আজঃ বুধবার ২৫ মে ২০২২
শিরোনাম

করোনা টানা ২২ দিনে মৃত্যু নেই, বাড়ছে আক্রান্ত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ২৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ৫১ জনের দেহে করোনাভাইস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে মোট শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১৯ লাখ ৫২ হাজার ৯৩৯ জনে। এর আগে বুধবার ৩৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ফলে গত একদিনের ব্যবধানে দেশে করোনায় শনাক্ত বাড়ল।

এছাড়া এ সময়ে নতুন করে কারও মৃত্যু হয়নি। ফলে টানা ২২ দিন দেশে মৃত্যু নেই। এর আগে গত ২০ এপ্রিল সর্বশেষ করোনায় মৃত্যুর খবর জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।  ফলে মৃত্যুর সংখ্যা ২৯ হাজার ১২৭ জনেই অপরিবর্তিত থাকল। বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে দেশের করোনা পরিস্থিতির সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণঘাতী এই ভাইরাস থেকে আরও ২৯১ জন সুস্থ হয়েছে। ফলে এ ভাইরাসটি থেকে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৮ লাখ ৬০৩ জন। ২৪ ঘণ্টায় ৫ হাজার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আর পরীক্ষা করা হয়েছে ৫ হাজার ৭৩৬টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার শূন্য দশমিক ৮৯ শতাংশ।

দেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল ২০২০ সালের ৮ মার্চ। প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সেই বছর সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছিল ৬৪ জনের। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ায় গত বছর জুন থেকে রোগীর সংখ্যা হু-হু করে বাড়তে থাকে। ২৮ জুলাই একদিনে সর্বোচ্চ ১৬ হাজার ২৩০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

২০২১ সালের ৭ জুলাই প্রথমবারের মতো দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ২০০ ছাড়িয়ে যায়। এর মধ্যে ৫ ও ১০ আগস্ট ২৬৪ জন করে মৃত্যু হয়, যা মহামারির মধ্যে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু। এরপর বেশকিছু দিন ২ শতাধিক মৃত্যু হয়। এরপর গত ১৩ আগস্ট মৃত্যুর সংখ্যা ২০০ এর নিচে নামা শুরু করে। দীর্ঘদিন শতাধিক থাকার পর গত ২৮ আগস্ট মৃত্যু ১০০ এর নিচে নেমে আসে।


আরও খবর



ফেসবুকের পাসওয়ার্ড চুরি করছে যেসব অ্যাপ

প্রকাশিত:রবিবার ২২ মে 20২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২২ মে 20২২ | ২২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আবারও নতুন ফিশিং অ্যাটাকের খবর সামনে এসেছে। অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের মাধ্যমে এই ফিশিং অ্যাটাক ফোনে ঢুকছে। এগুলো কেবলমাত্র ব্যক্তিগত তথ্যই হাতিয়ে নিচ্ছে, এমনটি নয়। একই সঙ্গে বাগিয়ে নিচ্ছে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড। যা পৌঁছে যেতে পারে হ্যাকারদের হাতে।

সম্প্রতি ট্রেন্ড মাইক্রো নামের একটি সাইবার সিকিউরিটি সংস্থা এসব স্পাইওয়্যারসহ অ্যাপগুলোর নাম প্রকাশ্যে এনেছে। যার মধ্যে ৪০টি ভুয়া ক্রিপ্টো মাইনিং অ্যাপসহ মোট ২০০টিরে বেশি ফেসটেলার স্পাইওয়্যারের খোঁজ মিলেছে। মূলত এসব অ্যাপ ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিয়ে ক্রিপ্টোকারেন্সি চুরি করতো। ভয়ংকর তথ্য হলো, এরমধ্যে কয়েকটি অ্যাপ গুগল প্লে স্টোর থেকে ১ লাখের বেশি ডাউনলোড হয়েছে।

এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত কয়েকটি অ্যাপের নাম চলুন জেনে নেই। যা আপনার মোবাইল ফোনে থাকলে এখনই ডিলিট করে দিন-

১। ডেইলি ফিটনেস ওএল : এটি ফিটনেস অ্যাপ। দৈনিক ফিটনেসের জন্য অ্যাপের মধ্যে রয়েছে ইউটিলিটি ও টুল বিভাগ।

২। পানোরামা ক্যামেরা : স্মার্টফোন ক্যামেরার মাধ্যমে ছবি তুলতে এই অ্যাপ ব্যবহার হয়।

৩। ওয়াম ফটো : এটি ফটো এডিটর। ছবি থেকে ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ, কোলাজ তৈরিতে কাজে লাগে এই অ্যাপ।

