আজঃ শনিবার ১৫ জুন ২০২৪
শিরোনাম

গাজায় ইসরায়েলের ভয়াবহ হামলা, নিহত অন্তত ৫০

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের ভয়াবহ হামলায় আরও অন্তত ৫০ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। অবরুদ্ধ এই ভূখণ্ডজুড়ে চালানো পৃথক হামলায় তারা নিহত হন।

এদিকে ইসরায়েলি হামলার জেরে এখন পর্যন্ত রাফা ছেড়ে পালিয়ে গেছেন ৮ লক্ষাধিক ফিলিস্তিনি। শুক্রবার (২৪ মে) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইসরায়েলি বাহিনী গাজা উপত্যকা জুড়ে আকাশ ও স্থলপথে চালানো হামলায় কমপক্ষে ৫০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এছাড়া দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর রাফাতে হামাসের নেতৃত্বাধীন যোদ্ধাদের সাথে ইসরায়েলি সেনাদের ব্যাপক লড়াই চলছে বলেও জানিয়েছেন স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা এবং হামাসের সশস্ত্র শাখা।

ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর ট্যাংকগুলো রাফার আরও দক্ষিণ-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়েছে, শহরের পশ্চিমাঞ্চলীয় জেলা ইবনার দিকে অগ্রসর হয়েছে এবং তিনটি পূর্ব শহরতলিতে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে বলে বাসিন্দারা বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বাসিন্দা বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, দখলদার (ইসরায়েলি বাহিনী) আরও পশ্চিমে যাওয়ার চেষ্টা করছে। তারা ইবনার প্রান্তে রয়েছে, যা ঘনবসতিপূর্ণ। তারা এখনও এটি আক্রমণ করেনি।’

তিনি আরও বলেন, আমরা বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পাচ্ছি এবং আমরা দেখছি যে সেনারা আক্রমণ করেছে এবং সেখান থেকে কালো ধোঁয়া উঠছে। এটি আরেকটি খুব কঠিন রাত ছিল।’

এই মাসে গাজার উত্তর ও দক্ষিণ প্রান্তে একযোগে ইসরায়েলি হামলার ফলে লাখ লাখ ফিলিস্তিনি তাদের বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়েছে এবং ইসরায়েলি বাহিনী সাহায্য প্রবেশের প্রধান প্রবেশ পথও বন্ধ করে দিয়েছে, যা দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিও বাড়িয়েছে।

ইসরায়েলের ঘনিষ্ঠ মিত্র যুক্তরাষ্ট্রসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বেসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষার বিশ্বাসযোগ্য পরিকল্পনা ছাড়াই রাফাতে স্থল হামলা শুরু করার বিরুদ্ধে সতর্ক করেছিল। যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যরা গাজার দক্ষিণের এই শহরটিতে হামলার জন্য ইসরায়েলকে ব্যাপকভাবে সমালোচনাও করেছে। তবে ইসরায়েল বলেছে, সেখানে হামাস যোদ্ধাদের বেশ কয়েকটি ব্যাটালিয়নের বিরুদ্ধে তাদের অবশ্যই অগ্রসর হতে হবে।

গাজায় পরিচালিত প্রধান সাহায্য সংস্থা ইউনাইটেড নেশনস রিলিফ অ্যান্ড ওয়ার্কস এজেন্সি ফর প্যালেস্টাইন রিফিউজিস বলছে, চলতি মে মাসের প্রথম দিকে ইসরায়েল রাফা শহরটিতে হামলা শুরু করার পর থেকে গত সোমবার পর্যন্ত ৮ লাখেরও বেশি মানুষ রাফা থেকে পালিয়ে গেছেন।

গাজায় নরওয়েজিয়ান রিফিউজি কাউন্সিলের জরুরি প্রতিক্রিয়া নেতা সুজে ভ্যান মিগান বলেছেন, অনেক বেসামরিক নাগরিক এখনও সেখানে আটকে আছেন।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, রাফা শহরটি এখন তিনটি সম্পূর্ণ ভিন্ন বিশ্বের সমন্বয়ে গঠিত: পূর্ব দিকটি মৌলিক যুদ্ধ অঞ্চল, মাঝামাঝি অঞ্চলটি ভৌতিক শহরে পরিণত হয়েছে এবং পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থানরত জনবহুল জনগোষ্ঠী শোচনীয় পরিস্থিতিতে বসবাস করছে।’

