আজঃ মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

ঢাকায় ছয় ঘণ্টায় ১’শ ১৩ মিলিমিটার বৃষ্টি

প্রকাশিত:শুক্রবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীতে টানা ৬ ঘণ্টায় ১১৩ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। শুক্রবারও রাজধানীতে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যার পর থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত মুষলধারে বৃষ্টি ঝরেছে। এখনো গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি পড়ছে।

এদিকে, টানা বৃষ্টিপাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় থই থই পানি জমে থাকতে দেখা গেছে। অনেক রাস্তা তলিয়ে গেছে। জলাবদ্ধতার কারণে অনেক রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। ঘরমুখী অনেকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা এক স্থানে আটকে থাকার কথা জানিয়েছেন। অনেকেই ফেসবুকে শেয়ার করেছেন তাদের ভোগান্তির কথা। এমনকি বৃষ্টির কারণে কর্মস্থল থেকে অনেকে সময়মতো বের হতেও পারেননি।

রাজধানীর ধানমন্ডি, মোহাম্মদপুর, মানিক মিয়া এভিনিউর সড়ক বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে। এছাড়া রাজধানীর অনেক সড়ক পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় দীর্ঘ যানজট দেখা যায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, ধানমন্ডির সাত রাস্তা, নিউ মার্কেট- গাবতলী সড়ক, বেগম রোকেয়া সরণি, বাংলামোটর, সার্ক ফোয়ারা থেকে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে পর্যন্ত দীর্ঘ যানজট। রাত ১০টার দিকেই তলিয়ে যায় গ্রিন রোড এলাকা। এ সড়কে বহু গাড়ি আটকে থাকতে দেখা গেছে। এছাড়া ধানমন্ডি-৫ নম্বর সড়ক, নীলক্ষেত, কাঁটাবন, হাতিরপুল এলাকার সড়কেও পানি জমতে দেখা গেছে।

আবহাওয়া দপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগেও বৃষ্টি হয়েছে।

শুক্রবারের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে, রাজশাহী, রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের বেশিরভাগ জায়গাসহ ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে। এসময় বজ্রপাতও হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে। সেইসঙ্গে রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বৃষ্টি হতে পারে।


আরও খবর



সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে ভারত বাংলাদেশের পাশে দাঁড়িয়েছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

গণতন্ত্র রক্ষায় একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ নির্বাচন অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ানোর জন্য ভারতের জনগণ ও সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, এটি সত্য যে ভারতের জনগণ এবং সরকার আমাদের গণতন্ত্রকে রক্ষা করার জন্য ১৯৭১ সালে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সময়ের মতো আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছিল যদিও নির্বাচন প্রক্রিয়াকে অস্থিতিশীল করার জন্য অনেক চক্রান্ত ছিল।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে.নতুন দিল্লি ভিত্তিক একটি থিঙ্ক ট্যাঙ্ক বিবেকানন্দ ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন (ভিআইএফ)-এ একটি মিডিয়া ইন্টার‍্যাকশনে তিনি এ মন্তব্য করেন। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডক্টর এস জয়শঙ্করের আমন্ত্রণে তিন দিনের দ্বিপক্ষীয় সফরে নয়াদিল্লিতে রয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আমি বলব আমাদের নির্বাচন বাংলাদেশের ইতিহাসে এবং ভারতীয় উপমহাদেশের প্রেক্ষাপটে আমাদের নির্বাচন একটি ভালো নির্বাচন ছিল এবং আমাদের জনগণ স্বাধীনভাবে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের চিঠিকে স্বাগত জানিয়েছেন। আমরা তাদের স্বাগত জানাই কারণ উভয় নেতাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন নতুন সরকারের সাথে কাজ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চমৎকার বন্ধুত্বের বন্ধন উপভোগ করছে এবং আমরা আমাদের জনগণের স্বার্থে ভবিষ্যতে আমাদের বর্তমান সম্পর্ককে আরও জোরদার করার অপেক্ষায় রয়েছি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আমাদের প্রধান উন্নয়ন সহযোগী এবং আমরা গত বছর আমাদের সম্পর্ক উদযাপন করেছি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় তাদের অধিকার ভোগ করে আসছে কারণ আমাদের দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ একটি ধর্মনিরপেক্ষ দল এবং ধর্মনিরপেক্ষতা আমাদের দলের প্রধান স্তম্ভ। কিন্তু, পাশাপাশি কিছু ধর্মান্ধ শক্তি আছে, তারা আওয়ামী লীগকে ভোটও দেয় না এবং সময় সময় তারা আমাদের সমাজকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করে।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে বর্তমান সরকার ধর্মের নামে যারা সমাজকে অস্থিতিশীল করতে চায় তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছে।