৪। এনজয় ফটো এডিটর : এটাও একটা ফটো এডিটর অ্যাপ।

৫। ক্রিপ্টো মাইনিং ফার্ম ইউর ওউন কয়েন : এটা ক্রিপ্টোকারেন্সি অ্যাপ।

৬। ফটো গেমিং পাজেল: এটা একটা পাজেল গেম।

আপনার ফোনে এসব অ্যাপ ইনস্টল  থাকলে এখনই বন্ধ করে দিন। গুগল সবাইকে সতর্ক করেছে। পাশাপাশি তাদের প্লে স্টোর থেকেও সরিয়ে নিয়েছে। যদিও থার্ড পার্টি ওয়েবসাইট থেকে .apk ফাইলের মাধ্যমে এই অ্যাপগুলো এখনও অ্যানড্রয়েড ফোনে ইনস্টল করা যায়।

নিউজ ট্যাগ: ফেসবুক

আরও খবর



আজ ঐতিহাসিক ফারাক্কা লংমার্চ দিবস

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | ২৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ ১৬ মে ঐতিহাসিক ফারাক্কা লংমার্চ দিবস। ফারাক্কা বাঁধের ফলে নদীর নাব্যতা হারানোর আশঙ্কায় ও পানির নায্য হিসসার দাবিতে ১৯৭৬ সালের এই দিনে মজলুম জননেতা  মওলানা ভাসানীর নেতৃত্বে লংমার্চ অনুষ্ঠিত হয়। রাজশাহীর মাদ্রাসা ময়দান থেকে ফারাক্কা বাঁধ অভিমুখে লাখো জনতার সেই লংমার্চ রওনা হয় ফারাক্কা বাঁধ অভিমুখে। লংমার্চ শেষে কানসাট হাই স্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত বিশাল সমাবেশে বক্তব্য দেন মজলুম জননেতা। সেই  থেকে ১৬ মে ফারাক্কা দিবস নামে পরিচিতি লাভ করে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ১৮ কিলোমিটার উজানে ভারত ফারাক্কা বাঁধটি নির্মাণ করে।

১৯৭২ সালে ভারত-বাংলাদেশ যৌথ নদী কমিশন গঠন করা হয়। এরপর ১৯৭৪-এর ১৬ মে একটি সমঝোতায় পৌঁছায় বাংলাদেশ ও ভারত। কিন্তু ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মালদহ ও মুর্শিদাবাদ জেলায় অবস্থিত ফারাক্কা ব্যারাজের নির্মাণকাজ ১৯৭৫ সালে শেষ করে দেশটি। ওই বছর থেকেই ব্যারাজের মাধ্যমে পানিপ্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করে ভারত। ১৯৭৬ সাল থেকে একতরফাভাবে পানি নিজ দেশের অভ্যন্তরে ফিডার ক্যানাল দিয়ে প্রত্যাহার অব্যাহত রাখে ভারত। এর বিরূপ প্রভাবে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পদ্মা, মহানন্দাসহ দেশের বড় বড় সব নদী নাব্যতা হারিয়ে হয়ে পড়ে পানিশূন্য বালির চর।

ফারাক্কার প্রভাবে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পদ্মাসহ চার নদীই এখন মৃতপ্রায়। স্থানীয়রা বলছেন, নদীতে এখন পানির প্রবাহ নির্ভর করে ভারতের ইচ্ছা-অনিচ্ছার ওপর। শুষ্ক মৌসুমে পানি পাওয়া যায় না, আবার বর্ষায় হঠাৎ পানি ছেড়ে দিলে বন্যা এবং নদীভাঙন দেখা দেয়। পরিবেশবাদীরা বলছেন, নদী শুকিয়ে যাওয়ায় জীববৈচিত্র্যের ওপর মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব পড়েছে।

সেভ দ্য নেচারসহ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের নেতারা জানান, পদ্মায় পানি না থাকায় পরিবেশের ওপর পড়ছে বিরূপ প্রভাব। সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে উদ্ভিদ ও জীবচক্র।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা জানান, ফারাক্কা ব্যারাজের দীর্ঘমেয়াদি প্রভাবের কারণে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পদ্মাসহ অন্য তিন নদী- মহানন্দা, পাগলা ও পুনর্ভবা শুকিয়ে যাচ্ছে, ব্যারাজ নির্মাণের পর পানিপ্রবাহ বাধাগ্রস্ত হওয়ায় নদীতে নাব্যসংকট দেখা দিয়েছে। এখন প্রয়োজনীয় পানি পেলেও তা ধরে রাখা যায় না। আর ফারাক্কা ব্যারাজের দরজা হঠাৎ খুলে দেওয়ার কারণে বন্যা ও নদীভাঙন প্রবণতা বাড়ছে।


