আজঃ মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিএনপির সাবেক সভাপতি গ্রেফতার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৯ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
মোঃ রাসেল আহমেদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

Image

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক জেলা বিএনপির সভাপতি এবং পৌর মেয়র হাফিজুর রহমান মোল্লা কচিকে (কচি মোল্লা) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে জেলা শহরের বাগানবাড়ি এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। হাফিজুর রহমান মোল্লা কচি পৌর শহরের মৌড়াইল এলাকার মৃত জারু মোল্লার ছেলে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আসলাম হোসাইন জানান, হাফিজুর রহমান মোল্লা কচিকে র‌্যাব গ্রেফতার করে রাত দেড়টার দিকে থানায় হস্তান্তর করে। তার বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মামলা রয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: ব্রাহ্মণবাড়িয়া

আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বছরে ৪ বার নিয়োগের নির্দেশনা শিক্ষামন্ত্রীর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক সংকট মেটাতে বছরে অন্তত চারবার শিক্ষক নিয়োগের জন্য এনটিআরসিএকে নির্দেশনা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী।

আজ সোমবার রাজধানীর ইস্কাটনে বেসরকারি নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) অফিসে এক মতবিনিময় সভায় শিক্ষামন্ত্রী এ নির্দেশনা দেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

শিক্ষক নিয়োগকে আরও ত্বরান্বিত করতে এমপিও নীতিমালায় সংশোধনের প্রয়োজন হলে সে বিষয়ে সুপারিশ করতে এনটিআরসিএয়ের প্রতি আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী। মতবিনিময় সভায় এনটিআরসিএয়ের চেয়ারম্যান মো. সাইফুল্লাহিল আজমসহ এনটিআরসিএয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



ছোট ছেলেকে নিয়ে অপরাধবোধে ভোগেন কারিনা

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

বলিউডের তারকা মায়েদের মধ্যে প্রথম সারিতেই রয়েছেন কারিনা কাপুর। সম্প্রতি সাইফ-কারিনার ছোট ছেলে জাহাঙ্গীরের জন্মদিন পালন করা হয়। তিন বছর পূর্ণ করল সে। এই বিশেষ দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতে আয়োজনে খামতি রাখেননি কারিনা। গোটা কাপুর পরিবার এবং শ্বশুরবাড়ির পরিবারের সকলকে নিয়ে বড়সড় পার্টি দিয়েছিলেন অভিনেত্রী। তিন বছরের জন্মদিন উপলক্ষে চুলে নতুন ছাঁট, নতুন জামা পরে সারাদিন হইহই করতে দেখা যায় ছোট্ট জেহকে। নানা রণধীর কাপুরের বাড়িতে জন্মদিনের আয়োজন করা হয়। সব কিছু ভালভাবে মিটলেও ছোট ছেলেকে নিয়ে মাঝে মধ্যেই অপরাধবোধে ভোগেন কারিনা।

বাবা-মা দু’জনই তারকা। তারা সব সময় কাছাকাছি থাকতে পারেন না। তাদের সঙ্গ ছাড়াই বড় হতে হবে, এসব বুঝে গেছে বড় ছেলে তৈমুর। সে তার বয়সের তুলনায় অনেকটা এগিয়ে, জানেন মা কারিনা কাপুর।

তিনি জানান, ছোট ছেলে জাহাঙ্গীরও এখন ভাইয়ের সঙ্গে থেকে থেকে অনেক কিছুই দ্রুত শিখছে। তবু জেহকে সময় দিতে না পারলে মনখারাপ হয় কারিনার।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী জানান, জেহের জীবনের প্রথম কনসার্টে থাকতে পারিনি। সে জন্য অপরাধবোধে ভুগী।

করিনার কথায়, জেহের যখন কনসার্ট ছিল, তখন একটা বিজ্ঞাপনের শুটিংয়ে আমি ব্যস্ত ছিলাম। সাইফ ব্যস্ত ছিল ওর পরবর্তী ছবির রিহার্সালে। তবু সেদিন সাইফই সামলান ছেলের কনসার্টের দিনটা।’

যদিও কারিনা জানান, এ বছর মিস করলেও পরের বছর ছেলের সঙ্গে ওর অনুষ্ঠান দেখতে যাবেন। কারণ এই অপরাধবোধ নিয়ে তিনি সারাজীবন থাকতে পারবেন না, এছাড়াও ছেলের জীবনের আনন্দের মুহূর্তগুলোর সাক্ষী থাকতে চান কারিনা।


আরও খবর
ফের বিয়ে করছেন অনুপম রায়, পাত্রী কে?

