আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

বাঙালির সব অর্জন এসেছে আ.লীগের হাত ধরে: তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | ২০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, দীর্ঘ ৭৩ বছরের পথচলায় আওয়ামী লীগের হাত ধরেই বাঙালি জাতির সব অর্জন এসেছে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

ড. হাছান বলেন, ‌বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে, বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ খাদ্য ঘাটতির দেশ থেকে খাদ্যে উদ্বৃত্তের দেশে, স্বল্পোন্নত থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হয়েছে। অর্থাৎ বাঙালি জাতির সমস্ত অর্জন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতৃত্বেই হয়েছে।

সম্প্রচারমন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতার পর আরও একটি বড় অর্জন হচ্ছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে, আওয়ামী লীগ সরকারের নেতৃত্বে বিশ্ববেনিয়াদের বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে পদ্মা সেতু নির্মিত হয়েছে। তাই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ইতিহাস প্রকৃতপক্ষে বাঙালি জাতিরই ইতিহাস। বাঙালি জাতির সমস্ত অর্জনের সঙ্গে জড়িয়ে আছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।

আগামী দিনের চ্যালেঞ্জ সম্পর্কে আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমাদের সামনে চ্যালেঞ্জ হচ্ছে, এখনো স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি বাংলাদেশে আস্ফালন করে এবং তাদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক হচ্ছে বিএনপি। বিএনপি এখনো জামায়াতে ইসলামীকে নিয়ে রাজনীতি করে এবং তারা এখনো ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। বাংলাদেশের উন্নয়ন-অগ্রগতি, স্বাধীনতার বিরুদ্ধে তারা এখনো ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সমস্ত ষড়যন্ত্রকে পরাস্ত করে আমরা বাংলাদেশকে উন্নতি সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি।

অতীতে যেমন সমস্ত ষড়যন্ত্রকে ছিন্ন করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে বিশেষ করে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে গেছে, আমরা ইনশাআল্লাহ ২০৪১ সাল নাগাদ সমস্ত ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বেই বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ রাষ্ট্রে পরিণত করব, বলেন হাছান মাহমুদ।


আরও খবর



স্বজন হারিয়ে হারিয়ে ফুটবলকেই বিদায় তেভেজের

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৫ জুন ২০২২ | ৪৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সবধরণের ফুটবল থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন আর্জেন্টাইন তারকা ফরোয়ার্ড কার্লোস তেভেজ। গত বছরের ৩১ মে সবশেষ তাকে পেশাদার ফুটবলে দেখা গিয়েছিল। আজ শনিবার এক বিবৃতিতে নিজের অবসরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তেভেজ নিজেই।

অবসরের কারণ হিসেবে এই আর্জেন্টাইন তারকা ফুটবলার জানিয়েছেন, তার সবচেয়ে বড় ভক্ত বাবা সেগুন্দো রাইমুন্দো তেভেজকে হারিয়েই ফুটবল থেকে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছিলেন তিনি। তাই ফুটবলকে চিরতরে বিদায় বলে দিলেন এই তারকা ফরোয়ার্ড।

যদিও তেভেজের বায়োলজিকাল বাবা নন সেগুন্দো রাইমুন্দো। তেভেজের জন্মের আগেই তার বায়োলজিকাল বাবাকে হারিয়েছেন। এরপরই তেভেজকে দত্তক নেন তার খালা আদ্রিয়ানো মার্তিনেজ ও তার স্বামী সেগুন্দো রাইমুন্দো। তাদের কাছেই মানুষ হন তিনি। সেগুন্দো রাইমুন্দো ছিলেন তেভেজের সবচেয়ে বড় ভক্ত।

অবসর নিয়ে তেভেজ বলেন, আমি অবসর নিয়েছি। এটা নিশ্চিত। আমি অনেক প্রস্তাব পেয়েছি। যুক্তরাষ্ট্র থেকেও আমার কাছে প্রস্তাব এসেছিল। কিন্তু সব শেষ। আমি আমার সবকিছু দিয়ে দিয়েছি। গত বছর আমার পক্ষে খেলা খুব কঠিন ছিল। কিন্তু তারপরও আমি আমার বাবাকে দেখতে পেতাম। আমি খেলা ছেড়ে দিয়েছি কারণ, আমি আমার এক নম্বর ভক্তকে হারিয়ে ফেলেছি।

উল্লেখ্য, গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেন সেগুন্দো রাইমুন্দো। তাকে হারানোর পর থেকেই নিজের জীবনের প্রতি অযত্নশীল হয়ে যান তেভেজ। একসময় আর্জেন্টিনার বড় তারকা হিসেবে দাপিয়ে বেড়ানো তেভেজ এ ঘটনার পর ফিটনেস হারিয়ে ফেলেন। এরপরই মাঠ থেকে দূরে সরে যেতে থাকেন।