সমান্তরালভাবে ইসরায়েলি বাহিনী উত্তর গাজার জাবালিয়া শরণার্থী শিবিরেও স্থল আক্রমণ বাড়িয়েছে। সেখানে তারা বেশ কয়েকটি আবাসিক এলাকাও ধ্বংস করেছে। নিকটবর্তী শহর বেইট হানুনেও হামলা করেছে ইসরায়েল।

ইসরায়েল অবশ্য কয়েক মাস আগেও এই অঞ্চলে বড় ধরনের অভিযান চালিয়েছে। কিন্তু এখন তাদের দাবি, হামাসকে সেখানে পুনরায় সংগঠিত হতে বাধা দিতে তাদের আবারও ফিরে আসতে হয়েছে।

ফিলিস্তিনের সরকারি বার্তাসংস্থা ওয়াফা জানিয়েছে, মধ্য গাজা উপত্যকার দেইর আল-বালাহ শহরের পূর্বে অবস্থিত জনকল্যাণ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের একটি দোকানে বিমান হামলায় অন্তত ১২ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন।

গাজার সিভিল ডিফেন্স এজেন্সি জানিয়েছে, ভোরের দিকে চালানো দুটি বিমান হামলায় গাজা শহরে ১৫ শিশুসহ আরও ২৬ জন নিহত হয়েছেন।

সিভিল ডিফেন্সের মুখপাত্র মাহমুদ বাসাল বলেছেন, এর মধ্যে একটি হামলায় গাজার একটি পরিবারের বাড়িতে বোমা আঘাত হানে। ওই হামলায় আল-দারাজ এলাকায় ১৬ জন নিহত হয় এবং মসজিদ প্রাঙ্গণে চালানো আরেকটি হামলায় ১০ জন নিহত হয়।

মধ্য গাজার নুসেইরাত শরণার্থী শিবিরে একটি বাড়িতে ইসরায়েলি হামলায় আরও আটজন নিহত হয়েছেন।

গাজার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গাজা শহরের আবাসিক জেলাগুলো সফর করার সময় ইসরায়েলি হামলায় দিয়া আলদিন আল-শুরাফা নামের একজন সিনিয়র নিরাপত্তা কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন।

নৃশংস হামলার পাশাপাশি ইসরায়েল খাবার পানীয়, খাদ্য, ওষুধ এবং জ্বালানি সরবরাহের ওপরও কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে এবং গাজাজুড়ে বেশ কয়েকটি হাসপাতালও বন্ধ করতে বাধ্য করেছে তারা।

বৃহস্পতিবার গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলেছে, দেইর আল-বালাহর আল-আকসা শহীদ হাসপাতালে বিদ্যুৎ জেনারেটরে কয়েক মিনিটের’ জ্বালানি অবশিষ্ট রয়েছে। জ্বালানি শেষ হলে ১৩০০ জন রোগীর সেবাও শিগগিরই বন্ধ হয়ে যাবে।

জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক সাংবাদিকদের বলেছেন, গাজায় যদি বিপুল পরিমাণে ত্রাণ প্রবেশ শুরু না হয়, তাহলে হতাশা ও ক্ষুধা ছড়িয়ে পড়বে’ বলে জাতিসংঘের মানবিক বিষয়ক সমন্বয়ের কার্যালয় হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

তিনি রাফা ক্রসিং বন্ধ করে দেওয়া এবং দক্ষিণ গাজার কারেম আবু সালেম (কেরেম শালোম) ক্রসিংয়ের সীমিত কার্যকারিতাকে জীবন রক্ষাকারী সহায়তা সরবরাহের প্রবাহ বন্ধ করে দেওয়া’ হিসাবেও আখ্যায়িত করেন। জাতিসংঘ এর আগে বলেছিল, বিপদের কারণে তারা দক্ষিণ গাজায় আর খাদ্য বিতরণ করতে পারবে না।

ডুজারিক বলেন, রাফা ক্রসিং ক্রমাগতভাবে বন্ধ থাকার কারণে গাজার হাসপাতালে জ্বালানি ও ওষুধের সংকট দেখা দিয়েছে। গত ৬ মে ইসরায়েলি বাহিনী গুরুত্বপূর্ণ পরিবহন রুটের ফিলিস্তিনি অংশ দখল করার পর থেকে এটি বন্ধ রয়েছে।

