আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

গাছের সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় প্রাণ গেলো দুই বন্ধুর

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
গাইবান্ধা প্রতিনিধি

Image

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় গাছের সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কা লেগে দুই বন্ধুর মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা হলেনসাজিদ মিয়া (১৮) ও জুয়েল রানা (১৮)। তাদের বাড়ি পার্শ্ববর্তী রংপুর জেলায়।

শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার রামজীবন ইউনিয়নের হান্নানের মোড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, দুই বন্ধু সন্ধ্যা ৭টার দিকে বেপরোয়া গতিতে মোটরসাইকেল চালিয়ে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ছাপড়হাটী ইউনিয়নের ধাপাচিলা এলাকা থেকে রংপুরের দিকে যাচ্ছিলেন। হান্নানের মোড় এলাকায় পৌঁছালে রাস্তার পাশের একটি ইউক্যালিপটাস গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে মোটরসাইকেলটি দুমড়েমুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই একজন মারা যান। সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে আরেকজনের মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে সুন্দরগঞ্জ থানা পুলিশ তাদের লাশ উদ্ধার করে৷

সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মিলন চ্যাটার্জি বলেছেন, বেপরোয়া গতিতে মোটরসাইকেল চালানোর কারণে গাছের সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কা লাগে। এতে ঘটনাস্থলেই একজন মারা যান। অপরজন হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




নিজেকে এতটা ফিট রেখেছেন কীভাবে, জানালেন দেবলীনা

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

আমি ভীষণ ভাতখোর। জিমে আমার বলাই রয়েছে, যত খাটতে বলবে খাটব। কিন্তু খাওয়া নিয়ে অত বিধিনিষেধ মানতে পারব না। আমরা তো ছোট থেকে ভাত, ঘি, আলু-সিদ্ধ খেয়েই বড় হয়েছি। এখন সেই খাবারগুলোকে ডায়েট থেকে বাদ দেওয়ায় বিশ্বাসী নই আমি। বর্তমানে প্রতিদিন দুপুরে ভাতের সঙ্গে পাঁঠার মাংস খাই। খাদ্যাভ্যাস খুব একটা পরিবর্তন না করেও এভাবেই নিজেকে ফিট রাখার রহস্য ফাঁস করলেন ভারতীয় অভিনেত্রী দেবলীনা কুমার।

নিজের ওজন কমিয়ে অনুসারীদের কাছে আদর্শ হয়ে ওঠেছেন এ অভিনেত্রী। এমন পরিবর্তন তার একাল-সেকালের ছবি দেখলেই বোঝা যায়। মূলত অভিনয়ের কাজের শত ব্যস্ততা সামলেও অভ্যাস পরিবর্তনেই এসেছে তার এমন সাফল্য। এক সাক্ষাৎকারে এ অভিনেত্রী ঠিক এমনটাই জানিয়েছেন।

দেবলীনা জানিয়েছেন, খাদ্যতালিকায় দীর্ঘ দিনের অভ্যাস পরিবর্তন করা কঠিন। ভাত না খেয়ে আমি থাকতে পারি না। যদি ২ দিন ভাত না খাই, দেখেছি শরীরে বিভিন্ন সমস্যা শুরু হয়ে যায়। দিনের শুরু করে থাকি দুধ-চিনি ছাড়া ব্ল্যাক কফি দিয়ে। তারপর জিমে ওয়ার্ক আউটে যাই।

জানালেন, সপ্তাহের সাত দিন ১ ঘণ্টা ওয়েট ট্রেনিং করে থাকি। তারপরে, আধ ঘণ্টা কার্ডিও। হেঁটেই জিমে যাই। এতে কার্ডিও সময়টা বাঁচে। এখন শহরজুড়ে বিভিন্ন জায়গায় ম্যারাথন হচ্ছে। তাতে অংশ নেই। ফলে কার্ডিও আমার সেখানেই হয়ে যায়।

