিছানাপত্র বাইরে বের করে দিয়ে আমার সিটে বাংলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের আসিফ নামের এক অনাবাসিক শিক্ষার্থীকে তুলে দিয়েছেন।

জানতে চাইলে হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম হোসেন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, কাউকে নামিয়ে দেয়ার অভিযোগ এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা। ওই রুমে আমি যাকে উঠাতে চেয়েছি সেই ছেলেটি খুব দরিদ্র। যার কারণে আমি মানবিক দিক বিবেচনা করে মুন্না নামের ওই ছেলেটির সাথে তাকে বেড শেয়ার করে থাকতে বলেছিলাম। সেখানে মারধর ও বের করে দেয়ার মতো কোন ঘটনা ঘটেনি।

এ বিষয়ে হল প্রাধ্যক্ষ ড. এ এইচ এম মাহবুবুর রহমান বলেন, আমি বিষয়টি শোনার পর ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর সাথে কথা বলেছি। এবং আমরা তাকে আবার তার সিটে উঠিয়ে দিয়েছি। যদি মারধর করার মতো ঘটনা ঘটে থাকে তাহলে তদন্ত সাপেক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে  তাৎক্ষণিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা বেলা ১১ টার দিকে আব্দুল লতিফ হলে অবস্থান নেন এবং হল প্রভোস্টের সাথে তারা আলোচনায় বসেন।

এসময় শিক্ষাকরা বলেন, একটা বিশ্ববিদ্যালয় এভাবে চলতে পারে না। প্রতিনিয়ত সাধারণ শিক্ষার্থীরা হলে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের দ্বারা শারিরীক ও মানসিকভাবে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। আমরা শিক্ষক হয়ে সেটা মেনে নিতে পারিনা। এখন পর্যন্ত অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোন দৃষ্টান্ত পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি। এঘটনায় শিক্ষকরা অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান।

এঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সত্যতা মিললে দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা হবে বলে শিক্ষকদের আশ্বস্ত করেছেন হল প্রভোস্ট এএইচএম ড. মাহবুবুর রহমান।

আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. আসাবুল হক, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. সালেহ হাসান নকীব, রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. কুদরত-ই জাহান, আরবি বিভাগের অধ্যাপক ড. ইফতিখারুল আলম মাসউদ, অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ফরিদ উদ্দীন খান প্রমুখ।


আরও খবর



ড. কামালের কর ফাঁকি নিয়ে রিটের শুনানি আজ

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | ৩৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গণফোরামের সভাপতি ও সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. কামাল হোসেনের কর ফাঁকি নিয়ে হাইকোর্টে দায়ের করা এক রিটের শুনানি হবে রোববার হাইকোর্টের একটি বেঞ্চে।

কর আপিল ট্রাইব্যুনালের এক আদেশকে চ্যালেঞ্জ করে ড. কামালের আইনজীবীর করা রিটের শুনানির জন্য আজ রোববার (০৫ জুন) হাইকোর্টের একটি বেঞ্চে উঠবে।

বিচারপতি সৈয়দ রিফাত আহমেদ ও বিচারপতি মোহাম্মদ মাহবুব উল ইসলামের হাইকোর্ট বেঞ্চে এ রিট করা হয়েছে। রিট আবেদনের বিষয়টি শনিবার (৪ জুন) রাতে সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন ড. কামাল হোসেনের জুনিয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার তানিম হোসেন শাওন।

তিনি বলেন, আপিলেট ট্রাইব্যুনালের খারিজাদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিট দায়ের করেছি। রিট আবেদনটি শুনানির জন্য রোববারের কার্যতালিকার দুই নম্বরে রয়েছে।

রিটে বলা হয়েছে, ২০১৮-১৯ কর বছরের জন্য ড. কামাল হোসেন তার আয়কর রিটার্নে মোট বার্ষিক আয় ১ কোটি ৪ লাখ ৩ হাজার ৪৯৫ টাকা প্রদর্শন করেন এবং সে অনুযায়ী ৭৬ লাখ ৪১ হাজার ৫৪৮ টাকা কর হিসেবে উৎসে কর কর্তন করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেন। ২০১৯ সালের ৩০ ডিসেম্বর উপকর কমিশনার এক আদেশে তার আয় ২০ কোটি ১১ লাখ ৪ হাজার ২১৯ টাকা ধার্য করেন এবং এর জন্য ৮৭ লাখ ৩৫ হাজার ৬৩৪ টাকা বিলম্ব মাশুলসহ মোট ৬ কোটি ৯ লাখ ৮৫ হাজার ৩৫১ টাকা আয়কর দাবি করেন। ড. কামাল হোসেন এ আদেশের বিরুদ্ধে কর আপিল ট্রাইব্যুনালে আপিল করলে সেটি খারিজ হয়ে যায়।


আরও খবর



মোমিনুল যদি চায় বিশ্রাম নিতে পারে: সাকিব

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:সোমবার ২০ জুন ২০22 | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সময়টা ভালো যাচ্ছে না মুমিনুল হকের। সর্বশেষ আট ইনিংসে দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি সাবেক টেস্ট অধিনায়ক। দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কার পর এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজেও রানখরায় বাঁহাতি ব্যাটার। প্রথম টেস্ট শেষে দুরবস্থা কাটিয়ে ছন্দে ফিরতে মুমিনুলের বিশ্রামের প্রয়োজন কী না এমন প্রশ্নও শুনতে হয়েছে নতুন অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে। জবাবে সাকিব জানিয়েছেন, মুমিনুল যদি চান তাহলে বিশ্রাম নিতে পারেন।