এদিকে, ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী বলেছে, গত বুধবার যুদ্ধে তাদের আরও তিন সৈন্য নিহত হয়েছে। এতে করে গত ২০ অক্টোবর থেকে গাজায় স্থল অভিযান শুরু হওয়ার পর থেকে নিহত ইসরায়েলি সেনাদের সংখ্যা বেড়ে ২৮৬ জনে পৌঁছেছে।

অন্যদিকে ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের মতে, গত বছরের ৭ অক্টোবর থেকে গাজায় ইসরায়েলের আগ্রাসনে ৩৫ হাজার ৮০০ জনেরও বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও প্রায় ৮০ হাজার মানুষ।


আরও খবর



গৃহবধূকে ডেকে নিয়ে দলবদ্ধ ধর্ষণ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

Image

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে স্বামীর সঙ্গে বিরোধ মীমাংসার জন্য ডেকে নিয়ে এক গৃহবধূকে (৩২) দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী বুধবার রাতে ইউপি সদস্যসহ সাতজনের বিরুদ্ধে চুনারুঘাট থানায় মামলা করেছেন।

আসামিরা হলেন, সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার নিজপাট ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মামুনুর রশীদ মামুন (৪০), একই এলাকার আব্দুস শুকুর (৩৩), আলীম উদ্দিন (৩০), মো. রুবেল (৩০) ও অজ্ঞাতপরিচয়ের তিনজন।

অভিযোগ অস্বীকার করে মামুনুর রশীদ জানিয়েছেন, মামলার কথা তিনি পুলিশের মাধ্যমে জেনেছেন। এমন কোনো ঘটনায় জড়িত নন, এমনকি ওই নারীকেও চেনেন না বলে দাবি তাঁর।

মামলার আরজিতে বলা হয়, দাম্পত্য কলহের জেরে সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার কাপ্তানপুর গ্রামের তিন সন্তানের জননীকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন স্বামী। এর পর থেকে সন্তানদের নিয়ে বাবার বাড়িতে বসবাস করছেন তিনি। সংসারের প্রয়োজনে হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ ওলিপুরের ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কে এসে একটি দামি কোম্পানির বিস্কুট কারখানায় চাকরি নেন ভুক্তভোগী। ৮ জুন ডিউটি শেষে বাড়ি ফেরার পথে রাত সাড়ে ৮টার দিকে শ্বশুরবাড়ির এলাকার ইউপি সদস্য মামুনুর রশীদের সঙ্গে দেখা হয়। এ সময় মামুন স্বামীর সঙ্গে বিরোধ মীমাংসার কথা বলে তাঁকে চুনারুঘাটের শানখলা ইউনিয়নের রঘুনন্দন পাহাড়ে নিয়ে ছয় সহযোগীর সঙ্গে রাতভর ধর্ষণ করে ফেলে রেখে যায়। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় তিনি হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে বুধবার রাতে মামলা করেন। আসামিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন ওই গৃহবধূ।

চুনারুঘাট থানার ওসি হিল্লোল রায় জানান, মামলা হয়েছে। ভুক্তভোগীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে। তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজ ট্যাগ: হবিগঞ্জ

আরও খবর



আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে ভিক্ষুকের টাকা মেরে দেওয়ার অভিযোগ

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মামুনুর রশীদ, ফরিদপুর

Image

স্বামী হারানো ৮২ বছর বয়সী কুটি খাতুনের ভিক্ষা করে জমানো ১৫ হাজার টাকা মেরে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে এক আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে। মাথা গোঁজার স্বপ্ন নিয়ে সরকারি ঘরের আশায় ২ বছর আগে ওই নেতাকে এ টাকা তুলে দেন কুটি। অথচ আজও সেই ঘর দেওয়া হয়নি তাকে। এমনকি টাকাও ফেরত পাননি তিনি।

অভিযুক্ত ওই আ.লীগ নেতার নাম কামরুজ্জামান সাহেব ফকির। তিনি ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার চরযোশরদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি।

ভুক্তভোগী কুটি খাতুন উপজেলার চরযশোরদি ইউনিয়নের বড় শ্রীবদ্দি গ্রামের বাসিন্দা মৃত ইউসুফ মাতুব্বরের স্ত্রী। স্বামীর মৃত্যুর পর থেকে নিজের জীবন বাঁচাতে লড়াই করে আসছেন তিনি। পেটের তাগিদে মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবনযাপন করছেন তিনি। বসবাস করছেন প্রতিবেশির ঝুপরি ঘরে। এমন অবস্থায় শেষ বয়সে এসে একটি সরকারি ঘরে মাথা গোঁজার স্বপ্ন দেখেন তিনি। আর সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য গত ২ বছর আগে ভিক্ষা করে জমানো ১৫ হাজার টাকা তুলে দেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের হাতে।

