আজঃ রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

চাঁদপুরের কচুয়ায় বাসচাপায় ৩ শিক্ষার্থী নিহত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলায় বাসচাপায় অটোরিকশাযাত্রী তিন শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। এসময় অটোরিকশাচালকসহ দুজন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৭টা দিকে কচুয়া-হাজীগঞ্জ সড়কের কড়ইয়া বিশ্বরোড এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- উর্মি মজুমদার উমা (২৪) ‍উপজেলার দোয়াটি এলাকার মৃত রাজকুমারের মেয়ে, মাহাবুব আলম (২২) কোয়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে ও সাদ্দাম হোসেন নিশ্চিন্তপুরের মোনাত মিয়ার ছেলে। তারা কুমিল্লার সরকারি ভিক্টরিয়া কলেজের মাস্টার্সের পরীক্ষার্থী ছিলেন।

কচুয়া থানার ওসি মো. মহিউদ্দিন জানান, সকালে সিএনজিচালিত অটোরিকশাটি কচুয়া থেকে হাজীগঞ্জ যাচ্ছিল। কচুয়া-হাজীগঞ্জ সড়কের কড়ইয়া বিশ্বরোড এলাকায় লক্ষ্মীপুর থেকে ঢাকাগামী একটি বাস ওই অটোরিকশাকে চাপা দেয়। এতে অটোরিকশাটি দুমড়ে-মুচরে ঘটনাস্থলেই তিন শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়। এসময় আহত হন অটোরিকশাচালকসহ দুজন।

আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতদের লাশ উদ্ধার করে থানায় নেয়া হয়েছে।


আরও খবর



ট্রাক মালিকদের সঙ্গে বৈঠক করছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ নভেম্বর ২০২১ | ৫৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জ্বালানি তেলের মূল্য বাড়ার পর থেকে ধর্মঘটরত ট্রাক-কাভার্ডভ্যান মালিক-শ্রমিক প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

সোমবার (৮ নভেম্বর) রাত সোয়া আটটায় সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ বৈঠক শুরু হয়।

বাংলাদেশ ট্রাক-মালিক কাভার্ডভ্যান ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রোস্তম আলীর নেতৃত্বে বৈঠকে আরও উপস্থিত রয়েছেন মালিক-শ্রমিক নেতারা।

জ্বালানি তেলের মূল্য বাড়ার প্রতিবাদে গত শুক্রবার (৫ নভেম্বর) থেকে ধর্মঘট পালন করে বাস ও লঞ্চ মালিকরা। এরপর থেকে ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান মালিকরাও ধর্মঘটের ডাক দেন। রোববার (৭ নভেম্বর) বাস ও লঞ্চের ভাড়া বাড়ানোর পর বাস ধর্মঘট প্রত্যাহার হলেও ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান ধর্মঘট এখনো চলমান। এই পরিস্থিতিতে ট্রাক মালিক ও শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।


আরও খবর



বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলসেতু নির্মাণে ব্যবহৃত হবে বসুন্ধরা সিমেন্ট

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | ৪৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বসুন্ধরা সিমেন্ট ও আইএইচআই-এসএমসিসি জেভির মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলসেতু প্রকল্পে সিমেন্ট সরবরাহ চুক্তি সই হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) বসুন্ধরা সিমেন্ট ও আইএইচআই-এসএমসিসি জেভির মধ্যে ওই চুক্তি সই হয়।

স্বনামধন্য দুটি জাপানি নির্মাণ প্রতিষ্ঠান আইএইচআই (ইশিকাবাজিমা-হারিমা হেভি ইন্ডাস্ট্রিজ কো. লিমিটেড) এবং এসএমসিসি (সুমিতোমো মিতসুই কনস্ট্রাকশন কো. লিমিটেড) এর যৌথ উদ্যোগে নির্মিত এই প্রকল্পের মধ্য দিয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থার আরো উন্নয়ন ও সহজীকরণ সম্ভব হবে।