নিজেকে ফিট রাখতে বাড়ির খাবার ভরসা জানিয়ে তিনি বলেন, শুটিং চলাকালেও বাড়ির খাবার খাওয়ার চেষ্টা করি। এতে শরীরও ভালো থাকে। অনেকের বিশ্বাস না হলেও প্রতিদিন দুপুরে ভাতের সঙ্গে অল্প পরিমাণে পাঁঠার মাংস খাই। এ ছাড়াও থাকে একটু সবজি। যদিও তিনি মাছ একদমই খান না। মুরগির মাংসও খুব একটা পছন্দ করেন না।

এতসব খাবার খেয়েও ফিট থাকার কৌশল জানাতে গিয়ে এ অভিনেত্রী বলেন, জিমে ঘাম ঝরানো গেলে খাওয়া যেতেই পারে। প্রায়ই মিষ্টি খাওয়া হয়। মাঝেমধ্যে বিয়েবাড়ির আমন্ত্রণে চিট-ডে হয়ে যাই বলেও জানান তিনি।

রাতের খাবার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, রাতের খাবার হেলদি এবং অল্প খেয়ে থাকি। কোনোদিন চিকেন বা কোনোদিন সবজি দিয়ে হেলদি নুডলস। চেষ্টা করি রাতের খাবারটা ৯টার মধ্যে খেয়ে নিতে।

ওজন কমানোর সিদ্ধান্ত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ওজন বেশি থাকলেও আমার নাচ করতে কখনো সমস্যা হয়নি। অভিনয়ের জগতে এসেও ওজন কামানোর প্রয়োজন মনে হয়নি। তবে নিজেকে নিয়ে আরও আত্মবিশ্বাসী হওয়ার ইচ্ছে জাগে।

নিউজ ট্যাগ: দেবলীনা কুমার

আরও খবর
ফের বিয়ে করছেন অনুপম রায়, পাত্রী কে?

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বিএনপির কালো পতাকা কর্মসূচি গণবিরোধী: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বিএনপির কালো পতাকা কর্মসূচিকে গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ ও গণবিরোধী বলে আখ্যায়িত করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, বিএনপির কালো পতাকা মিছিল গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ। এ ধরনের কর্মসূচির নামে সহিংসতা করা হলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা নেবে। এ কর্মসূচি প্রত্যাহার করা না হলে জনগণের জানমালের নিরাপত্তা দিতে পাহারায় যাবে আওয়ামী লীগ।

মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) দুপুরে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ত্রুটিমুক্ত গণতন্ত্র কোথাও নেই। আমাদের গণতন্ত্র রাতারাতি ত্রুটিমুক্ত হবে না। বিএনপি দেশে যে অগ্নিসন্ত্রাস করেছে তা গণতন্ত্রকে কণ্টকাকীর্ণ করেছে। যারা নতুন সরকারকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তারা কেউ ত্রুটিপূর্ণ নির্বাচন বলেনি। খোদ যুক্তরাষ্ট্রও বলেনি।

তিনি বলেন, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে একটা প্রতিক্রিয়া ছিল ওয়াশিংটনের। কিন্তু ঢাকায় মার্কিন রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন এবং গণতন্ত্রের অভিযাত্রায় বাংলাদেশের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করার কথা বলেছেন। ইউরোপের বিভিন্ন দেশও একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার করেছেন। জাতিসংঘ মহাসচিবও প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

আওয়ামী লীগের স্থগিত হওয়া কর্মসূচি নিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, পুলিশের অনুমতি না পাওয়ায় আমরা কর্মসূচি স্থগিত করেছি। সরকারি দল বলে কি নিয়ম মানবো না?