তবে ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে এখনো মেলেনি তার সরকারি ঘর। এমনকি ফেরত পাননি টাকা। তাছাড়া এখন পর্যন্ত কোনো ভাতার তালিকাতেও তার নাম ওঠেনি বলে জানা গেছে। ভুক্তভোগী কুটি খাতুনের সঙ্গে কথা বললে এসব তথ্য ওঠে আসে।

মূলত চেয়ারম্যান নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগের সভাপতি থাকা অবস্থায় এ লেনদেন হয়েছে বলে জানা যায়।

প্রতিবেশীরা জানান, মুক্তিযুদ্ধের বছর মারা যান কুটি খাতুনের স্বামী। তার দুটি ছেলে সন্তান থাকলেও তারা কেউ মাকে দেখেন না। স্বামীর সম্পত্তি বলতে এক টুকরো ভিটে থাকলেও মাথা গোঁজার মতো ঘর ছিল না। প্রতিবেশীর একটি ঝুপরি ঘরে থেকে ভিক্ষা করে পেট চালান তিনি। বর্তমানে অনাহারে অর্থাহারে কাটছে তার জীবন।

ভুক্তভোগী কুটি খাতুন অভিযোগ করে বলেন, সরকারি ঘর দেওয়ার কথা বলে গত ২ বছর আগে চরযোশরদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সাহেব ফকির আমার কাছ থেকে ১৫ হাজার টাকা নেয়। কিন্তু টাকা নিলেও ঘর দেয়নি। আমি ঘরের জন্য অনেক ঘুরেছি, লাভ হয়নি। এখন দুই হাত তুলে আল্লাহর কাছে বিচার চেয়েছি।

কুটি খাতুনের ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নাসির খান বলেন, ওই বৃদ্ধা মহিলা বারবার আমার কাছে এসে ঘর ও টাকা ফেরত দেওয়ার বিষয়টি জানিয়েছে। আমি চেয়ারম্যানকে বিষয়টি অবগত করলেও তিনি গুরুত্ব দেননি।

অভিযুক্ত চরযোশরদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. কামরুজ্জামান সাহেব ফকির বলেন, কুটি খাতুনকে আমি চিনিই না। তবে শুনেছি, সরকারি ঘরের জন্য পাচী নামে এক মহিলা তার আত্মীয়কে ১৩ হাজার টাকা দিয়েছিল। সেই টাকা পাচীকে ফেরতও দিয়েছে। এখন আমার নামে মিথ্যা অভিযোগ ছড়াচ্ছে।

নগরকান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাফী বিন কবির বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে টাকা নেওয়ার প্রমাণ মিললে অভিযুক্ত চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তাছাড়া এই বয়োজ্যেষ্ঠ অসহায় মহিলাকে বসবাসের জন্য অতি দ্রুত একটি ঘরের ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে এবং সরকারি ভাতার আওতায় আনা হবে।


আরও খবর



পাপুয়া নিউগিনিতে ভয়াবহ ভূমিধস, নিহত ১০০

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

উত্তর পাপুয়া নিউগিনির একটি প্রত্যন্ত গ্রামে ভূমিধসে প্রায় ১০০ জন নিহত হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ান ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশনের (এবিসি) বরাতে এই খব জানিয়েছে রয়টার্স।

দেশটির এনগা প্রদেশের কাওকালাম গ্রামে ভোর ৩টার দিকে ভূমিধসের ঘটনা ঘটে। গভীর ঘুমে আছন্ন থাকাকালীন চোখের পলকে মাটির তলায় চলে গিয়েছে গোটা গ্রাম। গ্রামের বেশিরভাগ মানুষই তখন ঘুমে আছন্ন। পাহাড়ের একটা অংশ ধসে পড়ে। মৃতের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে মাটির নিচ থেকে মৃতদেহ উদ্ধারের কাজ চলছে।

রয়টার্স স্বাধীনভাবে নিহতের সংখ্যা যাচাই করতে পারেনি। 

ব্যারিক গোল্ড পরিচালিত পোরগেরা সোনার খনির কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্ত করেছে এই ভূমিধস। প্রতিষ্ঠানটি এখনও তাদের ক্ষতি সম্পর্কে কিছু জানায়নি।

