আজঃ বুধবার ২৫ মে ২০২২
শিরোনাম

হানিকুইন আনারসে সয়লাব রাঙামাটির বাজার

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পার্বত্য জেলা রাঙামাটির হানিকুইন আনারস দেশজুড়ে বিখ্যাত। মৌসুমী রসালো মিষ্টি ফলটি বর্তমানে জেলার বাজার দখল করে আছে। বিক্রেতাদের হাঁক-ডাক এবং ক্রেতা সমাগমে হাটগুলো বেজায় ব্যস্ত। চলতি বছর জেলায় আবহাওয়া ভালো থাকায় অন্যান্য বছরের তুলনায় ফলনও বেশ ভালো হয়েছে। স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে রসালো ফলটি জেলার বাইরে চট্টগ্রাম ও ঢাকার বাজারে যাচ্ছে।

পাহাড়ের মাটি আনারস চাষের উপযোগী হওয়ায় আবাদ বাড়ছে দিনদিন। পাহাড়ে উৎপাদিত কেমিক্যালমুক্ত রসালো ফলটির স্থানীয় বাজারের পাশাপাশি জেলার বাইরে চাহিদা রয়েছে বেশ। পাহাড়ের ভাঁজে ভাঁজে কৃষকরা চাষ করে ফলটি। কৃষকরা ইঞ্জিন চালিত নৌকায় করে রাঙামাটি শহরের সমতাঘাট, তবলছড়ি, পৌর ট্রাক টার্মিনাল এবং রিজার্ভ বাজারে নিচ্ছেন এবং সেখান থেকে পাইকারি ব্যবসায়ীরা আনারস কিনে ট্রাকে করে জেলার বাইরে নিয়ে যাচ্ছেন।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রাঙামাটি কার্যালয় সূত্র জানায়, হানিকুইন জাতের এ আনারস জেলায় চলতি মৌসুমে দুই হাজার একশ হেক্টর জমিতে চাষ করা হয়েছে। বর্তমানে আনারসের ব্যাপক চাহিদা। সেই সঙ্গে উৎপাদন ভালো হওয়ায় কৃষকদের আনারস চাষে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে।

এদিকে রাঙামাটির বনরূপা, কলেজগেট, তবলছড়ি এবং রিজার্ভবাজার হাটগুলো ঘুরে দেখা গেছে, বড় প্রতিজোড়া আনারস ৬০ টাকা, মাঝারি ৪০ এবং ছোটগুলো ২০ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। ফলন ভালো হওয়ায় এবং দাম হাতের নাগালে থাকায় বেজায় খুশি ক্রেতারা। রসালো ফলটি খেয়ে তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলছেন তারা।

নানিয়ারচর উপজেলার আনারস চাষি দীপ্তিময় চাকমা বলেন, এ বছর ১০ একর পাহাড়ি জমিতে আনারস চাষ করেছি। উৎপাদনও হয়েছে বেশ। তবে উৎপাদন বেশি হওয়ায় বাজারে আনারসের দাম পূর্বের তুলনায় কিছুটা কম। জেলার আনারস ব্যবসায়ী রহমত মিয়া বলেন, কখনো লাভ বেশি আবার কখনো লোকসান গুণতে হয়। এ বছর উৎপাদন ভালো হওয়ায় আনারসের দাম অন্যান্য বছরের তুলনায় কিছুট কম। 

