আজঃ মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

একদিনে ডেঙ্গুতে আরও ৬ জনের প্রাণহানি

প্রকাশিত:শনিবার ১১ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ১১ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সারা দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে আরও ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চলতি বছর এই রোগে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৪৬৬ জনের।

এই সময়ে ডেঙ্গু নিয়ে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১ হাজার ৫১২ জন। এর মধ্যে ঢাকার হাসপাতালগুলোয় ৩৩৮ জন এবং ঢাকার বাইরের হাসপাতালগুলোয় ১ হাজার ১৭৪ জন ভর্তি হয়েছেন।

শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। এতে বলা হয়, শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় চারজন ও ঢাকার বাইরে দুজনের মৃত্যু হয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, চলতি বছর দেশে এ পর্যন্ত ডেঙ্গু নিয়ে ২ লাখ ৯০ হাজার ৮৪ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ১ লাখ ৩ হাজার ২২৭ জন এবং ঢাকার বাইরে ১ লাখ ৮৬ হাজার ৮৫৭ জন ভর্তি হন।

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে দেশে চলতি বছর সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে গত সেপ্টেম্বর মাসে৩৯৬ জনের। আর গত মাসে মারা গেছেন ৩৫৯ জন। এর আগে আগস্টে ডেঙ্গুতে মৃত্যু হয় ৩৪২ জনের। চলতি বছরের মার্চ মাস ছাড়া সব মাসেই ডেঙ্গুতে মৃত্যু দেখেছে দেশ।


আরও খবর



ইনটেলকে ১০ বিলয়ন ডলার ভর্তুকি দেবে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বহুজাতিক প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ইনটেল করপোরেশনকে ১০ বিলয়ন ডলার বা ১ হাজার কোটি ডলার ভর্তুকি দেওয়ার কথা ভাবছে বাইডেন প্রশাসন। মার্কিন সম্প্রচারমাধ্যম ব্লুমবার্গের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ বিষয়ে আলোচনা চলমান।

ব্লুমবার্গের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মার্কিন সরকারের এই ভর্তুকি দুই উপায়ে দেওয়া হবে ইনটেলকে। ১০০০ কোটি ডলারের একটা অংশ দেওয়া হবে সরাসরি সহায়তা হিসেবে যা আর ফেরত দিতে হবে না। বাকি অংশ দেওয়া হবে ঋণ হিসেবে। ইনটেল ও মার্কিন বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে কোনো আনুষ্ঠানিক মন্তব্য করেনি।

এর আগেও মার্কিন কর্তৃপক্ষ এরই মধ্যে দুটি স্বল্পমেয়াদি অর্থ সহায়তা প্যাকেজের অনুমোদন দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যমন্ত্রী জিনা রাইমন্দো ব্লুমবার্গকে জানান, গত দুই মাসে মার্কিন সরকার ভিন্ন মেয়াদি তহবিল গঠনের পরিকল্পনা করেছে। সরকারের ৩ হাজার ৯০০ কোটি ডলারের কর্মসূচির আওতায় এ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। বড় পরিসরে, সেমিকন্ডাক্টর শিল্পের বিকাশ ও উৎপাদন এগিয়ে নেওয়াই এ প্রকল্পের মূল লক্ষ্য।

ইনটেল এই ভর্তুকি অ্যারিজোনা ও নিউ মেক্সিকোতে তাদের কারখানার নির্মাণে কাজে লাগাতে চায়। এ ছাড়া ওহাইওতেও নতুন কারখানাও তৈরি করছে ইনটেল। এটি হতে যাচ্ছে বিশ্বের বৃহত্তম চিপ নির্মাণ কারখানা।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইনটেল ২০১৬ সাল নাগাদ ওহাইও প্ল্যান্টের নির্মাণকাজ স্থগিত করার পরিকল্পনা করছে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, চিপ বিক্রির বাজারে ধীর গতি ও ডলারের কমে যাওয়া এর মূল কারণ হতে পারে।

এদিকে তাইওয়ান সেমিকন্ডাক্টর ম্যানুফ্যাকচারিং করপোরেশন একই তহবিল থেকে ভর্তুকি পাওয়ার আশায় আবেদন করেছে। মূলত যুক্তরাষ্ট্রে অ্যারিজোনায় প্রতিষ্ঠানটির চিপ উৎপাদন কারখানার নির্মাণকাজ চলমান। তবে ডলারের মান পড়ে যাওয়ার কারণে এই নির্মাণকাজ স্থগিতের সম্ভাবনা আছে। এ ছাড়া, মাইক্রন ও স্যামসাং ইলেকট্রনিকসও যুক্তরাষ্ট্রের এই তহবিল হতে ভর্তুকি পাওয়ার আশায় আবেদন করেছে।


আরও খবর



রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ৪৪

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান চালিয়ে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ৪৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

ডিএমপি সূত্রে জানা যায়, গ্রেপ্তারের পাশাপাশি তাদের হেফাজত থেকে ১ হাজার ৫৩৯ পিস ইয়াবা, ২ কেজি ৯৫০ গ্রাম গাঁজা, ৩ গ্রাম হেরোইন, ১৫ বোতল ফেনসিডিল, ৫০০ পিস ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেট ও ৮০টি নেশাজাতীয় ইনজেকশন জব্দ করা হয়েছে। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৩২টি মামলা করা হয়েছে।