দেশটির সরকারী কর্মকর্তা এবং পুলিশও মন্তব্যের অনুরোধে তাৎক্ষণিক সাড়া দেয়নি।


আরও খবর



রাজধানীর যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না বৃহস্পতিবার

প্রকাশিত:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে রুট অ্যালাইনমেন্ট প্রকল্পের আওতায় পাইপলাইন অপসারণ বা প্রতিস্থাপন কাজের জন্য বৃহস্পতিবার (২৩ মে) রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ১০ ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। বুধবার (২২ মে) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ।

এতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মোট ১০ ঘণ্টা মগবাজার, নয়াটোলা, মধুবাগ, তেজগাঁও, হাতিরঝিল, মীরেরবাগ, গাবতলা, গ্রিনওয়ে, পেয়ারাবাগ, ইস্কাটন (দিলু রোড) এলাকার সকল আবাসিক ও বাণিজ্যিক শ্রেণির গ্রাহকের গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

এ ছাড়া আশেপাশের এলাকায় গ্যাসের স্বল্প চাপ বিরাজ করতে পারে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।


আরও খবর
ঈদের পরে নতুন সময়ে চলবে মেট্রোরেল

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪

ঈদের দিন বন্ধ থাকবে মেট্রোরেল

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




ইউরো ২০২৪ চ্যাম্পিয়নশিপের পূর্ণাঙ্গ সূচি

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

মিউনিখে আজ স্কটল্যান্ড বনাম স্বাগতিক জার্মানির মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে মাসব্যপী ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের আসর শুরু হতে যাচ্ছে। এবারের আসরে ২৪টি দল ছয় গ্রুপে বিভক্ত হয়ে অংশ নিবে। অংশগ্রহণকারী দলগুলো হলো :

 গ্রুপ-এ : জার্মানি, স্কটল্যান্ড, হাঙ্গেরি, সুইজারল্যান্ড

গ্রুপ-বি : স্পেন, ক্রোয়েশিয়া, ইতালি, আলবেনিয়া

গ্রুপ-সি : স্লোভেনিয়া, ডেনমার্ক, সার্বিয়া, ইংল্যান্ড

গ্রুপ-ডি : নেদারল্যান্ডস, ফ্রান্স, পোল্যান্ড, অস্ট্রিয়া

গ্রুপ-ই : ইউক্রেন, স্লোভাকিয়া, বেলজিয়াম, রোমানিয়া

গ্রুপ-এফ : পর্তুগাল, চেক প্রজাতন্ত্র, জর্জিয়া, তুরষ্ক

ইউরোর সূচি :

১৪ জুন : জার্মানি বনাম স্কটল্যান্ড (মিউনিখ)

১৫ জুন : হাঙ্গেরি বনাম সুইজারল্যান্ড (কোলন)

          স্পেন বনাম ক্রোয়েশিয়া (বার্লিন)

          ইতালি বনাম আলবেনিয়া (ডর্টমুন্ড)

১৬ জুন : পোল্যান্ড বনাম নেদারল্যান্ডস (হামবুর্গ)

          স্লোভেনিয়া বাম ডেনমার্ক (স্টুটগার্ট)

          সার্বিয়া বনাম ইংল্যান্ড (জেলসেনকার্চেন)

১৭ জুন : রোমানিয়া বনাম ইউক্রেন (মিউনিখ)

          বেলজিয়াম বনাম স্লোভাকিয়া (ফ্রাাঙ্কফুর্ট)

          অস্ট্রিয়া বনাম ফ্রান্স (ডাসেলডর্ফ)

১৮ জুন : তুরষ্ক বনাম জর্জিয়া (ডর্টমুন্ড)

          পর্তুগাল বনাম চেক প্রজাতন্ত্র (লিপজিগ)

১৯ জুন : ক্রোয়েশিয়া বনাম আলবেনিয়া (হামবুর্গ)

          জার্মানি বনাম হাঙ্গেরি (স্টুটগার্ট)

          স্কটল্যান্ড বনাম সুইজারল্যান্ড (কোলন)

২০ জুন : স্লোভেনিয়া বনাম সার্বিয়া (মিউনিখ)

          ডেনমার্ক বনাম ইংল্যান্ড (ফ্রাংকফুর্ট)

          স্পেন বনাম ইতালি (জেলসেনকার্চেন)

২১ জুন : স্লোভাকিয়া বনাম ইউক্রেন (ডাসেলডর্ফ)

          পোল্যান্ড বনাম অস্ট্রিয়া (বার্লিন)

