আজঃ বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪
শিরোনাম

বেনাপোল-হিলিতে কমেছে রাজস্ব আদায়

প্রকাশিত:বুধবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
অর্থ ও বাণিজ্য ডেস্ক

Image

যশোরের বেনাপোল ও দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি কমায় সরকারের রাজস্ব আদায় সঠিকভাবে হচ্ছে না। ডলার সংকটে ভারত থেকে আমদানি কমায় কমেছে রাজস্ব আয়। বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে রাজস্ব ঘাটতি ৩০৮ কোটি ৭২ লাখ টাকা বলে কাস্টমস সূত্র জানায়। ৬ মাসে কাস্টমসের রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২ হাজার ৯৩৯ কোটি টাকা। সেখানে আদায় হয়েছে ২ হাজার ৬৩১ কোটি ৭২ লাখ টাকা।

কাস্টমস ও ব্যবসায়ীরা বলছেন, বর্তমানে ডলার সংকটের কারণে খাদ্যপণ্য ও শিল্প কারখানার কিছু পণ্য ছাড়া অন্য পণ্য আমদানিতে ব্যাংক এলসি খুলছে না। এতে ব্যবসায়ীরা আমদানি করতে পারছে না।

বেনাপোল কাস্টমস সূত্রে জানা গেছে, ২০২১-২২ অর্থবছরে পণ্য আমদানি হয়েছিল ২১ লাখ ১৪ হাজার মেট্রিক টন। এর আগের ২০২০-২১ অর্থবছরে আমদানি করা হয়েছিল ২৬ লাখ ৪৪ হাজার মেট্রিক টন পণ্য। আমদানি কম হয়েছিল ৪ লাখ ৩০ হাজার মেট্রিক টন। এতে সরকারের রাজস্ব আয়ও কমে গেছে। গত বছরে বেনাপোল কাস্টমস হাউসে ৫৫৮ কোটি টাকা ৮ লাখ টাকা রাজস্ব কম আদায় হয়েছিল। অর্থবছরটিতে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৫ হাজার ১৫৮ কোটি টাকা, সেখানে আদায় করা হয়েছে ৪ হাজার ৫৯৯ কোটি ৯২ লাখ টাকা।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন জানান, যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হওয়াতে দুই দেশের ব্যবসায়ীদের বেনাপোল দিয়ে বাণিজ্যে আগ্রহ বেশি। তবে বর্তমানে ডলার সংকটের কারণে সরকার এলসিতে শতভাগ মার্জিন শর্ত দিয়েছে। আবার ব্যাংকগুলো ডলার সংকট দেখিয়ে এলসি খুলছে না। যে কারণে চলতি বছরের প্রথম ৬ মাসে আমদানি কমে গেছে। আর আমদানি কমলে রাজস্বও আদায়  কম হয়েছে।

ইন্ডিয়া বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের ডাইরেক্টর মতিয়ার রহমান জানান, বর্তমানে বেনাপোলসহ যশোরের কোনো ব্যাংক এলসি খুলছে না। যে কারণে আমরা পণ্য আমদানি করতে পারছি না। ব্যবসায়ীরা পড়েছে চরম বিপাকে। পণ্য আনতে না পারার কারণে বিক্রি কমে গেছে। ব্যবসায়িকভাবে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি। যে কারণে সরকারের রাজস্ব আয়ও কমে গেছে।

যশোর চেম্বার অব কমার্সের সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান জানান, সরকার এলসি করতে শতভাগ মার্জিন দেওয়ার নিয়ম করেছে। গত কয়েক মাস ধর ব্যাংকগুলো এলসি খুলছে না। এতে আমদানির সঙ্গে জড়িত হাজার হাজার ব্যবসায়ী বেকায়দায় পড়েছেন।

বেনাপোল কাস্টম হাউসের কমিশনার জানান, ডলার সংকটে ব্যবসায়ীরা ব্যাংক থেকে এলসি খুলতে পারছে না। যে কারণে গত ৬ মাসে পণ্য আমদানি কমে গেছে। আর আমদানি কমলে আমাদের রাজস্ব আয়ও কমে যায়। আমাদের এখানে কোনো হয়রানি হয় না বলে তিনি দাবি করেছেন।