আরও খবর
১২ মে: ইতিহাসে আজকের এই দিনে

বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২




দেশের প্রতিটি ইউনিয়নে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপনের নির্দেশনা

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশের প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল স্থাপন, ইউনিয়নের গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধাদের নামফলক এবং বাংলাদেশের ইতিহাস সম্বলিত বিলবোর্ড স্থাপনের নির্দেশনা দিয়েছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের ইউপি-১ শাখার সিনিয়র সহকারী সচিব জেসমীন প্রধানের সই করা এক চিঠিতে জেলা প্রশাসকদের প্রতি এই নির্দেশনা দেয়া হয়।

এতে বলা হয়, মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের চিঠির আলোকে দেশের ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন, ইউনিয়নের গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধাদের নামফলক ও বাংলাদেশের ইতিহাস সংবলিত বিলবোর্ড স্থাপনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হলো।


আরও খবর



ভারত আপাদমস্তক একটি মুসলিম বিদ্বেষী দেশ : পদ্মলক্ষ্মী

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৯ এপ্রিল ২০২২ | ৫৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মুসলিম মাত্রেই খারাপ, এ দেশে আমজনতার মধ্যে ক্রমেই যেন বাড়ছে এমন ধারণার প্রবণতা দাবি করলেন ইন্দো-আমেরিকান সুপারমডেল তথা লেখিকা পদ্মলক্ষ্মী। বুধবার নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে একাধিক পোস্ট করেছেন টপ শেফ-এর খ্যাতনামী সঞ্চালিকা। লিখেছেন, ভারত আপাদমস্তক একটি মুসলিম বিদ্বেষী দেশে পরিণত হয়েছে। সেই বিদ্বেষ থেকে ঘনঘন সন্ত্রাস এবং ষড়যন্ত্রের ইতিহাস তৈরি হচ্ছে কেবল। এতে লাভ কী? পদ্মলক্ষ্মীর প্রশ্নসহিষ্ণুতার ঐতিহ্য কোথায় গেল?

এত দিনের সর্বধর্ম সমন্বয়ের গরিমা হারিয়ে ভারত কেবলমাত্র একটা হিন্দুরাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে দেখে তিনি লজ্জিত বলে জানিয়েছেন পদ্মলক্ষ্মী। টুইটে তাঁর বার্তা নির্বিচারে মুসলিমদের প্রতি হিংসার উল্লাস, সন্ত্রাসের উদযাপন আমায় আতঙ্কিত করে। সেই সঙ্গে যন্ত্রণা দেয়। এই কি পরিণাম ভারতের মতো সম্পদশালী অতিথিপরায়ণ দেশের?

শেষ টুইটে পদ্মলক্ষ্মী লেখেন, হিন্দুরা, শুনুন। দয়া করে সন্ত্রাসকে প্রশ্রয় দেবেন না। জাতি ধর্ম নির্বিশেষে সকলকে মানুষ বলে মনে করুন। সুপ্রাচীন এই ভূখন্ডে তবেই আবার সর্বধর্মের মানুষ শান্তিতে পাশাপাশি থাকতে পারবেন।


আরও খবর



এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় দেড় লক্ষাধিক টাকা জরিমানা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | ৩৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) দুটি ওয়ার্ডে এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় দেড় লক্ষাধিক টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। নির্মাণাধীন ভবন এবং বাসা-বাড়িতে ডিএনসিসির দুটি ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে এ জরিমানা আদায় করেন।

একটি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন অঞ্চল-১-এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জুলকার নায়ন। অন্যটি পরিচালনা করেন অঞ্চল-২-এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জিয়াউর রহমান। ডিএনসিসির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গতকাল সোমবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ডিএনসিসির অঞ্চল-১-এর আওতাধীন ১ নম্বর ওয়ার্ডের সেক্টর-৭-এর আশপাশের এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনার সময় নির্মাণাধীন ভবন এবং বাসা-বাড়িতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় চারটি মামলায় এক লাখ পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

এ ছাড়া অঞ্চল-২-এর আওতাধীন ২ নম্বর ওয়ার্ডের পল্লবী থানাধীন এলাকায় আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জিয়াউর রহমান এডিস মশার প্রজননক্ষেত্র ধ্বংসে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন। এ সময় চারটি মামলায় ৫২ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।


আরও খবর