টিআইবি বলছে এশিয়ার মধ্যে দুর্নীতিতে বাংলাদেশ চার নম্বরে আছে, এ বিষয়ে সাংবাদিকরা দৃষ্টি আকর্ষণ করলে জবাবে মন্ত্রী বলেন, টিআইবি তো বিএনপির দালাল, বিএনপি যা বলে টিআইবিও তাই বলে।

কাদের বলেন, এসব প্রতিষ্ঠানের কিছু রাজনৈতিক ইন্টারেস্ট আছে। বিশ্বজুড়ে ক্ষমতার যে দ্বন্দ্ব সেখানে অবস্থানগতভাবে কোনো কোনো জোট বা দেশের স্বার্থ সংরক্ষণের পাহারাদার এসব প্রতিষ্ঠান। ওখানে কারো স্বার্থ সংরক্ষণের জন্য এসব কমেন্ট করা হয়। এসব অপবাদ দেওয়া হয়। এটা অতীতেও দেওয়া হয়েছে। আমরা এগুলোর পরোয়া করি না।

তিনি বলেন, আমরা আমাদের কাজ জনস্বার্থে করে যাচ্ছি। দুর্নীতি, করাপশন ইজ ওয়ে অব লাইফ অ্যাক্রোস দ্য ওয়ার্ল্ড নাও। এটা বাংলাদেশের ব্যাপার নয়, সারা বিশ্বেই আছে কমবেশি। কিন্তু যেভাবে অপবাদটা বাংলাদেশ নিয়ে দেওয়া হয়, এটা মোটেও সত্য নয়।

মন্ত্রিসভার কলেবর বড় হচ্ছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এটা বাড়তে পারে একটু। কারণ এখানে রিজার্ভ সিটগুলো, মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত যে আসন সে আসনে নির্বাচন শেষ হলে সেখান থেকেও যুক্ত হতে পারে। এর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী যদি আরও ইচ্ছা করেন তিনি যুক্ত করতে পারেন।

নিত্যপণ্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণের আশ্বাস দিয়ে তিনি বলেন, আজকে বাজার নিয়ন্ত্রণ ও দ্রব্যমূল্য কঠিন চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আশা করি জনগণের সমস্যা সমাধানে জনপ্রতিনিধিরা কাজ করবেন।

এ সময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, মির্জা আজম, এস এম কামাল হোসেন ও আফজাল হোসেন, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, উপ প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ আব্দুল আউয়াল শামীম, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ।


আরও খবর



খাদ্যে আমরা স্বয়ংসম্পূর্ণ : ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

শুক্রবার (০২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমণ্ডির রাজনৈতক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন- নির্বাচন নিয়ে বিএনপি কী বলবে ও করবে তা নিয়ে আওয়ামী লীগ চিন্তিত নয়।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নির্বাচন নিয়ে কী বলবে ও করবে এটা নিয়ে আমরা চিন্তিত না। বিশ্বব্যাপী দ্রব্যমূল্য নিয়ে অস্থিরতা চলছে। আমরাও দ্রব্যমূল্য নিয়ে চিন্তিত। কাজ করছি দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে। তবে বিশ্বব্যাপী অস্থিরতার মধ্যেও দেশের মানুষ ভালো আছে। খাদ্যে আমরা স্বয়ংসম্পূর্ণ। এটা অস্থিরতার মধ্যে ভালো দিক।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির দেশে-বিদেশে বন্ধু আছে। এখন নির্বাচনে অংশ নেয়নি, আন্দোলনে ব্যর্থ। তাদের তো বিদেশি বন্ধুদের কাছে মুখ রক্ষার বিষয় আছে। তেমনি কর্মীদের ক্ষমতার লোভ দেখিয়েছে। বিএনপির আন্দোলনে জনগণ সাড়া দেয়নি। হেরে যাওয়ার ভয়ে নির্বাচনে অংশ নেয়নি। তারা নিজেদের প্রাসঙ্গিকতা হারিয়েছে।

