আজঃ শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪
শিরোনাম

ফেনীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নারীর মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ০১ এপ্রিল ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ এপ্রিল ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ফেনীর ছাগলনাইয়া-ফেনী সড়কের কনট্রাকটর মসজিদ মাদ্রাসার সামনে শনিবার রাতে নিগার নারগিস(৪১) নামে এক নারী সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন।

নিহত নিগার নারগিসের বাড়ি ছাগলনাইয়ার মহামায়া ইউনিয়নের পশ্চিম দেবপুর গ্রামে। তিনি জসিম উদ্দিন মজুমদারের স্ত্রী।

ছাগলনাইয়া থানার ওসি সুদ্বীপ রায় পলাশ জানান, তিনি শনিবার সকালে তাদের একই বাড়ির চারজনের বিরুদ্ধে ছাগলনাইয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলেন।

অভিযোগে তিনি বলেছেন, তারা দীর্ঘদিন বাড়িতে না থাকায় ওই চারজন তাদের জায়গাজমি দখল করার চেষ্টা করছেন এবং তাদের নির্মানাধীন বিল্ডিং ঘরের কাজ করতে দিবেনা বলে হুমকি দেন। এতে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন। অভিযোগ পেয়ে একজন পুলিশ কর্মকর্তা ঘটনাস্থলেও গিয়েছিলেন।

ওসি জানান, বাড়িতে ইফতার করে শনিবার রাত পৌনে ৮টার দিকে ওই নারী স্বামী সন্তানসহ সিএনজি অটোরিকশা রিজার্ভ করে ফেনী যাচ্ছিলেন। তারা ফেনী হয়ে তাদের চট্টগ্রামের বাসায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে ঘর থেকে বের হন। তার স্বামী সকালে অফিস করবেন এজন্য রাতেই তারা রওনা দেন।

তাদের অটোরিকশা সামনের গাড়ি ওভারটেক করতে গিয়ে বিপরীত থেকে আসা সিএনজি অটোরিকশার সাথে সংঘর্ষ হয়। এতে ওই নারী মারাত্মকভাবে আহত হন। প্রচণ্ড আঘাতে মাথা ফেটে ঘটনাস্থলে তার একটি চোখ পড়ে যায়।

এঘটনায় তার স্বামী ও চালক আহত হন। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে ওই নারীকে ফেনী হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। লাশ ফেনী হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

পুলিশ দুই সিএনজি অটোরিকশা আটক করলেও চালক পলাতক এখনও পলাতক রয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: সড়ক দুর্ঘটনা

আরও খবর



বরগুনায় পুরুষাঙ্গ কেটে দিলেন স্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
অলিউল্লাহ্ ইমরান, বরগুনা

Image

বরগুনায় পরোকীয়া প্রেমে জড়িতোর কারণে স্বামীর পুরুষাঙ্গ কাটলেন দ্বিতীয় স্ত্রী। গুরুতর আহত অবস্থায় স্বজনরা বামনা হাসপাতালে নিয়ে আসলে, কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৯ জুন) রাত সোয়াদশটার দিকে বামনা উপজেলার সোনাখালী বাজার এলাকায় ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে। আহত ব্যাক্তি বামনা উপজেলার তালেশ্বর গ্রামের আঃ হানিফ চৌকিদারের ছেলে অটোচালক মোঃ ফোরকান (২৮)।

জানা যায়, পরোকীয়া প্রেমে জড়িত সন্দেহে ওই নারী বেশ কিছুদিন যাবত স্বামী ফোরকানের সাথে ঝগড়াঝাটি করে। রবিবার দিবাগত রাত সোয়া দশটার দিকে ওই ভাড়া বাসার নিজ কক্ষে দ্বিতীয় স্ত্রী তার পরিধয় লুঙ্গি উঠিয়ে ব্লেড দিয়ে পুরুষাঙ্গ কেটে ফেলেন। এ সময় গুরুতর জখম হলে চিৎকার করলে রক্তাক্ত অবস্থায় স্থানীয়রা দ্রুত বামনা হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করেন। অবস্থার অবনতি হলে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ফোরকানকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

বামনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অফিসার ইনচার্জ কিশোর কুমার মন্ডল বলেন, বামনায় স্ত্রী স্বামীর পুরুষ লিঙ্গ কেটে ফেলার ঘটনা ঘটেছে। আহত ফোরকান এখন চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। তবে কেউ এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর



শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ঈদ ও গরমের ছুটি: আসতে পারে নতুন সিদ্ধান্ত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঈদুল আজহা ও গ্রীষ্মকালীন অবকাশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে টানা ২০ দিনের যে ছুটি চলছে, তা কমিয়ে আনা হতে পারে। ঈদের ছুটি ঠিক থাকলেও কমানো হতে পারে গরমের ছুটি। সেক্ষেত্রে চলমান ছুটি শেষ হওয়ার এক সপ্তাহ আগেই খুলে দেওয়া হতে পারে সব স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসা।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে। সূত্র বলছে, ঈদের পর শনিবারে পুনরায় সাপ্তাহিক ছুটি ফিরিয়ে দেওয়া হতে পারে। একই সঙ্গে শিখন ঘাটতি পূরণে গরমের ছুটি কমানো হতে পারে।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের শিক্ষাপঞ্জি অনুসারে এবার ঈদুল আজহা ও গ্রীষ্মের ছুটি শুরু হয়েছে ১৩ জুন, যা চলার কথা ২ জুলাই পর্যন্ত। তবে ছুটি কমানোর সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

মাধ্যমিক-১ শাখার একজন উপ-সচিব সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, বছরের শুরুতে তীব্র শীত ও মাঝামাঝি সময়ে প্রচণ্ড গরমের কারণে শিখন ঘাটতি তৈরি হয়েছে। নতুন কারিকুলামে জুলাই মাসে যে ষাণ্মাসিক মূল্যায়ন হবে, তার প্রস্তুতি ভালো হয়নি। আমাদের কাছে খবর আছে, অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নির্ধারিত সিলেবাস শেষ করতে পারেনি।

তিনি আরও জানান, অধিকাংশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ২ জুলাই পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করেছে। তবে অনেক বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ২৩ জুন পর্যন্ত ছুটি দিয়েছে। অর্থাৎ, ২৪ জুন থেকে তারা ক্লাস নেবেন। ওইদিন অথবা একদিন আগে বা পরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার নির্দেশনা আসতে পারে। এ নিয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। ঈদের ছুটি শেষে অফিস খুললে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হবে। এছাড়া শনিবার পুনরায় ছুটি দেওয়া হতে পারে।

সম্প্রতি শিক্ষামন্ত্রী মুহিবুল ইসলাম চৌধুরীও সেরকম ঈঙ্গিত দিয়েছেন। তিনি বলেন, ঈদুল আজহার পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শনিবার খোলা বা বন্ধ রাখার বিষয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নেব। এখন পর্যন্ত শনিবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা আছে। আমরা চেষ্টা করছি, শনিবার যে বন্ধ পূর্বে ছিল, সেটা যাতে করে বলবৎ রাখতে পারি। ইতোমধ্যে আমরা (শিক্ষাবর্ষের) ক্যালেন্ডারের হিসাব নিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, আমাদের বেশ কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এইচএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র নির্বাচিত হয়েছে, প্রায় চারশর মতো। সেখানে সংযুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলো আছে, সেগুলোতে শনিবার খোলা রাখতে হতে পারে। আবার সিলেট অঞ্চলে বন্যার কারণে যেসব প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল সেগুলোতেও বিশেষভাবে খোলা রাখার বিধান রেখে দেশের অন্যান্য জায়গায় পূর্বের মতো বহাল হাল রাখতে পারি তার ওয়ার্ক-আউট করা হচ্ছে। আমরা ঈদুল আজহার পর সুনির্দিষ্ট প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে সবাইকে অবগত করব। তবে এ মুহূর্তে যেটা মনে হচ্ছে বন্ধ রাখাটা (শনিবার) সম্ভব হবে।

বছরের শুরুতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটির তালিকা, বিভিন্ন পরীক্ষা ও মূল্যায়নের সূচি ঘোষণা করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে স্কুল এবং কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ থেকে মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটির তালিকা প্রকাশ করা হয়।

অন্যদিকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর ছুটির তালিকা, বিভিন্ন পরীক্ষা ও মূল্যায়নের সূচি জানানো হয়। এটি শিক্ষাপঞ্জি নামে পরিচিত।


আরও খবর



৩৬ ঘণ্টা পর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ায় ফেরি চলাচল শুরু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
শাকিল মোল্লা, রাজবাড়ী

Image

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে টানা ৩৬ ঘণ্টা থাকার পর ফের ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। তবে এ নৌরুটে লঞ্চ চলাচল এখনও বন্ধ রাখা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৮ মে) সকাল ৯টা থেকে ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাব কেটে গেলে এ নৌরুটে ফেরি চলাচল শুরু হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) সালাহউদ্দিন।

রোববার (২৬ মে) বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় রেমাল বাংলাদেশের উপকূলের দিকে প্রবেশ করলে উত্তাল হয়ে পড়ে পদ্মা নদী। তাই নৌ দুর্ঘটনা এড়াতে রোববার রাত সাড়ে ৯টা থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিসি-এর দৌলতদিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক সালাহউদ্দিন বলেন, ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে পদ্মা নদী উত্তাল ছিল। যার কারণে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছিল। নদী স্বাভাবিক হলে প্রায় ৩৬ ঘণ্টা পর মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। বর্তমানে ১০টি ফেরি চলাচল করছে। ঘাট এলাকায় যানবাহনের কোনো সিরিয়াল নেই।

