আজঃ শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে শিশু ধর্ষণ মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ
দিনাজপুরের পার্বতীপুরে শিশু ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত সাইফুল ইসলামকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ডে দন্ডিত করেছেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক জেলা ও দ্বায়রা জজ শরীফ উদ্দিন আহমেদ। ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে তাকে আরো ৬ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আজ সোমবার দুপুর ওই রায় ঘোষণা করেন তিনি। সাজা ভোগ করতে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তবে বেকসুর খালাস পেয়েছেন সহযোগি হিসেবে অভিযুক্ত আফজাল হোসেন কবিরাজ। গেল ২০১৬ সালের ১৮ অক্টোবর ধর্ষণের শিকার হন পূজা নামে ৫ বছর বয়সি ওই শিশু।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ১৮ অক্টোবর পার্বতীপুর উপজেলার জমিরেরহাট তকেয়া পাড়ায় ওই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। বাড়ির পাশে খেলার সময় নিখোজ হয় ৫ বছর বয়সি শিশু পূজা। পরদিন বাড়ির পাশে হলুদ ক্ষেত্রে রক্তাক্ত এবং মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় ল্যাম্প এবং পরবর্তীতে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে তাকে ঢাকায় নিয়ে চিকিৎসা করানো হয়। চকলেট খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে তাকে ডেকে নিয়ে ব্লেড দিয়ে যৌনাঙ্গ কেটে ধর্ষণ করে প্রতিবেশী জহির উদ্দিনের ৪২ বছর বয়সী ছেলে সাইফুল ইসলাম। 

এঘটনায় ২দিন পর ২০ অক্টোবর সাইফুল ইসলামকে প্রধান এবং সহযোগি হিসেবে আফজাল হোসেন কবিরাজ নামে আরেক ব্যক্তির বিরুদ্ধে পার্বতীপুর মডেল থানায় মামলা করেন মেয়ের পিতা পিকআপ ভ্যানের চালক ( সুবল চন্দ্র দাস)। ৭দিনের রিমান্ড শেষে ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে অভিযুক্ত দুইজনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট (অভিযোগপত্র) দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা উপ পরিদর্শক আবু সাঈদ।


আরও খবর
হিলি স্থলবন্দরে আমদানি রফতানি বন্ধ

বুধবার ২৬ জানুয়ারী ২০২২




মুজিববর্ষে শতভাগ মানুষের ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৪২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মুজিববর্ষ এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে শতভাগ মানুষের ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার প্রতিশ্রুতির কথা স্মরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, মুজিববর্ষ এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে শতভাগ মানুষের ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম। আমরা সে প্রতিশ্রুতি অক্ষরে অক্ষরে পূরণ করেছি।

শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ সরকারের বর্তমান মেয়াদের ৩ বছর পূর্তি উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে ভাষণে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, আমি কয়েকটি বিষয় আপনাদের সামনে তুলে ধরতে চাই। তার মধ্যে বিদ্যুৎ বর্তমান সময়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পণ্য। ২০০৯ সালে আমাদের সরকারের দায়িত্ব নেওয়ার আগে বিদ্যুৎ সরবরাহ পরিস্থিতির কথা আপনাদের মনে আছে। তখন সর্বসাকুল্যে বিদ্যুৎ উৎপাদনের সক্ষমতা ছিল ৪২০০ মেগাওয়াট। বর্তমানে দৈনিক বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা দাঁড়িয়েছে ২৫ হাজার ২৩৫ মেগাওয়াটে। দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার অংশ হিসেবে পটুয়াখালীর পায়রাতে এরই মধ্যে ১ হাজার ৩২০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপিত হয়েছে। রামপাল, পায়রা, বাঁশখালী, মহেষখালী এবং মাতারবাড়িতে আরও মোট ৭ হাজার ৮০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের কাজ চলছে।

তিনি বলেন, ২০০৯ সালে জাতীয় গ্রিডে ১ হাজার ৭৪৪ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হতো, বর্তমানে যা ২ হাজার ৫২৫ মিলিয়ন ঘনফুটে দাঁড়িয়েছে। গ্যাসের অব্যাহত চাহিদা মেটাতে ২০১৮ থেকে তরলিকৃত গ্যাস আমদানি করা হচ্ছে। নববর্ষের শুরুতে আমাদের জন্য সুখবর হচ্ছে: বঙ্গোপসাগরে যে গ্যাস হাইড্রেটের সন্ধান পাওয়া গেছে তার পরিমাণ ১৭ থেকে ১০৩ ট্রিলিয়ন ঘনফুট।

