আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

চট্টগ্রামে ১১ টন কাচাঁ তুলা চুরি ঘটনায় গ্রেফতার ৬

প্রকাশিত:রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড থানার কার্গোসহ ১১ টন কাঁচা তুলা চুরির ঘটনায় জড়িত ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এসময় ১০ বান্ডেল টন কাচাঁ তুলা, ২টি কভার্ড ভ্যান, ১টি কার্গো জব্দ করা হয়। কাচাঁ তুলার বাজার মূল্য ৪০ লাখ টাকা। রোববার (৩ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় পিবিআই চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান পিবিআই পুলিশ সুপার নাজমুল হাসান।

গত ৩০ নভেম্বর এবং ২ ডিসেম্বর আলাদা অভিযানে ভোলা জেলা এবং চট্টগ্রাম মহানগরী এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তারা হলেন- ভোলা জেলার বোরহানউদ্দীন থানার কুঞ্জেরহাট গ্রামের মো. রফিকুল ইসলামের ছেলে মো. রুবেল (২৪), একই গ্রামের আবদুল কাদেরের ছেলে মো. মুনসুর আলম মোহন ওরফে সুজন ড্রাইভার (২৭), লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি থানার চররমিজ গ্রামের মো. মহিউদ্দিনের ছেলে মো. আমিরুল ইসলাম (২৮), চট্টগ্রামের ভুজপুর থানার দাঁতমারা ইউনিয়নের পেলারখীল গ্রামের মো. জহিরুল ইসলামের ছেলে মো জয়নাল (২৬), নোয়াখালী জেলার সুধারাম থানার সোনাপুর মাস্টার বাড়ির মোস্তফা কামালের ছেলে নুরনবী শাওন (২২) এবং চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ থানার শাহা পোয়া গ্রামের আজিজ খাঁর ছেলে মো. জাইসুল (২৩)।

পিবিআই পুলিশ সুপার বলেন, গত ২৪ নভেম্বর রাত ৯টায় সীতাকুণ্ড পোর্ট লিংক ডিপো থেকে আমদানিকৃত তুলা নারায়ণগঞ্জের ভুলতা এলাকার কারখানায় নেওয়ার পথে চুরি করে নিয়ে যায় চোরচক্রের সদস্যরা। এ ঘটনায় পরিবহন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মোকাম লিমিটেডের রিজিওনাল অপারেশন ইনচার্জ আবদুল্লাহ আল মুনিম তুলা উদ্ধারে পিবিআইয়ের সহযোগিতা চান। তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় গত ৩০ নভেম্বর ভোলার বোরহানউদ্দীন থানার কুঞ্জেরহাট গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে মো. রুবেলকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যানুযায়ী ওইদিনই ভোলা সদর থানার ইলশা ফেরিঘাট এলাকা থেকে চুরির কাজে ব্যবহৃত কাভার্ডভ্যানসহ চক্রের হোতা সুজন ড্রাইভারকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর ১ ডিসেম্বর আবদুল্লাহ আল মুনিম বাদী হয়ে সীতাকুণ্ড থানায় মামলা দায়ের করেন।

শনিবার (২ ডিসেম্বর) রাতে অভিযান চালিয়ে চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে অন্য চারজনকে গ্রেফতার করা হয়। ঘটনায় ব্যবহৃত দুইটি কাভার্ড ভ্যান, একটি কার্গো এবং ১০ বান্ডেল কাঁচা তুলা উদ্ধার করা হয় বলে জানান পুলিশ সুপার নাজমুল হাসান।

তিনি বলেন, আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান আমেরিকা থেকে ৪৮ বান্ডেল কাঁচা তুলা আমদানি করেন। এসব তুলার মূল্য প্রায় ৪০ লাখ টাকা। গ্রেফতার সবাই একটি চক্রের সদস্য। এর মধ্যে সুজন ড্রাইভার এর আগেও একই কায়দায় আমদানিপণ্য চুরির ঘটনা ঘটিয়েছে। ৩০ নভেম্বর গ্রেফতারকৃতদের ১ ডিসেম্বর সীতাকুণ্ড থানার মাধ্যমে আদালতে পাঠানো হয়েছিল। গ্রেফতার চারজনকে রোববার দুপুরে আদালতে হাজির করা হয়েছে ।


