আজঃ মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

দোহারে পুকুরে ভাসমান বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জুলাই ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৭ জুলাই ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নাজনীন শিকদার (দোহার-নবাবগঞ্জ)

Image

ঢাকা দোহারে পুকুরে ভাসমান অবস্থায় লাবলু (৬০) নামের এক বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার করেছে দোহার থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৭ জুলাই) উপজেলার কুসুমহাটি ইউনিয়নের চরকুশাই খান বাজার সংলগ্ন রাস্তার দক্ষিণ পাশের ভাঙ্গা থেকে এ লাশ উদ্ধার করা হয়।

উদ্ধার হওয়া ব্যক্তি শিলাকোঠা গ্রামের মৃত সুলতান ফকিরের ছেলে ও মজিবর বিশ্বাসের চাচা বলে জানা গেছে।  স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে স্থানীয়রা পুকুরে ভাসমান অবস্থায় একটি লাশ দেখতে পেয়ে দোহার থানা পুলিশকে জানায়।

দোহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মোস্তফা কামাল ও ওসি তদন্ত আজাহারুল হক ঘটনাস্থলে এসে পুলিশ-ফায়ার সার্ভিস ও ডোমের সহযোগিতায় লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

জানা যায়, নিহত লাবলু গত ২০/২৫ বছর আগে তিনি প্রবাসে ছিলেন। সেখান থেকে ফেরার পর লোকটি মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে এবং সবাই তাকে মামা মামা বলে ডাকতো। উপজেলার নয়াবাড়ি ইউনিয়নের বাহ্রাঘাটে বেশির ভাগ সময়ই তাকে ঘোরাঘুরি করতে দেখা গেছে।

দোহার থানা অফিসার ইনচার্জ মো. মোস্তফা কামাল জানান, লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল শেষ করে থানায় রাখা হয়েছে। নিহতের আত্মীয় স্বজনদের খবর দেওয়া হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ না পেলে লাশ হস্তান্তর করা হবে। আর অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ইজতেমার আখেরি মোনাজাত আজ

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
গাজীপুর প্রতিনিধি

Image

টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে তাবলিগ জামাত আয়োজিত বিশ্ব ইজতেমা আজ রবিবার আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে। গতকাল শনিবার ইজতেমার ময়দানে সমবেত ধর্মপ্রাণ মুসল্লির উদ্দেশে ইজতেমার শীর্ষ মুরুব্বিরা ইমান আমল ও দ্বীনের দাওয়াতে তাবলিগের ওপর গুরুত্বপূর্ণ বয়ান পেশ করেন।

এর আগে শুক্রবার থেকে টঙ্গীর ইজতেমার ময়দান মুসল্লিদের উপস্থিতিতে কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। আজ আখেরি মোনাজাতে শরিক হতে বিভিন্ন স্থান থেকে মুসল্লিরা ইজতেমার ময়দানে ছুটে আসছেন। শুক্রবার বাদ ফজর থেকে লাখো মুসল্লি জিকির আসকার ও ইবাদত বন্দেগিতে সময় পার করছেন। এ ধারা শনিবারও অব্যাহত ছিল। তারা মহান আল্লাহতায়ালার সন্তষ্টি লাভের জন্য নিজের ইমানকে মজবুত করতে এবং দ্বীনের পথে থাকার জন্য পরম করুণাময়ের কাছে আকুতি জানাচ্ছেন।

আজ রবিবার সকাল ৯টা থেকে ১০টার মধ্যে যে কোনো সময়ে বহু প্রত্যাশিত আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে। তাবলিগ জামাতের বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব বিদেশিনিবাসের পূর্ব পাশে বিশেষভাবে স্থাপিত মঞ্চ থেকে আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করা হবে।

দ্বিতীয় পর্বের মিডিয়া সমন্বয়কারী মোহাম্মদ সায়েম জানান, দিল্লির মাওলানা সাদের বড় ছেলে ইউসুফ বিন সাত কান্ধালীভ বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ এ আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন। আখেরি মোনাজাতে নিজনিজ গুনাহ মাফ এবং আত্মশুদ্ধির জন্য মহান আল্লাহতায়ালার প্রার্থনা কামনা করা হবে।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দ্রব্যমূল্য ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে নিয়ে আসা চ্যালেঞ্জ : কাদের

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দ্রব্যমূল্য বাড়ছে এটা বাস্তবতা, অস্বীকার করে লাভ নেই। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে নিয়ে আসা একটি চ্যালেঞ্জ। এ নিয়ে সরকারের প্রথম মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশনা দিয়েছেন। আমরা কাজে বসে গেছি।