সরকারপ্রধান বলেন, আজ খাদ্য উৎপাদনে বাংলাদেশ স্বয়ংসম্পূর্ণ। বর্তমানে দানাদার খাদ্যশস্য উৎপাদনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪ কোটি ৫৫ লাখ মেট্রিক টন। বাংলাদেশ বিশ্বে ধান, সবজি ও পেঁয়াজ উৎপাদনে তৃতীয় স্থানে উন্নীত হয়েছে। অব্যাহত নীতি সহায়তা ও প্রণোদনার মাধ্যমে কৃষিক্ষেত্রে এ বিপ্লব সাধিত হয়েছে। মাছ-মাংস, ডিম, শাকসবজি উৎপাদনেও বাংলাদেশ স্বয়ংসম্পূর্ণ। অভ্যন্তরীণ মুক্তজলাশয়ে মাছ উৎপাদন বৃদ্ধির হারে বাংলাদেশ দ্বিতীয় স্থানে এবং ইলিশ উৎপাদনকারী ১১ দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান প্রথম।

সরকারপ্রধান বলেন, জনগণের সরকার হিসেবে মানুষের জীবনমান উন্নয়ন করা আমাদের দায়িত্ব এবং কর্তব্য বলেই আমি মনে করি। গত ১৩ বছরে আমরা আপনাদের জন্য কী কী করেছি, তা আপনারাই মূল্যায়ন করবেন। তবে, আমি দৃঢ়ভাবে বলতে পারি আমরা যেসব ওয়াদা দিয়েছিলাম, তা সফলভাবে বাস্তবায়ন করতে পেরেছি।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে বিজয়ী হওয়ার পর, ২০১৯ সালের ৭ জানুয়ারি শেখ হাসিনা চতুর্থ বারের মতো (টানা তিন বার) প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন।


আরও খবর



ক্ষমা মহত্ত্বের লক্ষণ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২ | ১৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আরবি শব্দ গাফুর এর আভিধানিক অর্থ ক্ষমা। ইসলামী পরিভাষায় অন্যায় অত্যাচার ও উৎপীড়নের প্রতিশোধ নেয়ার ক্ষমতা থাকা সত্ত্বেও করুণা দেখিয়ে অপরাধীকে ক্ষমা করে দেয়া ও তার প্রতি সহনশীলতা ও উদারতা প্রদর্শন করাকে আফউ বা ক্ষমা বলা হয়। ক্ষমা মহত্ত্বের লক্ষণ।খেলাফতের দায়িত্ব পালনে যেসব সিফাত বা গুণ অর্জন করা প্রয়োজন তার মধ্যে ক্ষমা অন্যতম। আল্লাহ অত্যন্ত ক্ষমাশীল। তিনি সর্বদা তার বান্দাদের অপরাধ ক্ষমা করে থাকেন। তার পরিপ্রেক্ষিতে গফুর ও গাফফার নামে তাকে অভিহিত করা হয়েছে। যদি আল্লাহ তার বান্দাদের ক্ষমা না করতেন তাহলে দুনিয়াতে কোনো মানুষই রেহাই পেত না। এজন্য যে ব্যক্তি আল্লাহর ক্ষমা গুণ অবলম্বন করে অপর মানুষের অপরাধ ক্ষমা করে, আল্লাহ তাকে ভালোবাসেন। আর তোমরা যদি ক্ষমা করো, তবে তা হবে পরহেজগারির নিকটবর্তী। আর পারস্পরিক সহানুভূতির কথা ভুলে যেও না। নিশ্চয় তোমরা যা কিছু করো আল্লাহ সে সবই অত্যন্ত ভালো করে দেখেন। (সূরা আল বাকারাহ : ২৩৭) যারা সচ্ছলতায় ও অভাবের সময় (আল্লাহর রাস্তায়) খরচ করে যারা নিজেদের রাগকে সংবরণ করে আর মানুষকে ক্ষমা করে, প্রকৃতপক্ষে আল্লাহ তায়ালা মুহসিন লোকদেরকে ভালোবাসেন। (সূরা আলে-ইমরান : ১৩৪) তোমরা যদি কল্যাণ করো প্রকাশ্যভাবে কিংবা গোপনে অথবা যদি তোমরা অপরাধ ক্ষমা করে দাও, তবে জেনে রেখো আল্লাহ নিজেও ক্ষমাকারী, মহাশক্তিমান। (সূরা আন্ নিসা: ১৩৪)

