আজঃ শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

আজ থেকে আবারও সারাদেশে কঠোর বিধিনিষেধ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৬৫৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন (সামাজিক সংক্রমণ) শুরু হয়েছে। ১৫ থেকে ২০ শতাংশ করোনা রোগীই ওমিক্রনে আক্রান্ত বলে জানিয়েছেন স্বাস্হ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। রাজধানী ঢাকা ও পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটিকে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করেছে স্বাস্হ্য অধিদপ্তর; মাঝারি মাত্রার ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে সীমান্তবর্তী ছয় জেলা।

গত এক দিনে মোট আক্রান্তের ৮৩ শতাংশই ঢাকা বিভাগের। ওমিক্রন ঠেকাতে আজ বৃহস্পতিবার থেকে সারা দেশে কঠোর বিধিনিষেধ বাস্তবায়ন করা হবে। ১১ বিধিনিষেধের মধ্যে উন্মুক্ত স্হানে রাজনৈতিক ও সামাজিক সভা-সমাবেশ অনুষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এছাড়া উল্লেখযোগ্য নির্দেশনার মধ্যে রয়েছে গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচল, মাস্কবিহীন চলাচলকারীদের বিরুদ্ধে শাস্তির বিধান এবং বিধিনিষেধ কার্যকর করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা।

বিশেষজ্ঞ চিকিত্সকেরা বলেন, এই বিধিনিষেধ বাস্তবায়নের ওপরই নির্ভর করবে দেশের সংক্রমণ পরিস্হিতি। বিধিনিষেধ মানলে করোনা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে। তবে না মানলে পরিস্হিতি সামাল দেওয়া কঠিন হবে। হাসপাতালের ওপর চাপ বাড়বে। রোগীরা ভোগান্তিতে পড়বে। চিকিত্সাসেবা পাওয়া তখন ভাগ্যের ব্যাপার হয়ে দাঁড়াবে। টিকা নেওয়ার পাশাপাশি স্বাস্হ্যবিধি মানার বিধিনিষেধ কঠোরভাবে পালন করে সিঙ্গাপুর, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ডসহ কয়েকটি দেশ করোনা নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়েছে। দেশে যেহেতু ওমিক্রনের কমিউনিটি ট্রান্সমিশন শুরু হয়েছে, তাই স্বাস্হ্যবিধি না মানলে সামনে দ্বিগুণ হারে সংক্রমণ বাড়বে। সরকার আগে নো মাস্ক, নো সার্ভিস চালু করেছিল, কিন্তু তা বাস্তবায়নে প্রশাসন সফল হয়নি। এখন যদি মাস্ক পরা নিশ্চিত করা যায়, তাহলে ৯০ ভাগ নিরাপদে থাকা যাবে। মিল, কল-কারখানাসহ দেশের অর্থনীতির চাকা সচল থাকবে। খেটে খাওয়া মানুষের ভোগান্তি কমবে।

করোনা ভাইরাসের ডেলটা ধরনের দাপটে গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে রোগীর চাপে দেশের স্বাস্হ্যব্যবস্হা ভেঙে পড়ার উপক্রম হয়। ঐ সময় দৈনিক শনাক্ত রোগী ১৬ হাজারও ছাড়িয়ে যায়, এক দিনে আড়াই শতাধিক মানুষের মৃত্যুও বাংলাদেশকে দেখতে হয়। গত নভেম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত হওয়া করোনা ভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের সংক্রমণ ঠেকাতে আজ প্রথম পৃষ্ঠার পর প্রভাবে পুরো বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও আবার শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে।

মাইলফলকে বাংলাদেশ পৌঁছাল, যখন করোনা ভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের প্রভাবে দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ফের বাড়ছে। স্বাস্হ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গতকাল বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২ হাজার ৯১৬ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছে, যা আগের দিনের চেয়ে ১৯ শতাংশ বেশি। এক দিনে এর চেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছিল গত বছরের ৩ সেপ্টেম্বর, সেদিন ৩ হাজার ১৬৭ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছিল। নতুন রোগীদের নিয়ে দেশে মোট শনাক্ত কোভিড রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৬ লাখ ১ হাজার ৩০৫।