রোববার (২৮ জানুয়ারি) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার প্রণয় কুমার ভার্মার সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, সার্বিক পরিস্থিতিতে ভারত আমাদের সঙ্গে প্রতিবেশীসুলভ আচরণ করেছে। বিএনপি যখন কোনো কোনো রাষ্ট্রের সঙ্গে মিলে নির্বাচন ভণ্ডুল করতে চেয়েছিল, তখন ভারত আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছে।

তিনি বলেন, আমি মনে করি, সংশয় ও অবিশ্বাসের দেয়াল অবশেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভেঙে দিয়েছেন। আমাদের সঙ্গে ভারতের সম্পর্কের চিড় ধরার কোনো কারণ নেই।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, নতুন সরকারের কাজে যখন বাধা আসবে, তখন সেটা আমাদের অতিক্রম করতে হবে। তারা (বিএনপি) এখানে যদি সহিংস কোনো কর্মসূচি দেয় কিংবা সাধারণ কর্মসূচি দিয়ে সহিংসতা করে, তবে সেটার মোকাবিলা আমাদের করতে হবে। কারণ আমরা ক্ষমতায় আছি, জনগণের জানমালের নিরাপত্তা আমাদের দিতে হবে।

সরকার মেয়াদ পূর্ণ করতে পারবে না’— বিএনপির এমন মন্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি এ পর্যন্ত যত স্বপ্ন দেখেছে, সবই দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে। গয়েশ্বর চন্দ্র রায় অনেক দিন পর গতকাল আবির্ভূত হলেন, এতদিন পলাতক ছিলেন। তিনি এতদিন কোথায় পালিয়ে ছিলেন, সেই জবাব তো পেলাম না।

কঠিন সময় পার করা, চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করার সৎ সাহস আমাদের আছে। আমরা পেরেছি, ভবিষ্যতেও পারব। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যে দায়িত্ব আমরা নিয়েছি, সেটা আমরা পালন করব।

বিরোধী দল কারা হবে? প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, এখানে তো বিরোধী দল বলতে জাতীয় পার্টিই সামনে আসে। তারা আগেও ছিল। তাদের অনেকে অভিজ্ঞ আছেন।

মিয়ানমারের বর্তমান উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মিয়ানমার যে পরিস্থিতিই সৃষ্টি করুক না কেন, আমরা চাইব আলাপ আলোচনা করে সমাধান করতে। এখন পর্যন্ত মিয়ানমারের সঙ্গে কোনো সংঘাত হয়নি এবং সংঘাতে যাব না।


আরও খবর



জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় ভিন্ন চিত্র

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

Image

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়েছে আজ। ভর্তি পরীক্ষায় প্রশাসনের কঠোর অবস্থানের ফলে ক্যাম্পাসে ফিরেছে শৃঙ্খলা, ফলে স্বস্তিতে ভর্তি পরীক্ষা দিচ্ছেন শিক্ষার্থীরা।

অন্যদিকে পরীক্ষার আবেদনে বিষয়ভিত্তিক গ্রেড বাড়ানোর কারণে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কমেছে বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্টরা। ফলে এবছরের ভর্তি পরীক্ষায় দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র।

সরেজমিনে দেখা যায়, পরীক্ষা চলার সময় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অনুমোদিত ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা ছাড়া অন্য কোন রিকশা চলাচল করতে দেখা যায় নি। ছাত্রী হল থেকে আসা রিকশাগুলো তারামন বিবি হলের সামনে এসে থামতে দেখা যায়। এছাড়াও ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পাস অভ্যন্তরে শিট ও ব‌ই বিক্রি নিষিদ্ধ ছিল এবং অস্থায়ী খাবারের দোকানপাট ও ভ্রাম্যমাণ ফেরিওয়ালা দের তেমন দেখা যায় নি।

পরীক্ষা চলাকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সুষ্ঠু ও স্বাভাবিক রাখতে ভর্তি পরীক্ষা শৃঙ্খলা রক্ষা ও নিরাপত্তা কমিটির প্রস্তুতি লক্ষ্য করা যায়।এছাড়াও পরীক্ষা চলাকালীন বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ স্থান সমূহে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা (সিসিটিভি) চালু রাখা হয়েছিল।

এছাড়াও গত বছরের তুলনায় এবার ভর্তি পরীক্ষায় পরীক্ষার্থী সংখ্যা কমেছে ২১ শতাংশ। গতবছর ভর্তি পরীক্ষায় একই সংখ্যক আসনের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছিল ২ লাখ ৪৯ হাজার ৮৫৭ টি। এবার আবেদন জমা পড়েছে ১ লাখ ৯৭ হাজার ৮৫১টি। যা গত বছরের তুলনায় প্রায় ২১ শতাংশ কম। গত বছর আসন প্রতি প্রতিযোগী ছিল ১৩৪ জন। যা এবার কমে হয়েছে ১০৮ জনে।