এদিকে দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি কমায় সরকারের রাজস্ব আদায় সঠিক ভাবে হচ্ছে না। ডলার সংকটের কারণে ভারত থেকে আমদানি কমায় হিলি স্থলবন্দরে কমেছে রাজস্ব আয়। চলতি (২০২২-২৩) চলতি অর্থবছরের গত ছয় মাসে ২৯৪ কোটি ৬ লাখ টাকা রাজস্ব আদায়ে লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দেয় এনবিআর। যার বিপরীতে হিলি কাস্টমস আদায় করে ২১৩ কোটি ১৭ লাখ টাকা, ফলে রাজস্ব ঘাটতিতে পরে ৮০ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। হিলি স্থলবন্দরের ব্যবসায়ীরা বলছেন ডলার সংকটের কারণে তারা চাহিদা মতো পণ্য আমদানি করতে পারছেন না। আমদানি বৃদ্ধি পেলে সরকারের রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি পাবে বলে জানান কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন-উর রশিদ হারুন বলেন, হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারকরা দেশের বাজারে নিত্যপণ্যের দাম স্বাভাবিক রাখার জন্য ভারত থেকে পণ্য আমদানি করে থাকে। তবে বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো বিভিন্ন পণ্য আমদানিতে ডলার সংকট দেখাচ্ছে; যার জন্য চাহিদা মোতাবেক আমরা পণ্য আমদানি করতে পারছি না। ফলে সরকার যেমন ক্ষতির মুখে পড়ছেন, তেমনিভাবে আমরা ব্যবসায়ীরাও ক্ষতির মুখে পড়েছি। যেখানে ২০০-২৫০ ট্রাক প্রতিদিন হিলি বন্দরে প্রবেশ করত। বর্তমানে সেটা ১০০-১২০ গাড়িতে এসে দাঁড়িয়েছে।

হিলি সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের সাধারণ সম্পাদক জামিল হোসেন চলন্ত বলেন, ভারত থেকে সব ধরনের পণ্য আমরা আমদানি করতে পারছি না। কারণ ডলারের সংকট এখনো কাটেনি। বৈশ্বিক করোনা মহামারি, ইউক্রেন যুদ্ধ এবং পরবর্তীতে ডলার সংকটের কারণে এলসি খোলা ব্যাহত হচ্ছে। এতে হিলি বন্দর দিয়ে পাথরসহ বেশি শুল্কযুক্ত পণ্যের আমদানি কমেছে।

হিলি কাস্টমসের উপকমিশনার বায়জিদ হোসেন বলেন, ডলার সংকটের প্রভাব পড়েছে হিলি স্থলবন্দরে। কমছে আমদানি। যার ফলে রাজস্ব আদায়ে পড়েছে বড় ঘাটতি। অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে হিলি বন্দরেই রাজস্ব ঘাটতি প্রায় ৮১ কোটি টাকা। রিজার্ভের ওপর চাপ কমাতে আমদানিতে লাগাম টানার চেষ্টা করছে সরকার। বিলাসী পণ্য-দ্রব্যসহ অনেক পণ্যের এলসি খোলায় কড়াকড়ি আরোপ করা হচ্ছে; যার নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে হিলি স্থলবন্দরে। আমদানি কমায় চলতি অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসে রাজস্ব ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ৮০ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। এ সময়ে ২৯৪ কোটি ৬ লাখ টাকা লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে আদায় হয়েছে ২১৩ কোটি ১৭ লাখ টাকা।


আরও খবর



ইন্দুরকানীতে যুবলীগ নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলা

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৫ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

