আজঃ শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

দেশে করোনা শনাক্তের হার ১১ শতাংশ ছাড়াল

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো বাংলাদেশেও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে। দীর্ঘদিন পর তৃতীয় দিনের মতো দৈনিক শনাক্ত করোনা রোগীর সংখ্যা দুই হাজার ছাড়িয়েছে। 

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ৯১৬ জনের শরীরে করোনা ধরা পড়েছে। এ নিয়ে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৬ লাখ ১ হাজার ৩০৫ জনে। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে দৈনিক শনাক্তের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে  ১১ দশমিক ৬৮ শতাংশে। বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এ সময়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪ জন মারা গেছেন। এ নিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত ২৮ হাজার ১১১ জনের মৃত্যু হয়েছে এই ভাইরাসটিতে।

গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। চলতি বছরের ৫ ও ১০ আগস্ট দুদিন সর্বোচ্চ ২৬৪ জনের মৃত্যু হয়।

দেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত বছরের ৮ মার্চ। প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর গত বছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সেই বছর সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছিল ৬৪ জনের। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ায় চলতি বছর জুন থেকে রোগীর সংখ্যা হু-হু করে বাড়তে থাকে। ২৮ জুলাই একদিনে সর্বোচ্চ ১৬ হাজার ২৩০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

চলতি বছরের গত ৭ জুলাই প্রথমবারের মতো দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ২০০ ছাড়িয়ে যায়। এর মধ্যে ৫ ও ১০ আগস্ট ২৬৪ জন করে মৃত্যু হয়, যা মহামারির মধ্যে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু। এরপর বেশকিছু দিন ২ শতাধিক মৃত্যু হয়। এরপর গত ১৩ আগস্ট মৃত্যুর সংখ্যা ২০০ এর নিচে নামা শুরু করে। দীর্ঘদিন শতাধিক থাকার পর গত ২৮ আগস্ট মৃত্যু ১০০ এর নিচে নেমে আসে।

২০২০ সালের এপ্রিলের পর চলতি বছরের ১৯ নভেম্বর প্রথম করোনাভাইরাস মহামারিতে মৃত্যুহীন দিন পার করে বাংলাদেশ।সর্বশেষ দ্বিতীয়বারের মতো ৯ ডিসেম্বর মৃত্যুশূন্য দিন পার করেছে দেশ।


আরও খবর
করোনায় আরও ২০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫৪৪০

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২

করোনায় মৃত্যু ১৫, শনাক্ত ১৫ হাজার ৮০৭ জন

বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২




আজ থেকে নতুন বই বিতরণ কার্যক্রম শুরু

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নতুন বছরের শুরুর দিন এবার বই উৎসব হচ্ছে না। তবে নতুন বই বিতরণ কার্যক্রম আজ শনিবার (১ জানুয়ারি) থেকে শুরু হচ্ছে। এবারের শিক্ষাবর্ষে ৪ কোটি ১৭ লাখ ২৬ হাজার ৮৫৬ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ৩৪ কোটি ৭০ লাখ ২২ হাজার ১৩০ কপি পাঠ্যপুস্তক বিনামূল্যে বিতরণ করা হচ্ছে। এর মধ্যে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের জন্য ব্রেইল পদ্ধতিতে পাঠ্যপুস্তক ও ৫টি ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের মাতৃভাষায় মুদ্রিত পাঠ্যপুস্তকও রয়েছে। তবে, এ বছরের প্রথমদিনে সব শিক্ষার্থীকে বই দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। পর্যায়ক্রমে নতুন বই পাবে শিক্ষার্থীরা ।

২০১২ সাল থেকে বর্তমান সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে বই বিতরণ উৎসবের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দিচ্ছে। এই কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় সারাদেশে একযোগে বছরের প্রথম দিন ১ জানুয়ারি শিক্ষক-শিক্ষার্থী-অভিভাবক, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্ট দফতরসমূহের কর্মকর্তা-কর্মচারির উপস্থিতিতে উৎসবমুখর ও আনন্দঘন পরিবেশে বই বিতরণ উদযাপিত হয়ে আসছে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে  ২০২১ সালে বই উৎসবকে কেন্দ্র করে বর্ণিলভাবে সাজানো হলেও বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে সেটি সম্ভব হয়নি। তবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তাদের মাধ্যমে, সফলভাবে পহেলা জানুয়ারি ৯ কোটি ৩৭ লাখ ৭৫ হাজার ৮৯৩টি বই শিক্ষকদের বাড়িতে পৌঁছে দিয়েছে।