লঞ্চ বন্ধ রাখার বিষয়ে দৌলতদিয়া ঘাটের বিআইডাব্লিউটিএ-এর ট্রাফিক সুপারভাইজার মো. শিমুল ইসলাম বলেন, লঞ্চ চালানোর ব্যাপারে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত পাইনি। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা পেলে লঞ্চ চলাচল শুরু করা হবে।


আরও খবর



বিশ্ব মরুময়তা দিবস আজ

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বিশ্ব মরুকরণ ও খরা প্রতিরোধ দিবস আজ। গত ২৭ বছর ধরে প্রতি বছর এই তারিখে দেশেও দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। ১৯৯৫ সালে বাংলাদেশে প্রথম বিশ্ব মরুময়তা দিবস পালিত হয়। উত্তরাঞ্চলের রাজশাহীকে কেন্দ্রবিন্দু ধরে নগর থেকে ৪০ কিলোমিটার পশ্চিমে কাকনহাটে জাতীয়ভাবে প্রথমবারের মতো দিবসটি পালিত হয়।

প্রতিনিয়ত পরিবর্তিত হচ্ছে পৃথিবী। এই পরিবর্তনের ধারায় কখনো সিডর, কখনো সুনামি, কখনো হ্যারিকেন, কখনো ভূমিকম্প, কখনো অতিবৃষ্টি, অনাবৃষ্টি, বন্যা, বিভিন্ন রকমের রোগবালাই দুর্যোগ

আকারে দেখা দিচ্ছে। মারা যাচ্ছে মানুষ, ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে মাঠের ফসল। বাড়ছে খাদ্য সংকট। ঘরবাড়ি মিশে যাচ্ছে মাটির সঙ্গে। ফলে মানুষ হারাচ্ছে তার মাথা গোঁজার ঠাঁই। নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যে জলবায়ুর নেতিবাচক প্রভাবে বিশ্বে মরুকরণ একটি অন্যতম সমস্যা।

১৯৭৫ সালে প্রথমবারের মতো জাতিসংঘের পক্ষ থেকে খরা ও মরুকরণের প্রতি সোচ্চার হয়ে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানানো হয়। এই ধারাবাহিকতায় ১৯৭৭ সালে নাইরোবিতে বিশ্ব মরুকরণ বিরোধী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ১৯৯২ সালে রিও ডি জেনিরোতে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের পরিবেশ ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্মেলনের পরপরই মরুকরণ সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক কনভেনশন গ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু হয়। রিও সম্মেলনের এজেন্ডা ২১ এর প্রস্তাবটি ১৯৯২ সালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৪৭তম অধিবেশনে গৃহীত হয় এবং ইন্টারগভর্মেন্টাল নেগোশিয়েটিং কমিটি গঠিত হয়। এই কমিটি মরুকরণ সংক্রান্ত খসড়া কনভেনশন চূড়ান্ত করে। ১৯৯৪ সালের জুন মাসে কনভেনশনের দলিল চূড়ান্ত হয়। এই কনভেনশনে ৫০টি দেশ কর্তৃক অনুমোদিত হওয়ার পর ১৯৯৬ সালের ২৬ ডিসেম্বর থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যকর হয়। বাংলাদেশও এই কনভেনশন অনুমোদন করে। পরবর্তীতে খরা ও মরুকরণ সম্পর্কে বিশ্ববাসীকে সচেতন করে তুলতে ১৭ জুন পালন করা হয় বিশ্ব খরা ও মরুকরণ প্রতিরোধ দিবস।


আরও খবর
সাত নদীর পানি বিপদসীমার ওপরে

বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24




এইচএসসি পরীক্ষা চলাকালীন শ্রেণি কার্যক্রম চলবে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

এইচএসসি পরীক্ষা চলাকালীন কেন্দ্রের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শ্রেণি কার্যক্রমও চলমান রাখতে নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড- মাউশি।

মঙ্গলবার (১১ জুন) এক চিঠির মাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। চিঠিতে সব পরীক্ষাকেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, আগামী ৩০ জুন এইচএসসি পরীক্ষা ২০২৪ শুরু হতে যাচ্ছে। যেসব কেন্দ্রে স্কুল ও কলেজ একসঙ্গে রয়েছে, সেসব প্রতিষ্ঠানে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির শ্রেণি কার্যক্রম পরীক্ষার দিনগুলোতে পরীক্ষা শেষে এবং যেদিন পরীক্ষা নেই, সেদিন চলমান রাখার জন্য বলা হলো।

এ ছাড়াও শ্রেণি কার্যক্রম চলমান রাখতে গিয়ে পাবলিক পরীক্ষায় বিঘ্ন সৃষ্টি যাতে না হয় সে বিষয়ে সর্তক থাকার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে সবাইকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলা হয়েছে।


আরও খবর