আজঃ বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল ২০২৪
শিরোনাম

গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডসে চারটি পুরস্কার জিতলেন বিয়ন্সে

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

এবার গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডসে একসঙ্গে চারটি পুরস্কার জিতলেন বিয়ন্সে নোলস। এই শোয়ের সব থেকে ডেকরেটেড শিল্পী হিসেবে উঠে এলেন এই গায়িকা। ভেঙে ফেললেন গত ২৬ বছরের রেকর্ড। এর আগে সর্বোচ্চ গ্র্যামি পুরস্কার জয়ের খেতাব ছিল হাঙ্গেরিয়ান-ব্রিটিশ কন্ডাকটর জর্জ সল্টির কাছে।

এই পুরস্কার পেয়ে গায়িকা বলেন, আমি অত্যন্ত আবেগপ্রবণ হয়ে পড়ছি। আমি এই রাতে এটি কেবল পাওয়ার চেষ্টা করছি। আমি ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জানাই আমাকে সুরক্ষিত রাখার জন্য। বিয়ন্সে এই পুরস্কার পাওয়ার পর তার স্বামী জে জেড উঠে দাঁড়িয়ে হাততালি দেন তার জন্য। গায়িকা তার বক্তব্যে তার বাবা মা, প্রয়াত কাকু, তার স্বামী এবং সন্তানদের ধন্যবাদ জানান।

তার কথায়, আমি আমার কাকু, জনিকে ধন্যবাদ জানাই, তিনি হয়তো সশরীরে আজ এখানে নেই, কিন্তু আমি জানি তাঁর আত্মা এখানেই আছে। আমি আমার মা বাবাকে ধন্যবাদ জানাই আমাকে এগিয়ে যেতে সাহায্য করার জন্য। আমার স্বামী সন্তানদের অনেক ধন্যবাদ, যাঁরা বাড়ি বসেই এই অনুষ্ঠান দেখছেন।

বিয়ন্সে মোট ৩২টি গ্র্যামি খেতাব জয় করলেন। কাফ ইট গানটির জন্য তিনি সেরা আর অ্যান্ড বি গানের পুরস্কার পান। বিয়ন্সের ২০২২ সালের অ্যালবাম রেনেসাঁ একাধিক বিভাগে মনোনীত হিয়েছিল। তার মধ্যে থেকে চারটি বিষয়ে তিনি পুরস্কার পান। এক রাতে চারটি পুরস্কার পাওয়ার পর তিনি মোট ৩২টি গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডের অধিকারিণী হলেন। এরই মধ্যে তিনি পুরনো রেকর্ড ভেঙে ফেলেছেন। এখনও এই অনুষ্ঠান শেষ হয়নি। মনে করা হচ্ছে আরও কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তিনি হয়তো নিজের রেকর্ড ভেঙে ফেলতে পারেন আরও পুরস্কার জিতে।

কোন কোন খেতাব পেলেন বিয়ন্সে? ব্রেক মাই সোল গানটির জন্য সেরা ডান্স এবং ইলেকট্রনিক রেকর্ডিং পুরস্কার পান, সেরা ট্র্যাডিশনাল আর অ্যান্ড বি পুরস্কার পান প্লাস্টিক অব দ্য সোফা এবং সেরা আর অ্যান্ড বি গানের পুরস্কার পান কাফ ইটের জন্য। তাঁর এই জয়ের জন্য সঞ্চালক ট্রেভর নোয়া তাকে দ্য জিওএটির অ্যাখ্যা দেন।

৫ ফেব্রুয়ারি এবারের গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এদিনের আগে পর্যন্ত বিয়ন্সের দখলে ছিল ২৪টি গ্র্যামি পুরস্কার। এবার একসঙ্গে চারটি পেয়ে মোট ৩২ গ্র্যামি পুরস্কারের অধিকারিণী হন তিনি। এর আগে সর্বোচ্চ গ্র্যামি পুরস্কার প্রাপকের রেকর্ড হয় করেছিলেন জর্জ সল্টি। তাঁর দখলে ৩১টি গ্র্যামি পুরস্কার আছে।


আরও খবর



ওপার বাংলায় ফেলুবক্সীর লাবণ্য হয়ে আসছেন পরীমনি

প্রকাশিত:সোমবার ০১ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০১ এপ্রিল ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সৃষ্টির প্রতি দারুণ অনুরাগী ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা পরীমনি। রাবিন্দ্রিক সাজে প্রায়ই ফেসবুকে দেখা দেন তিনি। কখনও-সখনও পোস্ট করেন কবিগুরুর কবিতা বা গানের লাইন। তার সাহিত্যের চরিত্রে কাজ করতেও আগ্রহী পরী। হয়তো কোনো দিন রবিঠাকুরের বিখ্যাত উপন্যাস শেষের কবিতার নায়িকা লাবণ্য হিসেবে পরীমনিকে দেখা যাবে।