ইন্দুরকানীতে বাপ্পী মোল্লা (৩০) নামে এক যুবলীগ নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। হামলায় আহত ইমরান হোসেন বাপ্পী উপজেলার চন্ডিপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক। সোমবার (২৫ মার্চ) উপজেলা পরিষদের সামনের সড়কে এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় গুরুত্বর আহত যুবলীগ নেতাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, স্থানীয় সংসদ সদস্যের আগমন উপলক্ষে সোমবার (২৫ মার্চ) সকালে ইন্দুরকানী উপজেলা আওয়ামীলীগের নির্বাচনী কার্যালয়ে আলোচনা সভা শেষে ফেরার পথে আল মাদানী মসজিদের সামনে ৪/৫ জন যুবক অতর্কিত বাপ্পীর উপর লাঠি দিয়ে হামলা চালায়। এ সময় তার ব্যবহৃত মোটর সাইকেলটিও ভাংচুর করা হয়। হামলায় আহত বাপ্পীকে উদ্ধার করে প্রথমে ইন্দুরকানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ইন্দুরকানী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মাতুব্বর জানান, দলীয় আলোচনা শেষে বাপ্পী মোল্লা বাড়ি ফেরার পথে অজ্ঞাত কতিপয় যুবক তার উপর হামলা করে। হামলায় তার দুই পা ও হাতে মারাত্বক ইনজুরি হয়েছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ইন্দুরকানী থানার ওসি কামরুজ্জামান তালুকদার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, হামলা হয়েছে তবে নিজেরা নিজেরা। এটা তাদের অভ্যন্তরীন।


আরও খবর
অস্ত্রসহ কেএনএফের আরও ৮ সদস্য আটক

মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪

অস্ত্রসহ কেএনএফের আরও ৮ সদস্য আটক

মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪




বুয়েটের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা চাইলে চলবে রাজনীতি

প্রকাশিত:রবিবার ৩১ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ৩১ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) রাজনীতি করা বন্ধ হয়েছিল। তারা চাইলে আবার শুরু হবে। তবে সেই উদ্যোগ শিক্ষার্থীদের থেকেই নিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন বুয়েটের উপাচার্য সত্য প্রসাদ মজুমদার।

আজ রবিবার (৩১ মার্চ) দুপুর ২টার দিকে উপাচার্যের কক্ষে এই মন্তব্য করেন তিনি।

উপাচার্য বলেন, রাজনীতি না করলে দেশের প্রতি দায়িত্ববোধ আসবে না। রাজনীতি করার অধিকার সকলেরই আছে।

আন্দোলন ছেড়ে শিক্ষার্থীদের ক্লাসে যাবার আহ্বানও জানান তিনি। তদন্ত প্রতিবেদন পাবার পর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সামগ্রিক বিষয়ে সিদ্ধান্তে যাবে বলেও মন্তব্য করেন উপাচার্য সত্য প্রসাদ মজুমদার।

বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড ও ব্যক্তিদের ক্যাম্পাসে আসার প্রতিবাদে টানা বিক্ষোভ করে আসছিল বুয়েটের শিক্ষার্থীরা। অন্যদিকে বুয়েটে ছাত্ররাজনীতি বন্ধের প্রতিবাদ জানিয়ে কর্মসূচি পালন করছে ছাত্রলীগ।

এদিকে আজ ২২ তম ব্যাচের সকল বিভাগের পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থীর বিপরীতে দুইজন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে।

পরীক্ষায় অংশ না নেওয়া শিক্ষার্থীদের বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে এমন প্রশ্নে উপাচার্য বলেন, তারা আসলে আলোচনা করে কী ব্যবস্থা নেয়া যায় সেটি দেখা যাবে।


আরও খবর
১১ মের মধ্যেই এসএসসির ফল প্রকাশ

শুক্রবার ০৫ এপ্রিল ২০২৪




বিরল সূর্যগ্রহণ আজ, খালি চোখে দেখা যাবে যে তিন দেশ থেকে

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ এপ্রিল ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

বিরল সূর্যগ্রহণের সাক্ষী হতে যাচ্ছে বিশ্ববাসী। সোমবার (৮ এপ্রিল) এই বিরল সূর্যগ্রহণের দেখা মিলবে। এদিন সূর্যকে চাঁদ পুরোপুরি ঢেকে ফেলবে। আর এ দৃশ্য খালি চোখে যাবে যুক্তরাষ্ট্র, মেক্সিকো এবং কানাডা থেকে। বিরল এ সূর্যগ্রহণ দেখতে প্রস্তুত এসব দেশের লাখ লাখ মানুষ।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে আজ যেভাবে পূর্ণ সূর্যগ্রহণ দেখা যাবে ২০৪৪ সালের মধ্যে এমনটি আর দেখা যাবে না। স্থানীয় সময় ১১টা ৭ মিনিটে মেক্সিকোর প্রশান্ত মহাসাগরীয় উপকূলে দেখা যাবে প্রথম সূর্যগ্রহণ। এরপর চাঁদের ছায়া আস্তে আস্তে সরে যাওয়ার কারণে যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ২৭ মিনিটে দৃশ্যমান হবে সূর্যগ্রহণ।