আরও খবর



সিলেটে দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
সিলেট প্রতিনিধি

Image

সিলেটে মাইক্রোবাস-মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। বুধবার (৩১ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে নগরের এয়ারপোর্ট-আম্বরখানা সড়কের মালনিছড়া চা বাগান এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত দুই মোটরসাইকেল আরোহীর একজন হলেন- মো. মেহেদি আফনান (৩২)। তিনি মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলায় বাসিন্দা।

অপর নিহতের নাম আশফাকুজ্জামান। তিনি হবিগঞ্জের চুনারুঘাট পৌর এলাকার বড়াইল এলাকার ফিরোজ আহমদের ছেলে।

এয়ারপোর্ট থানার ওসি মোহাম্মদ নুনু মিয়া বলেন, বুধবার বিকেলে মালনিছড়া চা বাগান এলাকায় আম্বরখানা-এয়ারপোর্ট সড়কে দাঁড়িয়ে থাকা মাইক্রোবাসের সাথে মেহেদির মোটরসাইকেলটি ধাক্কা খেলে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি।

এ ঘটনায় গুরুতর আহত আশফাকুজ্জামানকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে তার মৃত্যু হয়। মোটরসাইকেল ও মাইক্রোবাসটি পুলিশের হেফাজতে রয়েছে।


আরও খবর



দেশে কোভিড-১৯ এর নতুন জেএনওয়ান সাব-ভ্যারিয়েন্ট সনাক্ত : শারফুদ্দিন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

Image

বাংলাদেশে কোভিড-১৯ এর নতুন জেএনওয়ান ((JN.1) সাব-ভ্যারিয়েন্ট সনাক্ত হয়েছে। আজ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনোম সিকোয়েন্সিং গবেষণার প্রধান পৃষ্ঠপোষক (সুপারভাইজার) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ এই তথ্য জানান। এই রিপোর্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান গবেষণার ফলাফল।

এসময় করোনা জেনোম সিকোয়েন্সিং বিএসএমএমইউ এর গবেষকবৃন্দ, সুপারভাইজার উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ, প্রধান গবেষক জেনোটিক্স এন্ড মলিকিউলার বায়োলজি ও এনাটমি বিভাগের চেয়ারম্যান ডা. লায়লা আনজুমান বানু, করোনা জেনোম সিকোয়েন্সিং এর সাথে যুক্ত গবেষণা টিম এর অন্যান্য সদস্যবৃন্দ-ডা. মোঃ মহিউদ্দিন মাসুম, ডা. শারমিন আক্তার সুমি, ডা. শরদিন্দু কান্তি সিনহা, সোয়েব হোসেন, শ্যামল চন্দ্র বিশ্বাস, করোনা জেনোম সিকোয়েন্সিং বিএসএমএমইউ এর সাথে যুক্ত অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের গবেষণা টিম এর সদস্যবৃন্দ অধ্যাপক ডা. মাহমুদ হোসেন, অধ্যাপক ডা. জাহিদ হাসান, বাডাস কোভিড-১৯ প্রকল্প উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, কোভিড-১৯ এর জেনোম সিকোয়েন্সিং গবেষণার উদ্দেশ্য এর জেনোমের গঠন উন্মাচন ও পরিবর্তনের ধরণ এবং বৈশ্বিক কোভিড-১৯ ভাইরাসের জেনোমের সাথে এর আন্তঃসর্ম্পক বের করা, ভাইরাসের বিবর্তনীয় সম্পর্ক, রোগের উপসর্গ, রোগের তীব্রতা, তুলনামূলক হাসপাতাল অবস্থানের মেয়াদকালে এবং  বাংলাদেশী কোভিড-১৯ জেনোম ডাটাবেস তৈরি করা। ২৯ জুন ২০২১ থেকে কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের উপর এই গবেষণা চলমান। গবেষণায় প্রায় এক হাজার পাচঁশত কোভিড-১৯ পজিটিভ রোগীর ন্যাযোফ্যারিনজিয়াল সোয়াব স্যাম্পল থেকে নেক্সট জেনারেশন সিকোয়েন্সিং এর মাধ্যমে করোনা ভাইরাসের জেনোম সিকোয়েন্সিং করা হয়।

