আজঃ মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

চট্টগ্রামে বিআরটিএ’র অভিযানে ৬১ হাজার টাকা জরিমানা

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | পত্রিকায় প্রকাশিত
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

চট্টগ্রামে ফিটনেস, রুট পারমিটবিহীন অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান চালিয়েছে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ)। অভিযানে পাঁচটি গাড়িকে ৬১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পাশাপাশি ফিটনেস, ট্যাক্স টোকেন, রুট পারমিট দীর্ঘদিন হালনাগাদ না করায় তিনটি ডাম্পার ট্রাককে ডাম্পিং করা হয়।

শনিবার (২২ জুন) সকালে নগরীর হালিশহর থানার নয়াবাজার বিশ্বরোড এলাকায় এই অভিযানে নেতৃত্ব দেন বিআরটিএ ভ্রাম্যমাণ আদালত-১২ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মিশকাতুল তামান্না।

এসময় অভিযানে উপস্থিত ছিলেন বিআরটিএ চট্টমেট্রো সার্কেল-২ এর মোটরযান পরিদর্শক শাহাদাত হোসেন চৌধুরী। তিনি বলেন, বিআরটিএ চেয়ারম্যানের নির্দেশে সারাদেশে অবৈধ ও ডকুমেন্ট হালনাগাদ না করার যানবাহনের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। তারই ধারাবাহিকতায় আজ হালিশহর নয়াবাজার বিশ্বরোড এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পাঁচটি গাড়িকে ৬১ হাজার টাকা জরিমানা করেন। তাছাড়াও ফিটনেস, ট্যাক্স টোকেন, রুট পারমিটসহ সবধরনের ডকুমেন্ট দীর্ঘদিন হালনাগাদ না করায় তিনটি ডাম্পার ট্রাককে (চট্ট মেট্রো-ট-১১-৯১৫১, চট্ট মেট্রো-শ-১১-১৪৮৭, চট্ট মেট্রো-শ-১১-১৫৭৬) ডাম্পিং করার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

এ অভিযানে সহযোগিতা করেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) ও ট্রাফিক পুলিশ।


আরও খবর



যাদের জরায়ু নেই তাদের জ্ঞান দেওয়ারও প্রয়োজন নেই: রিচা চড্ডা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

কল্কির সাংবাদিক সম্মেলনে কালো বডিকন ড্রেসের সঙ্গে হাই হিলে নজর কেড়েছিলেন দীপিকা পাড়ুকোন। ভক্তরা দীপিকার লুকের কদর করলেও নিন্দুকেরা অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় হাই হিল পরাকে মোটেই সমর্থন করেননি। সমালোচকরা দীপিকার হাই হিল নিয়ে রীতিমতো যেন বিচারসভা বসিয়ে ফেলেছেন। এই রকম পরিস্থিতিতে দীপিকার পাশে দাঁড়ালেন আরেক অন্তঃসত্ত্বা রিচা চড্ডা।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) বিগ স্ক্রিনে মুক্তি পাবে অশ্বিনী নাগ পরিচালিত বহু প্রতিক্ষীত সিনেমা কল্কি। প্রথমবার এই সিনেমার মাধ্যমে বড় পর্দায় জুটি বাঁধছেন দক্ষিণী সুপারস্টার প্রভাস ও বলিউডের গ্ল্যাম ডল দীপিকা পাড়ুকোন। এছাড়া, এই সিনেমায় রয়েছেন অমিতাভ বচ্চন, শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়সহ আরও অনেকেই।

