আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

চুয়াডাঙ্গায় শিশুর কামড়ে সাপের বাচ্চার মৃত্যু!

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | ১৪৮৫জন দেখেছেন

Image

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি:

চুয়াডাঙ্গায় শিশুর কামড়ে একটি সাপের বাচ্চা মারা গেছে। আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে সদর উপজেলার উজলপুর গ্রামে ওই ঘটনা ঘটে।

পরে শিশুটিকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এক বছর বয়সী শিশু জান্নাতুল ফেরদৌস একই গ্রামের রিয়াজুল ইসলামের মেয়ে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সদর হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ মাহবুবুর রহমান মিলন।

জানা গেছে, শিশু জান্নাতুলের মা শিলা খাতুন ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে বলেন, সকালে চাচাতো ভাই কাউসারের সাথে ঘরে মধ্যে খেলছিল জান্নাতুল। এক পর্যায়ে খেলতে খেলতে দুইজনেই পাশে গর্তের কাছে চলে যায়। এসময় গর্তের নিচে থাকা একটি গোখরা সাপের বাচ্চাকে হাত দিয়ে ধরে দুই জায়গায় কামড় দেয় সে। পরে সাপের বাচ্চাসহ শিশু জান্নাতুল বাড়ির দিকে চলে আসে। ঘটনাটি দেখতে পেয়ে শিশুটিকে দ্রুত উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সাপের বাচ্চাটি মারা গেছে। সেটি চিকিৎসকের কাছে দেয়া হয়েছে।

সদর হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ মাহবুবুর রহমান মিলন জানান, জান্নাতুলকে শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি রেখে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। তবে, তার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত।

নিউজ ট্যাগ: চুয়াডাঙ্গায়

আরও খবর



আজ থেকে মাঠে নামছে আওয়ামী লীগ

প্রকাশিত:বুধবার ০১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০১ জুন ২০২২ | ৫২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ছাত্রদল-ছাত্রলীগের সংঘর্ষের ঘটনায় দেশের রাজনৈতিক অঙ্গন উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনগুলো বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। একই ইস্যুতে আওয়ামী লীগও রাজপথে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনাকে নিয়ে বিএনপি ও সমমনাদের অসৌজন্যমূলক আচরণ ও হত্যার হুমকির ঘটনায় দেশব্যাপী বিক্ষোভ সমাবেশ করবে আওয়ামী লীগ। গতকাল মঙ্গলবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্যদের সঙ্গে সহযোগী সংগঠনের যৌথসভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে জানা গেছে।

বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ৪ জুন সারা দেশে আওয়ামী লীগ বিক্ষোভ সমাবেশ করবে। ৮ জুন ঢাকা মহানগর উত্তর ও ১০ জুন মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ বিক্ষোভ সমাবেশ করবে। এর আগে-পিছে সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনগুলো বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করবে। এরই অংশ হিসেবে আজ বুধবার বিকেল চারটায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মিছিল করবে মহিলা আওয়ামী লীগ। এতে দলের কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত থাকবেন।

সম্পাদকমণ্ডলীর এক নেতা বলেন, বৈঠকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের সংঘর্ষের বিষয়ে আলোচনা হয়। নেতাদের অনেকেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ছাত্রদল নেতাদের কটূক্তির প্রতিবাদে ছাত্রলীগের কর্মসূচির সমর্থন করেন। এ সময় দলীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের আওয়ামী লীগের পক্ষে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালনের কথা বলেন। পরে পর্যায়ক্রমে সব সহযোগী সংগঠন বিক্ষোভ সমাবেশ করবে বলে সিদ্ধান্ত হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য বলেন, আমাদের যে বিক্ষোভ কর্মসূচি শুরু হয়েছে। তা চলতে থাকবে। দেশের রাজনীতি গরম হবে। বৈঠকে সূচনা বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি শান্তিপূর্ণ কোনো কর্মসূচি দিলে আপত্তি নেই। শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে, আমরা কি বসে বসে তামাক খাব? সরকার বিএনপির কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছে দলটির এমন অভিযোগের জবাবে তিনি বলেন, বাধার কোনো বিষয় নয়, আমার সামনে নেত্রীকে (শেখ হাসিনা) বলছেন, পঁচাত্তরের হাতিয়ার গর্জে উঠুক আরেকবার। এই কথা শুনলে তরুণদের কি মাথা ঠিক থাকে? সন্ত্রাসীদের কি বাধা দেব না?