গত বছর বাংলাদেশে ৩০০ জনেরও কম মানুষের জন্য একটি করে দুর্গা পূজা মণ্ডপ স্থাপন করা হয়েছিল, কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে (ভারত) প্রতি ১০০০ জনের জন্য একটি মণ্ডপ স্থাপন করা হয়েছিল। এটি প্রমাণ করে যে, সংখ্যালঘু সম্প্রদায় বাংলাদেশে কতোটা ধর্মীয় স্বাধীনতা উপভোগ করছে।

বাংলাদেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের সংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে- এমন অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে মন্ত্রী বলেন, আমি এই বিষয়ে আপনাকে দেওয়া তথ্যের সাথে একমত নই। বরং সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের মতো বাংলাদেশে সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর হার ক্রমান্বয়ে বাড়ছে।

বাংলাদেশে ভারত বিরোধী মনোভাব বৃদ্ধির বিষয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশে নির্বাচনের প্রাক্কালে একটি মহল ভারত বিরোধী মনোভাবের তাস খেলার চেষ্টা করলেও বর্তমান সময়ে এই কৌশল কাজ করে না। এখন ভারত-বিরোধী ট্যাবলেট কাজ করে না। এটা অকার্যকর, বিএনপি-জামায়াত নির্বাচনের আগে এ তাস খেলতে চায়, কিন্তু এখন তা আর কাজ করে না।

জনগণের মধ্যে যোগাযোগ বৃদ্ধির বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, কানেক্টিভটি, ভিসা প্রক্রিয়ার প্রতিবন্ধকতা দূর করা এবং সাংস্কৃতিক বিনিময় বাংলাদেশ ও ভারতের জনগণের মধ্যে যোগাযোগ জোরদার করতে ব্যাপকভাবে সাহায্য করবে। এখনও ভিসা পেতে ঢাকা, চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভারতীয় ভিসা সেন্টারের সামনে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়।

তিনি বলেন, আমি ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সাথে বৈঠকে বিষয়টি উত্থাপন করেছি। ভিসা পাওয়ার বাধা কমানো হয়েছে এবং আরও বেশি লোক দুই দেশের মধ্যে ভ্রমণ করবে এবং এটি মানুষের সাথে মানুষের যোগাযোগ জোরদার করবে। তিনি সেই দিনগুলোর অপেক্ষায় আছেন যখন কেউ সীমান্তে এসে তার পাসপোর্ট দেখিয়ে গন্তব্য দেশে প্রবেশ করবে।

পরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সন্ধ্যায় ফরেন করেসপন্ডেন্টস ক্লাব অফ সাউথ এশিয়া (এফসিসি, সাউথ এশিয়া)-তে বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া রিলেশনস টুডে বিষয়ে আরেকটি মিডিয়া ইন্টার‍্যাকশনে যোগ দেন। ২০২৪ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর এটিই ভারতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রথম সরকারি সফর এবং কোনো দেশে তার প্রথম দ্বিপক্ষীয় সফর।

ভিআইএফ-এর পরিচালক ড. অরবিন্দ গুপ্ত অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন। ভারতে বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. মুস্তাফিজুর রহমান মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন। অনুষ্ঠানে কূটনীতিক, গবেষণা ফেলো, শিক্ষাবিদ ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



‘ট্রাব স্মার্ট পারফরম্যান্স অ্যাওয়ার্ড-২০২৪’ পেলেন ড. মো: সাদী-উজ-জামান

প্রকাশিত:শনিবার ০২ মার্চ 2০২4 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ মার্চ 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

Image

আবাসন খাতে অসামান্য অবদানের জন্য টেলিভিশন রিপোর্টার্স ইউনিটি অব বাংলাদেশ-ট্রাব ও স্মার্ট বাংলাদেশ বিজনেস অ্যাসোসিয়েশন কর্তৃক-আয়োজিত ট্রাব স্মার্ট পারফরম্যান্স অ্যাওয়ার্ড-২০২৪ পেয়েছেন ড. মো: সাদী-উজ-জামান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, নতুনধরা গ্রুপ ও কো-চেয়ারম্যান- এফবিসিসিআই স্টান্ডিং কমিটি অন ল্যান্ড ডেভেলপার্স। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করেন ড. মো: সাদী-উজ-জামান। ২১ ফেব্রুয়ারি২৪ ইং তারিখে ঢাকার হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালের ক্রিস্টাল বলরুমে আয়োজিত এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে অ্যাওয়ার্ড তুলে দেন প্রধান অতিথি ভূমিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ এমপি। উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নতুনধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো: সাদী-উজ-জামানসহ সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ দিদার বখত, সংসদ সদস্য মহিউদ্দীন মহারাজ, এ. কে.এম শহীদুল হক, সাবেক আইজিপি, আনিসুর রহমান মিঞা (সচিব), চেয়ারম্যান, রাজউক, ফারুক হাসান, সভাপতি, বিজিএমইএ, ড. মো: জাহাঙ্গীর আলম, মহাপরিচালক, বাংলাদেশ টেলিভিশন, বিলাল হক, চেয়ারম্যান, নন্দন পার্ক লিমিটেড। রেদুয়ান খন্দকার, ট্রাবের প্রধান উপদেষ্টা, বিশিষ্ট সাংবাদিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সালাম মাহমুদ, সভাপতি টেলিভিশন রিপোর্টার্স ইউনিটি অব বাংলাদেশ-ট্রাব। অনুষ্ঠানে স্ব-স্ব ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য গুণীজনদের সম্মাননা প্রদান করা হয়। -বিজ্ঞপ্তি


