আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

দেশের ৩ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নিরাপত্তা জোরদারের সিদ্ধান্ত

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশের বিমানবন্দরগুলোতে নিরাপত্তা জোরদারের উদ্যোগ নিয়েছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। এ লক্ষ্যে শাহজালালসহ আন্তর্জাতিক ৩ বিমানবন্দরে অতিরিক্ত আর্মড পুলিশ মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বেবিচক সূত্র জানিয়েছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে সম্প্রতি বৈঠক করেছে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়। এ বৈঠকে বিমানবন্দরে নিরাপত্তা বাড়ানোর বিষয়টি আসে। গত ৫ ডিসেম্বর বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব আহম্মেদ জামিল স্বাক্ষরিত একটি চিঠিতে নিরাপত্তা জোরদারে বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয় সিভিল এভিয়েশনের চেয়ারম্যানকে।

ঐ চিঠিতে সিকিউরিটি পাসের অপব্যবহার রোধ, সিসিটিভি ক্যামেরা সচল রেখে ফুটেজ যথাযথভাবে রেকর্ড করাসহ ১২ দফা নির্দেশনা দেওয়া হয়।

বেবিচক সূত্র জানায়, বর্তমানে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বেবিচকের নিজস্ব ৫৭৪ নিরাপত্তাকর্মী নিয়োজিত আছেন। এর পাশাপাশি এপিবিএনের ১ হাজার ৮৫ জন ও আনসারের ৯০২ জন সদস্য আছেন। এছাড়া ইন্সট্রাকশন রিগার্ডিং এইড টু দ্য সিভিল পাওয়ারের আওতায় সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের মাধ্যমে বিমান বাহিনী ও জননিরাপত্তা বিভাগ থেকে সংযুক্ত পুলিশ ও আনসারের আরো ২৮৩ সদস্য দায়িত্ব পালন করছেন।

এর বাইরে শাহজালাল বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় বর্তমানে ২৪টি সংস্থা কাজ করছে। তাদের সবাইকে যার যার দায়িত্ব আন্তরিকভাবে পালনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সবাইকে দায়িত্ব পালনে আরো সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



বাস-কাভার্ডভ্যান মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৩

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মোহাম্মদ ফারুক, কক্সবাজার

Image

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়ায় যাত্রীবাহী বাস ও কাভার্ডভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে এক নারীসহ দুই গাড়ির চালক নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন অন্তত ১১ জন। তবে হতাহতদের নাম পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি।

বৃহস্পতিবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার হারবাং ইউনিয়নের আরএফএল ফ্যাক্টরির সামনের মহাসড়কে ওই দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানান চিরিঙ্গা হাইওয়ে থানা পুলিশের পরিদর্শক মাহবুবুল আলম ভূঁইয়া।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে মাহবুবুল আলম জানান, সকালে চকরিয়ার হারবাং ইউনিয়নের আরএফএল ফ্যাক্টরির সামনে চট্টগ্রামগামী ঈগল পরিবহন সার্ভিসের একটি বাসের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা স্কয়ার কোম্পানির ওষুধবাহী কাভার্ডভ্যানের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে বাসটি সড়কের পাশের খাদে পড়ে যায়। এ ছাড়া গাড়ি দুটির সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যায়।

তিনি আরও জানান, দুর্ঘটনায় দুই গাড়ির চালক ও এক নারী যাত্রী নিহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়েছে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন আহতদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

দুর্ঘটনাকবলিত গাড়ি দুটি জব্দ করা হয়েছে বলে জানান চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. আলী।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




‘চকলেটহিরো’ খ্যাত শহিদ কাপুরের সংসারে অশান্তি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

জনপ্রিয় বলিউড অভিনেতা শহিদ কাপুর ব্যক্তিগত জীবনে ১৩ বছরের ছোট মীরা রাজপুতকে বিয়ে করেন। ইতোমধ্যে নয় বছর সংসার করে ফেলেছেন তারা। তবে এখন নাকি শহিদ-মীরার সংসারে বাজছে অশান্তির সুর।

এমন খবর চারদিক ছড়িয়ে পড়তেই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন শহিদের ভক্তরা। তবে কি সত্যিই ভেঙে যাবে শহিদ-মীরার সংসার? এমন প্রশ্ন রীতিমতো রহস্যের জট বেঁধেছে এই তারকার ভক্তদের মনে।