তেভেজ ২০০৪ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ফুটবলে আর্জেন্টিনার প্রতিনিধিত্ব করেন। আলবিসেলেস্তেদের হয়ে এই তারকা ফুটবলার ৭৬ ম্যাচে ১৩ গোল করেছেন। দক্ষিণ আমেরিকা ও ইউরোপের মহাদেশীয় ক্লাব প্রতিযোগিতার শিরোপা জেতা মাত্র চার আর্জেন্টাইনের একজন তেভেজ। 


আরও খবর



নৃত্য উৎসবে যোগ দিতে দক্ষিণ কোরিয়া যাচ্ছেন পূজা

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | ৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দক্ষিণ কোরিয়ার দেইগু শহরে শুরু হতে যাচ্ছে ডান্স প্যারেডের অন্যতম আন্তর্জাতিক আসর 'দেইগু কালারফুল ফ্যাস্টিভ্যাল ২০২২'। আগামী ৮ জুলাই শুরু হয়ে উৎসব চলবে ১১ জুলাই পর্যন্ত। আর এই আন্তর্জাতিক ড্যান্স প্যারেড উৎসবে অংশ নিতে বাংলাদেশের অন্যতম নাচের দল তুরঙ্গমী নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ায় যাচ্ছেন পূজা সেনগুপ্ত। এই আয়োজনে প্রথমবার আমন্ত্রণ পেয়েছে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের নাচকে এশিয়াতে জনপ্রিয় করে তোলার জন্য আমন্ত্রণপত্রে ধন্যবাদ জানিয়েছে উৎসব আয়োজক কর্তৃপক্ষ। আগামী ৫জুলাই কোরিয়ার রাজধানী সিউলের উদ্দেশ্যে যাত্রা করবে তুরঙ্গমী নাট্যদল। যেখানে পূজা সেনগুপ্তের নের্তৃত্বে ১০ সদস্যের দলে রয়েছেন তৃরঙ্গমী রেপার্টরি ডান্স থিয়েটারের নৃত্যশিল্পী ও তুরঙ্গমী স্কুল অব ডান্সের শিক্ষার্থীরা। উৎসবে তুরঙ্গমীর দুটি প্রযোজনা 'পাঁচফোরণ' ও 'নন্দিনী' মঞ্চস্থ হবে। ১০ মিনিট ও ৫মিনিট দৈর্ঘ্যের প্রযোজনা দুটির ভাবনা, বিকাশ, নকশা, নৃত্যনির্মাণ ও নির্দেশনা দিয়েছেন পূজা সেনগুপ্ত। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পূজা সেনগুপ্ত নিজেই।

২০১৪ সালের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই বাংলাদেশি নাচের উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে তুরঙ্গমী নৃত্যদল। ২০১৪ ব্যাংকক ফেস্টিভ্যাল, ২০১৭ সালে ভিয়েতনাম আন্তর্জাতিক নৃত্য উৎসব, দিল্লী ইন্টারন্যাশনাল আর্ট ফেস্টিভ্যাল, ২০১৮ সালে রাশিয়া সেন্ট পিটার্সবুর্গ নৃত্য শিক্ষা সম্মেলনসহ অসংখ্য আন্তর্জাতি নৃত্য উৎসবে অংশ নিয়ে দেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন তুরঙ্গমী নৃত্যদল।

নিউজ ট্যাগ: পূজা সেনগুপ্ত

আরও খবর



খাদ্য সঙ্কটের মুখোমুখি হতে পারে পাকিস্তান : ইমরান

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | ৩৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে কৃষকদের সমস্যা দূর না করা হলে পাকিস্তানকে খাদ্য নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতে হতে পারে। ইসলামাবাদে এক কৃষক সম্মেলনে এমনই মন্তব্য করলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি বলেন, আমরা সবাই বড়সড় বিপদের সম্মুখীন। দেশের কৃষকদের অবস্থার দিকে বিশেষ মনোযোগ না দিলে পাকিস্তান ভবিষ্যতে খাদ্য সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে।

তিনি আরও বলেন, মানুষ ভয় পাচ্ছে যে রাশিয়া- ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে গমের সরবরাহ যে ভাবে প্রভাবিত হয়েছে তার কারণে দুর্ভিক্ষ দেখা দিতে পারে।

তিনি আরও জানান, খাদ্য নিরাপত্তাহীনতা একটি বড় সমস্যা। তবে ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের আবহে এই সমস্যা পাকিস্তান ছাড়াও একাধিক দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের ফলে গমের সরবরাহ এবং দাম উভয়ের উপরেই প্রভাব পড়েছে।

এ ছাড়াও দেশের কৃষকদের বেশ কয়েকটি সমস্যার কথাও তুলে ধরেন ইমরান। সম্প্রতি, জ্বালানি ও বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির ফলে কৃষকদের উৎপাদনের খরচ অনেকাংশে বেড়েছে। কিন্ত সে তুলনায় কৃষকরা লাভের মুখ দেখছেন না বলেও ইমরান সরব হন। পাশাপাশি, পাকিস্তানের ক্ষমতাসীন শেহবাজ সরকারকে দেশের বর্তমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়েও তিনি দুষেছেন। পাকিস্তানের মুদ্রাস্ফীতির জন্যও বর্তমান সরকারকেই দায়ী করেছেন ইমরান।

