আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

আইসিইউতে ভর্তি ‘এশিয়ার ব্র্যাডম্যান’ জহির আব্বাস

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ জুন 20২২ | ২৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গুরুতর অসুস্থ সাবেক পাকিস্তান অধিনায়ক জহির আব্বাস। শারীরিক অবস্থা ভালো না হওয়ায় তাকে রাখা হয়েছে আইসিইউতে। ৭৪ বছর বয়সী বর্তমানে লন্ডনের একটি হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

জিও নিউজের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, আব্বাসকে অক্সিজেন সাপোর্টে রাখা হয়েছে বেশ কয়েকদিন ধরেই। পরিস্থিতি অবনতি হওয়াতেই প্রাইভেট হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

আব্বাস দুবাই থেকে ইংল্যান্ড যাওয়ার পথে করোনায় আক্রান্ত হন। প্রথমে কিডনি জটিলতার কথা জানান তিনি। পরে লন্ডনে পৌঁছানোর পর পরীক্ষায় ধরা পড়ে নিউমোনিয়া। জিও নিউজকে একটি সূত্র জানিয়েছেন, তার ডায়ালাইসিস চলছে। চিকিৎসকরা তাকে লোকজনের সঙ্গে দেখা-সাক্ষাৎ করতেও নিষেধ করেছেন।

১৯৬৯ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পাকিস্তানের হয়ে অভিষেক হয় আব্বাসের। এশিয়ার ব্র্যাডম্যান খ্যাত এই ব্যাটার তার প্রজন্মের সেরাদের একজন। ৭২ টেস্টে ৫০৬২ ও ৬২ ওয়ানডেতে ২৫৭২ রান করেছেন তিনি। 

আব্বাস সবচেয়ে সফল ছিলেন প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে। ৪৫৯ ম্যাচ খেলে ৩৪ হাজার ৮৪৩ রান করেন তিনি। হাঁকিয়েছিলেন ১০৮টি সেঞ্চুরি ও ১৫৮টি ফিফটি করেছেন আব্বাস। অবসরের পর কিছুদিন ম্যাচ রেফারির দায়িত্ব পালন করেন তিনি।


আরও খবর



পিরোজপুরে ৭৫ জন মুক্তিযোদ্ধা পাচ্ছেন ‘বীর নিবাস’

প্রকাশিত:সোমবার ৩০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ৩০ মে ২০২২ | ৫১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মুজিববর্ষ উপলক্ষে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য দ্বিতীয় পর্যায়ে বীর নিবাস নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। সোমবার সকালে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহেদুর রহমান উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে বীর নিবাস নির্মাণের স্থান, তুষখালীর আশ্রয়ন প্রকল্পের কাজ, মঠবাড়িয়া থানা ও নিয়মিত পরিদর্শনের অংশ হিসেবে মঠবাড়িয়া পৌরসভার কার্যক্রম পরিদর্শণ করেন এবং বীর নিবাস নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। এছাড়া তিনি মঠবাড়িয়া পৌর ও সদর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের সেবা প্রত্যাশীদের বিশ্রামাগার ছায়াবিথী এর উদ্বোধন করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঊর্মি ভৌমিক, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাখাওয়াত জামিল সৈকত, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মঠবাড়িয়া সার্কেল) মোহাম্মদ ইব্রাহীম, ওসি মুহা. নূরুল ইসলাম বাদল, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিলন তালুকদার, পৌর নির্বাহী কর্মকর্তা হারুণ অর রশিদ প্রমুখ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিলন তালুকদার বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে মঠবাড়িয়ায় মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য দ্বিতীয় পর্যায় ৭৫ বীর নিবাস নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। ১৪ লাখ ২০ হাজার টাকা ব্যয়ে দুই কাঠা জমির ওপর নির্মিত প্রতিটি ভবনের আকার হবে ১৭৬৩ বর্গফুট। ২টি বেড রুম, ১টি ডাইনিং রুম, ১টি কিচেন রুম ও ২টি বাথ রুম থাকছে প্রতিটি বীর নিবাসে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঊর্মি ভৌমিক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভীষণ বাস্তবায়নে সরকার সারা দেশে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করছেন। এ উন্নয়নমূলক কাজ সঠিকভাবে বাস্তবায়নের লক্ষে জেলা প্রশাসক পরিদর্শন করেন। প্রধানমন্ত্রীর এ উন্নয়নমূলক কাজ অব্যাহত থাকবে।

