আজঃ মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

গৃহকর্মী তামান্না হত্যার প্রতিবাদে জামালপুরে মানববন্ধন

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জুলাই ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ১৫ জুলাই ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
জামালপুর প্রতিনিধি

Image

সম্প্রতি ঢাকায় গৃহকর্মী তামান্না হত্যা প্রতিবাদে এবং দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে জামালপুরে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার সকাল ১১টায় শহরের দয়াময়ী মোড়ে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনের আয়োজন করেন উন্নয়ন সংঘের পাওয়ার প্রজেক্ট, হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার নেটওয়ার্ক, জামালপুর জেলা শাখা। এতে সহায়তা করেন অক্সফাম বাংলাদেশ।

হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার নেটওয়ার্ক ও জামালপুর অনলাইন জার্নালিস্ট নেটওয়ার্ক সভাপতি জাহাঙ্গীর সেলিমের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন উন্নয়ন সংঘের সহকারী পরিচালক কর্মসূচি মুর্শেদ ইকবাল, পাওয়ার প্রজেক্টের প্রকল্প সমন্বয়কারী জোৎস্না আক্তার, সনাক সভাপতি অজয় কুমার পাল, সংস্কৃতি কর্মী লিটন তরফদার, গৃহকর্মী, নাছিমা আক্তার, উন্নয়ন সংঘের জেলা ব্যবস্থাপক লিটন সরকার, এইচআরডি নেটওয়ার্কের সদস্য সচিব আরজু মিয়া, সাংবাদিক শরিফ প্রমুখ ।

এসময় বক্তারা তামান্না হত্যায় জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি ও শ্রমিকদের শ্রমআইন এর অন্তর্ভুক্তি এবং মর্যাদা প্রতিষ্ঠার দাবি জানান।

জানা যায়, গৃহকর্মী তামান্নাকে চুরির অপবাদ দিয়ে গালমন্দ করা হয়েছে, তার বেতন কেটে রাখা হয়েছে, তাকে মানসিক ও শারীরিকভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। একপর্যায়ে তাকে উঁচু ভবন থেকে ফেলে দেওয়া হয়েছে। হাসপাতালে এক সপ্তাহ পর ১ জুলাই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। এই ঘটনা সুস্পষ্টভাবে মানবাধিকারের লঙ্ঘন।

উল্লেখ্য যে, দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকায় ২৪ জুন প্রকাশিত খবরসূত্রে জানা যায়, ঢাকার রুপনগরে গৃহকর্তা আক্তারুজ্জামানের বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলো হতদরিদ্র পরিবারের সদস্য তামান্না। তাকে নির্যাতন শেষে ৯তলার ছাদ থেকে হত্যার উদ্দেশ্যে ফেলে দেয়ার অভিযোগে পুলিশ গৃহকর্তা আক্তারুজ্জামানকে গ্রেপ্তার করে। তামান্না ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে লড়াই করে ১ জুলাই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করে।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী লিমিটেডের সম্মাননা লাভ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

Image

বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী লিমিটেড প্রথমবারের মতো ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা-২০২৪ এ অংশগ্রহণ করে জেনারেল প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরীতে ২য় স্থান অর্জনসহ প্রশংসাপত্র অর্জন করে। এই সম্মাননা বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী লিমিটেড এর ভবিষ্যৎ পথ চলাকে আরও বেগবান করবে।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০০ সালে বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী (বিএমটিএফ) লিমিটেডকে একটি লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অবদানের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নিকট হস্তান্তর করেন। বিএমটিএফ লিমিটেড এর পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান হিসেবে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, এসবিপি (বার), ওএসপি, এনডিইউ, পিএসসি, পিএইচডি এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আসাদুল্লাহ মিনহাজুল আলম, এনডিইউ, পিএসসি, পিএইচডি দায়িত্বরত রয়েছেন। 