শেষ মুহূর্তে সিনেমার প্রচারে সাংবাদিক সম্মেলনে হাজির ছিলেন প্রভাস, অমিতাভ ও দীপিকা। কালো বডিকন ড্রেসে স্পষ্ট ছিল দীপিকার বেবি বাম্প। বলা ভালো প্রেগন্যান্সির ছয় মাস পর প্রথমবার বেবি বাম্প প্রদর্শন করলেন তিনি। সেই সঙ্গে নজর কেড়েছিল দীপিকার পেন্সিল হিল। যা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচকরা একেবারে বিচারসভা বসিয়ে দিয়েছিলেন। অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় এই রকম হিল পরা উচিত নয় বলেও দীপিকার সমালোচনা করেছেন অনেকে। দীপিকাকে নিয়ে নেটিজেনদের সমালোচনার জবাব কড়াভাবে দিয়েছেন রিচা চড্ডা।

দীপিকা বা রণবীর এই প্রসঙ্গে একটি কথাও বলেননি। কিন্তু, রিচা চড্ডা একেবারে চাঁচা-ছোলা ভাষায় জবাব দিয়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি লিখেছেন, নো ইউট্রাস নো জ্ঞান। অর্থাৎ যাদের জরায়ু নেই তাদের জ্ঞান দেওয়ারও প্রয়োজন নেই

প্রসঙ্গত, দীপিকার হিল পরা নিয়ে একজন নেটিজেন একটি রিল শেয়ার করেন। সেখানে দীপিকাকে সমর্থন করে তিনি লেখেন, দীপিকা বাচ্চা মেয়ে নয় যে ড্রেসিং সেন্স নিয়ে ওর কারও মতামত লাগবে। দীপিকা নিজের ভালোটা বোঝেন কোন জিনিস তাকে আরাম দেবে। তাই তৃতীয় ব্যক্তির পরামর্শের প্রয়োজন নেই। ওই রিল ভিডিওর নীচেই রিচ চড্ডার মন্তব্য, নো ইউট্রাস নো জ্ঞান

গত ১৯ জুন সন্ধ্যায় কল্কির প্রচারে হাই হিলসহ কালো বডিকন ড্রেসে যেন প্রেগন্যান্সি গ্লো ফুটে উঠেছিল। তবে, ছয় মাসের গর্ভবতী এই ধরনের হাই হিল পরায় প্রচুর সমালোচিতও হয়েছেন দীপিকা। কেউ লিখেছেন, গর্ভাবস্থায় এমন হাই হিল সত্যিই বিপজ্জনক। কারও মতে, যতই সুন্দর দেখতে হোক না কেন, এই সময়ে এমন হাই হিল পরা একেবারে উচিত নয়। কেউ লিখেছেন, গর্ভাবস্থায় কে এমন হাই হিল পরে?

কিছুদিন আগেও অন্তঃসত্ত্বা দীপিকাকে নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়েছিল। সেই সময় গর্ভবতী স্ত্রীর পাশে দাঁড়িয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জবাব দিয়েছিলেন রণবীর সিং।


আরও খবর



গ্যাস সংকটে বন্ধ ফেঞ্চুগঞ্জ শাহজালাল সার কারখানা

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
এস এ শফি, সিলেট

Image

শুধুমাত্র গ্যাস সংকটের কারণে এ বছরের ১৩ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ ইউরিয়া সার উৎপাদনকারী শাহজালাল ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেড। ফলে কারখানাটি ৫২৩ কোটি ৬০ লাখ টাকার ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছে। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকলে যন্ত্রপাতি বিকল হয়ে যেতে পারে এমন আশংকা রয়েছে কারখানা কর্তৃপক্ষের। অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে তৈরি এসএফসিএল সার উৎপাদনে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সক্ষম হলেও গ্যাস সংকট দেখিয়ে কারখানা বন্ধ রাখা হয়েছে।