নিউজ ট্যাগ: বীর নিবাস

আরও খবর



বেনাপোলে বোমা মারার পর গলা কেটে ইউপি সদস্যকে হত্যা

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ জুন 20২২ | ২৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

যশোরের শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) এক সদস্যকে গলা বোমা মেরে ও গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তেরা। আশানুজ্জামান বাবলু (৪৩) নামের ওই ইউপি সদস্যকে হত্যার ঘটনায় আহত হয়েছেন তিন জন। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টায় বেনাপোল পোর্ট থানার অধীন বালুন্ডা বাজারে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত আশানুজ্জামান বাবলু শার্শা উপজেলার ৭ নম্বর বাগআঁচড়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য। খবর পেয়ে বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ১টার দিকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে থনায় নিয়ে আসে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে পুলিশ জানায়, নিহত বাবলুর বালুন্ডা বাজারে একটি বাড়ি আছে। বাড়ির সামনে একটি চায়ের দোকানে বসে গল্প করছিলেন তিনি। কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই একদল সন্ত্রাসী মোটরসাইকেলে এসে প্রথমে চার/পাঁচটি বোমা নিক্ষেপ করে। বোমার শব্দে আশপাশের লোকজন পালিয়ে গেলে বাবলুকে ধরে গলা কেটে হত্যা করে চলে যায় দুর্বৃত্তেরা। এ ঘটনা পর থেকে এলাকায় চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে।

বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন ভূইয়া বলেন, কে বা কারা তাকে (আশানুজ্জামান বাবলু) হত্যা করেছে, তা এখনই বলা যাচ্ছে না। তবে বিষয়টির তদন্ত শুরু হচ্ছে।

ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের লাশ আজ বুধবার সকালে যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি কামাল হোসেন ভূইয়া। হত্যাকাণ্ডের পরিপ্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।


আরও খবর



বিয়ের পাঁচ দিনের মাথায় কিশোরীর রহস্যজনক মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১২ জুন ২০২২ | ৫০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ফরিদপুরের মধুখালীতে বিয়ের পাঁচ দিনের মাথায় তন্নী নামের এক কিশোরীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। গত শুক্রবার রাতে শ্বশুরবাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরিবারের অভিযোগ, তাকে অপহরণ করে জোর করে বিয়ে দেওয়া হয়। এরপর হত্যা করা হয়েছে।

পারিবার ও থানা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কোরকদি ইউনিয়নের খোদা বাশপুর গ্রামের জিল্লুর রহমান মোল্লার অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ে তন্নী  খাতুন (১৪)। একই ইউনিয়নের পাশের গ্রামের মোল্লাডংঙ্গী গ্রামের আফসার শেখের ছেলে সাব্বির শেখ গত ৬ জুন তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায় বলে তন্নীর পরিবারের অভিযোগ।

সাব্বিরের পরিবারের দাবি, সাব্বির ও তন্নীর চার মাস আগে বিয়ে হয়েছে। সর্বশেষ বাড়িতে মৌলভি ডেকে বিয়ে পড়ানো হয়। বিয়ের পাঁচ দিনের মাথায় সাব্বিরের বাড়িতে তন্নীর মরদেহ পাওয়া গেছে।

তন্নীর পরিবারের অভিযোগ, তন্নীকে হত্যা করা হয়েছে। সাব্বিরের পরিবার দাবি করছে, তন্নী আত্মহত্যা করেছে। গত শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে মধুখালী থানা পুলিশ তন্নীর মরদেহ উদ্ধার করে আজ শনিবার দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মধুখালী থানার ওসি মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, এখনও স্পষ্ট করে বলা মুশকিল। ময়নাতদন্তের  রিপোর্ট হাতে পেলেই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে। তাকে (তন্নী) মৃত অবস্থায় শোয়ার খাটে পেয়েছি।