দেশের সর্ববৃহৎ ও সর্বাধুনিক ভিআরএম প্রযুক্তিতে তৈরি বসুন্ধরা সিমেন্ট। ফ্যাক্টরি, উৎপাদন ক্ষমতা, সরবরাহ ব্যবস্থা ও সর্বোপরি গুণগতমানের নিশ্চয়তা যাচাই সাপেক্ষে বসুন্ধরা সিমেন্টেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলসেতু প্রকল্প নির্মাণ কাজে ব্যবহার করার যৌথভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে এ দুটি জাপানি প্রতিষ্ঠান।

অনুষ্ঠানে আইএইচআই-এসএমসিসি জেভির পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন প্রজেক্ট ম্যানেজার শিনজি কাইফুকু, ডেপুটি প্রজেক্ট ম্যানেজার ইয়াসুইয়োশি ওয়াতানাবে, লিড, কিউএ/কিউসি তানজিল আহমেদ আপন এবং বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে চিফ মার্কেটিং অফিসার (সিমেন্ট সেক্টর) খন্দকার কিংশুক হোসেন, চিফ এক্সেকিউটিভ অফিসার (বিআইডিএল-ড্রেজিং) কমোডর এম খুরশিদ মালিক (অব.), হেড অব ফাইন্যান্স (ট্রেজারার, সেক্টর বি) নূরে আলম ছিদ্দিকী, এজিএম (করপোরেট সেলস) এ কে এম লুৎফুল হক (খসরু) এবং অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।


আরও খবর
আলেশা মার্টের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা

বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1




প্রণয়ন হচ্ছে ‘জামানত সুরক্ষা আইন-২০২১’

প্রকাশিত:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | ৪১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দশ ধরনের অস্থাবর সম্পত্তি বন্ধক রেখে ঋণ নেওয়ার বিধান রেখে জামানত সুরক্ষা (অস্থাবর সম্পত্তি) আইন-২০২১ প্রণয়ন হচ্ছে। এর মধ্যে কোনো ভালো কোম্পানির শেয়ার বা স্বর্ণ বন্ধক রেখেও ঋণ নেওয়ার সুযোগ থাকছে।

আগামী বছরের প্রথম দিকে জাতীয় সংসদে অনুমোদনের জন্য বিলটি উত্থাপন করা হতে পারে। বাংলাদেশ ব্যাংক ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ যৌথভাবে আইনটির খসড়া প্রণয়ন করেছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

প্রস্তাবিত খসড়া আইনে চিহ্নিত দশ ধরনের অস্থাবর সম্পত্তির মধ্যে রয়েছে- প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট দ্বারা সমর্থিত ও সুরক্ষিত রপ্তানির উদ্দেশ্যে বা রপ্তানি আদেশ অনুযায়ী পণ্য তৈরির কাঁচামাল। ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানে গচ্ছিত আমানতের সনদ। স্বর্ণ-রৌপ্য ও অন্যান্য মূল্যবান ধাতু যার ওজন ও বিশুদ্ধতার মান স্বীকৃত কর্তৃপক্ষ দ্বারা সার্টিফাইড। নিবন্ধিত মানসম্পন্ন কোম্পানির শেয়ার সার্টিফিকেট। মেধাস্বত্ব অধিকার দ্বারা স্বীকৃত মেধাস্বত্ব পণ্য (পেটেন্ট কপিরাইট)। কোনো সেবার প্রতিশ্রুতি, যার বিপরীতে সেবাগ্রহীতার মূল্য পরিশোধের স্বীকৃত প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে (ওয়ার্ক অর্ডার)। আসবাব-কাষ্ঠজাত উদ্ভিদ-ফলজ উদ্ভিদ-ঔষধি উদ্ভিদ-ইলেকট্রনিক পণ্য। সফটওয়্যার, অ্যাপস, যার মূল্য প্রাক্কলন করা সম্ভব। যান্ত্রিক বা অযান্ত্রিক যানবাহন। খনিজ সম্পদ (তেল, গ্যাস, হাইড্রোকার্বন ও ভগর্ভস্থ মূল্যবান ধাতু) এবং যথাযথভাবে সংরক্ষিত কৃষিজাত পণ্য-প্রক্রিয়াজাত মৎস্য বা জলজ প্রাণিসম্পদ-আয় উৎসারী জীবজন্তু (অজাত শাবকসহ)।

আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, আইনটি চলতি বছরে অনুমোদনের জন্য সংসদে উত্থাপনে চেষ্টা করা হচ্ছে। যদি তা না হয়, তবে আগামী বছরের শুরুতে সংসদে অনুমোদনের জন্য তোলা হবে।

আইনটি প্রণয়নের প্রয়োজনীয়তা ব্যাখ্যা করতে গিয়ে সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা বলেন, বর্তমানে দেশে স্থাবর সম্পত্তি যেমন- জমি, বাড়ি, শিল্পপ্রতিষ্ঠান ইত্যাদি জামানত হিসেবে বন্ধক রেখে ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ নেওয়া যায়। কিন্তু স্থানান্তরযোগ্য বা অস্থাবর সম্পত্তি বন্ধক রেখে ঋণ প্রাপ্তির কোনো বিধান না থাকায় বৈধভাবে ঋণ নেওয়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন অনেকে। এ প্রেক্ষিতে প্রচলিত ঋণ/বিনিয়োগ ব্যবস্থায় স্থানান্তরযোগ্য/ অস্থাবর সম্পদকে জামানত হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে অনেক মানুষের কাছে ঋণ/ বিনিয়োগ সহজলভ্য করার উদ্দেশ্যে আইনটি প্রণয়ন করা হচ্ছে।

আইনের খসড়ায় বলা হয়েছে, সর্বোচ্চ এক বছর অস্থাবর সম্পত্তি বন্ধক রেখে ঋণ নেওয়া যাবে। কিন্তু আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও সংশ্লিষ্ট ঋণ গ্রহীতার পারস্পরিক সমঝোতার মাধ্যমে এই মেয়াদ বাড়ানো যেতে পারে।

খসড়ায় আইনটি বাস্তবায়নে একটি সিকিউরড ট্রানজ্যাকশন রেজিস্ট্রেশন কর্তৃপক্ষ গঠনের কথা বলা হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর কিংবা তার কোনো মনোনীত ব্যক্তি সংস্থার পরিচালনা বোর্ডেও চেয়ারম্যান এবং বোর্ড কর্তৃক নিযুক্ত একজন রেজিস্ট্রার হবেন বোর্ডের সচিব। পরিচালনা বোর্ডের অপর সদস্যরা হবেন- আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব কিংবা তার কোনো মনোনীত ব্যক্তি, বিএসইসি চেয়ারম্যান কিংবা তার কোনো মনোনীত ব্যক্তি, আরজেএসসির রেজিস্ট্রার কিংবা তার কোনো মনোনীত প্রতিনিধি এবং মাইক্রো ক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটির চেয়ারম্যান কিংবা তার কোনো মনোনীত ব্যক্তি।



আরও খবর
আলেশা মার্টের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা

বৃহস্পতিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২1




রোহিঙ্গা ইস্যুতে সমর্থন অব্যাহত রাখবে জাতিসংঘ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ | ২৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গণহত্যা ও নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেওয়া লাখ লাখ রোহিঙ্গা নাগরিকের অধিকার ফিরিয়ে দেওয়া এবং তাদেরকে নিজ দেশ মিয়ানমারে প্রত্যাবাসন ইস্যুতে বাংলাদেশকে জাতিসংঘ তার সমর্থন অব্যাহত রাখবে। বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী মিয়া সেপ্পো জানিয়েছেন এই কথা।

মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার সরকারি বাসভবন গণভবনে বিদায়ী সাক্ষাৎ করেন মিয়া সেপ্পো। বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের এ ব্যাপারে ব্রিফ করেন।

প্রেস সচিব বলেন, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মানবিক কারণে আমরা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য বাসস্থানের ব্যবস্থা করেছি। কিন্তু তারা এখন সামাজিক সমস্যা সৃষ্টি করছে। কিন্তু, তাদের উচিত এখন নিজ দেশে ফিরে যাওয়া।

শেখ হাসিনা বলেন, যে সব এনজিও বাংলাদেশে কাজ করছে সেসব এনজিও রোহিঙ্গাদের জন্য তাদের নিজ দেশেও কাজ করতে পারে।

বৈঠকে তারা কোভিড-১৯, জলবায়ু পরিবর্তন এবং নারীর ক্ষমতায়ন নিয়েও আলোচনা করেন।

নারীর ক্ষমতায়ন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার প্রত্যেক সরকারি চাকরিতে বিশেষ করে সশস্ত্র বাহিনী বিজিবি এবং সামাজিক-রাজনৈতিক ক্ষেত্রে নারীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করেছে।

জলবায়ু প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, পরিবেশ রক্ষায় সরকারের পাশাপাশি তার দল ও সহযোগি সংগঠনগুলোও বিপুলসংখ্যক বৃক্ষরোপণ অভিযান পরিচালনা করছে।

মিয়া সেপ্পো বাংলাদেশে তার অবস্থানের জন্য সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, সরকারের সঙ্গে তার সুসম্পর্ক ছিল।

অ্যাম্বাসেডর এট লার্জ মো. জিয়াউদ্দিন এবং প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমেদ কায়কাউস এ সময় উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



কলম্বিয়া ম্যাচে বড় পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামছে ব্রাজিল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর ২০২১ | ৪৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ফের শুরু হচ্ছে কাতার বিশ্বকাপ বাছাইয়ের লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের দৌড়ঝাঁপ।

ব্রাজিলের নিও কিমিকা অ্যারেনায় আগামীকাল সকালে কলম্বিয়ার মুখোমুখি হবে সেলেকাওরা। আর পাওয়ার ফুটবল খেলা দেশটির বিপক্ষে ব্রাজিল দলে বড় পরিবর্তন আনছেন কোচ তিতে।

এ ম্যাচে লিভারপুল গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকার ফিরবেন। ডিফেন্ডার মারকিনিয়োসও ফিরবেন এ ম্যাচে।  দাঁতের ইনফেকশনের জন্য দল থেকে ছিটকে পড়া ক্যাসেমিরোওকে দেখা যাবে শুক্রবারের ম্যাচে। এছাড়া উইংব্যাক দানিলোও আছেন তিতের ভাবনায়।

সবমিলিয়ে শুরুর একাদশে ৪ পরিবর্তন দেখা যেতে পারে ব্রাজিল দলে। বুধবার বিকেলে করিন্থিয়ান্সের মাঠে অনুশীলনেও এই চার খেলোয়াড়কে ঘাম ঝরাতে দেখা গেছে।   

এখন পর্যন্ত ১১ ম্যাচ থেকে ৩১ পয়েন্ট তুলে নিয়ে বিশ্বকাপ মিশনে সুরক্ষিত স্থানে আছে ব্রাজিল। তাই দলকে পরখ করতে বড় পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামতেই পারেন কোচ তিতে।

কলম্বিয়া ম্যাচের ব্রাজিল দলের সম্ভাব্য একাদশ:

অ্যালিসন (গোলরক্ষক) দানিলো, মারকিনিয়োস, থিয়াগো সিলভা, অ্যালেক্স সান্দ্রো; ক্যাসেমিরো, ফ্রেড, লুকাস পাকেতা; রাফিনিয়া, গ্যাব্রিয়েল জেসুস, নেইমার।


আরও খবর