২০২২ শিক্ষাবর্ষে প্রাথমিক স্তরে ৯ কোটি ৩০ লাখ ৩৪ হাজার ৩০টি, প্রাক-প্রাথমিক স্তরে ৬৬ লাখ ৫ হাজার ৪৮০টি, ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠীর জন্য ২ লাখ ১৯ হাজার ৩৬৪ টিসহ মোট ৯ কোটি ৯৮ লাখ ৫৮ হাজার ৮৭৪টি বই শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করা হবে। প্রাক প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের জন্য পাঠ্যপুস্তক-পঠন-পাঠন সামগ্রীর মধ্যে আমার বই এবং অনুশীলন খাতা বিতরণ করা হবে যথাক্রমে ৩৩ লাখ ২ হাজার ৭৪০টি।

অন্যদিকে জেলা-উপজেলা ও থানার জন্য ৫১২ টি উপজেলা ও থানায় বাংলা ভার্সানে এবং  ৫৬টি জেলায় ইংরেজি ভার্সানের বই বরাদ্দ করা হবে। প্রথম শ্রেণিতে মোট ১ কোটি ২৪৯৬ হাজার ৪৯৪টি পাঠ্যপুস্তকের মধ্যে বাংলা ভার্সানে ৫১২ টি উপজেলা ও থানায় ১ কোটি ২৩ লাখ ৭৬ হাজার ৫৯৯টি, ইংরেজি ভার্সানে ৫৬ টি জেলায় ১ লাখ ১৯ হাজার ৮৯৫টি বই বিতরণ করা হবে। দ্বিতীয় শ্রেণিতে মোট ১ কোটি ২১ লাখ ৪৩ হাজার ৩০৯ টির মধ্যে বাংলা ভার্সানে ১ কোটি ২০ লাখ ২৩ হাজার ৭৮০ এবং ইংরেজি ভার্সানে ১ লাখ ১৯ হাজার ৫২৯টি। তৃতীয় শ্রেণিতে মোট ২ কোটি ৩৬ লাখ ৫ হাজার ১৮৬ টির মধ্যে বাংলা ভার্সানে ২ কোটি ৩৩ লাখ ৯৯ হাজার ৩৪৮ টি এবং ইংরেজি ভার্সানে ২লাখ ৫ হাজার ৮৩৮ টি। চতুর্থ শ্রেণিতে মোট ২ কোটি ২৯ লাখ ৪৫ হাজার ৯৯৭টি বইয়ের মধ্যে বাংলা ভার্সানে ২ কোটি ২৭ লাখ ৫৮ হাজার ৭৬৭টি এবং  ইংরেজী ভার্সানে ১ লাখ ৮৭ হাজার ২৩০টি বই বিতরণের জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে। পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য মোট ২ কোটি ১০ লাখ ২৪ হাজার ৫২৩টির মধ্যে বাংলা ভার্সানে ২ কোটি ৮ লাখ ৬০ হাজার ১৯৩ টি এবং ইংরেজি ভার্সানে ১ লাখ ৬৪ হাজার ৩৩০ টি ।

এছাড়া ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠীর শিশুদের জন্য নিজস্ব বর্ণমালা সম্বলিত মাতৃভাষায় প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণির পঠন-পাঠন সামগ্রী এবং প্রাথমিক স্তরের পাঠ্যবই প্রণয়ন এবং সরবরাহের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ২০২২ শিক্ষাবর্ষে ৫টি ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠী (চাকমা, মারমা, ত্রিপুরা, গারো ও সাদরী) শিশুদের মাঝে প্রাক-প্রাথমিক এবং প্রাথমিক পর্যায়ে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হচ্ছে।

ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর পাঠ্যপুস্তক বান্দরবান, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি, চট্টগ্রাম, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার, শেরপুর, নেত্রকোণা, ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, নঁওগা, নাটোর, সিরাজগঞ্জ, দিনাজপুর, জয়পুরহাট, চাঁদপুর, ফেনী, কক্সবাজার, সুনামগঞ্জ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ এই মোট ২০ টি জেলায় সরবরাহ করা হবে।