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের সময় সেতু ও আশপাশের এলাকার সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে জানান সেতুমন্ত্রী। পদ্মা সেতু উদ্বোধন ২৪ ও ২৫ জুন সারা দেশেই উদ্‌যাপন করা হবে বলে জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুর রাজ্জাক, মুহাম্মদ ফারুক খান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য মাহবুব উল আলম হানিফ, হাছান মাহমুদ, আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, মির্জা আজম, ওয়াসিকা আয়শা খান, দেলোয়ার হোসেন, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।


আরও খবর



নওগাঁয় জামাইকে গ্যাস ট্যাবলেট খাইয়ে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ জুন ২০২২ | ৩৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নওগাঁর রানীনগরে শিহাব শেখ (১৯) নামে এক যুবককে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট খাইয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার শ্বশুর ও চাচা শ্বশুরের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার রাত ১টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কুজাইল দক্ষিণপাড়া গ্রামে। নিহত শিহাব শেখ কুজাইল দক্ষিণপাড়া গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে।

নিহতের মা মর্জিনা বেগম জানান, প্রেমের সম্পর্কে গত বছরের মার্চে একই গ্রামের মোজাম্মেল হোসেন মুজামের মেয়ে রিয়া খাতুনের (১৫) সঙ্গে বিয়ে হয় শিহাবের। বিয়ের পর থেকেই মেয়ের পরিবারের মামলার কারণে তারা দুজন একসঙ্গে না থেকে আলাদা থাকতেন।

তিনি আরও জানান, বুধবার পরিবারের অজান্তে শিহাব ও তার স্ত্রী রিয়া কাশিমপুর গ্রামে এক আত্মীয়র বাড়িতে ঘুরতে যান। সেখান থেকে ফিরে তার বাড়িতে এসে রিয়ার জন্মদিন পালন করেন শিহাব। ঘটনাটি জানতে পেরে মেয়ের পরিবারের লোকজন তার বাড়িতে এসে বুঝিয়ে মেয়েকে নিয়ে যান।

মর্জিনা আরও জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে তার অজান্তে শিহাবকে ফুসলিয়ে মেয়ের পরিবারের লোকজন তাদের বাড়িতে নিয়ে যান। এরপর স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে জানতে পারি শিহাব বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট খেয়েছে।

এরপর স্থানীয় লোকজন শিহাবকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন। অবস্থার অবনতি হলে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন রাত ১টার দিকে মারা যায় শিহাব।

নিহতের মা মর্জিনা অভিযোগ করে বলেন, শিহাব মারা যাওয়ার আগে আমাদের জানিয়েছে, তার শ্বশুর মোজাম্মেল হোসেন মুজাম ও চাচা শ্বশুর সিদ্দিক মিলে তাকে হত্যার জন্য জোর করে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট খাইয়েছেন। এ ঘটনাটি পুলিশকে জানানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে মোজাম্মেল হোসেন মুজাম ও সিদ্দিকের মোবাইলে একাধিকবার কল করা হলেও বন্ধ পাওয়া যায়। এছাড়া তারা দুজন বাড়িতে না থাকায় তাদের মন্তব্য পাওয়া সম্ভব হয়নি।  এ ব্যাপারে রানীনগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সেলিম রেজা বলেন, নিহতের পরিবার অভিযোগ করলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর



টেকনাফে ১৫ হাজার ইয়াবাসহ আটক ৩

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | ৩২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কক্সবাজারের টেকনাফে অভিযান চালিয়ে ১৫ হাজার ইয়াবাসহ ৩ রোহিঙ্গাকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার ভোররাতে পৌরসভার বাস স্টেশন ঝর্ণা চত্বর এলাকা থেকে ইয়াবাসহ তাদেরকে আটক করতে সক্ষম হয়।

আটককৃতরা হলেন- মিয়ানমারের আকিয়াব জেলার পকটু কিন্নিপাড়াং এলাকার ওমর মিয়ার ছেলে মো. সৈয়দ করিম (৫০), আলিখালী ২৫ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা মৃত সালেহের ছেলে মো. জোহার (২৮), একই ক্যাম্পের আব্দুল গফুরের ছেলে মো. রফিক(৩০)।

টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.হাফিজুর রহমান গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আসামিদের হেফাজত থেকে ১৫ হাজার পিস ইয়াবাসহ উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও জানান, উদ্ধারকৃত ইয়াবাসহ আটক আসামিদের সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দায়েরের পর কক্সবাজার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।


