আজঃ মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

আগামীকাল গণতন্ত্র মুক্তি দিবস

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আগামীকাল ৬ ডিসেম্বর স্বৈরাচার পতন ও গণতন্ত্র মুক্তি দিবস। দীর্ঘ নয় বছরের স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের চূড়ান্ত পর্যায়ে গণঅভ্যুত্থানের মুখে ১৯৯০ সালের এ দিনটিতে পতন ঘটে তৎকালিন স্বৈরশাসকের।

এদিন তিন জোটের রূপরেখা অনুযায়ী নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরে বাধ্য হন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। এ আন্দোলনে প্রাণ হারান নূর হোসেন, সেলিম, দেলোয়ার, তাজুল, ডা. মিলন, নূরুল হুদা, বাবুল, ফাত্তাহসহ অনেকে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আগামীকাল দিবসটি পালন করবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণতন্ত্র মুক্তি দিবস উপলক্ষ্যে দেয়া এক বাণীতে বলেন, স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র বিরোধী চক্র এখনও নানাভাবে গণতন্ত্র ও দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র করছে। গণতান্ত্রিক অগ্রযাত্রায় শহীদের রক্ত বৃথা যেতে দিব না- গণতন্ত্র মুক্তি দিবসে এই হোক আমাদের সুদৃঢ় প্রত্যয়।

তিনি বলেন, আসুন, সকলে মিলে গণতন্ত্র ও দেশ বিরোধী সকল চক্রান্ত-ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে গণতন্ত্রের ভিত্তিকে আরো শক্তিশালী করি এবং দেশের উন্নয়ন ও জনগণের কল্যাণে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করে জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত ও সুখী-সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার, জনগণের ভোট ও মৌলিক অধিকারসমূহ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে আওয়ামী লীগ দীর্ঘ সংগ্রাম করেছে, দেশের মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে এতে অংশগ্রহণ করেছে। অব্যাহত আন্দোলনের ফলে স্বৈরাচারী শাসক গণআন্দোলনের কাছে ১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর নতি স্বীকার করে পদত্যাগে বাধ্য হয়। বহু শহীদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে বাংলাদেশে পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হয় ভোটের অধিকার। গণতন্ত্র পুন:প্রতিষ্ঠায় জাতি সকল শহীদের অবদান শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে।

বাণীতে তিনি গণতন্ত্র মুক্তি দিবসে গণতন্ত্র ও অধিকার আদায়ের সংগ্রামে জীবন উৎসর্গকারী সকল শহীদের আত্মার মাগফেরাত ও শান্তি কামনা করেন।


আরও খবর
ইতিহাসে আজকের এই দিনে

শুক্রবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৪

২৫ জানুয়ারি : ইতিহাসে আজকের এই দিনে

বৃহস্পতিবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৪




বেতাগীতে দুই দিনব্যাপী জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা সম্পন্ন

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মোঃ খাইরুল ইসলাম মুন্না, বেতাগী (বরগুনা) প্রতিনিধি

Image

বরগুনার বেতাগীতে দুই দিনব্যাপী ৪৫ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ এবং বিজ্ঞান মেলার প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণের মাধ্যমে মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) বিকেল ৫টায় সম্পন্ন হয়েছে।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, উদ্ভাবনেই সমৃদ্ধি'-এই প্রতিপাদ্যে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও উপজেলা পরিষদ চত্বরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় ও জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের তত্বাবধানে এ মেলা আয়োজন এবং উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে পুরুস্কার বিতরণ করা হয়।

এবারে মেলার মূল আকর্ষণ ছিল বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড, বিজ্ঞান বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা ও উপস্থিত বক্তৃতা। মেলায় প্রথম স্থান অর্জন করে বেতাগী সাইন্স সোইটি এবং উপজেলার  বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পক্ষে ২০ টি স্টল অংশ গ্রহণ করেন।

বেতাগী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. ফারুক আহমেদের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভমি) বিপূল সিকদার, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো: জামাল হোসেন, উপজেলা একাডেমিক সুপার ভাইজার মাসুদুর রহমান, বেতাগী প্রেসক্লাব সভাপতি সাইদুল ইসলাম মন্টু সহ অন্যান্যরা।