ওমিক্রন বাড়ার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশের প্রস্ত্ততি জানিয়ে স্বাস্হ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ২০ হাজার শয্যা তৈরি রেখেছিল। আরো ২০ হাজার শয্যা প্রস্ত্তত করা হচ্ছে। যদি ৪০ হাজার রোগী হয়, তাহলে রাখা যাবে। কিন্তু যদি ১ লাখ হয়, তাহলে কোথায় থাকবে? এখন মৃত্যুর হার কম আছে, কারণ হলো টিকা নেওয়া আছে। কিন্তু আক্রান্তের সংখ্যা যদি তিন-চারগুণ হয়ে যায়, তাহলে বেকায়দায় পড়তে হবে। এখনই সতর্ক না হলে আক্রান্তের সংখ্যা আরো বাড়বে। সে ক্ষেত্রে হাসপাতালে জায়গা দিতে সমস্যা হবে। আমরা ধরে নিই, ৫ শতাংশের হাসপাতালে আসতে হয়। এরই মধ্যে হাসপাতালে রোগী আসা শুরু হয়ে গেছে। আমরা দেখব, আগামী পাঁচ-সাত দিনের মধ্যেই অনেক রোগী হয়ে যাবে হাসপাতালে। তখন আবার একটা কষ্টকর অবস্হা তৈরি হবে। হাসপাতালে প্রেশার পড়বে, চিকিত্সক-নার্সদের ওপর প্রেসার পড়বে। সিট পেতে সমস্যা হবে, মৃত্যুর হার বেড়ে যাবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত চিকিত্সক অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ বলেন, করোনা নিয়ন্ত্রণ করতে হলে সরকারঘোষিত বিধিনিষেধ কঠোরভাবে পালন করতে হবে। এটা বাস্তবায়নের ওপরই দেশে সংক্রমণ পরিস্হিতি কোন দিকে যাবে, সেটা নির্ভর করছে। বিধিনিষেধ না মানলে চিকিত্সাসেবা প্রদান কঠিন হবে, দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রাখা যাবে না। তিনি বলেন, স্বাস্হ্যবিধি মানানোর বিষয়টি শুধু সরকারের একার দায়িত্ব নয়। প্রশাসন, স্হানীয় জনপ্রতিনিধিসহ সর্বস্তরের মানুষকে এক্ষেত্রে সচেতন হতে হবে।

বিশ্ব স্বাস্হ্য সংস্হার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের সাবেক উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. মোজাহেরুল হক বলেন, দেশে করোনার সংক্রমণ এখন বাড়তেই থাকবে। জনগণকে স্বাস্হ্যবিধি মানাতে বাধ্য করতে হবে। এজন্য কঠোর হতে হবে। অতীতে সরকার নো মাস্ক, নো সার্ভিস চালু করেছিল। কিন্তু প্রশাসন এক্ষেত্রে সফল হয়নি। স্বাস্হ্যবিধি মানতে কঠোর না হলে দেশের হাসপাতালের ওপর চাপ বাড়বে। রোগীরা চরম ভোগান্তিতে পড়বে। দেশে ৭০ শতাংশ চিকিত্সা খরচ জনগণের নিজের পকেট থেকে ব্যয় করতে হয়। দেশে করোনার সংক্রমণ ব্যাপক হারে বাড়লে চিকিত্সার বাইরে থাকবে সিংহভাগ মানুষ। সরকারের ১১ বিধিনিষেধ বাস্তবায়নের ওপর নির্ভর করবে দেশের করোনা পরিস্হিতি কোন দিকে যাবে। এক্ষেত্রে ঢিলেঢালা ভাব দেখানো যাবে না। তিনি বলেন, জেলা-উপজেলায় যে যেখানে আছে সেখানে যেন চিকিত্সাসেবা নিতে পারে, সেই ব্যবস্হা করতে হবে। উপজেলা হাসপাতালের সক্ষমতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

স্বাস্হ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (রোগ নিয়ন্ত্রণ) অধ্যাপক ডা. নাজমুল হক বলেন, সিঙ্গাপুর, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ডসহ বিশ্বের যেসব দেশ শতভাগ স্বাস্হ্যবিধি মেনে চলেছে, জনগণকে মানাতে বাধ্য করাতে পেরেছে এবং যারা টিকা নিয়েছে, তারা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সফল হয়েছে। আমরা যদি সরকারঘোষিত ১১ বিধিনিষেধ মেনে চলি, তাহলে সফল হব। আর না মানলে সামনে বিপদ।

সংক্রমণের মাত্রা বিবেচনায় সারা দেশকে লাল, হলুদ ও সবুজ- এই তিন ভাগে ভাগ করেছে স্বাস্হ্য অধিদপ্তর। লাল রংকে উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ, হলুদকে মধ্যম এবং সবুজকে কম ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