রাঙামাটিতে আনারস কিনতে আসা চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী আসাদ সওদাগর বলেন, প্রতি বছর লাখ পিস আনারস কিনি রাঙামাটি থেকে। এ অঞ্চলের আনারস অত্যন্ত সুস্বাদু এবং ক্রেতাদের চাহিদা ব্যাপক রয়েছে। তাই প্রতি মৌসুমে এখান থেকে আনারস কিনে চট্টগ্রামে নিয়ে যাই। আনারস কিনতে আসা আবুল ফজল বলেন, আমাদের অঞ্চলের মতো এত সুস্বাদু আনারস আমি এখনো খাইনি। দাম বেশি থাকুক বা না থাকুক, প্রতি বছর পরিবারের জন্য আনারস কিনে থাকি।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রাঙামাটি কার্যালয়ের উপ-পরিচালক তপন কুমার পাল বলেন, চলতি মৌসুমে জেলায় হানিকুইন জাতের আনারসের ফলন ভালো হয়েছে। প্রতি বছর আনারসের চাহিদা বাড়ায় জেলায় আনারসের ফলন বাড়ছে। যে কারণে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর চাষিদের আনারস চাষে সব ধরনের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে। কৃষকরাও লাভের মুখ দেখছেন।

কৃষক এবং ব্যবসায়ীদের অনেক বছরের দাবি, রাঙামাটিতে একটি হিমাগার দরকার। হিমাগার না থাকায় প্রতি বছর হাজার টন আনারসসহ অন্যান্য ফসল পচে যায়। যে কারণে উৎপাদিত ফল সংরক্ষণের জন্য একটি হিমাগার খুবই গুরত্বপূর্ণ। তাই জেলায় একটি হিমাগার তৈরির জন্য সরকারের কাছে জোর দাবি জানান ব্যবসায়ী এবং কৃষকরা।

নিউজ ট্যাগ: হানিকুইন আনারস

আরও খবর



নির্মাণ শ্রমিকের ধর্ষণের শিকার তরুণী: থানায় মামলা

প্রকাশিত:বুধবার ২৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ মে ২০২২ | ১২৫জন দেখেছেন

Image

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলায় বাড়িতে কাজ করতে আসা নির্মাণ শ্রমিকের ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক তরুণী (১৮)।

অভিযুক্ত নির্মাণ শ্রমিকের নাম মো. সোহেল (১৮)। সে উপজেলার ৪নং চর ওয়াপদা ইউনিয়নের ২নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব চরজব্বার গ্রামের এছাক মোল্লা বাড়ির মো.হানিফ মিয়ার ছেলে।

গতকাল মঙ্গলবার ২৪ মে রাতে এ ঘটনায় সোহেলসহ পাঁচজনকে আসামি করে তরুণীর বাবা বাদী হয়ে চরজব্বার থানায় নারীও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, কয়েক মাস আগে ভিকটিমের নানার বসতঘর নির্মাণের কাজ করতে যায় নির্মাণ শ্রমিক সোহেল। একপর্যায়ে দুজনের মধ্যে সম্পর্ক হয়। এরপর বিয়ের প্রলোভর দেখিয়ে একাধিকবার তাকে ধর্ষণ করে সে। সর্বশেষ গত ১৬ মে রাত ১০টার দিকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একটি পরিত্যক্ত বাড়ির বাগানে ডেকে নিয়ে পুনরায় তাকে ধর্ষণ করে সোহেল। ঘটনাটি জানাজানি হলে পরের দিন আদালতের মাধ্যমে বিয়ে করার কথা বলে সোহেল পালিয়ে যায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ২২ মে গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে অভিযুক্ত সোহেলদের বাড়িতে যান নির্যাতিত তরুণীর পিতা। তখন সোহেলের পরিবারের সদস্যরা তাঁদের হুমকি-ধমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেন।

মামলা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন চরজব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল হক। তিনি আরো বলেন, ভিকটিমকে ডাক্তারিক পরীক্ষার জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আসামিকে গ্রেফতারে চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।