২০১০ সাল থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত সর্বমোট ৪০০ কোটি ৫৪ লাখ ৬৭ হাজার ৯১১ কপি বই বিতরণ করা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: বই উৎসব

আরও খবর



নওগাঁয় প্রতিবন্ধী শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৯৫জন দেখেছেন

Image

নওগাঁ প্রতিনিধি:

নওগাঁর মান্দায় প্রতিবন্ধী এক শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনায় অবশেষে অভিযুক্ত আশরাফুল ইসলাম সুটকাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর অভিযান চালিয়ে উপজেলার নুরুল্লাবাদ উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ঘটনায় ওই শিশুটির বাবা বাদি হয়ে মঙ্গলবার রাতেই থানায় মামলা দায়ের করেন। গত ৬ জানুয়ারি উপজেলার কাঁশোপাড়া ইউনিয়নের একটি গ্রামে ধর্ষণের এ ঘটনা ঘটে। তবে এ মামলায় ধর্ষণের ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়াসহ সালিশের মাধ্যমে নিষ্পত্তি করে দেওয়া মাতবরদের আসামী করা হয়নি। এ নিয়ে স্থানীয় জনমনে নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।

এদিকে বুধবার দুপুরে নওগাঁ আইন ও সালিশ কেন্দ্রের চার সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ দলের প্রতিনিধি শহিদুল ইসলাম শহীদ বলেন, স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। ধর্ষণের ঘটনা সালিশযোগ্য বিষয় নয়। যেসব ব্যক্তিরা ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে সালিশ করেছেন তাঁরাও একই অপরাধে অপরাধী। এদেরও আইনের আওতায় এনে বিচার করা দরকার।

ন্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৬ জানুয়ারি প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী প্রতিবন্ধী এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ৯ জানুয়ারি রাতে গ্রামের আনোয়ারা বিবির বাড়িতে সালিশের আয়োজন করেন স্থানীয় মাতবরেরা। সালিশে ধর্ষণের কথা স্বীকার করায় অভিযুক্ত আশরাফুল ইসলাম সুটকাকে জুতাপেটাসহ আট হাজার টাকা জরিমানা করেন।

মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহিনুর রহমান বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় শিশুটির বাবা বাদি হয়ে একজনকে আসামী করে মামলা করেছেন। ভিকটিমের ডাক্তারী পরীক্ষা নওগাঁ হাসপাতালে সম্পন্নসহ আসামীকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিতে সালিশের আয়োজক মাতবরদের কেন আসামী করা হয়নি জানতে চাইলে ওসি বলেন, শিশুটির বাবা শুধু একজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। তাই অন্য কাউকে আসামী করা হয়নি।


আরও খবর
মোটরসাইকেলে ট্রাকের ধাক্কায় নিহত-৪

সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২




পত্রিকা খুললেই পরীমনি-খুকুমণি-দীপু মনি: সুলতান মনসুর

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২ | ২০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মৌলভীবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর বলেছেন, নতুন প্রজন্মের জন্য একটি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ উপহার দেওয়া জাতীয় কর্তব্য। কিন্তু পত্রিকা খুললেই পরীমনি, খুকুমনি, আর দীপু মনিদের কাহিনি দেখলে বাংলাদেশের বর্তমান প্রজন্ম, নতুন প্রজন্ম হতাশ হয়। তিনি বলেন, লেলিয়ে দেওয়া হচ্ছে পরিমনি আর খুকুমণিদের। কাদের নেতৃত্ব দূষিত হয়? সমাজ দূষিত হয়? এটি একটি ষড়যন্ত্র।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদের ১৬তম অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন সুলতান মোহাম্মদ মনসুর।

চাঁদপুরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ভূমি অধিগ্রহণে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির ঘনিষ্ঠজনদের কারসাজি করে ৩৫৯ কোটি টাকা বাড়তি নেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের প্রসঙ্গ তুলে সুলতান মনসুর বলেন, ড. জাফর ইকবাল গিয়ে অনশন ভাঙিয়েছেন, সেখানে রাজনৈতিক নেতৃত্ব ছিলেন না, জাফর ইকবালকে সেখানে পাঠানোর জন্য সংসদ নেত্রী সেই ব্যবস্থা করেছেন নিশ্চয়ই।