নির্বাচনকে ঘিরে বিএনপি কী প্রতিক্রিয়া দেখাল তা নিয়ে বিচলিত নয় সরকার উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, এখন সরকারের মূল লক্ষ্য দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ ও নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়ন করা। বিএনপি নির্বাচন বয়কটের পরও জনগণ ৪১.৮ শতাংশ ভোট দিয়েছে। ২৮টি দল অংশ নিয়েছে। সারা দুনিয়া থেকে বিভিন্ন দেশ ও সংস্থা প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছে এবং একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে। এমনকি নির্বাচন সম্পূর্ণ ত্রুটিপূর্ণ এমন কথা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও বলেনি। ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মিস্টার পিটার হাস প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

সারা বিশ্ব আজ চ্যালেঞ্জের মুখে জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, যার রেশ বাংলাদেশেও রয়েছে। বৃহস্পতিবার দেখলাম রেমিট্যান্স বেড়েছে, তবে রিজার্ভ কমেছে। ওঠানামা থাকবেই। তারপরও আমরা কৃষি-খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ আছি। এটা একটা ভালো দিক। এ অস্থিরতার মধ্যেও জনগণের মধ্যে কোথাও হাহাকার নেই, বিক্ষোভ, দ্রোহ দেখিনি। সবাই স্বাভাবিক জীবন যাপন করছেন।

সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান এবং কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য তারানা হালিম উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



হিলিতে জিরার দাম কমেছে কেজিতে ৪০০ টাকা

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

জেলার হিলি স্থলবন্দর বাজারে জিরার দাম কেজিতে ৪০০ টাকা কমেছে। ১ হাজার ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া জিরা বর্তমানে ৭২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

দিনাজপুর হিলি স্থলবন্দর আমদানি রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হারুনুর রশিদ হারুন জানান, চলতি বছর ফেব্রুয়ারি মাসে সরকার মসলা আমদানির অনুমতি দেওয়ায়, মসলা ব্যবসায়ীরা ভারত থেকে জিরা আমদানির কারণে দাম কমে গেছে। 

তিনি জানান, চলতি বছর ভারতে জিরার ফলন ভালো এবং আমদানি বেশি হওয়ায় দাম কমে গেছে। গত দুই মাসে পর্যায়ক্রমে জিরার দাম কমেছে কেজি প্রতি ৪০০ টাকা।

সোমবার সকালে হিলি স্থলবন্দর বাজার ঘুরে জানা যায়, গতবছর ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা কেজি হিসেবে প্রতি কেজি জিরা বিক্রি হয়েছে। ভারতে জিরার ফলন কম এবং আমদানি কমের অজুহাতে দাম বাড়তে থাকে। সর্বশেষ বিক্রি হচ্ছিল ১ হাজার ১২০ টাকা কেজি দরে। 

আরও পড়ুন>> জিআই অনুমোদন পেল আরও ৪ পণ্য

হিলি স্থলবন্দর বাজারে ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম জানান, গত দুদিন থেকে ভারতীয় আমদানিকৃত কাকা জিরা ৭২০ টাকা, বাবা জিরা ৭২০ টাকা, মধু জিরা ৭২০ টাকা, অমরিত জিরা ৭২০ টাকা, সোনা জিরা ৭৩০ টাকা ও ডিবিগোল্ড জিরা ৭৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে, দাম কমে যাওয়ায় খুশি সাধারণ ক্রেতারা। মসলা কিনতে আসা আব্দুল খালেক বলেন, এক বছর ধরে জিরার দাম আকাশছোঁয়া। ১০০ গ্রাম জিরা ৪০ টাকা দিয়ে কিনেছিলাম। সেই জিরা কিনতে হয়েছিল ১০০ টাকায়। বর্তমানে দাম অনেকটা কমে গেছে। 