অ্যান্টিগা টেস্টে ৭ উইকেটে হেরেছে বাংলাদেশ। ব্যাটিং ব্যর্থতাকেই হারের কারণ হিসেবে দেখছেন অধিনায়ক সাকিব। এই টেস্টে দুই ইনিংসে মুমিনুল করেছেন ৪ রান। তাঁর বিশ্রাম প্রয়োজন কি না জানতে চাইলে সাকিব বলেন, এটা আমার পক্ষে বলা মুশকিল। আমার তো ওর সঙ্গে সব সময় কথা হয়। আবারও কথা হবে। ও যদি মনে করে যে, হ্যাঁ ওর বিশ্রাম দরকার আছে, সেটা হতে পারে।

তবে সিরিজের মাঝে কোনো খেলোয়াড়ের বিশ্রাম নিয়ে কথা বলতে চান না সাকিব। তিনি বলেছেন, এই মুহূর্তে একটা ম্যাচ শেষ হওয়ার পর কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়াটা বা কোনো কিছু চিন্তা করাটা খুব একটা ভালো কিছু না। আমি যেটা বললাম, পরের দুই তিন দিন বিশ্রাম আছে। এরপর যখন সেন্ট লুসিয়ায় অনুশীলন করব, হয়তো সেদিন আমরা চিন্তা করতে পারব যে আসলে দলের জন্য কোনটা হলে ভালো হতে পারে।

তবে দ্বিতীয় ম্যাচের একাদশে খুব একটা পরিবর্তন আনতে চাচ্ছেন না সাকিব। তিনি বলেছেন, পরিবর্তন করলে খুব বেশি যে ভালো কিছু হবে, সেটার নিশ্চয়তাও আপনি দিতে পারবেন না।


আরও খবর



পদ্মা সেতু নির্মাণে ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজতে রুলের শুনানির দিন নির্ধারণ

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৬ জুন ২০২২ | ২২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পদ্মা সেতু নির্মাণের চুক্তি নিয়ে দুর্নীতির মিথ্যা গল্প সৃষ্টির নেপথ্যের ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করতে কমিশন গঠন প্রশ্নে জারি করা রুল শুনানির জন্য আগামীকাল সোমবার দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট।

আজ রোববার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ দিন ধার্য করেন। আদালতে রুলটি শুনানির জন্য উপস্থাপন করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক।

২০১৭ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি পদ্মা সেতু নির্মাণ চুক্তি এবং দুর্নীতির মিথ্যা গল্প সৃষ্টির নেপথ্যে থাকা প্রকৃত ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করতে তদন্ত কমিশন গঠন করতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না এবং দোষীদের কেন বিচারের মুখোমুখি করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

মন্ত্রিপরিষদ, স্বরাষ্ট্র, আইন ও যোগাযোগ সচিব এবং দুদকের চেয়ারম্যানকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

২০১৭ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি একটি জাতীয় দৈনিকে ইউনূসের বিচার দাবি, আওয়ামী লীগ ও সমমনা দলগুলো একাট্টা শীর্ষক প্রকাশিত প্রতিবেদনসহ বিভিন্ন পত্রিকার সংবাদের কথা নজরে নিয়ে হাইকোর্ট স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এ আদেশ দেন।


আরও খবর



দেশে বন্যায় ৪২ জনের প্রাণহানি: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ জুন 20২২ | ২১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বন্যার সময় নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে ও বন্যাসৃষ্ট কিছু দুর্ঘটনায় সারা দেশে এ পর্যন্ত ৪২ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। গত ১৭ মে থেকে ২১ জুন পর্যন্ত এসব মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে বলে জানায় অধিদপ্তর। সারা দেশের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের এক প্রতিবেদনে বুধবার বিকালে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে জানানো হয়, বন্যায় পানিবাহিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে। গতকাল (মঙ্গলবার) পর্যন্ত বন্যায় বিভিন্ন রোগে ২ হাজার ৯৩৪ জন আক্রান্ত থাকলেও আজ (বুধবার) আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৩ হাজার ৪০৩ জনে দাঁড়িয়েছে।

এতে জানানো হয়, গত ১৭ মে থেকে ২১ জুন পর্যন্ত দেশে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে ২ হাজার ৫১৬ জন। তবে এখন পর্যন্ত ডায়রিয়ায় কারো মৃত্যু হয়নি। এ ছাড়া আরটিআই (চোখের রোগ) রোগে আক্রান্ত হয়েছে ১১৩ জন। এ রোগেও কারো মৃত্যু হয়নি।

প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়, বজ্রপাতে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩ জন, তাদের মধ্যে ১২ জনেরই মৃত্যু হয়েছে। সাপের দংশনে চারজন আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এই সময়ে পানিতে ডুবে মোট ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। চর্ম রোগে আক্রান্ত হয়েছে ১৬৩ জন, চোখের প্রদাহজনিত রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ৬১ জন, নানাভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছেন ৩৯ জন। এ ছাড়া অন্যান্য রোগে আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৪৮১ জন।


আরও খবর