গ্যাস সংকটের অজুহাতে ৪ মাস যাবৎ শাহজালাল ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেড (এসএফসিএল) বন্ধের যে কোন ষড়যন্ত্র রুখতে মানববন্ধন কর্মসূচিসহ তীব্র আন্দোলন ডাক আসতে পারে, এমনটাই জানালেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানান, সিলেটের কৈলাসটিলায় নতুন সন্ধান পাওয়া ৮ নং গ্যাসকুপ থেকে দৈনিক ২১ মিলিয়ন গ্যাস উত্তোলন হচ্ছে। অথচ গ্যাস সংকট দেখিয়ে দেশের ইউরিয়া সার উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানটি বন্ধের কারণে বৃহৎ ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন দেশের কৃষকরা। এসএফসিএল এ শ্রমিক কর্মকর্তা ও কর্মচারী রয়েছেন ৬৬১ জন। এছাড়া দৈনিক হাজিরা শ্রমিক রয়েছেন ৪২৫ জন। কারখানা বন্ধের ফলে কারখানার সাথে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষেভাবে জড়িত শ্রমিক কর্মচারী, কর্মকর্তাসহ স্থানীয় লক্ষাধিক মানুষ আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বলে জানা গেছে।

ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় বিসিআইসির মাতৃশিল্প প্রতিষ্ঠান ন্যাচারেল গ্যাস ফার্টিলাইজার ফ্যাক্টরী লিমিটেডর পাশেই অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে তৈরি করা হয় শাহজালাল ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেড (এসএফসিএল)। ২০১২ খ্রিস্টাব্দের ২৪ জুন ভিত্তিপ্রস্থর করা হয় এসএফসিএলর। ৫ হাজার ৪০৯ কোটি টাকা ব্যয়ে এই সারকারখানাটি বাণিজ্যিকভাবে সার উৎপাদনে যায় ২০১৬ সালের ৬ মার্চ। শ্রমিক কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের নিরলস পরিশ্রমে প্রায় প্রতি বছর উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সক্ষম ছিল এসএফসিএল।

কারখানা সূত্রে জানা যায়, ২০২৩-২০২৪ অর্থ বছরে এসএফসিএলর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারিত ছিল ৩ লাখ ৮০ হাজার মেট্রিকটন। ১২ মার্চ অর্থাৎ কারখানা বন্ধের আগের দিন পর্যন্ত কারখানায় উৎপাদিত সারের পরিমাণ ছিল ২ লাখ ৩৮ হাজার ৮১২ মেট্রিকটন। এক হিসেবে দেখা যায় ১৩ মার্চ থেকে ৯ জুলাই পর্যন্ত কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ১১৯ দিনে বিসিআইসি অর্থাৎ সরকারের আর্থিক ক্ষতি হয়েছে প্রায় ৫২৩ কোটি ৬০ লাখ টাকা। এই কারখানাটি সচল রাখতে দৈনিক ৪২ এমএমসিএফ (মিলিয়ন কিউবিক ফুট) গ্যাসের প্রয়োজন।

বর্তমানে ইউরিয়া সারের টন প্রতি আন্তর্জাতিক বাজার মূল্য ৯০ হাজার থেকে ১ লক্ষ টাকা। যেখানে কারখানায় উৎপাদিত সারের মূল্য মাত্র ২৫ হাজার টাকা। উৎপাদন শুরু থেকে বন্ধ হওয়া পর্যন্ত গেল ৮ বছরে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে এসএফসিএল এর অবদান ৫৫৫ কোটি টাকা।

এদিকে গ্যাস সংকট দেখিয়ে শাহজালাল ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেড (এসএফসিএল) বন্ধ থাকায় উদ্বেগ ও চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশফাকুল ইসলাম সাব্বির। তিনি এ নিয়ে তার অফিসকক্ষে ফেঞ্চুগঞ্জ প্রেসক্লাব ও কারখানার সিবিএ'র নেতৃবৃন্দদের নিয়ে মতবিনিময় করেছেন।

সভায় অনতিবিলম্বে গ্যাস সরবরাহ চালু করে এসএফসিএল এর উৎপাদন চলমান রাখার আহবান জানানো হয়। অন্যতায় গ্যাস সরবরাহ নিয়মিত রাখার দাবিতে শ্রমিক-জনতার আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানান উপস্থিত নেতৃবৃন্দ। এ সময় সিলেট তথা ফেঞ্চুগঞ্জের স্বার্থে যে কোন কঠোর আন্দোলনে সোচ্চার থাকার ঘোষণা দেন নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশফাকুল ইসলাম সাব্বির।