আরও খবর



বেড়েছে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা, রোগীতে ঠাসা পঙ্গু হাসপাতাল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | ৫১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সড়ক দুর্ঘটনার কবলে পড়ে গত ৬ দিনে রাজধানীর জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) এক হাজার ২৫০ জনেরও বেশি রোগী ভর্তি হয়েছেন। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এই সময়ে হাসপাতালে আসাদের মধ্যে ৩০ শতাংশই মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার শিকার। তাদের অনেকেরই হাত-পা কেটে ফেলতে হয়েছে।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, এক হাজার শয্যার হাসপাতালে কোনো শয্যা খালি নেই। পুরো হাসপাতালই রোগীতে ঠাসা। শয্যা না পেয়ে বাধ্য হয়ে হাসপাতালের মেঝেতে থেকে চিকিৎসা সেবা নিতে হচ্ছে রোগীদের। জানা গেছে, মোটরসাইকেল ছাড়াও সিএনজিচালিত অটোরিকশায় দুর্ঘটনা বেশি ঘটেছে। সে তুলনায় বাস ও ট্রাকের দুর্ঘটনা কম। আহতদের অধিকাংশেরই আঘাত গুরুতর।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, গত ২ মে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে ১৯৭ জন পঙ্গু হাসপাতালে আসেন। তাদের মধ্যে সংকটাপন্ন অবস্থায় ৬৫ জনের অস্ত্রোপচার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাকি ১৩২ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাসায় পাঠানো হয়। এরপর ৩ মে (ঈদের দিন) ১৭৯ জন হাসপাতালে আসেন, তাদের মধ্যে ৮২ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। ৪ মে দুর্ঘটনায় আহত হয়ে ২৫২ জন হাসপাতালে আসেন। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত ৮৫ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয় ১৬৭ জনকে।

এরপর গত ৫ মে ২৩৬ জন হাসপাতালে আসেন, তাদের মধ্যে ১০৮ জনকে অস্ত্রোপচার শেষে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাকি ১২৮ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়। ৬ মে সড়ক দুর্ঘটনার শিকার আরও ১৮৩ জন হাসপাতালে আসেন। তাদের মধ্যে ৬৪ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল শনিবার (৭ মে) নতুন করে আরও ২০৩ জন হাসপাতালে আসেন। তাদের মধ্যে ৮৯ জনকে অস্ত্রোপচার শেষে ভর্তি করা হয়। বাকি ১১৪ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাসায় পাঠানো হয়।

দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে দুর্ঘটনার শিকার মানুষেরা চিকিৎসা নিতে পঙ্গু হাসপাতালে আসেন। কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া এলাকা থেকে আসা হৃদয় হাসান (২৬) নামে একজন জানান, ঈদের পরদিন ১৮ জন বন্ধু মিলে মোটরসাইকেলে করে সিলেটের উদ্দেশ্যে ঘুরতে বের হন। সবার সামনে থাকা মোটরসাইকেলের যাত্রী ছিলেন তিনি। দুর্ঘটনায় পড়ে তার একটি পা কেটে ফেলতে হয়েছে। বন্ধুর অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

হাসপাতালে ভর্তি মো. ইব্রাহিম নামের (৩০) আরেক রোগী জানান, মোটরসাইকেলে তিনি কটিয়াদি থেকে পুলেরঘাট বাজারে আসছিলেন, তখন বিপরীত দিক থেকে একটি বাস ও আরেকটি অটোরিকশা একসঙ্গে আসছিল। সামনে দুই গাড়ি দেখে বাধ্য হয়েই তিনি পাকা সড়ক থেকে মাটির অংশে নেমে আসেন। কিন্তু নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অটোরিকশাটি সেখানেই এসে তার মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়।