মানিকগঞ্জ থেকে পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থী রবিউল হাসান বলেন, ফাস্ট টাইমে পছন্দের সাবজেক্ট না আসায় আমি দ্বিতীয়বারের মতো ভর্তি পরীক্ষা দিচ্ছি। গত বছর এখানে শিট বিক্রেতাদের উপস্থিতি আমাদের বিরক্ত করেছিল কিন্তু এবছর শৃঙ্খলা দেখতে পেয়েছি।

সার্বিক বিষয়ে ভর্তি পরীক্ষার শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা কমিটির আহ্বায়ক এবং প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, ভর্তি পরীক্ষার সময় ক্যাম্পাসে সর্বোচ্চ শৃঙ্খলা রক্ষায় আমরা বদ্ধপরিকর। মাঝে মাঝে কিছু অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে যায়। এবার তেমন ঘটনা যেন না ঘটে সেজন্য আমরা শুরু থেকেই সতর্কতা অবলম্বন করেছি ।

এদিকে প্রথম শিফটের পরীক্ষা পরিদর্শন শেষে উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল আলম বলেন, সুন্দর পরিবেশে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। উপস্থিতির হার ৭০-৮০ শতাংশ। আমরা এ বছর ভাসমান কোনো দোকান বসতে দিইনি। সে জন্য ভিড়ও কম আছে। নির্বিঘ্নে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।


আরও খবর



জীবিকার তাগিদে দই বিক্রিতে ব্যস্ত একুশে পদক প্রাপ্ত জিয়াউল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি

Image

চলতি বছর বিভিন্ন খাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ২১ নাগরিককে একুশে পদক ২০২৪ দিতে যাচ্ছে সরকার। তার মধ্যে সমাজসেবায় বিশেষ অবদান রাখায় একুশে পদক পেয়েছেন বেচি দই, কিনি বই খ্যাত সাদা মনের মানুষ জিয়াউল হক।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ভোলাহাট উপজেলার ৩ নম্বর দলদলী ইউনিয়নের চামা মুশরিভুজা গ্রামে বাড়ি জিয়াউল হকের। বাবার নাম মরহুম তৈয়ব আলী মোল্লা এবং মায়ের নাম শরীফুন নেছা।

বাবা-মায়ের মৃত্যুর পর পরিবারের দায়িত্ব কাঁধে নেন তিনি। এরপর ১৯৬৯ সাল থেকে একটু একটু করে গড়ে তোলেন তার পারিবারিক লাইব্রেরি। দরিদ্র্যতার সঙ্গে আজীবন লড়াই করেও নিরবচ্ছিন্নভাবে সমাজসেবা করে যাচ্ছেন জিয়াউল হক। ফেরি করে দই বিক্রি করে সংসার চালান তিনি, সেই আয়ের উদ্বৃত্ত টাকা দিয়েই বই কিনে গরিব ছাত্রদের মধ্যে বিলি করেন জিয়াউল।

গত মঙ্গলবার বিকেলে জিয়াউল হকের মনোনয়নের বিষয়টি প্রকাশ করে সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয়। বুধবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, জিয়াউল হক পাশের উপজেলা গোমস্তাপুরের সদর রহনপুর স্টেশন বাজারে দই বিক্রি করতে গেছেন। দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার পর রহনপুর স্টেশন বাজারে গিয়ে একটি ওষুধের দোকানের সামনে তার দেখা পাওয়া যায়। ওদিকে তার বাড়িতে একুশে পদকের খবরে শুভাকাঙ্ক্ষীদের ভীড়।

ঘরে বাজার করার টাকা না থাকায় দই নিয়ে বের হয়েছেন বলে জানান তিনি। একুশে পদক পাওয়ার জন্য মনোনীত হওয়ায় শান্তি পেয়েছেন বলেও জানান তিনি। জীবনের শেষ দিকে এসেও কাজের স্বীকৃতি পাওয়ায় আনন্দিত তিনি।

সৎ মানুষ, ভালো দই ব্যবসায়ী ও ভালো মানের দই প্রস্তুতকারক হিসেবে তার সুনাম রয়েছে। সমাজসেবক হিসেবে তিনি অভাবগ্রস্ত মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে বিনামূল্যে পাঠ্যবই দেওয়ার পাশাপাশি স্থানীয় হাফেজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানায় পাঠ্যবই, পবিত্র কোরআন মাজিদ ও এতিমদের পোশাক দেওয়া অব্যাহত রেখেছেন।