আরও খবর



হাইকোর্টে দাখিল প্রতিবেদনে ‘সংবিধানে থাকা ৭ মার্চের ভাষণে শতাধিক ভুল’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | ৩৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণে শতাধিক ভুল পেয়েছে হাই কোর্টের নির্দেশে গঠিত উচ্চ পর্যায়ের কমিটি। বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) বিচারপতি মুজিবুর রহমান ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাই কোর্ট বেঞ্চে কমিটির প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ সংবিধানের পঞ্চম তফসিলে অসম্পূর্ণভুলভাবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে ২০২০ সালের ১০ মার্চ উচ্চ পর্যায়ের একটি কমিটি করতে নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট।

১৯৭১ সালের ৭ মার্চ তখনকার রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক সেই ভাষণের সময় সমাবেশে উপস্থিত থেকে যারা ভাষণটি সরাসরি শুনেছেন, তাদের কাউকে অন্তর্ভুক্ত করে কমিটি গঠন করতে বলা হয়। এ সংক্রান্ত এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের হাই কোর্ট বেঞ্চ রুলসহ ওই আদেশ দিয়েছিল।

প্রতিবেদন দাখিলের পর রিটকারীর আইনজীবী আব্দুল আলীম মিঞা জুয়েল বলেন, সংবিধানে জাতির জনকের ৭ মার্চের ভাষণে কমিটি ১১৭টি ভুল পেয়েছে।

স্বাধীনতার প্রাক্কালে ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেওয়া ওই ভাষণ সংবিধান ও পাঠ্যপুস্তকে ভুলভাবে অন্তর্ভুক্ত করার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাই কোর্টে রিট আবেদনটি করেন রাজবাড়ীর কাশেদ আলী। এরপর ভুলগুলো সংশোধনের জন্য ১০ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব বরাবরে একটি আবেদন করেন। কিন্তু তাতে সাড়া না পেয়ে ৫ মার্চ হাই কোর্টে এই রিট করেন।


আরও খবর



জনিকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার সামর্থ্য নেই অ্যাম্বারের

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৪ জুন ২০২২ | ৪৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সাবেক স্ত্রী আম্বার হার্ডের নামে করা মানহানির মামলায় জিতেছেন জনি ডেপ। সেদিন আদালতে ছিলেন না জনি, বিমর্ষ বদনে আদালতে বসেই বিচারকের রায় শুনেছেন আম্বার। আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী জনিকে ১৫ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ দিতে হবে অভিনেত্রীকে। আম্বারের বিমর্ষ চেহারায় সেদিন শুধু মামলায় হেরে যাওয়ার গ্লানিই ছিল না, ছিল অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তাও।

এত বিপুল পরিমাণ ক্ষতিপূরণ তিনি জনিকে দেবেন কোত্থেকে! মামলার শুনানি চলাকালীনই আম্বার হার্ডের আর্থিক সমস্যার কথা জানা গিয়েছিল। তাঁর আইনজীবী বলেন, আর্থিক অবস্থা ভালো নয় অ্যাম্বারের। এত ডলার দেওয়া তাঁর পক্ষে অসম্ভব।

শুনানি চলাকালীনই অ্যাম্বার হার্ডের আর্থিক সমস্যার কথা জানা গিয়েছিল। অভিনেত্রীর আইনজীবী বলেছিলেন, হার্ড কোনোভাবেই ক্ষতিপূরণের অর্থপ্রদানে সক্ষম নন। এমনকী মামলার রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে আদালতে হার্ড আবেদনের ইচ্ছেপ্রকাশ করবেন বলেও জানিয়েছেন তার আইনজীবী এলানি ব্রেডহফট। 

প্রসঙ্গত, ছয় সপ্তাহব্যাপী লম্বা এই হাই-প্রোফাইল শুনানি শেষ হয় বুধবার (০১ জুন)। এরপর ভার্জিনিয়ার ফেয়ারফ্যাক্স কাউন্টি সার্কিট কোর্টে সাত-সদস্যের বিচারক প্যানেলের ঘোষিত রায়ে জয় হয় জনি ডেপের।


আরও খবর