ইব্রাহিম বলেন, গতকাল (৭ মে) হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি। এখন পর্যন্ত কোনো সিট না পেয়ে মেঝেতে শুয়েই চিকিৎসা নিতে হচ্ছে। চিকিৎসক জানিয়েছেন অন্তত আরও ২০ দিনের মতো থেকে চিকিৎসা নিতে হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্মরত এক নার্স জানান, ঈদ-পরবর্তী সময়ে রোগীর চাপ সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে তাদের। হাসপাতালে আসা একের পর এক রোগীকে সেবা দিতে গিয়ে খাওয়া ও বিশ্রামেরও সুযোগ থাকে না তাদের। মাত্র ছয় জন নার্স কাজ করছি। এটা রীতিমতো আমাদের ওপর অত্যাচারের মতো।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ইনচার্জ ও সিনিয়র স্টাফ নার্স রহিমা আক্তার বলেন, স্বাভাবিক সময়ে হাসপাতালটিতে দৈনিক দেড়শ জনের মতো রোগী আসলেও ঈদের সময় রোগীর সংখ্যা পৌঁছে যায় ২০০ থেকে ২৫০ জনে। ঈদে বেশিরভাগ স্বাস্থ্যকর্মীর ছুটির কারণে বাকিদেরকেই এই চাপ সামলাতে হয়। রোগী যতই আসুক, কষ্ট সত্ত্বেও আমাদেরকে তো ম্যানেজ করতেই হবে। কারণ দুর্ঘটনায় হাত-পা ভাঙা এসব রোগীদের তো আর আমরা ফেরত দিতে পারব না। আমাদের স্বাস্থ্যকর্মীরা তাদের নির্ধারিত সময়ের বাইরেও সেবা দিচ্ছেন। নিয়মিত সিনিয়র চিকিৎসকরাও খোঁজ-খবর নিচ্ছেন। এর বাইরে বিশেষ সমস্যা হলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানাই। তখন অতিরিক্ত চিকিৎসক এসে কাজ করেন।

জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম জানান, ঈদ ও ঈদ পরবর্তী সময়ে আমাদের হাসপাতালে রেকর্ড সংখ্যক রোগী এসেছে। তাদের মধ্যে প্রায় অর্ধেক রোগীকেই ছোট-বড় অস্ত্রোপচার করতে হয়েছে। এখন পর্যন্ত হাসপাতালে আসা রোগীদের মোটরসাইকেল দুর্ঘটনাই বেশি। জরুরি ওয়ার্ডে জায়গা না হওয়ায় অনেককে চিকিৎসা দিতে হচ্ছে বারান্দায়।

জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানের পরিচালক অধ্যাপক ডা. আবদুল গণি মোল্লা বলেন, প্রতি ঈদেই আমাদেরকে একটা ভয়ংকর অবস্থার মুখোমুখি হতে হয়। অন্যান্য বারের তুলনায় এবার দুর্ঘটনায় আহত হয়ে আসা রোগীর সংখ্যা বেশি। ঈদ একটি খুশির সময়। এই সময়ে মানুষ এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাবে এটাই স্বাভাবিক। তাছাড়া আমাদের পরিবহনগুলো যে একেবারে খারাপ, তা তো নয়। কিন্তু এবার ঈদে যে পরিমাণ মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা ঘটেছে তা আমার মনে হয় গত কয়েক বছরে হয়নি।

হাসপাতালের পরিচালক আরও বলেন, কিছু চিকিৎসক ঈদের ছুটিতে গেলেও অন্য ধর্মের চিকিৎসকরা এই সময়ে নিরলসভাবে চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন। এছাড়া বেশ কয়েকজন সিনিয়র চিকিৎসক সার্বক্ষণিক হাসপাতালে সময় দিয়েছেন। আমি নিজে ঈদের দিনেও সারাদিন হাসপাতালে ছিলাম। যে কারণে চিকিৎসাসেবায় খুব বেশি সমস্যা হয়নি।

নিউজ ট্যাগ: পঙ্গু হাসপাতাল

আরও খবর



গাইবান্ধায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শ্বশুর–জামাইয়ের মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৪১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শ্বশুর ছায়েদ আলী (৬২) ও জামাতা সাজু মিয়ার (৪০) মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১২ মে) বিকালে উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের কালিকাপুর গ্রামের ছায়েদ মিয়া (৬৩) ও তাঁর জামাতা সাজু মিয়া (৪০)।

স্থানীয়রা জানান, বাড়ির উঠান থেকে ধানমাড়াইয়ের মেশিন ঘরের বারান্দায় তুলতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন জামাতা সাজু মিয়া। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পরে তাকে উদ্ধার করতে গিয়ে শ্বশুর ছায়েদ আলীও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। এতে দু’জনেরই মৃত্যু হয়।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ প্রধান মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, পরিবারটিকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়েছে।’