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সুবর্ণচরে মা-মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নোয়াখালী প্রতিনিধি

Image

সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে মা-মেয়েকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরওয়াপদা ইউনিয়নে। সোমবার (০৫ ফেব্রুয়ারি) রাত পৌনে ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নির্যাতিত গৃহবধূর বয়স (৩০) ও তাঁর মেয়ের বয়স (১২) বছর।

মঙ্গলবার (০৬ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় ভুক্তভোগী গৃহবধূর বরাত দিয়ে চরজব্বর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.রফিকুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়দের বরাত দিয়ে জানা যায়, ভুক্তভোগী গৃহবধূর স্বামী পেশায় একজন দিনমজুর। তিনি কাজের জন্য সপ্তাহের তিন থেকে চারদিন বাড়ির বাইরে থাকেন। এ সুযোগে সোমবার রাত পৌনে ২টার দিকে বসত ঘরে সিঁধ কেটে গৃহবধূও ও তাঁর মেয়েকে ধর্ষণ করে তিনজন। খবর পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

চর জব্বর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, কিছুদিন আগে নির্যাতিত গৃহবধূ নতুন বাড়িতে উঠেন। ওই বাড়িতে সিঁধ কেটে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। গৃহবধূ ও তার মেয়েকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে। অভিযুক্ত আসামিদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটের দিন নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলায় এক গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সোমবার (০৫ ফেব্রুয়ারি) নোয়াখালী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক (জেলা জজ) ফাতেমা ফেরদৌস ওই ধর্ষণ মামলায় ১৬ আসামির মধ্যে ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড ও ছয় আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন। একই সাথে তাদের অর্থদণ্ডও করা হয়।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




‘সার সরবরাহের জন্য বরাদ্দ ১৭ হাজার কোটি টাকা’

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

কৃষিমন্ত্রী উপাধ্যক্ষ মো. আব্দুস শহীদ বলেছেন, কৃষককে যাতে আমদানিমূল্যে সার ক্রয় করতে না হয়, সে লক্ষ্যে চলতি অর্থবছরে ১৭ হাজার কোটি টাকা উন্নয়ন সহায়তা বাবদ বরাদ্দ রাখা হয়েছে। মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদের অধিবেশনে প্রশ্ন উত্তর পর্বে তিনি কৃষক পর্যায়ে সাশ্রয়ীমূল্যে সার সরবরাহ অব্যাহত থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন।

বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মুজিবুল হক চুন্নুর লিখিত প্রশ্নের জবাবে কৃষি মন্ত্রী জানান, আমদানিকৃত সার কৃষক পর্যায়ে সরকার নির্ধারিত ভর্তুকিমূল্যে টিএসপি প্রতি কেজি ২৭ টাকা, এমওপি প্রতি কেজি ২০ টাকা এবং ডিএপি প্রতি কেজি ২১ টাকায় বিক্রয় করছে। ২০০৯ সালের পূর্বে প্রতি কেজি টিএসপি, এমওপি এবং ডিএপি সারের বিক্রয়মূল্য যথাক্রমে ৮০, ৭০ ও ৯০ টাকা ছিল। 

আরও পড়ুন>> অনলাইন গণমাধ্যমের জন্য বিজ্ঞাপন নীতিমালা প্রণয়ন করা হবে : আরাফাত

মন্ত্রী আব্দুস শহীদ জানান, কৃষি উৎপাদন ব্যয় যাতে ব্যাহত না হয়, সে লক্ষ্যে সরকার সার ও কৃষি যন্ত্রপাতিতে উন্নয়ন সহায়তা প্রদান করছে। সেচ ও ভালো মানের বীজ সাশ্রয়ী মূল্যে সরবরাহ করছে। বর্তমান কৃষি বান্ধব সরকার সমন্বিত কৃষি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে কৃষি যান্ত্রিকীকরণ শীর্ষক মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এ প্রকল্পের মাধ্যমে হাওর ও উপকূলীয় এলাকায় ৭০ শতাংশ এবং অন্যান্য এলাকায় ৫০ শতাংশ উন্নয়ন সহায়তায় মাধ্যমে কৃষকদের মাঝে আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতি বিতরণ করা হচ্ছে।