আরও খবর
ছুটির দিনেও ঢাকার বায়ু ‌‘অস্বাস্থ্যকর’

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ফেসবুকে পরিচয়, প্রেমের ফাঁদে নারী খোয়ালেন কোটি টাকা

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

বেনজীর হোসেন (৪০) ফেসবুকে নিজেকে পরিচয় দেন যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী হিসেবে। এছাড়া পেশায় তিনি বৈমানিক- এমন পরিচয়ে এক নারীর সঙ্গে গড়ে তোলেন প্রেমের সম্পর্ক। বছর চারেক আগে বিবাহবিচ্ছেদ হওয়া ওই নারীকে যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়ার প্রলোভন দেখান। এরপর ওই নারীর কাছ থেকে হাতিয়ে নেন ১ কোটি ৯ লাখ টাকা।

তবে তিনি বৈমানিক নন, নন যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসীও। আসলে এই বেনজীর হোসেন বাংলাদেশের নড়াইল জেলার বাসিন্দা।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী মামলা দায়ের করেছেন। মামলা তদন্ত করে নড়াইল থেকে অভিযুক্ত বেনজীরকে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের সদস্যরা। গত বছরের নভেম্বরে ভুক্তভোগী নারী রাজধানীর ওয়ারী থানায় মামলা করার কিছুদিনের মধ্যে বেনজীরকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সিটিটিসি আদালতে জমা দেওয়া এক প্রতিবেদনে বলেছে, বিয়ে করার ফাঁদে ফেলে বেনজীর ভুক্তভোগী নারীর কাছ থেকে ১ কোটি ৯ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

জানা গেছে, গত বছর মে মাসে ভুক্তভোগী নারী ফেসবুকে শহীদ হাসান নামের একজনের কাছ থেকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পান। ফেসবুকে বন্ধু হওয়ার পর শহীদ হাসানের সঙ্গে মেসেঞ্জারে কথা চলতে থাকে তার। মূলত শহীদ হাসান নামক ব্যক্তিই বেনজীর হোসেন। তিনি নিজেকে একজন পাইলট পরিচয় দেন। পাশাপাশি তিনি বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক বলে জানান। বাস করেন নিউইয়র্ক শহরে। কথার এক পর্যায়ে নানা আবেগপ্রবণ কথাবার্তায় নারীকে ফাঁদে ফেলেন। তখন তার সঙ্গে মেসেঞ্জারে নিয়মিত কথা হয় ওই নারীর। একপর্যায়ে প্রতারক তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন এবং বিয়ে করে তিনি তাকে যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে যাবেন বলে আশ্বাস দেন। এরপর তাকে যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে যেতে পাসপোর্ট করানোর জন্য ওই নারীর কাছ থেকে একের পর এক টাকা নিতে থাকেন প্রতারক বেনজীর।

এদিকে ব্যাংকঋণসহ বিভিন্নজনের কাছ থেকে নেওয়া ধারের টাকা পরিশোধের চাপ সামলাতে না পেরে বাধ্য হয়ে ওই নারী আসামির সঙ্গে আপস করেছেন। এ বিষয়ে তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, আমি একটি ব্যাংকে চাকরি করতাম। কিন্তু প্রতারকের খপ্পরে পড়ে চাকরি হারিয়েছি। কোটি টাকা হারানোর পর আমি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছি। টাকা শোধ করতে পারছিলাম না। বাধ্য হয়ে আমি ৬০ লাখ টাকায় আসামির সঙ্গে আপস করেছি। আমি সেই টাকা বুঝে পেয়েছি।

ভুক্তভোগী নারী দাবি করেন, আমেরিকায় নিয়ে যাওয়ার জন্য পাসপোর্ট, ভিসা করানোসহ নানা অজুহাতে টাকা চান প্রতারক। বিশ্বাস করে তিনি টাকা দিতে থাকেন। একটা পর্যায়ে তিনি ৩৭ ভরি স্বর্ণালংকার বিক্রি করেন। নিজের নামে থাকা সঞ্চয়পত্র ভাঙেন, ব্যাংক থেকে ঋণ করেন। ওই নারী বলেন, আমার সঞ্চয় করা যাবতীয় অর্থ আমি তাঁকে পাঠিয়েছি। একটা পর্যায়ের আমি মায়ের কাছ থেকে, নিকটাত্মীয়ের কাছ থেকে ধার করে তাঁকে দিই। এমনও হয়েছে যে আমি নিজের রক্ত বিক্রি করেছি, কিডনি বিক্রিরও সিদ্ধান্ত নিই।

ভুক্তভোগী নারী আরও দাবি করেন, এই সম্পর্কের জেরে গত বছরের শেষ দিকে তিনি চাকরি থেকেও ইস্তফা দেন। তাঁকে বলা হয়েছিল, যেকোনো দিন বাংলাদেশে এসে তাঁকে বিয়ে করে আমেরিকায় নিয়ে যাবেন তিনি।