গোবিন্দগঞ্জ থানার এসআই সঞ্জয় কুমার বলেন, অভিযোগ না থাকায় মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’


আরও খবর



বিপর্যয় সামলিয়ে লিটনের দুর্দান্ত সেঞ্চুরি

প্রকাশিত:সোমবার ২৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৩ মে ২০২২ | ২৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দল যখন মহা ব্যাটিং বিপর্যয়ে, ঠিক তখন ক্রিজে নামেন লিটন দাস। শুরু থেকেই দেখেশুনে খেলতে থাকেন। অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে মিলে ইনিংসকে বড় করতে থাকেন। দুজনের ব্যাটিংয়ের ওপর ভর করে বিপর্যয় সামলিয়ে ম্যাচে ফিরেছে বাংলাদেশ।

শুরুতে দেখেশুনে খেললেও ধীরে ধীরে নিজের সহজাত ব্যাটিংয়ে হাত খুলতে থাকেন লিটন দাস। এরই মধ্যে তুলে নিয়েছেন টেস্ট ক্যারিয়ারে তৃতীয় শতক। ১৪৯ বল মোকাবিলায় তিন অঙ্কের ম্যাজিক ফিগার স্পর্শ করেন এই উইকেটকিপার ব্যাটার। উইলোতে রয়েছে ১৩টি চারের মার। কোনো ছয়ের মার নেই।

আজ সকালে দিনের প্রথম সেশনের শুরুর ৪৫ মিনিটেই ৫ উইকেট হারিয়ে বসে টাইগাররা। তখন দলের স্কোর ছিল ২৪ রান। সেখান থেকে মুশফিকুর রহিমকে সঙ্গে নিয়ে দলের হাল ধরেন লিটন দাস।

এই রিপোর্ট লেখার সময় তাদের জুটি ১৮৪ রানে দাঁড়িয়েছে। মুশফিক ৮৭ ও লিটন ১০১ রানে অপরাজিত। বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেট হারিয়ে ২০৮ রান।

নিউজ ট্যাগ: লিটন দাস

আরও খবর



আজকের রাশিফল!

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ৩৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজকের রাশিফল ১৮ মে ২০২২ বুধবার, চাঁদ বৃশ্চিক থেকে ধনু রাশিতে যাত্রা করছে। ধনু রাশিতে চন্দ্রের যোগাযোগের কারণে গজকেশরী যোগ তৈরি হবে, কারণ চন্দ্র মীন রাশিতে গমনকারী বৃহস্পতি থেকে কেন্দ্রস্থলে থাকবে। এমন পরিস্থিতিতে আজকের দিনটি ধনু রাশির জন্য শুভ হবে, গণেশের আশীর্বাদে অন্যান্য রাশির জাতকদের দিনটি কেমন যাবে, দেখুন আজকের ভবিষ্যদ্বাণী।

মেষ: মার্চ ২১ থেকে এপ্রিল ১৯। আজ অকারণেই আপনি হতাশ বোধ করতে পারেন। তবে সম্পর্কের ক্ষেত্রে আজকের দিনটি অত্যন্ত শুভ। অতীতের ব্যবসায়িক পরিকল্পনা আজ ফল দেবে।

বৃষ: এপ্রিল ২০ থেকে মে ২০। আজ আপনার শারীরিক কোনও সমস্যা না থাকলেও মানসিক ভাবে সামান্য সমস্যায় পড়তে পারেন। চেষ্টা করুন সম্পর্কের পুরনো ভুল বোঝাবুঝি মিটিয়ে ফেলতে। আর্থিক বিষয়ে কোনও পদক্ষেপ নিতে পারেন।