ক্ষমা করার অভ্যাস গড়ে তোলো, ভালো কাজের আদেশ দাও এবং মূর্খ জাহেলদের (কথাবার্তা) থেকে দূরে থাকো। (সূরা আরাফ : ১৩৪) আয়েশা রা: থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, যখনই রাসূলুল্লাহ সা:কে দুটি কাজের মধ্যে একটি গ্রহণ করার এখতিয়ার দেয়া হতো, তখন তিনি তা থেকে সহজটি গ্রহণ করতেন। যদি তাতে গুনাহের কিছু না থাকত। আর যদি তা গুনাহের কোনো কাজ হতো, তবে তিনি তা থেকে বহু দূরে থাকতেন। আর রাসূলুল্লাহ সা: নিজের জন্য কোনো প্রতিশোধ গ্রহণ করতেন না। তবে যদি কেউ আল্লাহ কর্তৃক নির্ধারিত কোনো হারাম কাজে লিপ্ত হতো, তখন তিনি আল্লাহর হুকুম পালনের জন্য তাকে সে গুনাহের জন্য শাস্তি দিতেন। (যেমন জিনার জন্য রজম এবং চুরির জন্য হাত কাটার শাস্তি ইত্যাদি।) (আবু দাউদ হাদিস-৪৭৮৫ হাদিসটি সহিহ)

যারা আক্রান্ত হলে প্রতিশোধ গ্রহণ করে। আর মন্দের প্রতিফল তো অনুরূপ মন্দই। যে ক্ষমা করে আপস করে নেয় তার পুরস্কার আল্লাহর কাছে আছে, নিশ্চয় তিনি জালিমদের পছন্দ করেন না। অবশ্য যে অত্যাচারিত হওয়ার পর প্রতিশোধ গ্রহণ করে, তাদের বিরুদ্ধেও কোনো অভিযোগ নেই। অভিযোগ কেবল তাদের বিরুদ্ধে যারা মানুষের ওপর অত্যাচার চালায় এবং দুনিয়াতে অন্যায়ভাবে বিদ্রোহ করে বেড়ায়। তাদের জন্য রয়েছে পীড়াদায়ক শাস্তি। অবশ্য যে সবর করে ও ক্ষমা করে, নিশ্চয় এটা অত্যন্ত সাহসিকতার কাজ। (সূরা আশ শুরা : ১৩৪)

আবু হুরায়রা থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সা: বলেছেন : সাদকা করাতে সম্পদের ঘাটতি হয় না। যে ব্যক্তি ক্ষমা করে আল্লাহ তার মর্যাদা বৃদ্ধি করে দেন। আর কেউ আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য বিনীত হলে তিনি তার মর্যাদা বাড়িয়ে দেন। (মুসলিম ৭ম খণ্ড অ: সদ্ব্যবহার, আত্মিয়তার সম্পর্ক রক্ষা ও শিষ্টাচার, পৃ: ১১৪)

আবু হুরায়রা রা: থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সা: বলেছেন : কুস্তিতে প্রতিপক্ষকে হারিয়ে জয় লাভ করাতে বীরত্ব নেই। বরঞ্চ ক্রোধ ও গোস্বার মুহূর্তে নিজেকে সংবরণ করতে পারাই প্রকৃত বীরত্বের পরিচয়। (বোখারি ৯ম খণ্ড অ: আচার-ব্যবহার পৃ: ৪৫৩) আবুল আহওয়াস তার পিতা (মালিক ইবন নাজলা) রা: থেকে বর্ণনা করেন। তিনি বলেন, আমি বললাম, হে আল্লাহর রাসূল সা: যখন কোনো ব্যক্তির নিকট দিয়ে আমি যাই কিন্তু সে ব্যক্তি আমার মেহমানদারি করে না, সে যদি আমার নিকট দিয়ে যায় তবে কি আমি তার সাথে অনুরূপ আচরণ করে বদলা নিতে পারি? তিনি বলেন, না, বরং তুমি তার মেহমানদারি করবে। মালিক রা: বলেন, আমার পরনে তিনি অত্যন্ত পুরনো হয়ে যাওয়া কাপড়ে দেখে বললেন, তোমার ধন-সম্পদ আছে কি? আমি বললাম, উট, ছাগল, সব ধরনের সম্পদ, আল্লাহ আমাকে দিয়েছেন। তিনি বললেন, তোমার মাঝে এর নিদর্শন যেন পরিলক্ষিত হয়। (তিরমিজি হাদিসটি সহিহ)

নিউজ ট্যাগ: ক্ষমা

আরও খবর
ঈমানের পরই নামাজের স্থান

বুধবার ২৬ জানুয়ারী ২০২২

সূরা ফাতিহার গুরত্ব

মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারী ২০২২




কিংবদন্তি ফুটবলার ও কোচ সুভাষ ভৌমিক আর নেই

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২ | ২৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতের প্রাক্তন ফুটবলার তথা প্রবাদপ্রতীম বাঙালি কোচ সুভাষ ভৌমিক আর নেই। জীবনযুদ্ধের লড়াই শেষে না ফেরার দেশে চলে গেলেন তিনি। এই ফুটবল কিংবদন্তি দীর্ঘদিন ধরে কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। গত কয়েকদিন ধরে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। শনিবার ভোররাতে হাসপাতালেই শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন ইস্টবেঙ্গলকে জাতীয় লিগ ও আশিয়ান কাপ জেতানো কোচ। 