তিনি আরও বলেন, জনগণই সকল ক্ষমতার উৎস। এ বিশ্বাস থাকলে জনগণকে নিয়েই এগোতে হবে। রাজনীতিবিদের নিয়েই রাজনীতিকে এগিয়ে নিতে হবে।

চাঁদপুরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ভূমি অধিগ্রহণে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির ঘনিষ্ঠজনদের কারসাজি করে ৩৫৯ কোটি টাকা বাড়তি নেওয়ার চেষ্টার অভিযোগের সংবাদ গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।


আরও খবর



কন্যা সন্তানের মা হয়েছেন পপি

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | ৪২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কন্যা সন্তানের মা হয়েছেন ঢাকাই সিনেমার নন্দিত নায়িকা সাদিকা পারভীন পপি। গেল প্রায় এক বছর ধরে নিখোঁজ নায়িকাকে ঘিরে এমন খবরই উড়ে বেড়াচ্ছে চলচ্চিত্রপাড়ায়। পপির বেশ কয়েকজন ঘনিষ্ট প্রযোজক, পরিচালক ও সহশিল্পী এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তবে কেউই পপির বিয়ের সময়, পাত্রের নাম-পরিচয় ও মেয়ে জন্ম নেয়ার সময়-নাম বলতে চাইছেন না। এ বিষয়ে তারা এখনো মুখে কুলুপ এঁটে রয়েছেন।

বর্তমানে চলচ্চিত্রপাড়া সরগরম শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে। ২০১৭ সালে রিয়াজ, ফেরদৌস, পূর্ণিমা, রোজিনা, আলীরাজদের সঙ্গে নির্বাচন করে জয়ী হয়েছিলেন কি জাদু করিলাখ্যাত এই নায়িকা। শোনা গিয়েছিলো এবারে ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ প্যানেল থেকে নির্বাচন করবেন পপি।

নির্বাচন তো দূর, নায়িকার দেখাই মিলছে না। তবে তিনি আলোচনায় থাকছেন রোজ রোজ। তাকে মিস করছেন সবাই, এমন আফসোস উঠে আসছে প্রতিদিন।

এদিকে পপির ঘনিষ্ট কিছু সূত্রে জানা গেল, পপি আছেন রাজধানী ঢাকাতেই। বিয়ে করে সংসারী হয়েছেন। পাত্র ব্যবসায়ী। সংসারে মন দিতেই নিজেক অভিনয় থেকে গুটিয়ে নিয়েছেন।

গর্ভবতী অবস্থায় পাড়ি দিয়েছিলেন মালয়েশিয়া। সেখানেই কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন তিনি। খুব দ্রুতই মেয়ে-স্বামীসহ সবার সামনে এসে চমক দেবেন তিনি।

এদিকে শিল্পী সমিতির নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন এমন কয়েকজন শিল্পীর সঙ্গে পপি প্রসঙ্গে কথা বলতে গেলে তারাও নায়িকার বিয়ে ও সন্তান হওয়ার বিষয় শুনেছেন বলে দাবি করেছেন। তাদের ভাষ্য, পপি একজন গুণী অভিনেত্রী। সিনিয়র অভিনেত্রী। বহু হিট-সুপারহিট সিনেমা তিনি দিয়েছেন। বয়স হয়েছে। বিয়ে থা করেছেন, মা হয়েছেন বলে শুনেছি।

তিনি নিজেকে সময় দিচ্ছেন। এটা তার ব্যক্তিগত অধিকার। আপাতত আমরা তাকে বিরক্ত করছি না। তিনি আপাদমস্তক একজন অভিনেত্রী, সিনেমার মানুষ। আজ বা কাল হয়তো ফিরবেন। যেখানেই থাকুন না কেন, দোয়া করি আমাদের পপি ভালো থাকুন।


আরও খবর
টাকা দিয়ে ভোট কিনছেন জায়েদ খান : নিপুণ

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২




মৃত্যুর আগ মুহূর্তে সাবেক স্কুল শিক্ষকের হাতের আঙুলের ছাপ নেয়ার অভিযোগ

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৯১৫জন দেখেছেন

Image

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে সবার অজান্তে মৃত্যুর আগ মুহূর্তে রবিন্দ্রনাথ সরকার নামের এক অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষকের হাতের আঙুলের ছাপ নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় চাঞ্চল্যের  সৃষ্টি হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার হাসনাবাদ ইউনিয়নের খামার হাসনাবাদ সেনপাড়া এলাকায়। এ ঘটনায় সোমবার (৩ জানুয়ারি) নাগেশ্বরী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন মৃতের পুত্রবধূ অঞ্জনা রানী।