সম্প্রতি ইন্টারন্যাশনাল ফোরাম ফর রাইটস অ্যান্ড সিকিউরিটি (আইএফএফআরএএস) রিপোর্টে উঠে এসেছে, পাকিস্তানে কৃষি ব্যবস্থায় অবিবেচনাপ্রসূত পরিকল্পনা এবং অব্যবস্থাপনা পাকিস্তানকে তীব্র খাদ্য সঙ্কটের মুখে এনে ফেলেছে। এই রিপোর্ট অনুযায়ী, পাকিস্তানের গ্রামীণ এলাকার বিশাল সংখ্যক মানুষ অনাহারে দিন কাটাচ্ছেন। আর তা নিয়েই সরব পাকিস্তানের সদ্য অপসারিত প্রধানমন্ত্রী।


আরও খবর



বিশ্বসেরা ৮০০ তালিকায় নেই বাংলাদেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | ৪৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

যুক্তরাজ্যভিত্তিক প্রতিষ্ঠান কোয়াককোয়ারেল সাইমন্ডস (কিউএস) বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর র‌্যাংকিং ২০২৩ প্রকাশ করেছে। সংস্থাটির ওয়েবসাইটে গতকাল বুধবার বিশ্বসেরা এক হাজার ৪০০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এবারো প্রথম ৮০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) স্থান হয়নি।

গত বছরের মতো এই বছরের তালিকাতেও দেশের শীর্ষ দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ৮০১ থেকে ১০০০ এর মধ্যে রয়েছে। কিউএস তাদের তালিকায় ৫০০ এর পরে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অবস্থান সুনির্দিষ্ট করে উল্লেখ করেনি। একাডেমিক খ্যাতি, চাকরির বাজারে সুনাম, শিক্ষক-শিক্ষার্থী অনুপাত, শিক্ষকপ্রতি গবেষণা-উদ্ধৃতি, আন্তর্জাতিক শিক্ষক অনুপাত ও আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী অনুপাতের ভিত্তিতে বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর র‌্যাংকিং করে প্রতিষ্ঠানটি।

২০১২ সালে কিউএসর তালিকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ছিল ৬০১ এর মধ্যে। ২০১৪ সালে তা পিছিয়ে ৭০১তম অবস্থানের পরে চলে যায়। ২০১৯ সালে তালিকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান আরও পেছনের দিকে চলে যায়। দেশের শীর্ষ দুটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি ও ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি কিউএসর তালিকায় দ্বিতীয়বারের মতো ১০০১ থেকে ১২০০তম অবস্থানের মধ্যে রয়েছে। কিউএস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি র‌্যাংকিং ২০২৩-এ শীর্ষ ৫০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় প্রতিবেশী দেশ ভারতের ৯টি ও পাকিস্তানের তিনটি উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।


আরও খবর



বিয়ের পাঁচ দিনের মাথায় কিশোরীর রহস্যজনক মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | ৫০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ফরিদপুরের মধুখালীতে বিয়ের পাঁচ দিনের মাথায় তন্নী নামের এক কিশোরীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। গত শুক্রবার রাতে শ্বশুরবাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরিবারের অভিযোগ, তাকে অপহরণ করে জোর করে বিয়ে দেওয়া হয়। এরপর হত্যা করা হয়েছে।

পারিবার ও থানা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কোরকদি ইউনিয়নের খোদা বাশপুর গ্রামের জিল্লুর রহমান মোল্লার অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ে তন্নী  খাতুন (১৪)। একই ইউনিয়নের পাশের গ্রামের মোল্লাডংঙ্গী গ্রামের আফসার শেখের ছেলে সাব্বির শেখ গত ৬ জুন তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায় বলে তন্নীর পরিবারের অভিযোগ।

সাব্বিরের পরিবারের দাবি, সাব্বির ও তন্নীর চার মাস আগে বিয়ে হয়েছে। সর্বশেষ বাড়িতে মৌলভি ডেকে বিয়ে পড়ানো হয়। বিয়ের পাঁচ দিনের মাথায় সাব্বিরের বাড়িতে তন্নীর মরদেহ পাওয়া গেছে।

তন্নীর পরিবারের অভিযোগ, তন্নীকে হত্যা করা হয়েছে। সাব্বিরের পরিবার দাবি করছে, তন্নী আত্মহত্যা করেছে। গত শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে মধুখালী থানা পুলিশ তন্নীর মরদেহ উদ্ধার করে আজ শনিবার দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মধুখালী থানার ওসি মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, এখনও স্পষ্ট করে বলা মুশকিল। ময়নাতদন্তের  রিপোর্ট হাতে পেলেই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে। তাকে (তন্নী) মৃত অবস্থায় শোয়ার খাটে পেয়েছি।


আরও খবর