বিরল এই সূর্যগ্রহণ দেখতে অনেক পর্যটক যুক্তরাষ্ট্রে ভিড় করেছেন। যেসব স্থান থেকে সরাসরি গ্রহণ দেখা যাবে, সেসব জায়গায় ছুটে যাচ্ছেন অসংখ্য মানুষ। তাই যেকোনো ধরনের দুর্ঘটনা এড়াতে জারি করা হয়েছে সতর্কতা।

এদিকে বিরল এই সূর্যগ্রহণ খালি চোখে দেখা নিয়ে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা। পূর্ণ এই সূর্যগ্রহণ খালি চোখে দেখতে নিষেধ করা হয়েছে। কারণ এক্ষেত্রে চোখের ক্ষতি হতে পারে। এ জন্য বিশেষ ধরনের গ্লাস দিয়ে এটি দেখার আহ্বান জানানো হয়েছে। বিরল এই সূর্যগ্রহণ দেখার জন্য সাধারণ কোনো সানগ্লাস চোখের জন্য নিরাপদ হবে না। এতে চোখ স্থায়ীভাবে অন্ধ হয়ে যেতে পারে। এজন্য বিশেষভাবে তৈরি সানগ্লাস ব্যবহার করে সূর্যগ্রহণ দেখতে হবে।

নাসার তথ্যানুযায়ী বিশ্ববাসী এ বছর আরও একটি সূর্যগ্রহণ দেখার সুযোগ পাওয়া যাবে। চলতি বছরের ২ অক্টোবর দ্বিতীয় সূর্যগ্রহণ হবে। দক্ষিণ আমেরিকা, উত্তর আমেরিকা, অ্যান্টার্কটিকা, প্রশান্ত মহাসাগর, আটলান্টিক মহাসাগর এবং উত্তর আমেরিকা থেকে এর দেখা মিলবে।

নিউজ ট্যাগ: সূর্যগ্রহণ

আরও খবর
তানজানিয়ায় বন্যা: নিহত ৫৮

মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪




চট্টগ্রামে পোশাক কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৯ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

চট্টগ্রামের বায়েজিদ টেক্সটাইল এলাকায় একটি পোশাক কারখানায় লাগা আগুন ২ ঘণ্টায় নিয়ন্ত্রণে এসেছে। ফায়ার সার্ভিসের ৯টি ইউনিটের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

শুক্রবার (২৯ মার্চ) সন্ধ্যা ৬টার দিকে কোরিয়ান গার্মেন্টস নামের ওই কারখানায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। এর আগে বিকাল ৪টার দিকে আগুন লাগার খবর পাওয়া যায়।

তবে তাৎক্ষণিকভাবে আগুন লাগার কারণ বা ক্ষয়ক্ষতির কোনো তথ্য জানা যায়নি বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।


আরও খবর
অস্ত্রসহ কেএনএফের আরও ৮ সদস্য আটক

মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪

অস্ত্রসহ কেএনএফের আরও ৮ সদস্য আটক

মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪




দুর্দান্ত বোলিংয়ের পরও স্বস্তিতে নেই বাংলাদেশ

প্রকাশিত:সোমবার ০১ এপ্রিল ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০১ এপ্রিল ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

৪৫৫ রানের লিড নিয়ে চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিন শেষ করেছে শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের বোলাররা দ্বিতীয় ইনিংসে ১০২ রানে লঙ্কানদের ৬ উইকেট তুলে নিলেও লিড সাড়ে চারশ ছাড়িয়ে যাওয়ায় স্বস্তিতে নেই স্বাগতিকরা। বাংলাদেশকে দুইশর আগে অলআউট করে প্রথম ইনিংসে ৩৫৩ রানের লিড নেয় সফরকারীরা।