স্বাস্হ্য অধিদপ্তর বলছে, উচ্চ ঝুঁকির এলাকা ঢাকা ও রাঙ্গামাটি জেলায় নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১০ শতাংশ থেকে ১৯ শতাংশের মধ্যে। ইয়েলো জোন, অর্থাৎ মধ্যম মাত্রার ঝুঁকিতে থাকা রাজশাহী, রংপুর, নাটোর, লালমনিরহাট, দিনাজপুর, যশোরে শনাক্তের হার এখন ৫ শতাংশ থেকে ৯ শতাংশের মধ্যে।

আর সংক্রমণের হার শূন্য থেকে চার শতাংশের মধ্যে রয়েছে এমন ৫৪টি জেলাকে চিহ্নিত করা হয়েছে সবুজ রঙে। এই জেলাগুলো হলো- চট্টগ্রাম, বগুড়া, গাজীপুর, কক্সবাজার, কুষ্টিয়া, নীলফামারী, বরগুনা, শেরপুর, মেহেরপুর, ঠাকুরগাঁও, ফেনী, সিরাজগঞ্জ, জামালপুর, পিরোজপুর, বাগেরহাট, নারায়ণগঞ্জ, নওগাঁ, ঝালকাঠি, খুলনা, পটুয়াখালী, কুড়িগ্রাম, জয়পুরহাট, ফরিদপুর, বরিশাল, চুয়াডাঙ্গা, মানিকগঞ্জ, চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর, ময়মনসিংহ, রাজবাড়ী, সিলেট, সাতক্ষীরা, গোপালগঞ্জ, মৌলভীবাজার, নোয়াখালী, কিশোরগঞ্জ, গাইবান্ধা, শরীয়তপুর, মুন্সীগঞ্জ, নরসিংদী, খাগড়াছড়ি, ঝিনাইদহ, পাবনা, মাদারীপুর, মাগুরা, সুনামগঞ্জ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, কুমিল্লা, নেত্রকোনা, ভোলা, টাঙ্গাইল, হবিগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও নড়াইল।

এদিকে গত এক দিনে আরো চার জনের মৃত্যু হয়েছে, তাদের মধ্যে ২৮ হাজার ১১১ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে করোনা ভাইরাস। গত এক দিনে দেশে মোট ২৪ হাজার ৯৬৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে, তাতে শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ১১ দশমিক ৬৮ শতাংশ।

এর আগে গত বছরের ৩১ আগস্ট নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার এর চেয়ে বেশি ছিল। সেদিন প্রতি ১০০ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১১ দশমিক ৯৪ জনের কোভিড পজিটিভ এসেছিল। দেশে এখন সক্রিয় কোভিড রোগীর সংখ্যা ২১ হাজার ৫৪১ জন। দেশে প্রথমবারের মতো ঢাকার বাইরে করোনা ভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের রোগী শনাক্ত হয়েছে; যশোরের এ তিনজনসহ দেশে সরকারি হিসাবে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৩৩।

নিউজ ট্যাগ: কঠোর বিধিনিষেধ

আরও খবর



কোভিড : ভারতে দিনে শনাক্ত ১৬% ছাড়াল

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতে গত এক দিনে ২ লাখ ৬৮ হাজার ৮৩৩ জন কোভিড রোগী ধরা পড়েছে। দিনে শনাক্তের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬ দশমিক ৬৬ শতাংশে। ওমিক্রনের দাপটের মধ্যে আগের দিন শুক্রবারও দেশটিতে দুই লাখ ৬০ হাজারের বেশি শনাক্ত হয়েছিল। শনাক্তের হার ছিল ১৪ দশমিক ৭ শতাংশ।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য উদ্ধৃত করে ভারতের গণমাধ্যম শনিবার জানিয়েছে,গত এক দিনে ওমিক্রমে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৫ শতাংশ বেড়েছে। বৃহস্পতিবার দেশটিতে শনাক্তের সংখ্যা ছিল আড়াই লাখের নিচে। তবে একদিনের ব্যবধানেই শুক্রবার ৬ দশমিক ৭ শতাংশ রোগী বেড়ে আড়াই লাখ পার হয়ে যায়।

গত মে মাসের পর এখন পর্যন্ত এটাই একদিনে রোগী শনাক্তের সর্বোচ্চ সংখ্যা। ডেল্টার দাপটে গতবছর মার্চ-এপ্রিল-মে মাসে ভয়ঙ্কর বিপর্যয়ের মধ্যে দিয়ে যেতে হয় ভারতকে। সে সময় ৭ মে রেকর্ড ৪ লাখ ১৪ হাজার রোগী শনাক্ত হয়েছিল।