তবে আপাতত তিনি বাংলা সাহিত্যের বিখ্যাত দুই গোয়েন্দা ফেলুদা আর ব্যোমকেশ বক্সীর মিশ্রণে নির্মিতব্য সিনেমায় লাবণ্য হয়ে আসছেন। কলকাতার সিনেমায় কাজ করছেন পরী সে খবর বেশ পুরোনো। ছবির নাম ফেলুবক্সী’। সম্প্রতি প্রকাশ হলো সে সিনেমায় পরীর লাবণ্য চরিত্রের ফার্স্ট লুক।

ফেসবুকে নিজেই সেই লুকের ছবি পোস্ট করে সবার সঙ্গে ফেলুবক্সীর লাবণ্যকে পরিচয় করিয়ে দিলেন বাংলা সিনেমার ডানাকাটা পরী। দেবরাজ সিনহা পরিচালিত এ সিনেমায় অভিনেতা সোহম চক্রবর্তী, মধুমিতা সরকারদের সঙ্গে দেখা যাবে অভিনেত্রীকে। এতে কাজ করা প্রসঙ্গে পরীমনি বলেন, লাবণ্য চরিত্রটা যখন পড়লাম, তখন থেকেই আত্মবিশ্বাসী ছিলাম যে, এই চরিত্রটা সঠিকভাবেই ফুটিয়ে তুলতে পারব। এবার কতটা ভালো পেরেছি, সেটা দর্শক বলবেন।’

ছবিতে সব রহস্য পরীমনির চরিত্রটা কেন্দ্র করেই ঘনীভূত হবে। তবে পরিচালক বললেন, এখানে প্রোটাগনিস্ট সোহম। এই চরিত্রটা মজাদার, টেক স্যাভি, বিশ্বের নিত্যনতুন টেকনোলজির বিষয়ে নিজেকে আপডেট রাখে। এমনিতেই বাঙালির প্যাশান খাওয়াদাওয়া আর রহস্য সমাধান জমিয়ে রেসিপি পড়ার মতো করে রহস্যের কিনারা করে সে। ফেলুবক্সী নামটা শুনেই নিশ্চয় দর্শকরা বুঝতে পারছেন বাংলা সাহিত্যের কিংবদন্তি চরিত্রের প্রভাব রয়েছেন তার মধ্যে। তবে আবার নাম শুনেই এ সিনেমা নিয়ে দর্শককে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে বারণ করলেন নির্মাতা। কারণ চিত্রনাট্যের মজা নিতে ছবিটা দেখতে হবে বলে দাবি করেন তিনি।


আরও খবর



চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৩ এপ্রিল ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি

Image

চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নের রোকনপুর সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে সাইফুল ইসলাম (৩০) নামে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় রাজু ইসলাম (২৫) নামে একজন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সাইফুল ইসলাম নগরপাড়ার হাসান আলীর ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার রাতে সাইফুলসহ আরও কয়েকজন রোকনপুর সীমান্ত দিয়ে ভারতে গরু আনতে যান। সেসময় বিএসএফ সদস্যরা গুলি ছুঁড়লে ঘটনাস্থলেই মারা যান সাইফুল। পরে বিএসএফ সাইফুলের মরদেহ ভারতের অভ্যন্তরে নিয়ে যায়।

রাধানগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মতিউর রহমান বলেন, গরু আনতে গিয়ে বিএসএফের গুলিতে সাইফুল ইসলাম নামে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। তার মরদেহ এখন ভারতেই আছে।

১৬ বিজিবি ব্যাটালিয়ন রোকনপুর বিওপি কমান্ডার নায়েব সুবেদার আজাদ রহমান বলেন, সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন বলে খবর পেয়েছি। এ বিষয়ে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।


আরও খবর



দেশব্যাপী হিট স্ট্রোকে পুলিশসহ আরো ৯ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ এপ্রিল 20২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৪ এপ্রিল 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

তীব্র দাবদাহে দূর্বিষহ জনজীবন। এরমধ্যে রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলায় তাপমাত্রা আবারও বেড়েছে। ঈশ্বরদী, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, খুলনা, রাজশাহী, মংলা ও খেপুপাড়ায় তাপমাত্রা ছিল ৪০ ডিগ্রির ওপরে। ৪১ জেলার তাপমাত্রা ছিল ৩৬ থেকে ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তাপমাত্রার পারদ এমন থাকলে বাতাসে জলীয় বাষ্পের আধিক্যের কারণে গরমের অনুভূতি অনেক বেশি হয়। আবহাওয়া বিশ্লেষকরা বলছেন, তাপমাত্রা আজও চড়বে। সহসা নিস্তার মিলবে, এমন আভাস দেশিবিদেশি কোনো আবহাওয়া মডেল দিতে পারছে না।