বাংলাদেশকে ফলো-অন না করিয়ে চা-বিরতির পর দ্বিতীয় ইনিংসের ব্যাটিং শুরু করে শ্রীলঙ্কা। প্রথম ইনিংসে ৫৩১ রান করলেও লঙ্কানরা ধুঁকছে এবার। হাসান মাহমুদ চারটি ও খালেদ আহমেদ দুটি উইকেট তুলে নিয়ে ধস নামান। ৮৯ রানে ৯ উইকেট হারায় তারা। ৭ রানে জীবন পাওয়া অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ৩৯ রানে অপরাজিত আছেন। ৫০ বলের ইনিংসে ছিল তিনটি চারের মার।

হাসানের বলে শাহাদাত হোসেন দীপুর হাতে ক্যাচ দিয়েছিলেন ম্যাথুস। জীবন পেয়ে রয়েছেন ফিফটির পথে। সিলেট টেস্টের মতোই প্রথম ইনিংসই ম্যাচে গড়ে দিয়েছে ব্যবধান।

১৮০, ১৩৯, ১৮৮, ১৮২, ১৭৮ টেস্টে টানা পাঁচ ইনিংসে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের চিত্র। সবগুলোই ঘরের মাটিতে। শেষের তিনটি স্কোর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। লঙ্কানদের ৫৩১ রানের জবাবে চট্টগ্রাম টেস্টে স্বাগতিকরা গুটিয়ে গেছে ১৭৮ রানে। জাকির হাসান সর্বোচ্চ ৫৪ রান করেন।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিলেটে প্রথম টেস্টে বাংলাদেশ ১৮৮ ও ১৮২ তে অলআউট হয়ে ৩২৮ রানের বিশাল ব্যবধানে পরাজিত হয় নাজমুল হোসেন শান্তর দল।

চট্টগ্রামের ব্যাটিং উইকেটেও ভাগ্য ফেরেনি বাংলাদেশের। থামতে হয় দুইশর আগে। তার আগে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে মিরপুরে দ্বিতীয় টেস্টে ১৮০ ও ১৩৯ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ।

দ্বিতীয় উইকেটে প্রতিরোধ ভাঙার পর দ্রুত আরও দুই ব্যাটারকে হারিয়ে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। সেখান থেকে আর বের হতে পারেনি। সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, শাহাদাত হোসেন দীপু দ্রুত ফিরলে অল্পতেই গুটিয়ে যায় স্বাগতিকরা।

আসিথা ফার্নান্ডো নেন চারটি উইকেট। দুটি করে উইকেট শিকার করেছেন লাহিরু কুমারা, প্রবথ জয়াসুরিয়া ও বিশ্ব ফার্নান্ডো।

চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিনের পড়ন্ত বিকেলে নাইটওয়াচম্যান হিসেবে নেমেছিলেন। তৃতীয় দিন প্রথম ঘণ্টায় নিজের উইকেট অক্ষত রাখেন টাইগার বাঁহাতি স্পিনার।

দলীয় ৯৬ রানে বিশ্ব ফার্নান্দোর বলে আউট হন জাকির। ১ রান করে ফিরে যান অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। এরপর তাইজুলও আউট হন। ৯৬/১ থেকে বাংলাদেশের স্কোর হয়ে যায় ১০৫/৪।

শ্রীলঙ্কাকে ৫৩১ রানে থামিয়ে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালোই হয়েছিল বাংলাদেশের। দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ হওয়ার খানিকটা সময় আগে ভুল করে বসেন মাহমুদুল হাসান জয়। লাহিরু কুমারার বলে লাইন মিস করে বোল্ড হন শেষবেলায়।

৪২ বলে তিন চারে ২১ রান করে সাজঘরে ফেরেন জয়। ওপেনিংয়ে জাকিরের সঙ্গে জমে যাওয়া জুটি ভাঙে ৪৭ রানে। ৮২ রানে শেষ ৯ উইকেট হারিয়ে ফলো-অনে পড়ে বাংলাদেশ।


আরও খবর