এছাড়া যেসব ছাত্রছাত্রী দূরদূরান্ত থেকে বই নিতে আসেন, তাদের যাতায়াত খরচও দিয়ে থাকেন জিয়াউল হক। ঈদে গরিব-দুঃখীর মধ্যে কাপড় বিতরণ এবং প্রচণ্ড শীতে দরিদ্রদের মধ্যে শীতবস্ত্রও বিতরণ করেন।

একুশে পদকপ্রাপ্ত জিয়াউল হক জানান, কয়দিন বেঁচে আছেন পাঠাগারের দেখাশোনা করবেন তিনি। তারপর ছেলে এই পাঠাগারের দেখভাল করবে বলেও জানান তিনি।

তার ছেলে মহব্বত আলী বলেন, সমাজসেবা ক্যাটাগরিতে ২০২৪ সালে একুশে পদকে আমার বাবাকে মনোনীত করার জন্য আমি অত্যন্ত আনন্দিত। আমার বাবা রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ সম্মাননায় মনোনীত হয়েছেন এতে আমি অত্যন্ত খুশি। আমি আমার বাবার অবর্তমানে এই পাঠাগারের হাল ধরব এবং সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাব।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




নিউইয়র্কে ট্রাম্পের ব্যবসা বন্ধ, সাড়ে ৩৫ কোটি ডলার জরিমানা

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

পর্নো তারকার সঙ্গে কেলেঙ্কারির মামলা চলমান অবস্থায় এবার জালিয়াতির মামলায় ফাঁসলেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। নিজের সম্পদের মূল্য বাড়িয়ে দেখিয়ে ব্যাংক থেকে মোটা অঙ্কের ঋণ নেওয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে সাড়ে ৩৫ কোটি ডলার জরিমানা করেছে নিউইয়র্কের একটি আদালত। একইসঙ্গে নিউইয়র্কে ট্রাম্প ও তার সহযোগীদের ব্যবসাও নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

স্থানীয় সময় শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) নিউইয়র্কের ফেডারেল আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। অবশ্য, এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন বলে জানিয়েছেন ট্রাম্পের আইনজীবী। খবর সিএনএনের।

রায়ে বলা হয়, ডোনাল্ড ট্রাম্প নিউইয়র্কে নিজের এবং তার দুই ছেলের নামে থাকা সম্পদের মূল্য অনেকগুণ বেশি দেখিয়ে ব্যাংক থেকে মোটা অঙ্কের ঋণ নেন।

এদিকে, নির্বাচনের আগে ফেডারেল আদালতের এ রায় ট্রাম্পের অর্থবিত্তে বড় ধরনের ধাক্কা বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। বিশাল অঙ্কের অর্থদণ্ডের পাশাপাশি ব্যবসার ওপর নিষেধাজ্ঞা। সবমিলিয়ে ধনকুবের ট্রাম্প সাম্রাজ্যে বলতে গেলে এখন টালমাটাল।

তবে, বরাবরের মতো এবারও জালিয়াতির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবীরা। আইনি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল হলে উচ্চ আদালত মামলাটি পর্যালোচনা না করা পর্যন্ত এই রায় স্থগিত থাকবে। আর আপিল চলাকালে ট্রাম্প জরিমানা বা ব্যক্তিগত সম্পদ জব্দ এড়াতে চাইলে তাকে ৩০ দিনের মধ্যে অর্থ পরিশোধ করতে হবে।

২০২২ সালে সম্পত্তির মূল্য বাড়িয়ে দেখিয়ে জালিয়াতির মাধ্যমে ব্যাংক থেকে ঋণ ও বীমা সুবিধা নেওয়ার অভিযোগে নিউইয়র্কের ম্যানহাটনের একটি আদালতে ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে এই দেওয়ানি মামলা হয়। তদন্ত শেষে ট্রাম্পের কোম্পানির ঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রে সম্পত্তির অতিরিক্ত মূল্য দেখানো আবার সেই সম্পত্তিরই দাম কম দেখিয়ে আয়করে ছাড় পাওয়া, ব্যবসায়িক রেকর্ড, বীমা জালিয়াতি এবং ষড়যন্ত্রসহ বেশ কয়েকটি অভিযোগে ট্রাম্প ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে চার্জশিট গঠন করে বিচার কাজ শুরু করেন আদালত।

বাদিপক্ষের আইনজীবীরা বিচারকের কাছে ট্রাম্পকে জরিমানা করার পাশাপাশি নিউইয়র্কে যেন তিনি ব্যবসা করতে না পারেন, সেই আবেদনও জানিয়েছিলেন।

বেশ কয়েকটি ফৌজদারি অপরাধে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযুক্ত সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। চলতি বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে ব্যাপক প্রচারণা চালাচ্ছেন রিপাবলিকান এই প্রার্থী।


আরও খবর
বিশ্ববাজারে আবারো কমেছে জ্বালানি তেলের দাম

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