ইনস্টাগ্রামের পোস্ট দেখলেই বোঝা যায়- বিগত ৯ বছরে শহিদ-মীরার দাম্পত্য জীবন আরও গভীর হয়েছে। তবে সেই মীরা-শহিদের সংসারে নাকি নিত্য অশান্তি লেগেই রয়েছে। এবার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন শহিদ।

বাস্তব জীবনেও কি তেমন কোনো কারণেই অশান্তি স্ত্রীয়ের সঙ্গে? উত্তরটা হল না, দুজনের মধ্যে অশান্তির কারণ মূলত ফোন।

সম্প্রতি ভারতীয় গণমাধ্যমের এক সাক্ষাৎকারে শহিদ বলেন, প্রায়ই মীরা আমাকে অভিযোগ করে- ওর জন্য নাকি সময় নেই আমার। এদিকে ও নিজেই বেশির ভাগ সময় নিজের ফোনে ব্যস্ত থাকে। আর প্রতিবারই মীরার সঙ্গে এটা নিয়ে ঝগড়া করি আমি।

অভিনেতা আরও বলেন, ও যখনই বলে ওকে সময় দিচ্ছি না, আমি আমার ফোন সঙ্গে সঙ্গে নীচে নামিয়ে রাখি। কিন্তু ও তারপরও ১৫ মিনিট ধরে ফোন ঘাঁটবে। এরপরে যখন ও আমার দিকে তাকায় এবং জিজ্ঞেস করে কী হলো? তখন আমি পাল্টা বলি, কিছুই না। আমার জন্য তোমার কাছে সময় নেই।

মূলত রাগ-ঝগড়া আর খুনসুটিতেই সফলভাবে নিজেদের দাম্পত্য জীবন টিকিয়ে রেখেছেন শহিদ-মীরা। তাই এই তারকা দম্পতির ভক্তদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। কারণ শহিদ-মীরার খুনসুটির এই ঝগড়া আসলে তাদের ভালোবাসারই বহিঃপ্রকাশ।

প্রসঙ্গত, শিগগিরই মুক্তি পাবে শহিদ অভিনীত সিনেমা তেরি বাতোঁ মে উলঝা জিয়া। সিনেমায়ব প্রথমবারের মতো কৃতি শ্যাননকে দেখা যাবে তার বিপরীতে। এমনিতেই পর্দায় নায়িকাদের সঙ্গে শহিদের রসায়ন নজর কাড়ে দর্শকদের। এক সময় চকলেটহিরো’র তকমা পেয়েছিলেন তিনি।

কিন্তু ‘কবীর সিংহ’-এ অভিনয়ের পর সেই ভাবমূর্তি বদলে গেছে। কারন সিনেমায় অবশ্য প্রেমিকার উপর খবরদারি করা স্বভাব ছিল শহিদের চরিত্রে।


আরও খবর
ফের বিয়ে করছেন অনুপম রায়, পাত্রী কে?

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সংসদ প্র্যাকটিস ভালো করে জানতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশের ইতিহাস জানতে হবে এবং সংবিধান আত্মস্থ করতে হবে। সংসদ কার্যপ্রণালী বিধি পড়তে হবে। সংসদ প্র্যাকটিস ভালো করে জানতে হবে। রোববার (২৮ জানুয়ারি) গণভবনে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, যেসব প্রকল্প দেশের মানুষের জন্য অর্থবহ সেসব প্রকল্পই গ্রহণ করা হয়। আপনাদের নির্বাচনী এলাকায় যদি কেউ ভূমিহীন, গৃহহীন থাকেন, তাদের জন্য ঘর তৈরি করে দেওয়া হবে।

এ সময় রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, অগ্নিসন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স অব্যাহত থাকবে।

জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরীর সঞ্চালনায় বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়। গণভবনে যাওয়া স্বতন্ত্রদের মধ্যে বেশিরভাগই সরকারের সঙ্গে থাকতে চান বলে জানিয়েছেন কয়েকজন এমপি।

উল্লেখ্য, গত ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ২২৩টি আসন পেয়ে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে। এছাড়া জাতীয় পার্টি ১১টি এবং ওয়ার্কার্স পার্টি, জাসদ ও কল্যাণ পার্টি একটি করে আসনে জয়লাভ করেছে। এর বাইরে এবার ৬২ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী নির্বাচনে জিতেছেন।