এদিকে হিট স্ট্রোকে প্রতিদিন মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। গতকাল মঙ্গলবারও একজন পুলিশ কনস্টেবলসহ রাজধানী ঢাকা ও বিভিন্ন জেলায় ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২০ এপ্রিল থেকে গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত চার দিনে সারাদেশে হিট স্ট্রোকে মারা গেছে ৩৩ জনের বেশি।

প্রাণঘাতী এই অসহ্য গরমে সবাই এখন চাতকের মতো তুমুল বৃষ্টির জন্য অধীর অপেক্ষায় প্রহর গুনছে। উন্মুক্ত প্রান্তরে সালাতুল ইসতেস্কা পড়ছে মুসলমানরা। সিলেটসহ কিছু স্থানে বিক্ষিপ্ত যে বৃষ্টিপাত হচ্ছে, তাতে পথের ধুলোর মরণ হলেও মোটেই স্বস্তি মিলছে না। আবহাওয়াবিদরা বলছেন, টানা ভারী বর্ষণ ছাড়া এই দাবদাহ পরিস্থিতির উন্নতি হবে না।

পটুয়াখালীর বাউফলে হিট স্ট্রোকে মোহাম্মদ শাহ-আলম (৫০) নামের এক পুলিশ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। তিনি ঢাকায় পুলিশের গোয়েন্দা শাখায় কর্মরত ছিলেন। তিনি ছুটিতে গ্রামের বাড়ি বাউফল যান। সোমবার রাত ৯টায় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে বাউফল হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখান থেকে তাকে বরিশালে পাঠানো হয়। বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই তিনি মারা যান।

রাজধানীর গুলিস্তান টোল প্লাজার পাশের রাস্তায় মো. আলমগীর শিকদার (৪৫) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। অতিরিক্ত গরমে হিট স্ট্রোকে ঐ ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। গতকাল বেলা ১১টার দিকে অচেতন অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আনা হলে চিকিত্সক মৃত ঘোষণা করেন। আলমগীর যাত্রাবাড়ির পশ্চিম শেখদি এলাকার মৃত জমির শিকদারের ছেলে। এছাড়া সিরাজগঞ্জের তাড়াশে কৃষক আফসার আলী ও মো. হাসান আলী, নাটোরের বড়াইগ্রামে কৃষক বকুল হোসেন, জামালপুরে মরিচ ব্যবসায়ী গোলাম রাব্বানী, বরগুনার আমতলীতে অজিতুন নেসা, কুমিল্লার বুড়িচংয়ে শ্রমিক মুজিবুর রহমান ও খুলনার আড়ংঘাটায় ৬০ বছরের অজ্ঞাত একজন মারা গেছেন।

এদিকে পরপর দুই দিন তাপমাত্রা খানিকটা হ্রাস পাওয়ার পর গতকাল মঙ্গলবার ঢাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা আবার বেড়েছে। আজ বুধবার আরো বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ এ কে এম নাজমুল হক। তিনি জানান, গতকাল রাজধানীর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৩৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আগামী তিন দিন তাপমাত্রা বৃদ্ধির এই অবস্থা অপরিবর্তিত থাকতে পারে। চলতি এপ্রিল মাসের বাকি সময়টা তাপপ্রবাহ থাকতে পারে। গত শনিবার রাজধানীর তাপমাত্রা ছিল ৪০ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এটিও ছিল এ বছরে রাজধানীর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। তবে রবিবার ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে রাজধানীর তাপমাত্রা ২ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমে যায়। ঐ দিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৮ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সোমবার ঢাকার তাপমাত্রা আরো কমে হয়েছে ৩৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, দেশের কোথাও কোথাও আগামী ২৪ ঘণ্টায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকলেও আগামী এক সপ্তাহে পুরো দেশে বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই।


আরও খবর



পানগুছি নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে প্রাণ গেল ছাত্রের

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৯ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বাগেরহাট প্রতিনিধি

Image

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে মাছ ধরতে গিয়ে নদীতে ডুবে ইমাম হোসেন গাজী(১৪) নামে এক স্কুলছাত্র প্রাণ হারিয়েছেন।