          নেদারল্যান্ডস বনাম ফ্রান্স (লিপজিগ)

২২ জুন : জর্জিয়া বনাম চেক প্রজাতন্ত্র (হামবুর্গ)

          তুরষ্ক বনাম পর্তুগাল (ডর্টমুন্ড)

          বেলজিয়াম বনাম রোমানিয়া (কোলন)

২৩ জুন : সুইজারল্যান্ড বনাম জার্মানি (ফ্রাঙ্কফুর্ট)

          স্কটল্যান্ড বনাম হাঙ্গেরি (স্টুটগার্ট)

২৪ জুন : ক্রোয়েশিয়া বনাম ইতালি (লিপজিগ)

          আলবেনিয়া বনাম স্পেন (ডাসেলডর্ফ)

২৫ জুন : নেদারল্যান্ডস বনাম অস্ট্রিয়া (বার্লিন)

          ফ্রান্স বনাম পোল্যান্ড (ডর্টমুন্ড)

          ইংল্যান্ড বনাম স্লোভেনিয়া (কোলন)

          ডেনমার্ক বনাম সার্বিয়া (মিউনিখ)

২৬ জুন : স্লোভাকিয়া বনাম রোমানিয়া (ফ্রাঙ্কফুর্ট)

          ইউক্রেন বনাম বেলজিয়াম (স্টুটগার্ট)

          চেক প্রজাতন্ত্র বনাম তুরষ্ক (হামবুর্গ)

          জর্জিয়া বনাম পর্তুগাল (জেলসেনকার্চেন)

শেষ ষোল :

ম্যাচ ৩৮ : ২৯ জুন : গ্রুপ-এ রানার্স-আপ বনাম গ্রুপ-বি রানার্স-আপ (বার্লিন)

ম্যাচ ৩৭ : গ্রুপ-এ বিজয়ী বনাম গ্রুপ-সি রানার্স-আপ (ডর্টমুন্ড)

ম্যাচ ৪০ :৩০ জুন : গ্রুপ-সি বিজয়ী বনাম গ্রুপ সি/ডি/এফর তৃতীয় দল (জেলসেনকার্চেন)

ম্যাচ ৩৯ : গ্রুপ-বি বিজয়ী বনাম গ্রুপ এ/ডি/ই/এফর তৃতীয় দল (কোলন)

ম্যাচ ৪২ : ১ জুলাই : গ্রুপ-ডি রানার্স-আপ বনাম গ্রুপ-ই রানার্স-আপ (ডাসেলডর্ফ)

ম্যাচ ৪১ : গ্রুপ-এফ বিজয়ী বনাম গ্রুপ এ/বি/সির তৃতীয় দল (ফ্রাঙ্কফুর্ট)

ম্যাচ ৪৩ : ২ জুলাই : গ্রুপ-ই বিজয়ী বনাম গ্রুপ এ/বি/সি/ডির তৃতীয় দল (মিউনিখ)

ম্যাচ ৪৪ : গ্রুপ-ডি বিজয়ী বনাম গ্রুপ-এফ রানার্স-আপ (লিপজিগ)

কোয়ার্টার ফাইনাল :

ম্যাচ ৪৫ : ৫ জুলাই : ম্যাচ ৩৯ বিজয়ী বনাম ম্যাচ ৩৭ বিজয়ী (স্টুটগার্ট)

ম্যাচ ৪৬ : ম্যাচ ৪১ বিজয়ী বনাম ম্যাচ ৪২ বিজয়ী (হামবুর্গ)

ম্যাচ ৪৮ : ৬ জুলাই : ম্যাচ ৪০ বিজয়ী বনাম ম্যাচ ৩৮ বিজয়ী (ডাসেলডর্ফ)

ম্যাচ ৪৭ : ম্যাচ ৪৩ বিজয়ী বনাম ম্যাচ ৪৪ বিজয়ী (বার্লিন)

সেমিফাইনাল :

ম্যাচ ৪৯ : ৯ জুলাই : ম্যাচ ৪৫ বিজয়ী বনাম ম্যাচ ৪৬ বিজয়ী (মিউনিখ)

ম্যাচ ৫০ : ১০ জুলাই : ম্যাচ ৪৭ বিজয়ী বনাম ম্যাচ ৪৮ বিজয়ী (ডর্টমুন্ড)

ফাইনাল :

১৪ জুলাই : ম্যাচ ৪৯ বিজয়ী বনাম ম্যাচ ৫০ বিজয়ী (বার্লিন)


আরও খবর