ভুক্তভোগী নারী মামলার এজাহারে উল্লেখ করেন, বৈমানিক পরিচয় দেওয়া ওই ব্যক্তি ছয় মাসের মধ্যে বাংলাদেশে এসে তাঁকে বিয়ে করে আমেরিকায় নেওয়ার কথা বলেছিলেন। ছয় মাস পার হওয়ার পর না আসায় তিনি তাঁর দেওয়া ঠিকানা খুঁজতে খুলনায় যান। কিন্তু শহীদ হাসান নামের কোনো ব্যক্তি সেখানে বসবাস করেন না। এ তথ্য মেসেঞ্জারে জানানোর পর প্রতারক তাকে বলেন, একান্ত মুহূর্তের সব ভিডিও তার কাছে আছে। বাড়াবাড়ি করলে তিনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেগুলো ফাঁস করে দেবেন। এরপর থানায় মামলা করেন ওই নারী।

এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিটিটিসির সাইবার টেররিজম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের উপপরিদর্শক (এসআই) মো. সুমন জানান, ভুক্তভোগী নারীর সঙ্গে আসামির আপস হওয়ার বিষয়ে তিনি জানেন না। তদন্তে ওই নারীর কাছ থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার তথ্যের সত্যতা পেয়েছেন।


আরও খবর
ফেসবুকে বাংলাদেশি পুরুষ কমছে, নারী বাড়ছে

বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পুতিনের ‘ভয়ঙ্কর’ শাসনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের আহ্বান নাভালনির স্ত্রীর

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

আলেক্সি নাভালনির স্ত্রী ইউলিয়া নাভালনায়া বলেছেন, তার স্বামীর মৃত্যুর জন্য রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং তার সরকারকে বিচারের আওতায় আনা হবে

শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে তিনি বলেন, তারা আমাদের দেশের সাথে, আমার পরিবারের সাথে এবং আমার স্বামীর সাথে যা করেছে তার জন্য তাদের শাস্তি পেতে হবে।

এ সময় তিনি বলেন, তার স্বামীর মৃত্যুর সম্পর্কে নিশ্চিত তথ্য তার কাছে নেই। তিনি বলেন, তাদের বিচারের মুখোমুখি করা হবে এবং এই দিনটি শীঘ্রই আসবে।

সিএনএনের খবরে বলা হয়েছে, অ্যালেক্সি নাভালনির স্ত্রী ইউলিয়া নাভালনায়া শুক্রবার তার স্বামীর মৃত্যুর পর পুতিনের ভয়ংকর শাসনের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমি এটা নিয়ে (স্বামীর মৃত্যু নিয়ে) বেশ কিছুক্ষণ ভেবেছি। আমি ভাবলাম, আমি কি আপনাদের সামনে দাঁড়াব, নাকি আমি আমার সন্তানদের কাছে ফিরে যাব? তারপর আমি ভাবলাম, আমার জায়গায় অ্যালেক্সি হলে কী করত? আমি নিশ্চিত যে তিনি এই মঞ্চে দাঁড়াতেন।

তিনি বলেন, আমি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়- বিশ্বের সব মানুষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। আমাদের ঐক্যবদ্ধ হওয়া উচিত এবং এই অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করা উচিত।


আরও খবর



বিগত বছরে নিহত ৯৯ সাংবাদিকের মধ্যে ৭২ জন গাজা যুদ্ধে নিহত : সিপিজে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস (সিপিজে) বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) জানিয়েছে, ২০২৩ সালে নিহত ৯৯ জন সাংবাদিকের মধ্যে ৭২ জন ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধে নিহত হয়েছেন। নিহতের এই সংখ্যা প্রায় এক দশকের মধ্যে গণমাধ্যমের জন্য সবচেয়ে প্রাণঘাতী ছিল।

সোমালিয়া ও ফিলিপাইনে মৃত্যুর সংখ্যা স্থিতিশীল থাকলেও সিপিজে বলছে, গাজা, ইসরায়েল ও লেবাননে নিহতের সংখ্যা না থাকলে বিশ্বজুড়ে সাংবাদিক হত্যার ঘটনা বছরওয়ারি কমে যেত।

সাংবাদিক নিহতের এই সংখ্যা ২০১৫ সালের পর থেকে সর্বোচ্চ এবং ২০২২ সালের পরিসংখ্যানের প্রায় ৪৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

২০২৩ সালের ডিসেম্বরে সিপিজে জানিয়েছিল, ইসরায়েল-গাজা যুদ্ধের প্রথম তিন মাসে পুরো এক বছরে কোনো দেশে যত সাংবাদিক নিহত হয়েছেন, তার চেয়ে বেশি সাংবাদিক নিহত হয়েছেন।

ইসরায়েল-হামাস সংঘাতে নিহত ৭২ সাংবাদিকের মধ্যে তিনজন লেবাননের ও দুজন ইসরায়েলি বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

সিপিজের প্রধান নির্বাহী জোডি গিন্সবার্গ বলেন, গাজার সাংবাদিকরা সামনের সারিতে আছেন।


আরও খবর