আরও খবর
টেকনাফে হাজার ইয়াবাসহ আটক ১

বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২




টোল দিয়ে প্রথমবার পদ্মা সেতু পার হলো গাড়ি

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | ৫২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টোল দিয়ে প্রথমবারের মতো পদ্মা সেতু পার হয়েছে গাড়ি। শুক্রবার (১৭ জুন) সন্ধ্যায় পরীক্ষামূলকভাবে টোল দিয়ে পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের কয়েকটি গাড়ি পার হয়। প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে মাওয়া প্রান্তের টোলপ্লাজায় টোল দিয়ে সেতু প্রকল্পের গাড়িগুলো পদ্মা সেতু পার হয়।

এ বিষয়ে পদ্মা সেতু প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের বলেন, প্রকল্পের গাড়ি নিয়ে প্রথমবারের মতো টোল দিয়ে পদ্মা সেতু পার হয়েছি আমরা। ১২০০ টাকা টোল দিয়ে প্রকল্পের প্রথম গাড়িটি পার হয়। টোল ব্যবস্থাপনা ঠিক আছে কি-না, পরীক্ষার জন্য এ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। যাচাই-বাছাই করে দেখেছি, সবকিছু ঠিক আছে।

এর আগে, ১৪ জুন সন্ধ্যায় মাওয়া ও জাজিরা প্রান্তের সবগুলো ল্যাম্পপোস্টে একসঙ্গে বাতি প্রজ্বালন করা হয়। সরাসরি বিদ্যুৎ সংযোগের মাধ্যমে পরীক্ষামূলকভাবে সড়কবাতিগুলো জ্বালানো হয়। পরীক্ষামূলকভাবে সবগুলো কাজ ইতোমধ্যে সফল হয়েছে বলে জানিয়েছে সেতু কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত, আগামী ২৫ জুন উদ্বোধন হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের মানুষের স্বপ্নের এই সেতুটি। পরদিন ২৬ জুন সকাল থেকে চলবে যানবাহন।


আরও খবর



শিক্ষায় মেগা বাজেটের প্রত্যাশা বিশেষজ্ঞদের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩১ মে ২০২২ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা পরবর্তীকালের বাজেটে শিক্ষাখাতে মেগা বরাদ্দের প্রত্যাশা করছেন বিশেষজ্ঞরা। শিক্ষাবিদদের পরামর্শ, সরকার যেভাবে শিক্ষায় পরিবর্তনের কথা ভাবছে তাতে এ খাতে মেগা বরাদ্দ দিতে হবে। সেজন্য মোট বাজেটের ২০ থেকে ২৫ শতাংশ বরাদ্দ দিতে হবে। বিশেষজ্ঞরা জানান, পার্শ্ববর্তী দেশগুলোতে এ খাতে বরাদ্দ জিডিপির ৪ শতাংশের বেশি হলেও ২০ বছর ধরে আমাদের তা অর্ধেকেরও তলানিতে রয়ে গেছে। বরাদ্দ ৪ শতাংশ ছাড়া মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে না বলে মনে করেন তারা।

করোনা মহামারিতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশের শিক্ষাখাত। শিক্ষা পুনরুদ্ধার পরিকল্পনায় যেমন ঘাটতি রয়েছে, তেমনি চলতি বাজেটে এ খাতে বরাদ্দও ছিল গতানুগতিক। ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে শিক্ষাখাতে বরাদ্দ দেওয়া হয় ৭১ হাজার ৯৫১ কোটি টাকা, যা মোট বাজেটের ১১ দশমিক ৯১ শতাংশ এবং জিডিপির ২ দশমিক ০৮ শতাংশ। ২০২০-২১ অর্থবছরে এ খাতে বরাদ্দ ছিল ৬৬ হাজার ৪০০ কোটি টাকা, যা জিডিপির ২ দশমিক ০৯ শতাংশ। অর্থাৎ টাকার অঙ্কে বরাদ্দ বাড়লেও জিডিপির হিসাবে তা কম ছিল।