কোভিড-১৯ সংক্রমণ হ্রাস হওয়া সত্বেও, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা গুরুত্বপূর্ণ বৈশ্বিক প্যান্ডেমিক হিসেবে ভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্সিং প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছিলেন। এই সময়ে আমরা করোনার ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট এর বিভিন্ন সাব-ভ্যারিয়েন্ট পেয়ে আসছি। বিশ্ব স্বাস্থ্য এই বছরের শুরুতে নতুন সাব-ভ্যারিয়েন্ট JN.1 এর কথা জানায়। এর পরিপ্রেক্ষিতে জানুয়ারি মাসের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত প্রাপ্ত কোভিড-১৯ পজিটিভ রোগীর  স্যাম্পল নিয়ে জেনোম সিকোয়েন্সিং করা হয়। আমাদের গবেষণায় আমরা মোট তিন জন রোগীর দেহে JN.1 সাব-ভ্যারিয়েন্ট JN.1 ; JN.1 ;১৮ এবং JN.1 .১১.১১) সনাক্ত করা হয়।

JN.1  সাব-ভ্যারিয়েন্ট এর উপসর্গগুলি অন্যান্য রূপগুলির মতোই যেমন জ্বর সর্দি, গলা ব্যথা, মাথা ব্রথা এবং হালকা গ্রাস্ট্রেইনটেস্পাইনাল লক্ষণগুলি দেখা গিয়েছে। রোগীদের উপসর্গ মৃদু হলেও দীর্ঘমেয়াদে এর প্রভাব জানার জন্য গবেষণা চালিয়ে যাবার বিকল্প নেই। JN.1   সাব-ভ্যারিয়েন্ট দ্বারা আক্রান্ত রোগীদের এক জনের দেশের বাইরে থেকে আসার ইতিহাস রয়েছে।

পর্যবেক্ষণে দেখা যাচ্ছে যে, নতুন JN.1 সাব-ভ্যারিয়েন্ট আক্রান্ত রোগের লক্ষণের তীব্রতা কম। সকল JN.1 সাব-ভ্যারিয়েন্ট আক্রান্ত রোগীর কমপক্ষে দুই ডোজ ভ্যাকসিন দেয়া ছিলো। তৃতীয়বারের মতো আক্রান্ত হয়েছে এরকম রোগীরও JN.1   সাব-ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে। মৃদু উপসর্রে কারণে JN.1 সাব-ভ্যারিয়েন্ট রোগীদের থেকে দ্রুত সংক্রমন সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে। JN.1 সাব-ভ্যারিয়েন্টএ আক্রান্তদের তুলনামূলক কম উপসর্গ হয় এবং হাসপাতালে ভর্তির সম্ভাবনা কম। প্রত্যেক করোনা ভাইরাস ভ্যারিয়েন্ট বিপদজনক এবং তা মারাত্মক অনুস্থতা এমনকি মৃত্যুও কারণও হতে পারে। পাশাপাশি ভাইরাসের নিয়মিত মিউটেশনের আমাদের প্রচলিত স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে ঝুকিপূর্ণ করতে পারে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে সরকার ইতোমধ্যে আড়াই রেকাটি ডোজ টিকা সংগ্রহ নিশ্চিত করেছে। ২০২৪ ও ২০২৫ সালে ঝুকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীকে চতুর্থ ডোজ হিসেবে এসব টিকা দেওয়া হবে। তাই করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে ও টিকা গ্রহণ করতে হবে।

এদিকে জেনোম সিকোয়েন্সিং গবেষণার ২০২৪ সালের নতুন ফলাফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, তেতুল খেলে ডায়াবেটিস কমে, জলপাইয়ের অনেক উপকারিতা রয়েছে। কচুর লতি, ডুমুর, আনারসের মাথা এরকম অনেককিছু নিয়ে গবেষণা হচ্ছে। স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে ধূমপান, অতিরিক্ত লবণ খাওয়া, চিনি খাওয়া এড়িয়ে চলতে হবে। ব্যায়াম অবশ্যই করতে হবে। মানসিক চাপ মুক্ত থাকতে হবে। করোনা ভাইরাস শেষ হয়ে যায়নি। বাঁচতে অবশ্যই মুখে মাস্ক পড়তে হবে। যারা এখনো করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন নেয় নি তারা উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। তারা অবশ্যই যেনো টিকা গ্রহণ করেন।