শুক্রবার(২৯ মার্চ) বেলা ১১টার দিকে শ্রেণিখালী গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসি সরাফত আলী গাজীর ছেলে ইমাম হোসেন তার দাদা খলিল গাজীর সাথে বাড়ির সামনে পানগুছি নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে জালের দড়িতে পেচিয়ে জালের সাথে ডুবে যায়।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই বেলা ১২ টার দিকে স্থানীয়রা নদীতে তল্লাশি করে ইমাম হোসেনের মরদেহ উদ্ধার করে।

ইমাম হোসেন স্থানীয় শহীদ শেখ রাসেল মুজিব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্র ছিল। সে লেখাড়ায় ভাল ছাত্র ছিল বলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শহিদুল ইসলাম খান জানিয়েছেন।

ফায়ার সার্ভিস মোরেলগঞ্জ স্টেশন কর্মকর্তা প্রবীর দেবনাথ এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।


আরও খবর



গরুর দাম কোটি টাকা, কারণ 'বংশমর্যাদা'

প্রকাশিত:শনিবার ২০ এপ্রিল ২০24 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ এপ্রিল ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর আগারগাঁওয়ের পুরোনো বাণিজ্য মেলা মাঠে অনুষ্ঠিত প্রাণিসম্পদ মেলায় নানা জাতের গরু নিয়ে হাজির হয়েছিল সাদিক এগ্রো। এর মধ্যে আমেরিকার ব্রাহামা জাতের একটি গরুর দাম হাঁকানো হয় এক কোটি টাকা। ১ হাজার ৩০০ কেজি ওজনের গরুটি দেখতে ভিড় করেন দর্শনার্থীরা।

গরুর দাম এত বেশি কেন জানতে চাইলে প্রতিষ্ঠানটির মালিক ইমরান হোসেন বলেন, গরুটির বংশমর্যাদার জন্য দাম বেশি। এই গরুটার বাবা, দাদা, দাদার বাবার পরিচয় আছে।

মেলার আকর্ষণ রোজু নামের গরুটির রং সাদার ওপর হালকা কালো শেড ছাপ ছাপ, ছোট শিং, নাকে নথ। গলায় স্বর্ণের আদলে তৈরি চেইনের সঙ্গে লকেট। গরুটি প্রতিপালনে মাসে ২৫ হাজার টাকা খরচ হয় বলে জানান ইমরান হোসেন।

তিনি বলেন, গরুটার দাম এক কোটি চাওয়া হচ্ছে, এটার অনেক কারণ আছে। এক নম্বর হচ্ছে- এই গরুটার ১১০ বছরের পেডিগ্রি (বংশ পরম্পরা) আছে। আরেকটা বড় কারণ হচ্ছে, এই গরুটার বাবা ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়ন ব্লাড লাইন। এটা হচ্ছে আমেরিকান ভিয়েট ল্যাঞ্চের নোবেল সিরিজ, ওদের সবচেয়ে বেস্ট সিরিজ এটা। এই জাতের গরু কম খাদ্য খেয়ে দ্রুত বড় হতে পারে। মাংস কিংবা ওজনের চিন্তা করে না বরং এটা বংশমর্যাদাপূর্ণ গরু। এর জন্যই দাম বেশি। গরুটি প্রতিপালনে মাসে ২৫ হাজার টাকা খরচ হয় বলেও জানান ইমরান হোসেন।

সাদিক এগ্রোর মালিক আরও বলেন, মেলায় আমরা গরু, ছাগল, উট, দুম্বা, ভেড়াসহ অনেক প্রাণি নিয়ে এসেছি। শুধু যে বেচাকেনা করার জন্য এনেছি সেটি নয়, অনেক প্রাণি আছে মানুষ দেখেনি, তাই নিয়ে আসা। আজকে যেসব বাচ্চারা আসছে, এরা অনেকেই হয়তো উট দেখেনি, আজ দেখতে পারবে। আমরা মনে করি, এটা আমাদের মেলার একটা অর্জন। এই প্রাণিগুলোর সঙ্গে আগামী প্রজন্মকে পরিচয় করিয়ে দেওয়াটাও আমাদের একটা লক্ষ্য।

এ ছাড়া সাদিক এগ্রোর আরেক কর্মকর্তা সৌরভ জানান, মেলা উপলক্ষে প্রায় ২৫ থেকে ৩০টি গরু, ৪টি ছাগল, ৫টি দুম্বা, ৭টি ভুট্টি গরু মেলায় প্রদর্শন করছে। একেকটি দুম্বা ৪ লাখ করে আর ভুট্টি জাতের গরু ২ লাখ ৫০ হাজার থেকে তিন লাখ টাকা দাম চাওয়া হচ্ছে।


আরও খবর