শিক্ষাসংশ্লিষ্টরা বলছেন, দেশের চলমান উন্নয়নকে টেকসই করতে শিক্ষাখাতে উল্লেখযোগ্য হারে বাজেট বাড়ানোর কোনো বিকল্প নেই। আগামী ৫ জুন বসছে বাজেট অধিবেশন। অর্থমন্ত্রী জাতীয় সংসদে বাজেট উত্থাপন করবেন ৯ জুন। এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. তারিক আহসান বলেন, নতুন শিক্ষাক্রম অনুযায়ী যে ধরনের পরিবর্তনের কথা আমরা ভাবছি তার জন্য আগামী বাজেটে শিক্ষাখাতে মেগা বরাদ্দ দিতে হবে। বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে চাইলে শিক্ষায় বাজেট বাড়ানোর কোনো বিকল্প নেই। বর্তমানে এ খাতে আমাদের বাজেট জিডিপির দুই থেকে আড়াই শতাংশ হয়ে থাকে, সেটি দ্বিগুণ করতে হবে। শিক্ষার ক্ষেত্রে গুণগত স্থানগুলোতে আমাদের পরিবর্তন আনা বেশি দরকার। তার মধ্যে শিক্ষকদের দক্ষতা-অভিজ্ঞতা, শিখন ম্যাটেরিয়াল, মনিটরিং সুপারভিশনে পরিবর্তন ও আধুনিকায়ন বেশি জরুরি। শুধু অবকাঠামো ও সংখ্যা দিয়ে পরিমাণ করা যাবে না। এসব বিষয়ে পরিবর্তন না এলে শিক্ষায় পরিবর্তন আসবে না। করোনার মতো যেকোনো মহামারি পরিস্থিতি সামাল দিয়ে যেন শিক্ষাব্যবস্থা চলমান রাখা সম্ভব হয় সেটি নিশ্চিত করতে হবে।

এই শিক্ষাবিদ আরও বলেন, ভারত, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের মতো দেশে শিক্ষাখাতে বরাদ্দ থেকে আমরা পিছিয়ে আছি। ভারতে শিক্ষাখাতে জিডিপির ৫-৬ শতাংশ, পাকিস্তানে প্রায় ৪ শতাংশ আর আফগানিস্তানে প্রায় সাড়ে ৩ শতাংশ বরাদ্দ দেওয়া হয়। আমরা শিক্ষাকে পরিমাণগতভাবে দেখার চেষ্টা করেছি। গুণগতভাবে দেখতে হলে সেভাবে বরাদ্দ দেওয়া প্রয়োজন, তা দেওয়া হয়নি। সে কারণে আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশগুলো থেকে শিক্ষায় বরাদ্দে অনেক পিছিয়ে রয়েছি। আমাদের এখন এটিকে অধিক গুরুত্ব দিয়ে বরাদ্দ দিতে হবে। উন্নত দেশগুলো শিক্ষকদের যে হারে সুবিধা ও সম্মান দিচ্ছে আমাদেরও সেদিকে অগ্রসর হতে হবে। তবে শিক্ষার গুণগত মান বাড়ানো সম্ভব হবে।

গণসাক্ষরতা অভিযানের নির্বাহী পরিচালক রাশেদা কে চৌধুরী বলেন, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং শিক্ষাব্যবস্থাপনা- এই চারটিতে যদি আমরা যথাযথ বিনিয়োগ না করি, তাহলে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশের কাতারে পৌঁছাতে অনেক কাঠখড় পোহাতে হবে। শুধু বাজেটে বরাদ্দ বাড়িয়েই দায়িত্ব শেষ করলে হবে না, শিক্ষায় সুশাসনও নিশ্চিত করতে হবে।  শিক্ষাখাতে আমাদের বরাদ্দ পুরো দক্ষিণ এশিয়া তো বটেই, বিশ্বের মধ্যেও তলানিতে। আমাদের প্রত্যাশা শিক্ষাকে এবার একদম পূর্ণাঙ্গ একটি সেক্টর হিসেবে দেখা হবে।

শিক্ষাবিদ অধ্যাপক শেখ ইকরামুল কবির বলেন, এবার শিক্ষাখাতে বরাদ্দ জিডিপির ৪ শতাংশ হওয়া উচিত। গত ২০ বছর ধরে সেটি ২ শতাংশের বেশি যায় না। এটি বাড়ালে দেশে যে মুদ্রাস্ফীতি বেড়ে গেছে তা সামাল দিতে শিক্ষার উপকরণগুলোতে যে ভর্তুকি দেওয়া হয়, তা সামাল দেওয়া সম্ভব হবে। শিক্ষাখাতে মূল বাজেটের ২০ থেকে ২৫ শতাংশ বরাদ্দ দিতে হবে। করোনার কারণে শিক্ষার্থীরা অনেক পিছিয়ে পড়েছে। শিক্ষায় সরকারের ভর্তুকি রয়েছে, সেটি আরও বাড়ানো প্রয়োজন। গুণগত শিক্ষার জন্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর অনুপাত কমাতে হবে। বর্তমানে এ হার যে পরিমাণে রয়েছে তাতে শিক্ষার মান বাড়ানো অসম্ভব। এখনও সব সুবিধা শহরকেন্দ্রিক রয়ে গেছে। তথ্যপ্রযুক্তি গ্রাম পর্যায়ে ছড়িয়ে দিতে মফস্বলের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অভিজ্ঞ শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার আহ্বান জানান এই শিক্ষাবিদ।


আরও খবর