বিএমটিএফ দেশের অন্যতম বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে শিল্পোন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রেখে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অবদান রাখতে বদ্ধ পরিকর। বিএমটিএফ কর্তৃক উৎপাদিত পণ্যসমূহ নিয়ে ক্রেতাগণের মাঝে অগ্রহ সৃষ্টি এবং পণ্যসমূহ ক্রেতাদের দোর গোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে প্রথমবারের মতো ঢাকা আন্তজার্তিক বাণিজ্য মেলায় অংশগ্রহণ করেছে। ইতোমধ্যে বিএমটিএফ লিমিটেড কর্তৃক উৎপাদিত পণ্যসমূহের প্রতি ক্রেতাগণের ব্যাপক আগ্রহ ও চাহিদা পরিলক্ষিত হয়েছে।


আরও খবর



একুশে ফেব্রুয়ারিতেও চলবে মেট্রোরেল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

নিয়মিত সময়সূচি অনুযায়ী মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসেও (২১ ফেব্রুয়ারি) মেট্রোরেল চলাচল করবে।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড থেকে বলা হয়, কেবল শুক্রবার মেট্রোরেল বন্ধ থাকে। এদিন মেট্রোরেলের সাপ্তাহিক বন্ধ। এছাড়া অন্যান্য যেকোনো সরকারি ছুটি ও অনুষ্ঠানের দিন মেট্রোরেল চলাচল করবে।এর আগেও দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনসহ সরকারি বিভিন্ন ছুটির দিনেও মেট্রোরেল চলাচল করেছে।

বর্তমানে মেট্রোরেল উত্তরা উত্তর থেকে মতিঝিল পর্যন্ত চলাচল করছে। সকাল ৭টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেট্রোরেল চলাচল করছে। ১৬টি স্টেশনে থেকে যাত্রীরা মেট্রোরেলে ওঠা-নামা করতে পারেন। ভাড়া কাছের দূরত্বে সর্বনিম্ন ২০ টাকা থেকে দূরের দূরত্বে ১০০ টাকা পর্যন্ত।


আরও খবর



বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য ১১টি ক্যাটাগরিতে ১৬ জনকে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার-২০২৩ তুলে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তাদের হাতে এ পুরস্কার তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী।

সাহিতের মোট ১১টি বিভাগে এ পুরস্কার দেওয়া হয়। বিভাগ গুলো হলো- কবিতা, কথাসাহিত্য, প্রবন্ধ/গবেষণা, অনুবাদ, নাটক, শিশুসাহিত্য বিভাগ, মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু, পরিবেশ/বিজ্ঞান ক্ষেত্র, জীবনী ও লোক কাহিনী।

বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার-২০২৩ প্রাপ্তরা হলেন- শামীম আজাদ (কবিতা), ঔপন্যাসিক নুরুদ্দিন জাহাঙ্গীর ও সালমা বাণী (যৌথভাবে কথাসাহিত্যে), জুলফিকার মতিন (প্রবন্ধ/গবেষণা), সালেহা চৌধুরী (অনুবাদ), নাট্যকার মৃত্তিকা চাকমা ও মাসুদ পথিক (যৌথভাবে নাটক), তপঙ্কর চক্রবর্তী (শিশু সাহিত্য), আফরোজা পারভিন ও আসাদুজ্জামান আসাদ (মুক্তিযুদ্ধের ওপর গবেষণা), সাইফুল্লাহ মাহমুদ দুলাল ও মো. মজিবুর রহমান (বঙ্গবন্ধুর ওপর গবেষণা), পক্ষীবিদ ইনাম আল হক (পরিবেশ/বিজ্ঞান ক্ষেত্র), ইসহাক খান (জীবনী) এবং তপন বাগচী ও সুমন কুমার দাস (যৌথভাবে লোক কাহিনী)।