আরও খবর
ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-২০ উদ্বোধন করলেন পরীমণি

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




কুবিতে 'শিক্ষকদের হেনস্তা', থানায় জিডি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

Image

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) উপাচার্যের কার্যালয়ে 'শিক্ষকদের হেনস্তা ও হুমকি-ধমকির' অভিযোগে  দুইজন কর্মকর্তা ও সাতজন 'সাবেক শিক্ষার্থীর' নামে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনির্বাচিত শিক্ষক সমিতি সভাপতি ড. মো. আবু তাহের ও সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) রাতে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানায় এ অভিযোগ করেন তারা।

অভিযুক্ত কর্মকর্তারা হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ জাকির হোসেন, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মো. দেলোয়ার হোসেন। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পদে চাকরির আবেদন করা ও ছাত্রলীগের পদপ্রার্থীরা হলেন মো. ইমরান হোসাইন, অনুপম দাস বাধন, রকিবুল হাসান রকি, আমিনুর রহমান, ইমাম হোসাইন মাসুম, রাকিব, জাহিদুল ইসলাম সহ অজ্ঞাতনামা ২০ থেকে ৩০ জনের নামে এ অভিযোগ দায়ের করা হয়।

অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, বিকাল ৪ টায় নবনির্বাচিত শিক্ষক সমিতির নেতাকর্মীরা উপাচার্যের সাথে দেখা করতে গেলে জাকির হোসেন ও ইমরান হোসাইনের নেতৃত্বে কয়েকজনকে নিয়ে শিক্ষকদের কে শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত ও হেনস্তা করার চেষ্টা করে। এসময় তারা আমাদের সাথে মারমুখী আচরণ শুরু করে এবং প্রাণনাশমূলক হুমকি ধমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন শুরু করে। একপর্যায়ে জাকির উপাচার্যের উপস্থিতিতে শিক্ষকদের "থাপ্পড় দিয়ে দাঁত ফেলে দিব" বলে হুমকি দেয়। তখন উপাচার্য ও প্রক্টরিয়াল বডির কাছে নিরাপত্তা চাইলে আমাদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হন।

অভিযোগপত্রে আরও বলা হয়, উপাচার্য আমাদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা না করেই নিজ বাসভবনে চলে যান। বর্তমানে আমি সহ আমাদের শিক্ষকগণ নিরাপত্তাহীনতায় ভুগিতেছি। ভবিষ্যতে আমাদের যেকোনো সময় ক্ষতিসাধন করার আশঙ্কা করছি। বিষয়টি উপস্থিত শিক্ষকদের সাথে পরামর্শ করে শিক্ষকদের স্বাক্ষর সহ থানায় সাধারণ ডায়েরি করলাম।

এসময় প্রায় অর্ধশতাধিক শিক্ষক থানায় উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিত শিক্ষকদের স্বাক্ষরসহ সংযুক্তি দিয়ে এ অভিযোগ দায়ের করেন।

থানায় অভিযোগের বিষয়ে ড. আবু তাহের বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে যদি আমরা নিরাপদ না থাকি, তাহলে আমরা অবশ্যই রাষ্ট্রের কাছে নিরাপত্তা চাইবো। প্রশাসন আমাদের নিরাপত্তা দিতে পারে নাই। উপাচার্যের কাছে আমরা নিরাপত্তা চেয়েও আমরা নিরাপত্তা পাইনি এবং প্রক্টরিয়াল বডিও আমাদের নিরাপত্তা দেয়নি। এখন আমাদের শিক্ষকেরা নিরাপত্তাহীনতায় আছে। এজন্য আমরা রাষ্ট্রের কাছে নিরাপত্তা চেয়ে জিডি করেছি।