এনডিটিভি জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিডে আক্রান্ত ৪০২ জনের মৃত্যু হয়েছে, আগের দিন এই সংখ্যা ছিল ৩১৫ জন। মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪ লাখ ৮৫ হাজার ৭৫২।

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৬ হাজার ৪১ জন। কোভিডে সব থেকে বেশি বিপর্যস্ত মহারাষ্ট্র, নতুন করে সেখানে শনাক্ত হয়েছেন ৪৩ হাজার ২১১ জন। এরপরের অবস্থানেই রয়েছে দিল্লি। শুক্রবার সেখানে দৈনিক শনাক্তের হার বেড়ে দাঁড়ায় ৩০ দশমিক ৬৪ শতাংশে।

ভারতে সব মিলিয়ে শনাক্ত কোভিড রোগীর সংখ্যা ৩ কোটি ৬৭ লাখে পৌঁছেছে। মোট সক্রিয় কোভিড রোগীর সংখ্যা ১৪ লাখ ১৭ হাজার ৮২০ জন। মোট আক্রান্তের ৩.৮৫ শতাংশ এখন ভাইরাস সংক্রমিত অবস্থায় রয়েছে।

দেশটিতে এই মহামারীর সংক্রমণ ঠেকাতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশবাসীকে টিকা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, তার সরকার এখন পর্যন্ত দেশের ৭০ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ককে দুই ডোজ কোভিড টিকা দিতে পেরেছে।

মাস্ক পরিধানসহ কোভিড প্রটোকল মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। ভারতে একদিনে সুস্থ ১ লাখ ২২ হাজার ৬৮৪ জনকে মোট সুস্থ হয়েছেন তিন কোটি ৪৯ লাখ ৪৭ হাজার ৩৯০ জন।


আরও খবর



দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৬ দশমিক ৪ ডিগ্রি

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২ | ৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রংপুর-রাজশাহী বিভাগসহ দেশের আরও বেশ কিছু স্থানের ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে শৈত্যপ্রবাহ। এটি মাঝারি থেকে আরও বিস্তৃত হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) সকালে দিনাজপুর আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তা তোফাজ্জাল হোসেন এ তথ‌্য জানান।

তোফাজ্জাল হোসেন বলেন, দিনাজপুরে সকালে তাপমাত্রা ছিল ৮.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রাজারহাটে (কুড়িগ্রাম) ৬.৪ ডিগ্রি  সেলসিয়াস। রংপুর-রাজশাহী বিভাগসহ দেশের আরও বেশ কিছু স্থানের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে।

তিনি জানান, আজ সকাল ৬ টায় দিনাজপুরে বাতাসের আদ্রতা ছিল ৯৩ শতাংশ। দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রাজারহাটে ৬.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।গতকাল রাজারহাটে তাপমাত্রা ছিল ১৩.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এছাড়া রংপুর ৮.২ সৈয়দপুরে ৭.৮ রাজারহাট ৬.৪ ডিমলায় ৮.৪ নওগাঁয় ৭.৩, চুয়াডাঙ্গায় ৯.০, রাজশাহীতে ৮.৫, শ্রীমঙ্গলে ৯.৬, তেঁতুলিয়ায় ৭.৩, দিনাজপুরে ৮.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।


আরও খবর



সংসদে ইউটিউব বন্ধের দাবি

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৩২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইউটিউবে বিভিন্ন ধরনের অপপ্রচার হয় অভিযোগ করে বহুল ব্যবহৃত প্লাটফর্মটি বন্ধের দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য (এমপি) নাজিম উদ্দিন আহমেদ।

সোমবার (১৭ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন। এর আগে বেলা ১১টার স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়।

ময়মনসিংহ-৩ আসনের এই সংসদ সদস্য বলেন, ইউটিউবে দেখি খালেদা জিয়া মরে যাচ্ছেন। শেখ হাসিনা কালকেই ক্ষমতাচ্যুত হয়ে যাচ্ছেন। আবার দেখি সেনাপ্রধানদের টেনে নামানো হচ্ছে। এই যে অপপ্রচার-প্রপাগান্ডা ইউটিউবে আমরা দেখি এগুলো কোত্থেকে আসছে? এভাবে বিভ্রান্ত ছড়ানো হচ্ছে, তথ্য মন্ত্রণালয় কী করে আমরা বুঝি না। কালকে সকালে ঘুম থেকে উঠে শুনবেন শেখ হাসিনা ক্ষমতায় নেই- এই যে কথাগুলো বলা হয়, আমরা স্তম্ভিত হয়ে যাই। বলা হয় সত্য ঘটনা। এভাবে মানুষকে বিভ্রান্ত করা হয়। গ্রামের মানুষগুলো এসব দেখে ভাবেন, না জানি বাংলাদেশে কী হচ্ছে! তথ্য মন্ত্রণালয়কে বলবো দরকার হলে ইউটিউব বন্ধ করে দেন। ক্রিমিন্যাল ও স্বাধীনতাবিরোধীদের সঙ্গে আমাদের কোনো আপস থাকতে পারে না।