গত ২৪ জানুয়ারি এ পুরস্কারের তালিকা প্রকাশ করে বাংলা একাডেমি।


আরও খবর
শেষ ছুটির দিনে জমজমাট বইমেলা

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




আজ বিশ্ব ডাল দিবস : জেনে নিন ডাল খাওয়ার উপকারিতা

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্ব ডাল দিবস আজ শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি)। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য হলো ‌টেকসই আগামীর জন্য ডাল

বিশ্ব ডাল দিবস হলো একটি আন্তর্জাতিক দিবস যা জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও) দ্বারা বিশ্বব্যাপী খাদ্য হিসেবে ডালের (শুকনো মটরশুঁটি, মসুর, শুকনো মটর, ছোলা, লুপিন) গুরুত্বকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য পালন করা হয়।

২০১৮ সালের ২০ ডিসেম্বর, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭০তম অধিবেশনে ডাল দিবস হিসেবে ২০১৯ সাল থেকে প্রতি বছর ১০ ফেব্রুয়ারিকে মনোনীত করা হয়েছে। তারিখটির লক্ষ্য বিশ্বব্যাপী ডাল বিভাগের সাথে যুক্ত কার্যকলাপ এবং তথ্যের প্রতি মনোযোগ আকর্ষণ করা।

চলুন দেখে নেওয়া যাক প্রতিদিন ডাল খাওয়ার উপকারিতা

আপনি ডাল পচ্ছন্দ করুন আর না করুন বাঙ্গালি হলে আপনার পাতে ডাল থাকবেই। হোক তা দু একদিন পর পর। মসুর থেকে মুগ সব ডাল আমাদের পচ্ছন্দ। প্রোটিন ও ফাইবারের গুরুত্বপূর্ণ উৎস হলো ডাল। আর প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় আপনি যদি ডাল রাখেন তাহলে আপনার অনেক সমস্যায় সমাধান হয়ে যাবে।

ওজন নিয়ন্ত্রণ : ডাল প্রোটিন এবং ফাইবারে সমৃদ্ধ। এটি ওজন  কমাতেও ভূমিকা রাখে। এতে করে উচ্চ ফ্যাটযুক্ত উপাদানগুলো আলাদা হয়ে যায়। অতএব ডাল খাওয়া আপনাকে সঠিক পরিমাণে শক্তি ও পুষ্টি দিতে পারে।  আবার ডাল খেলে ক্ষুধাও কমে।

স্বাস্থ্যকর কোষ : ডালে প্রোটিন, আয়রন ও ফোলেট থাকায় নিয়মিত ডাল খাওয়াও নিশ্চিত করে যে আপনার কোষগুলো মেরামত-পুনর্নবীকরণ প্রক্রিয়ার জন্য পর্যাপ্ত সুস্থ আছে। আয়রন রক্তাল্পতা হওয়ার ঝুঁকিও হ্রাস করতে পারে। প্রতিদিন ডাল খেলে অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকিও হ্রাস পায়।

হার্টের সুস্থতা : ডাল হৃৎপিণ্ডের জন্য অত্যন্ত উপকারী। ডাল কোলেস্টরেল কমাতে সাহায্য করে সেই সাথে রক্তচাপও কমায়। প্রতিদিন ডাল খেলে কার্ডিওভাসকুলার রোগ হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস পায়।

যা মনে রাখতে হবে : এটি সত্য যে ডাল অত্যন্ত পুষ্টিকর, তবে সেগুলোর সঠিক উপকারিতা আমরা পাচ্ছি কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে হবে। উদাহরণস্বরূপ, ডালে আপনার খুব বেশি তেল ব্যবহার করা এড়ানো উচিত বা অতিরিক্ত লবণ ব্যবহারও এড়ানো উচিত। তড়কার জন্য প্রয়োজনে জলপাই তেল বা ঘি ব্যবহার করুন। স্বাদ বাড়াতে আপনি কিছু সবুজ মরিচ বা কালো মরিচ যোগ করতে পারেন। মূল কথা স্বাদ ও স্বাস্থ্যের মধ্যে ভারসাম্য করা।