গত কয়েক মাস ধরে শারীরিক অবস্থা ভাল ছিল না তার। কয়েক দিন সেটা সঙ্কটজনক অবস্থায় চলে যায়। শুক্রবার তাঁর ভাল চিকিৎসার জন্য উদ্যোগী হয়েছিল কলকাতার তিন প্রধান, আইএফএ। সঙ্গে ছিলেন ক্রীড়ামন্ত্রী অরুপ বিশ্বাসও। কিন্তু কাউকে কিছু করার সুযোগটাই দিলেন না তিনি। প্রায় সাড়ে তিন মাস ধরে তাঁকে প্রায় নিয়মিত ডায়ালিসিস করাতে হচ্ছিল। তার মধ্যে তিন বছর আগে তাঁর হৃদযন্ত্রে বাইপাস সার্জারি হয়েছিল।

প্রদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে গুরু মেনে কোচ হিসেবে পথ চলা শুরু করেছিলেন সুভাষ। মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গল, মহমেডান সহ ভারতবর্ষের বিভিন্ন ক্লাবে সাফল্যের সঙ্গে কোচিং করিয়েছেন। তবে কোচ হিসেবে সুভাষের সেরা সাফল্য ২০০৩ সালে আশিয়ান ট্রফি। সুভাষ ভৌমিকের এই আকম্মিক প্রয়াণে শোকস্তব্ধ ভারতীয় ফুটবল মহল।

নিউজ ট্যাগ: সুভাষ ভৌমিক

আরও খবর
সাড়ে ৩ বছর নিষিদ্ধ ব্রেন্ডন টেলর

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২




চট্টগ্রামে আরও ১৬ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | হালনাগাদ:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | ৪৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ১৬ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এসময়ে ১ হাজার ৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নমুনা পরীক্ষার তুলনায় সংক্রমণের হার ১ দশমিক ৫৮ শতাংশ। এদিনও করোনা আক্রান্ত হয়ে কারও মৃত্যু হয়নি।

আজ রবিবার সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, চট্টগ্রামে ১১টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা করা হয়।   নতুন আক্রান্ত ১৪ জন মহানগর এলাকার ও ২ জন লোহাগাড়া ও পটিয়া উপজেলার বাসিন্দা।

এখন পর্যন্ত চট্টগ্রামে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ২ হাজার ৬৫৮ জন। এর মধ্যে মহানগর এলাকায় ৭৪ হাজার ২৮৫ জন এবং উপজেলায় ২৮ হাজার ৩৭৩ জন। এছাড়া মোট মৃত্যুবরণ করা ১ হাজার ৩৩২ জনের মধ্যে ৭২৩ জন মহানগর এবং ৬০৯ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।


আরও খবর



চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ভোট শুরু

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২ | ১৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শুরু হয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২২-২৪ মেয়াদের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন। শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (বিএফডিসি) এ নির্বাচন শুরু হয়।ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

গত দুই মেয়াদে নির্বাচিত মিশা-জায়েদ জুটিকে হারিয়ে নতুন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হতে লড়ছেন কাঞ্চন-নিপুণ।

এবার সমিতির ভোটার ৪২৮ জন। তবে ২০১৮ সালে মিশা-জায়েদ কমিটি দ্বারা ভোটাধিকার হারানো সমিতির ১৮৪ জন সদস্য এবারও ভোট দিতে পারছেন না। এ ব্যাপারে উচ্চ আদালতে রিট করা হলেও তা এখনো সুরাহা হয়নি।

গতবারের মতো এবারও সভাপতি পদে মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক পদে জায়েদ খান নির্বাচন করছেন। 

এদিকে এ প্যানেলের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে কাঞ্চন-নিপুণ প্যানেল। সভাপতি পদে চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন ও সাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন চিত্রনায়িকা নিপুণ আক্তার।

নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে দুই প্যানেলের প্রার্থীরাই বেশ আশাবাদী। তবে এবার হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলে মনে করছেন চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা।

এবার শিল্পী সমিতির নির্বাচনে কমিশনারের দায়িত্ব পালন করছেন পীরজাদা হারুন। অন্য দুই সদস্য হলেন- বিএইচ নিশান ও বজলুর রাশীদ চৌধুরী। আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান করা হয়েছে সোহানুর রহমান সোহানকে। সদস্য মোহাম্মদ হোসেন জেমী ও মোহাম্মদ হোসেন।


আরও খবর
টাকা দিয়ে ভোট কিনছেন জায়েদ খান : নিপুণ

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২