কৃষি মন্ত্রী বলেন, নিরাপদ খাদ্য উৎপাদনের ও পরিবেশ সুরক্ষার লক্ষ্যে কীটনাশকের ব্যবহার কমানোর প্রক্রিয়া চলছে। জৈব কৃষি ও জৈব বালাইনাশকের ব্যবহারসহ সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে ফসলের রোগ ও পোকামাকড় দমন ব্যবস্থাকে উৎসাহিত করা হচ্ছে। ফলে কীটনাশকের ব্যবহার প্রতিনিয়ত হ্রাস পাচ্ছে।

আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য এম আবদুল লতিফের এক প্রশ্নের লিখিত উত্তরে কৃষিমন্ত্রী জানান, সমগ্র দেশের প্রান্তিক কৃষকদের এবং কৃষি উন্নয়নের লক্ষ্যে ৫০টি প্রকল্প ধারণাপত্র (পিসিপি) যাচাই করা হচ্ছে, যা থেকে নতুন প্রকল্প গ্রহণ করা হবে। কৃষক ও কৃষির উন্নয়নে নতুন পরিকল্পনার মধ্যে রয়েছে- দুই কোটি ২৭ লক্ষ কৃষককে স্মার্ট কার্ড দেওয়া, ১০ লাখ কৃষককে উত্তম কৃষি চর্চার প্রশিক্ষণ দেওয়া, ৫০ লাখ কৃষককে সম্প্রসারণ সহায়তা, উন্নয়ন সহায়তা ও ঋণ সহায়তা দেওয়া, ২০ হাজার কৃষি উদ্যোক্তা সৃষ্টি, ১০টি অ্যাক্রেডিটেশন ল্যাব স্থাপন, ১০ লাখ হেক্টর জমিতে সেচ উন্নয়ন, দুই লাখ হেক্টর জমিতে উচ্চ ফলনশীল জাতের অ্যাডাপটেশন, ক্লাইমেট স্মার্ট ও কৃষির প্রবর্তন।


আরও খবর



জাতিসংঘ থেকে ইসরায়েলকে বহিষ্কার করার দাবি জানালেন রায়িসি

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রায়িসি দখলদার ইসরায়েলকে জাতিসংঘ থেকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছেন। রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাজধানী তেহরানে ইরানের ইসলামি বিপ্লবের ৪৫তম বার্ষিকীর শোভাযাত্রায় এ দাবি জানান তিনি।

রায়িসি গাজায় ইসরায়েলি গণহত্যার নিন্দা জানিয়ে বলেন, বর্ণবাদী ইসরায়েল এ পর্যন্ত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার চারশ' ইশতেহার, প্রস্তাব ও ঘোষণা লঙ্ঘন করেছে। তারা জাতিসংঘের প্রস্তাব ও নীতিমালা মানে না। অবৈধ দখলদার ইসরায়েলের সদস্যপদ বাতিলের জন্য তিনি জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ফিলিস্তিন হচ্ছে মুসলিম বিশ্বের প্রধান ইস্যু। ফিলিস্তিনের প্রতি ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের অকুণ্ঠ সমর্থন আগের মতোই অব্যাহত থাকবে।

রায়িসি বলেন, ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান বিশ্বের সবচেয়ে স্বাধীন রাষ্ট্র। প্রাচ্য বা পাশ্চাত্যের তাবেদারি না করে স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব অটুট রাখার নীতিতে ইরান অটল রয়েছে।

প্রেসিডেন্ট বলেন, ইরান ইস্যুতে শত্রুদের ভাষায় পরিবর্তন এসেছে। তারা এখন আর ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক উপায় অবলম্বনের কথা চিন্তাও করতে পারে না।

তিনি আরও বলেন, গণতন্ত্র রক্ষার দাবিদারেরা ফিলিস্তিন ও ইয়েমেনের জনগণের রায়কে মূল্য দিচ্ছে না, তাদের ভোটাধিকারের প্রতি সম্মান দেখাচ্ছে না। ইরান প্রজাতান্ত্রিক ব্যবস্থা তথা জনগণের ভোটের ওপর প্রতিষ্ঠিত।

ভাষণে তিনি বিপ্লব পরবর্তী ইরানের নানা ক্ষেত্রে উন্নয়ন ও অগ্রগতির কথাও তুলে ধরেছেন।


আরও খবর
বিশ্ববাজারে আবারো কমেছে জ্বালানি তেলের দাম

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