জিডির বিষয়ে সদর দক্ষিণ মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া বলেন, আমরা তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নিব।

এদিকে শিক্ষকদের নিরাপত্তার বিষয়ে উপাচার্যের সাথে কথা বলতে চাইলে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

উল্লেখ্য, সোমবার (১৯ ফেব্রুয়াবি) বিকাল সাড়ে ৪টায় নবনির্বাচিত কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএফএম আবদুল মঈনের সাথে দেখা করতে গেলে উপাচার্য, কোষাধ্যক্ষ ও প্রক্টরিয়াল বডির সামনেই উপাচার্যের ঘনিষ্ঠ কর্মকর্তা-কর্মচারী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকরিপ্রার্থী সাবেক শিক্ষার্থীদের কাছে লাঞ্ছনার শিকার হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।


আরও খবর



চট্টগ্রামকে বিদায় করে কোয়ালিফায়ারে বরিশাল

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) এলিমিনেটরে ফরচুন বরিশালের কাছে পাত্তাই পেলো না চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। চট্টগ্রামকে ৭ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে বরিশাল। এই জয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে জয়গা করে নিলো তামিম ইকবালের দল। অন্যদিকে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিলো চট্টগ্রাম।

সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে চট্টগ্রামকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় বরিশাল। প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৩৫ রান সংগ্রহ করে চট্টগ্রাম। দলের পক্ষে জস ব্রাউন ২২ বলে ৩৪ ও শুভাগত ১৬ বলে ২৪ রান করেন। বরিশালের পক্ষে মায়ার্স, সাইফুদ্দিন ও ম্যাকই নেন ২টি করে উইকেট।

১৩৬ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় বরিশাল। দলীয় ২ রানে ২ বলে শূন্য হাতে সাজঘরে ফিরে যান সৌম্য সরকার। তার বিদায়ের পর ক্রিজে আসা কাইল মায়ার্স।

মায়ার্সকে সঙ্গে নিয়ে চট্টগ্রামের বোলারদের ওপর চড়াও হন তামিম। মারমুখী ব্যাটিংয়ে ৯৮ রানের জুটি গড়েন এই দুই ব্যাটার। তাদের ব্যাটে জয়ের ভীত পায় বরিশাল। ২৫ বলে ফিফটি তুলে নেন মায়ার্স।

তবে দলীয় ১০০ রানে ২৬ বলে ৫০ রান করে আউট হন মায়ার্স। এরপর ক্রিজে আসেন দক্ষিণ আফ্রিকার মারকুটে ব্যাটার ডেভিড মিলার। তবে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি তিনি। দলীয় ১২৫ রানে ১৩ বলে ১৭ রান করে ফিরে যান মিলার।

এরপর ক্রিজে আসা মুশফিকুর রহিমকে সঙ্গে নিয়ে ব্যাট করতে থাকেন। ৪১ বলে ফিফটি তুলে নেন বরিশালের অধিনায়ক। এই দুই ব্যাটার মিলে ৩১ বলে বাকী থাকতে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন। মুশফিক ৫ বলে ৬ ও তামিম ৪৩ বলে ৫২ রানে অপরাজিত থাকেন।


আরও খবর



শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানি : ভিকারুননিসার শিক্ষক মুরাদ গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের আজিমপুর শাখার গণিত শিক্ষক মুরাদ হোসেন সরকারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ছাত্রীদের যৌন হয়রানির মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সোমবার দিবাগত রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লালবাগ থানার ওসি খন্দকার মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন। তিনি বলেন, সন্ধ্যায় এক তরুণীর করা নারী নির্যাতন মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মঙ্গলবার তাকে আদালতে তোলা হবে।

এর আগে সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে কলেজের পরিচালনা কমিটির জরুরি সভায় শিক্ষক মুরাদ হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে গত শনিবার রাজধানীর আজিমপুর ক্যাম্পাসের দিবা শাখার জ্যেষ্ঠ শিক্ষক মুরাদ হোসেন সরকারকে প্রত্যাহার করে অধ্যক্ষের কার্যালয়ে সংযুক্ত করে কলেজ কর্তৃপক্ষ। কলেজের একটি সূত্র জানিয়েছে, মুরাদ হোসেন সরকারের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের যৌন হয়রানির অভিযোগে তদন্ত করে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি। এরই মধ্যে এই কমিটি তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে।

এর আগে রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টায় মুরাদ হোসেন সরকারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের আজিমপুর ক্যাম্পাসের ফটকে বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা। পরে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কেকা রায় চৌধুরী দাবি পূরণের আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা বিকেল ৩টার দিকে আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা দেয়। বিকেলে একই দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন কয়েকজন অভিভাবক।


আরও খবর