নিউজ ট্যাগ: কোভিড-১৯

আরও খবর



সদরপুরে রাতের আঁধারে পদ্মাপাড়ের মাটি যাচ্ছে ইটভাটায়

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মামুনুর রশীদ, ফরিদপুর

Image

ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার আকোটের চর ইউনিয়নের ছলেনামা গ্রামের পদ্মা নদীর তীরে চলছে ফসলি জমির মাটি কাটার ধুম। প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে দিন-রাত ফসলি জমির মাটি কেটে বিক্রি করছে একটি মহল। এতে দিন দিন কমে যাচ্ছে কৃষিজমি। এক্সকাভেটর দিয়ে এমনভাবে মাটি কাটা হচ্ছে, একটু বৃষ্টি হলেই পাশের জমি ভেঙে পড়বে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পাশের জমির মালিকও। সেই সঙ্গে ধ্বংস হচ্ছে জীববৈচিত্র্য ও পরিবেশ। এতে বর্ষা মৌসুমে নদী ভাঙনের কবলে পড়ার শঙ্কায় রয়েছে স্থানীয় প্রায় ৫০টি পরিবার।

সরজমিনে দেখা যায়, উপজেলার আকটের চর এলাকার নতুন ছলেনামা গ্রামের পদ্মার পাড় থেকে রাতের আঁধারে এক্সকাভেটর (ভেকু) দিয়ে ৪০-৫০ ফুট গভীর করে মাটি কেটে নিয়েছে প্রভাবশালীরা।

ভাটা মালিকরা কৃষকদের নানা প্রলোভন দেখিয়ে নদী পাড়ের মাটি কেটে ইটভাটায় নিয়ে যাচ্ছেন। এতে বর্ষা মৌসুমে পদ্মার ভাঙনের কবলে পড়বে ছলেনামা গ্রামসহ শত শত একর ফসলি জমি ও বিভিন্ন স্থাপনা।

কৃষিবিদদের মতে, জমির উপরিভাগের চার থেকে ছয় ইঞ্চি (টপ সয়েল) গভীরের মাটিতেই মূল পুষ্টিগুণ থাকে। মূলত মাটির এই স্তরে ফসল উৎপাদিত হয়।

মাটির এই স্তর কেটে নেওয়ায় জমির উর্বরতা শক্তি নষ্ট হয়। এজন্য অতিরিক্ত সার প্রয়োগ করেও কাঙ্ক্ষিত ফলন পাওয়া যায় না। তাছাড়া কৃষিজমি ওপরের এ টপ সয়েল হারিয়ে ফেললে তা স্বাভাবিক হতে প্রায় ১০-১২ বছর লাগে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে সেখানে উপস্থিত একাধিক কৃষক জানান, অবৈধভাবে মাটি ও বালু কাটার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে গেলেই বিভিন্ন ধরনের হয়রানি ও নির্যাতনের শিকার হতে হয়। পদ্মার পাড় থেকে রাতের আঁধারে প্রতিনিয়ত মাটি কাটে তারা। রতভর চলে তাদের কর্মযজ্ঞ। এভাবে চলতে থাকলে বর্ষায় আমাদের ভিটে-মাটি হারিয়ে রাস্তায় নামতে হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন জমির মালিক জানান, নদ-নদীর চরের নতুন মাটিতে শস্য খুব ভালো ফলে। জমিতে বাদাম, ভুট্টা, কলাইয়ের চাষ করা হয়। তবে পাশের জমির মালিক মাটি কেটে বিক্রি করছে। মাটি টানার জন্য ব্যবহৃত গাড়ি চলাচলের কারণে তার জমির ফসল নষ্ট হয়েছে। এ ছাড়া ধুলো ও রাতভর গাড়ির শব্দের কারণে তাদের বসবাস করা কষ্টকর হয়ে যাচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বর্ষা মৌসুমে সদরপুরের পদ্মাপাড়ের বিভিন্ন এলাকা নদী ভাঙনের কবলে পড়ে বসতভিটা হারিয়েছেন কয়েক শ পরিবার। আর এখন শুষ্ক মৌসুমে পদ্মাপাড়ের মানুষের নতুন আতঙ্ক মাটি ব্যবসায়ীরা। পদ্মার ভাঙন ও মাটি ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ম্য থেকে বাঁচতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছে এলাকাবাসী।

ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) ২০১৩ অনুযায়ী কৃষিজমির মাটি কেটে শ্রেণি পরিবর্তন করা নিষিদ্ধ। এসব কাজে জড়িত ব্যক্তিদের দুই লাখ টাকার জরিমানা ও দুই বছরের কারাদণ্ড দেওয়ার বিধান রয়েছে। এ আইন প্রয়োগ করবে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ মোরাদ আলী বলেন, আমরা নিয়মিত মাটি ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করছি। পদ্মার পাড় থেকে রাতের আঁধারে মাটি কাটার ঘটনা সম্পর্কে আমরা অবগত আছি। পদ্মার চর দুর্গম এলাকা হওয়ায় ভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে অভিযানের পরিচালনার প্রস্তুতি নিচ্ছি।


আরও খবর



হুথিদের হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত জাহাজে রয়েছে বাংলাদেশি ক্রু

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এডেন উপসাগরে ইয়েমেনের সশস্ত্র গোষ্ঠী হুথিদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার শিকার তেলবাহী ব্রিটিশ ট্যাংকারে ছিলেন একজন বাংলাদেশি ক্রু। শনিবারের হামলায় বাণিজ্য জাহাজটিতে আগুন ধরে বলে জানিয়েছিল বিবিসি ও সিএনএন।

এছাড়াও জাহাজটিতে ২২ জন ভারতীয় ক্রু ছিলেন। ভারতীয় নৌবাহিনী তার বিবৃতিতে এই তথ্য নিশ্চিত করেছে। ইতিমধ্যে জাহাজটির আগুন নেভাতে ভারতীয় নৌবাহিনীর আইএনএস বিশাখাপত্তনম কাজ শুরু করেছে।

হুথিদের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় তারা মার্লিন লুয়ান্ডা নামের জাহাজটিতে হামলা চালিয়েছে। ব্রিটিশ এ জাহাজের অপারেটর জানিয়েছে, এডেন উপসাগরে জাহাজটি একটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলার শিকার হয়েছে। এতে কার্গো ট্যাংকে আগুন ধরেছে। আগুন নেভাতে নির্বাপক যন্ত্র মোতায়েন করা হয়েছে।

মার্কিন কর্মকর্তারা সিবিএসকে জানিয়েছেন, ট্যাংকারটিতে জাহাজ বিধ্বংসী ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত করে এবং জাহাজটির বিপদে পড়ার সংকেত পেয়ে নৌবাহিনীর একটি জাহাজ সাহায্য করতে এগিয়ে যায়। তবে এতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।


আরও খবর



ঢাকা আসছেন ৪ ব্রিটিশ এমপি

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ব্রিটিশ পার্লামেন্টের চারজন সদস্য পাঁচ দিনের সফরে ঢাকা আসছেন। শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) ঢাকার একটি কূটনৈতিক সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

সূত্রের তথ্য অনুযায়ী, বেসরকারি উদ্যোগে আয়োজিত এ সফরে আসা চার এমপির মধ্যে রয়েছেন ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির পল স্কালি। অন্য তিন এমপি বীরেন্দ্র শর্মা, নীল কোয়েল ও অ্যান্ড্রু ওয়েস্টার্ন বিরোধী লেবার পার্টির সদস্য।

শনিবার (২৭ জানুয়ারি) বিকেলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সঙ্গে ব্রিটিশ এমপিদের সৌজন্য সাক্ষাতের কথা রয়েছে।

প্রতিনিধি দলটি কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প ও সিলেট সফর করবেন বলে জানিয়েছেন এক কূটনীতিক।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সঙ্গে চার ব্রিটিশ এমপির সৌজন্য সাক্ষাতের সম্ভাবনাও আছে বলে জানান ওই কূটনীতিক।


আরও খবর