২০১৯ সাল থেকে প্রতিবছর ১০ ফেব্রুয়ারি বিশ্বব্যাপী এ দিবস পালন করা হচ্ছে। তবে বাংলাদেশে গত বছর থেকে দিবসটি পালন করা হচ্ছে। দিবসটি উপলক্ষে কৃষি মন্ত্রণালয় শোভাযাত্রা ও সেমিনারের আয়োজন করেছে।

বিশ্ব ডাল দিবস খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টির লক্ষ্যে টেকসই খাদ্য উৎপাদনের অংশ হিসেবে ডালের পুষ্টিগত উপকারিতা সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির সুযোগ প্রদান করার জন্য পালন হবে।

নিউজ ট্যাগ: বিশ্ব ডাল দিবস

আরও খবর
আজ বিশ্ব প্রতিশ্রুতি দিবস

সোমবার ০১ জানুয়ারী ২০২৪




প্রবাল দ্বীপে নিখোঁজ বনবিভাগের নারী কর্মকর্তা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
কক্সবাজার প্রতিনিধি

Image

প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিন ভ্রমণে গিয়ে মাহমুদা আক্তার হ্যাপী (৩১) নামে এক নারী বন কর্মকর্তা নিখোঁজ হয়েছেন। নিখোঁজ মাহমুদা আক্তার হ্যাপী ৪১তম বিসিএস ক্যাডার। তিনি ঢাকা বনবিভাগে কর্মরত আছেন। রবিবার (০৪ ফেব্রুয়ারি) থেকে তার খোঁজ মিলছে না। এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সেন্টমার্টিন পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাসুকুর রহমান।

তিনি জানান, ‌গত ২ ফেব্রুয়ারি ঢাকা থেকে ৭১ জনের একটি টিম সেন্টমার্টিন দ্বীপ ভ্রমণে যায়। সে টিমে মাহমুদা আক্তার হ্যাপীও ছিলেন। তারা হোটেলে এবং কয়েকটি রিসোর্টে উঠেন। রবিবার (০৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে তিনি বন্ধুর সাথে দেখা করার কথা বলে রিসোর্ট থেকে বের হন। বিকাল পর্যন্ত তিনি ফিরে না আসায় তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বন্ধুর সাথে আছেন বলে জানান। কিন্তু এর এক ঘণ্টা পর তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ উসমান গনি বলেন, গত ৩ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাতে মাহমুদা আক্তার হ্যাপী সহ তিন বান্ধবী একসাথে সেন্টমার্টিন দ্বীপের একটি হোটেলের কক্ষে ছিলেন। সেদিন রাতে হ্যাপী সবার আগে ঘুমিয়ে গেলেও অন্য দুই বান্ধবীর ঘুমাতে দেরি হয়। আর ওই দুই বান্ধবী সোমবার সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখে রুমে হ্যাপী নেই। তার কাপড় চোপড় ও ব্যাগ গোছানো। পরে সাড়ে ৯টার দিকে এক বান্ধবীর ফোনে হ্যাপীর নাম্বার থেকে একটি ম্যাসেজ আসে, আমি গোসল করে রুমে ফিরব। এরপর থেকেই হ্যাপীর আর কোনো হদীস নেই।

তিনি আরও বলেন, হ্যাপীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের নম্বরটি ট্র্যাকিং করে দেখা গেছে তার সর্বশেষ অবস্থান কক্সবাজার শহরের সুগন্ধা পয়েন্ট। আমরা তার অবস্থান নিশ্চিত করে তাকে উদ্ধারের জন্য অভিযান অব্যাহত রেখেছি।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আদনান চৌধুরী বলেন, বিষয়টি জানার পর টেকনাফ থানায় একটি ডায়েরি করা হয়। এরই সূত্র ধরে কাজ করছে পুলিশ।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