তার নির্বাচনী এলাকায় অনেক উন্নয়নমূলক কাজের প্রকল্প গ্রহণ করা হলেও তাতে গতি নেই অভিযোগ করে তিনি বলেন, এলাকার স্কুল-কলেজ ও রাস্তাঘাটের উন্নয়ন কাজ স্থবির হয়ে গেছে। উপজেলা পরিষদ নির্মাণ কাজের ডিজাইন দেওয়া হলেও সেই কাজ হয়নি। সমস্ত কাজ একের পর এক বন্ধের পথে রয়েছে। ঠিকাদাররা বলেন টাকা পাইনি, কাজ কোত্থেকে করবো। এমপির কোটার ২০ কোটি টাকার কাজও করা হয় না। এ রকম হলে নির্বাচনের সময় মানুষের কাছে জবাব দিতে পারবো না। নির্বাচনের আগে সামনে দুই বছর সময় আছে। এই সময়ের মধ্যে কাজগুলো শেষ করতে না পারলে নির্বাচনের সময় জনগণের সঙ্গে কথা বলতে পারবো না।

জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এই প্রবীণ রাজনীতিক আরও বলেন, সত্য কথা বলতে আমরা যদি সংসদে কথা বলি তাহলে বিষয়টি বিরোধীদলের ফ্লোরের মতো হয়ে যায়। আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় কিন্তু আমরা ভুগছি। আমলারা যেভাবে কথা বলেন! একটা এমপির মূল্য নেই আমলাদের কাছে। জাতীয় সংসদ সদস্য হিসেবে একজন সচিবের কাছে গেলে কোনো মূল্যায়ন নেই। তারা যে আমাদের শ্রদ্ধা করবেন- সেই শ্রদ্ধাবোধ নেই। পিয়ন পর্যন্ত আজকে আমাদের দাম দেয় না।


আরও খবর



আজ আপনার জন্মদিন হলে

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ আপনার জন্মদিন হলে পাশ্চাত্য জ্যোতিষে আপনি কুম্ভ রাশির জাতক/ জাতিকা। আপনার জন্মসংখ্যা : ৬। আপনার ওপর প্রভাবকারী গ্রহ : শুক্র ও ইউরেনাস। আপনার শুভ সংখ্যা : ৪ ও ৬। শুভ বার : রবি ও শুক্র। শুভ রত্ন : হীরা ও গার্নেট।

মেষ (২১ মার্চ-২০ এপ্রিল)

শরীর খুব একটা ভালো না-ও থাকতে পারে। আহারে-বিহারে সতর্ক থাকুন। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করুন। শত্রুরা ক্ষতি করার চেষ্টা করতে পারে। সীমা লঙ্ঘন করা ঠিক হবে না।

বৃষ (২১ এপ্রিল-২০ মে)

প্রেম-ভালোবাসার জন্য সময় অনুকূল থাকতে পারে। নিজের মনের কথা স্পষ্ট করে প্রকাশ করুন। রোমান্টিক প্রস্তাবে সাড়া পেতে পারেন। শিক্ষার্থীদের জন্য সময় অনুকূল থাকতে পারে। পরীক্ষায় আশানুরূপ সাফল্য পেতে পারেন।

মিথুন (২১ মে-২০ জুন)

আধ্যাত্মিক চিন্তা-চেতনা সমৃদ্ধি আসতে পারে। মাতৃস্বাস্থ্য ভালো যাবে। মন ভালো থাকবে। কোনো প্রত্যাশা পূরণ হতে পারে। পড়াশোনার প্রতি আগ্রহ বোধ করতে পারেন।

কর্কট (২১ জুন-২০ জুলাই)

ছোট ভাইবোনদের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো থাকতে পারে। প্রয়োজনে তাদের সহযোগিতা পেতে পারেন। কাজকর্মে উৎসাহ বোধ করতে পারেন। আত্মীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ হতে পারে। প্রাপ্ত তথ্যের ওপর নির্ভর করতে পারেন।