সভায় উপস্থিত ছিলেন ফেঞ্চুগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি রিয়াজ উদদীন ইসকা, সহসভাপতি মামুনুর রশীদ, সহ সম্পাদক মো. দেলওয়ার হোসেন পাপ্পু, অর্থ সম্পাদক বদরুল আমিন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক রুমেল আহসান, সদস্য আরকেদাস চয়ন, এসএচৌধুরী জুলহান ও জুলহাস আহমেদ। শাহজালাল সারকারখানা সিবিএ নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সভাপতি রাজু আহমদ মুন্না, সাধারণ সম্পাদক মোললা মেহেদী হাসান সিদ্দিকী, যুগ্ম সম্পাদক লিয়াকত হাসান প্রমুখ।

এ ব্যাপারে এসএফসিএলর ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোপাল চন্দ্র ঘোষ জানান, গ্যাস সরবরাহের কারণে এ বছরের ১৩ মার্চ থেকে কারখানার উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। কারখানার সকল যন্ত্রপাতি সচল অবস্থায় কারখানা বন্ধ করা হয়েছে, তবে এভাবে বন্ধ থাকলে কারখানার বিভিন্ন কেমিক্যাল, ক্যাটালিষ্ট ও সয়ংক্রিয় যন্ত্রপাতি/যন্ত্রাংশ বিকল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। গ্যাস সরবরাহ চালু হলেই উৎপাদনে যাওয়া সম্ভব বলে জানালেন তিনি।


আরও খবর



কোটা বাতিলের দাবিতে উত্তাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

Image

সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলের দাবিতে পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ করছেন শিক্ষার্থীরা। বৈষম্য বিরোধী ছাত্র আন্দোলনর ব্যানারে এ বিক্ষোভ শুরু হয়।

শনিবার (৬ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৩টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে মিছিলটি শুরু হয়। পরে এটি হলপাড়া হয়ে টিএসসি ঘুরে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করছে। বিক্ষোভকারীরা মিছিল নিয়ে বকশি বাজার মোড়-পলাশী-ইডেন কলেজ-নীলক্ষেত হয়ে শাহবাগে যেতে চান বলে জানা গেছে।

বিক্ষোভ মিছিলে শিক্ষার্থীরা কোটা না মেধা, মেধা মেধা; আপস না সংগ্রাম, সংগ্রাম সংগ্রাম; আঠারোর পরিপত্র পুনর্বহাল করতে হবে; কোটাপ্রথা নিপাত যাক, মেধাবীরা মুক্তি পাক; সারা বাংলায় খবর দে, কোটাপ্রথার কবর দে; আমার সোনার বাংলায়, বৈষম্যের ঠাই নাই, জেগেছে রে জেগেছে, ছাত্র সমাজ জেগেছে, ইত্যাদি স্লোগান দিচ্ছেন।

প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিল করে ২০১৮ সালে দেওয়া প্রজ্ঞাপন পুনর্বহাল ও সব ধরনের চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন করছেন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) দুপুর সোয়া ১২টায় বৈষম্য বিরোধী ছাত্র আন্দোলনর ব্যানারে বৃষ্টি উপেক্ষা করেই শাহবাগ অবরোধ করেন শিক্ষার্থীরা।

দীর্ঘ ৬ ঘণ্টা অবরোধের পর নতুন কর্মসূচি ঘোষণা দিয়ে শাহবাগ মোড় থেকে সরে যান তারা।

ওইদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি হল থেকে মিছিল নিয়ে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা গ্রন্থাগারের সামনে সমবেত হন। এরপর সেখান থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে শাহবাগে যান তারা।