হিলি মসলা বাজারের ব্যবসায়ী সামসুল ইসলাম বলেন, গতবছর ভারতে জিরার ফলন কম এবং আমদানি কম হওয়ার কারণে জিরার দাম অতিরিক্ত বেড়ে গিয়েছিল। পবিত্র রমজান মাসকে উপলক্ষ করে হিলি স্থলবন্দর  কাস্টমস বিভাগ ও ব্যবসায়ীদের যৌথ প্রচেষ্টায়  বর্তমানে ভারত থেকে নতুন জিরা আমদানি হচ্ছে। তাই দাম কেজিতে প্রায় ৪০০ টাকা কমে গেছে। ৭১০ টাকা কেজি দরে কিনে ৭২০ টাকায় বিক্রি করছি। আশা করছি, আগামীতে জিরার দাম আরও কমবে।

হিলি স্থলবন্দর কাস্টমস বিভাগের যুগ্ম-কমিশনার মোহাম্মদ বায়জিদ হোসেন সোমবার দুপুরে মোবাইল ফোনে  বলেন, আগামী রমজান মাসের বাজার দর নিয়ন্ত্রণের প্রক্রিয়ায় মসলার বাজার দর জনসাধারণ ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখতে ব্যবসায়ী ও কাস্টমস বিভাগ যৌথ প্রচেষ্টা চালিয়ে জিরার মূল্যসহ অন্যান্য মসলার বাজারদর নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা সফলভাবে চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করছি এই সফলতা অর্জিত হবে।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সাত দশক পর পাকিস্তানে প্রথম নারী মুখ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) জ্যেষ্ঠ ভাইস প্রেসিডেন্ট মরিয়ম নওয়াজ। তিনি সাত দশকের বেশি সময়ের ইতিহাসে প্রথম নারী মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন। পিএমএল-এনের নেতা ও পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের মেয়ে মরিয়ম নওয়াজ। খবর জিও নিউজের।

পাকিস্তানের মোট জনসংখ্যার অর্ধেকের বেশি মানুষই পাঞ্জাব প্রদেশের বাসিন্দা। এখানে বাস করে প্রায় ১২ কোটি ৭০ লাখ মানুষ। মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হলে মরিয়মের কাঁধে পড়বে পাঞ্জাবের এই বিশাল জনগোষ্ঠির দায়িত্ব।

বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) লাহোরে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে তার দলের পক্ষে ভোট দেওয়ার জনগণকে ধন্যবাদ জানান মরিয়ম নওয়াজ।

তিনি বলেন, আপনাদের আস্থা ও সমর্থনই আমার প্রকৃত সম্পদ।

এ সময় সর্বোত্তম উপায়ে জনগণের সেবা করার জন্য দোয়া চান তিনি। তার নেতৃত্বে পাঞ্জাব প্রদেশে নতুন যুগের সূচনা হবে বলেও আশাবাদ প্রকাশ করেন মরিয়ম নওয়াজ।

প্রথম নারী মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার এ সম্মান দেশের প্রতিটি মা, মেয়ে ও বোনকে উৎসর্গ করতে চান মরিয়ম।

পাঞ্জাব শাসনের নতুন পরিকল্পনার কথা জানিয়ে মরিয়ম নওয়াজ বলেন, সরকার ও দলীয় পর্যায়ে কোন কোন বিষয়কে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে, সে জন্য পৃথক একটি রূপরেখা তৈরি করেছে তার দল। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, অবকাঠামো, আইনশৃঙ্খলা, কৃষি, তথ্যপ্রযুক্তি ও অন্যান্য খাতগুলোর ওপর সমান জোর দেওয়ার কথা বলে বলেন পিএমএল-এন নেত্রী।

প্রসঙ্গত, ৮ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের জাতীয় ও প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে পাঞ্জাবের একটি আসন থেকে জয়লাভ করেন মরিয়ম নওয়াজ। কেন্দ্র ও প্রদেশগুলোয় জোট সরকার গঠন নিয়ে পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) ও পিএমএলএনের টানা কয়েক দিনের আলোচনার পর মঙ্গলবার সমঝোতা হয়। এরপর পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী পদে পিএমএল-এন থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয় মরিয়মকে।


আরও খবর