সিংহ (২১ জুলাই-২১ আগস্ট)

বাড়িতে অতিথি সমাগম হতে পারে। অতিথি আপ্যায়নে ব্যয় বৃদ্ধি পেতে পারে। মূল্যবোধ বজায় রাখুন। আর্থিক দিক ভালো যাবে। পড়াশোনায় আনন্দ পাবেন।

কন্যা (২২ আগস্ট-২২ সেপ্টেম্বর)

শরীর ভালো থাকবে। মানসিক প্রশান্তি বজায় থাকতে পারে। ভালো ব্যবহার দিয়ে কাজ আদায় করতে পারবেন। কাউকে দেখে ভালো লাগতে পারে। ব্যবসায়িক দিক ভালো যাবে।

তুলা (২৩ সেপ্টেম্বর-২২ অক্টোবর)

কোনো পূর্বকর্মের ফল ভোগ করতে পারেন। গোপন শত্রুরা ক্ষতি করার চেষ্টা করতে পারে। শত্রুদের দুর্বল ভাবা ঠিক হবে না। ব্যয় কমানোর চেষ্টা করুন। শারীরিক অসুস্থতাকে অবহেলা করবেন না।

বৃশ্চিক (২৩ অক্টোবর-২১ নভেম্বর)

আর্থিক দিক ভালো যাবে। উপার্জন বৃদ্ধির প্রচেষ্টা জোরদার করুন। ভবিষ্যতের জন্য কোনো পরিকল্পনা গ্রহণ করতে পারেন। জ্যেষ্ঠ ভাইবোনদের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো থাকতে পারে। প্রয়োজনে তাদের সহযোগিতা পেতে পারেন।

ধনু (২২ নভেম্বর-২০ ডিসেম্বর)

পিতৃস্বাস্থ্য ভালো যাবে। কর্মপরিবেশ অনুকূল থাকবে। কর্মস্থলে সহকর্মীদের সহযোগিতা পেতে পারেন। পাবলিক ইমেজ বৃদ্ধি পাবে। বেকারদের কারও কারও চাকরি হতে পারে।

মকর (২১ ডিসেম্বর-১৯ জানুয়ারি)

সামাজিক যোগাযোগ চালিয়ে যান। সে ক্ষেত্রে সাফল্য পেতে পারেন। পেশাগত দিক ভালো যাবে। কোনো আশা পূরণ হতে পারে। ভ্রমণের সুযোগ পেতে পারেন।

কুম্ভ (২০ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি)

উত্তরাধিকারসূত্রে কোনো সম্পত্তি পেতে পারেন। ট্যাক্স-সংক্রান্ত কোনো ঝামেলা হতে পারে। ব্যবসায়িক দিক ভালো যাবে না। সামাজিক সংকট এড়িয়ে চলুন। অন্যথায় বদনাম হতে পারে।

মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ)

দাম্পত্য সম্পর্ক ভালো থাকবে। কোনো ঘনিষ্ঠ বন্ধু সহযোগিতা পেতে পারেন। ব্যবসায়িক দিক ভালো থাকবে। প্রেম-ভালোবাসার জন্য সময় অনুকূল থাকতে পারে। অবিবাহিতদের কারও কারও বিয়ে হতে পারে।

 

নিউজ ট্যাগ: আজকের রাশিফল

আরও খবর
আজ আপনার জন্মদিন হলে

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২




ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রাকচাপায় নিহত ২

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় ট্রাকের চাপায় সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালকসহ ২ জন নিহত ও ৪ জন আহত হয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে মহাসড়কের খাড়েরায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহজালাল আলম দ্য ডেইলি স্টারকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, নিহত অটোরিকশাচালক কাউসার মিয়া (৩৫) কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাখরনগর গ্রামের বাসিন্দা। সকাল ১০টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত অপরজনের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

তিনি আরও জানান, কুমিল্লা অভিমুখী পণ্যবাহী ট্রাক ব্রাহ্মণবাড়িয়া অভিমুখী সিএনজিচালিত অটোরিকশাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই এর চালক ও একজন যাত্রী মারা যান।

'অটোরিকশার বাকি ৪ যাত্রী মারাত্মক আহত হলে স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। হাইওয়ে পুলিশ দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছে ২ জনের মরদেহ উদ্ধার করে,' যোগ করেন তিনি।

ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে বলেও জানান ওসি।


আরও খবর