এর আগে বুধবার (৩ জুলাই) বিকেল পৌনে ৪টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে শাহবাগে আসেন শিক্ষার্থীরা। এরপর শাহবাগ মোড় অবরোধ করেন।

একই দাবিতে মঙ্গলবারও (২ জুলাই) বিকেল পৌনে ৪টায় শাহবাগ মোড় অবরোধ করেন শিক্ষার্থীরা। পরে বিকেল পৌনে ৫টায় অবরোধ তুলে নেন তারা।


আরও খবর



আজ ব্যাংকের সঙ্গে বন্ধ থাকবে শেয়ারবাজারও

প্রকাশিত:সোমবার ০১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০১ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
অর্থ ও বাণিজ্য ডেস্ক

Image

প্রতিবছরের মতো ১ জুলাই ব্যাংক হলিডে। দিনটিতে ব্যাংকের সব ধরনের লেনদেন বন্ধ থাকবে। এ কারণে বন্ধ থাকবে শেয়ারবাজারের লেনদেনও। তবে বাংলাদেশ ব্যাংকসহ সব ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ও গুরুত্বপূর্ণ শাখা খোলা থাকবে। বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, আজ সোমবার ব্যাংকগুলোর বিভিন্ন শাখা থেকে পাঠানো হিসাব একত্রিত করে অর্ধবার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হয়, যে কারণে এ দিনটিকে ব্যাংক হলিডে হিসেবে ধরা হয়। এদিন ব্যাংকগুলো বাংলাদেশ ব্যাংক বা অন্যান্য ব্যাংক গ্রাহকদের সঙ্গে কোনো ধরনের লেনদেন বা দাপ্তরিক কার্যক্রম করে না।

একইভাবে ৩১ ডিসেম্বরও ব্যাংক হলিডে হিসেবে পালন করা হয়ে থাকে। ওইদিন ব্যাংকগুলো পঞ্জিকা বছরের হিসাব শেষ করে বার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদন প্রস্তুত করে, যে কারণে ওই দিনটিকেও ব্যাংক হলিডে হিসেবে ধরা হয়।


আরও খবর



বৃষ্টিতে এইচএসসি পরীক্ষা দেরিতে শুরু হলে সময় বাড়ানোর নির্দেশ

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ৩০ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সারাদেশে ২০২৪ সালের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে আজ। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টির কারণে কেন্দ্রে পৌঁছাতে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে পরীক্ষার্থীদের। এ কারণে বৃষ্টির সময়ে পরীক্ষা নেওয়ার ক্ষেত্রে কিছু জরুরি নির্দেশনা দিয়েছে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড।

রোববার (৩০ জুন) ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক মো. আবুল বাশারের সই করা জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

এতে বলা হয়েছে, আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায় যে, আগামী কয়েকদিন প্রচুর বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। পরীক্ষার দিনগুলোতে বৃষ্টি থাকলে প্রয়োজনে নির্দিষ্ট সময়ের আগেই কেন্দ্রের মূল ফটক খুলে দিয়ে পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে প্রবেশের ব্যবস্থা করতে হবে।

এতে আরও বলা হয়, অনিবার্য কারণে কোনো কেন্দ্রের পরীক্ষা শুরু করতে আধাঘণ্টা কিংবা এক ঘণ্টা দেরি হলে জরুরি পরিস্থিতি বিবেচনায় সেই আধাঘণ্টা বা এক ঘণ্টা সময় সমন্বয় করে পরীক্ষা শেষ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করা হলো।

এদিকে এইচএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনে দেশের বিভিন্ন এলাকায় অধিকাংশ পরীক্ষার্থী বৃষ্টি ও যানজটের কারণে দেরিতে পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছেছেন। বেশিরভাগ শিক্ষার্থী ভেজা শরীরে তিন ঘণ্টার পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন। এতে শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হয়ে পড়তে পারেন বলে উদ্বেগ জানিয়েছেন অভিভাবকরা।


আরও খবর