আরও খবর



কৃষিপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে হাইকোর্টে রুল, কমিটি গঠনের নির্দেশ

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

আলু, পেঁয়াজ, ডিমসহ যাবতীয় কৃষিপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণ ও বিধান বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিষ্ক্রিয়তা প্রশ্নে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। একই সাথে ধাপে ধাপে এসব পণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি রোধে উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠনের জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিবকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

রোববার (২৮ জানুয়ারি) বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মো. আতাবুল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ও কৃষি সচিবকে এই কমিটি গঠন করতে বলা হয়েছে। একইসঙ্গে কৃষিপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি রোধে বিবাদীদের ব্যর্থতা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত। কৃষিপণ্যের মূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখতে কৃষিপণ্যের উৎপাদনস্থলে কেন বাজার ব্যবস্থাপনা করা হবে না, রুলে তাও জানতে চাওয়া হয়েছে।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মনোজ কুমার ভৌমিক। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায় ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল সেলিম আজাদ।

এর আগে, গত ২৬ ডিসেম্বরে 'আলুর কেজি এক লাফে বাড়ল ১৫ টাকা' শিরোনামে দেশের এক গণমাধ্যমের প্রকাশিত প্রতিবেদন সংযুক্ত করে হাইকোর্টে রিট করেন মনোজ কুমার ভৌমিক।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সবার ধারণা ছিল নির্বাচনের আগে নিত্যপণ্যের বাজার পরিস্থিতি সরকার সহনীয় রাখবে। দ্রব্যমূল্যের ওপর লাগাম টানবে। ডিমের দাম কমানোর মধ্যদিয়ে সে ধরনের আলামতও লক্ষ্য করা গিয়েছিল। কিন্তু সিন্ডিকেট এতো শক্তিশালী যে, ডিমের বাজারের ওপর কয়েকদিন নিয়ন্ত্রণ থাকলেও তার ধারাবাহিকতা রক্ষা করা সম্ভব হয়নি।

প্রতিবেদনটি যুক্ত করে আলু, পিঁয়াজসহ কৃষিপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণ এবং কৃষি বিপণন আইনের ৪(ছ) বিধান বাস্তবায়ন করে কৃষিপণ্য উৎপাদন এলাকায় বাজার অবকাঠামো স্থাপনে নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে গত ডিসেম্বরে জনস্বার্থে রিটটি করা হয়।


আরও খবর



জয়পুরহাটে হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
সুজন কুমার মন্ডল, জয়পুরহাট

Image

জয়পুরহাটে হত্যা মামলায় সুমন মিয়া নামে একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। বুধবার দুপুরে অতিরিক্ত দায়রা জজ-২ আদালতের বিচারক আব্বাস উদ্দীন এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত সুমন মিয়া জয়পুরহাট সদর উপজেলার পলিকাদোয়া গ্রামের সুজাউলের মেয়ের জামাই। তার বাবার নাম নুরুন্নবী।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, দণ্ডপ্রাপ্ত সুমন মিয়া পলিকাদোয়া গ্রামে ঘর জামাই থাকতেন। এ ব্যাপারে একই গ্রামের মৃত মহিম উদ্দিনের ছেলে আমির হোসেন আসামী সুমনকে তাচ্ছিল্য করেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য সৃষ্টি হয়। ২০০৮ সালের ২৮ আগস্ট বিষয়টি নিয়ে আমির আসামী সুমনের শশুর বাড়িতে যান। সেখানে আসামীর সাথে তার তর্ক-বিতর্ক হয়। এরই এক পর্যায়ে সুমন ভিটটিমের ঘাড়ের কাছে একটি ঘুষি মারেন। সে সময় স্থানীয়রা এগিয়ে এসে তাদের গন্ডগোল থামিয়ে আমিরকে কিছু দূর নিয়ে যাবার পর সে পড়ে যায় এবং সেখানেই মারা যান।

এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী জোসনা বেগম বাদী হয়ে জয়পুরহাট সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলার দীর্ঘ শুনানি শেষে বিজ্ঞ আদালত এ রায় দেন।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