মিথুন: মে ২১ থেকে জুন ২০। ডায়েটে অতিরিক্ত অনিয়মের কারণে আপনার স্বাস্থ্যের ক্ষতি হচ্ছে, চেষ্টা করুন তা শুধরে নিতে। সম্পর্কে বেশ জটিলতা তৈরি হতে পারে। শিক্ষার্থীরা যে কোনও পরীক্ষায় ভাল ফল করবেন।

কর্কট: জুন ২১ থেকে জুলাই ২২। আজ অনেক পরিস্থিতিই আপনার হাতের বাইরে বেরিয়ে যেতে পারে। চেষ্টা করুন অন্যদের কথা শুনতে। তবে কর্মক্ষেত্রে দিনটি আপনার জন্য শুভ।

সিংহ: জুলাই ২৩ থেকে অগাস্ট ২২। রোজকার রুটিন পরিবর্তন করতে চাইলে করতে পারেন তবে, একেবারে পরিবর্তন না করাই ভাল। আপনি অযথা আপনার সম্পর্ককে জটিল করছেন।

কন্যা: অগাস্ট ২৩ থেকে সেপ্টেম্বর ২২। আজ আপনি যশ এবং অর্থ দুই পাবেন। তবে কর্মক্ষেত্রে অত্যাধিক কাজের চাপ আপনার ঘুমের ব্যঘাত ঘটাবে। যাঁরা সিঙ্গল রয়েছেন তাঁরা এবার সম্পর্কে যেতে পারেন।

তুলা: সেপ্টেম্বর ২৩ থেকে অক্টোবর ২২। সৃজনশীল পেশার সঙ্গে যুক্তদের জন্য বেশ ভাল দিন। স্বাস্থ্যও আজ খুব ভাল সঙ্গ দেবে। আপনি যে সব প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করেছেন, তা সর্বসমক্ষে প্রকাশ করার সময় এটাই।

বৃশ্চিক: অক্টোবর ২৩ থেকে নভেম্বর ২১। আজ আপনার শারীরিক ও মানসিক উভয় স্বাস্থ্যই ভাল যাবে। কাজের ক্ষেত্রে আপনি আত্মবিশ্বাসী অনুভব করবেন। আজ কোনও ইন্টারভিউতে অংশ নিলে আপনি সফল হবেন।

ধনু: নভেম্বর ২২ থেকে ডিসেম্বর ২১। অতিরিক্ত রাত জাগার অভ্যেস থাকলে তা আপনার শরীরের ক্ষতি করবে। কলিগের সঙ্গে রোম্যান্টিক সম্পর্কে জড়ানো নিয়ে আপনার নানা সমস্যা হতে পারে। কোনও বিষয়ে বন্ধুদের থেকে সাহায্য চাইতে হলে দ্বিধা করবেন না।

মকর: ডিসেম্বর ২২ থেকে জানুয়ারি ১৯। আজ সারাদিন এনার্জি তুঙ্গে থাকবে। তবে সম্পর্কের ক্ষেত্রে আপনি কিছুটা অ্যাগ্রেসিভ হয়ে উঠতে পারেন। কর্মক্ষেত্রে কোনও বিষয় নিয়েই অযথা টেনশন করবেন না।

কুম্ভ: জানুয়ারি ২০ থেকে ফেব্রুয়ারি ১৮। শারীরিক স্বাস্থ্য অসাধারণ থাকবে আজ। আপনার কলিগ হোক বা পরিবারের সদস্যরা- সবাই আজ আপনার প্রশংসা করবেন। কমিউনিকেশন স্কিল নিয়ে চর্চা করুন, এতে আপনিই লাভবান হবেন।

মীন: ফেব্রুয়ারি ১৯ থেকে মার্চ ২০। যতই ব্যস্ত সময় কাটুক, এক্সারসাইজ করতে ভুলবেন না। যাঁরা আপাতত কর্মহীন রয়েছেন তাঁরা ভাল কাজের সুযোগ পেতে পারেন।


আরও খবর
আজকের রাশিফল!

বুধবার ২৫ মে ২০২২