এতে জানা যায় গতকাল রোববার ওই ব্যাক্তি অসুস্থ হয়ে পড়লে স্বজনরা তার শারিরীক সেবা যত্ন করার সময় দেখতে পায় তার ২ হাতের বৃদ্ধাঙুলিতে কালির ছাপ লাগানো। এ বিষয়ে পরিবারের লোকজন নাগেশ্বরী থানায় অভিযোগ করতে গেলে সন্ধ্যায় খবর পান তার মৃত্যু হয়েছে। বিষয়টি চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক জনতা ওই বাড়িতে ভিড় জমায়।

পরিবারের অভিযোগ একটি কুচক্রি মহল তাদের ক্ষয়ক্ষতি এবং সম্পদ আত্মসাতের উদ্দেশ্যে এই কান্ড ঘটিয়েছে। আর যে কারণে তার এই মৃত্যু হয়েছে। তাই এর সুষ্ঠু তদন্তসহ বিচার দাবি করেছেন পরিবারের লোকজন। অব. স্কুল শিক্ষক মৃত রবিন্দ্রনাথ রায়ের কৃষ্ণা চন্দ্র (৪৬) ও রত্না সেন (৪০) নামের ২ মেয়ে রয়েছে এবং রঞ্জু কুমার সরকার নামের এক ছেলে ছিলেন। তিনি এক বছর আগে মারা যান। তার স্ত্রী অঞ্জনা রানী শ্বশুর শাশুড়ির সংসারে ২ মেয়েকে নিয়ে থাকেন।

মৃত রবিন্দ্রনাথ সরকারের স্ত্রী ললিতা সরকার (৬৫) জানায়, রোববার তার স্বামী অসুস্থ থাকাবস্থায় নাগেশ্বরী পৌরসভার চামটারপাড় সুখাতি এলাকার জোগেন মোক্তার নামের এক ব্যাক্তি তাকে দেখতে আসেন। তখন তাদের ঘরে কেউ ছিলো না। পরে বের হওয়ার সময় দেখেন তিনি ঘর থেকে বের হয়ে যাচ্ছেন। এ সময় বাড়ির পূত্রবধূর কাছ থেকে পান সুপাড়ি চাইলে তিনি তা খেয়ে চলে যান। পরে তার পুত্রবধূ অঞ্জনা রানী তার শ্বশুরের হাতে পায়ে তেল মালিশ করতে গিয়ে দেখেন ২ হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলিতে কালির ছাপ। এটি দেখে হতবাক হয়ে যান তিনি। পরে ওই জোগেন মোক্তারকে ডাকলে তিনি বিষয়টি অস্বিকার করেন।

পুত্রবধূ অঞ্জনা রানী বলেন, আমি বাবার শরিরে পরিচর্যার জন্য তেল মালিশ করতে গিয়ে দেখি তার আঙ্গুলে কালির ছাপ। কে বা কারা এটি করেছে আমাদের জানা নেই। তবে যেই করুক আমাদের ক্ষতি করার জন্য কিংবা সম্পদ হাতিয়ে নেয়ার উদ্দেশ্যে করেছে।

পরে বিষয়টি অভিযোগের জন্য থানায় গেলে সন্ধ্যায় খবর পাই বাবা মারা গেছে। এ খবর পেয়ে তৎক্ষনাৎ বাড়ি ফিরে আসি। যাতে ভবিষ্যতে আমাদের কোনো ক্ষতি না হয় এ জন্য আমি প্রশাসনসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।

এ ব্যাপারে হাসনাবাদ ইউনিয়নেন নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান মো. নুরুজ্জামান সরকার বলেন, আমি খবর পাওয়ার পর সরেজমিনে গিয়ে দেখি ঠিকই তার হাতের আঙুলে ছাপ। তাই পরিবারের লোকজনকে নিয়ে থানায় জিডি করা হয়েছে।

নাগেশ্বরী থানার ওসি (তদন্ত) পলাশ চন্দ্র জানান, এ ব্যাপারে একটি জিডি করেছেন ওই ব্যাক্তির পুত্রবধূ। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজ ট্যাগ: কুড়িগ্রাম

আরও খবর