এর আগে সোমবার মেলার উদ্বোধন করেন, বেতাগী পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব এবিএম গোলাম কবির। প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো: মাকসুদুর রহমান ফোরকান। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো: আমিনুল ইসলাম পিন্টু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহামুদা খানম, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালেব সিকদার, মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম ফারুক, উপজেলা মহিলা বিষয় কর্মকর্তা আফরোজা সুলতানাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




আজকের রাশিফল: মঙ্গলবার ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জীবন ধারা ডেস্ক

Image

আজ নতুন কী ঘটতে চলেছে? আজ কি আপনার জন্য ভাল কিছু অপেক্ষা করে আছে? কেমন থাকবে আপনার আর্থিক অবস্থা? নাকি খারাপ কিছুর অপেক্ষা করে আছে আপনার ভাগ্যে। বিখ্যাত জ্যোতিষীর দ্বারা বিশ্লেষণের পর আজকের দিন নিয়ে ভবিষ্যত গণনা জানুন আপনার আজকের রাশিফলে।

মেষ রাশি: আর্থিক দিক থেকে আজকের দিনটি অবশ্যই ভালো। প্রতিটি কাজ আজ আত্মবিশ্বাসের সাথে করলে আপনার লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। নতুন কোনো উদ্যোগ বা খরচের সম্ভাবনা থেকে বিরত থাকুন। আপনি আজ হঠাৎই কর্মক্ষেত্র থেকে ছুটি নিয়ে পরিবারের সদস্যদের সাথে সময় কাটাতে পছন্দ করবেন। প্রেমের জন্য দিনটি নিঃসন্দেহে ভালো। বিবাহিত জীবনে আজ আপনি একটি চমকের সম্মুখীন হবেন।

প্রতিকার: কর্মজীবনে এবং ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে উন্নতির লক্ষ্যে দুর্গা চালিশা এবং দুর্গা মন্ত্র জপ করুন।

বৃষ রাশি: মন থেকে আজ সমস্ত নেতিবাচক চিন্তাকে দূরে সরিয়ে রাখুন। আপনি আজ কোনো কাজের পরিপ্রেক্ষিতে ঋণ পেতে পারেন। অযথা সময় নষ্ট করা থেকে বিরত থাকুন। আপনার মিশুকে মনোভাব আজ খুব সহজেই সবাইকে আকৃষ্ট করবে। প্রেমের জন্য আজকের দিনটি অবশ্যই ভালো। কর্মক্ষেত্রে প্রতিটি কাজ সতর্কতার সাথে করার চেষ্টা করুন। বিবাহিত জীবনে সুখ এবং শান্তি বজায় থাকবে।

প্রতিকার: শারীরিক দিক থেকে সুস্থ থাকার জন্য একজন দরিদ্র ব্যক্তিকে সেদ্ধ করার শস্য দান করুন।

মিথুন রাশি: কোনো কাজে কাঙ্ক্ষিত ফলাফল না এলে ভেঙে না পড়ে ফের সঠিকভাবে পরিশ্রম করুন। আপনার সঙ্কটের মুহূর্তে আপনি আত্মীয়দের কাছ থেকে সাহায্য পাবেন। আর্থিক দিক থেকে আজ আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে। পাশাপাশি, আর্থিক লেনদেন অথবা কোনো গুরুত্বপূর্ণ কাগজে সই করার আগে আপনাকে ভালোভাবে সচেতন হতে হবে। পরিবারের সদস্যদের মধ্যে আজ বিতর্কের সম্ভাবনা রয়েছে। ঠান্ডা মাথায় বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করুন। বিবাহিত জীবনে সুখ এবং শান্তি বজায় থাকবে।

প্রতিকার: শারীরিক দিক থেকে সুস্থ থাকার জন্য লাল রঙের পোশাক পরিধান করুন।

কর্কট রাশি: মন থেকে আজ সমস্ত নেতিবাচক চিন্তাকে দূরে সরিয়ে রাখুন। অযথা অর্থব্যয় থেকে আপনাকে বিরত থাকতে হবে। পরিবারের একজন সদস্যের শরীর খারাপ হয়ে যাওয়ার কারণে আগে থেকে করা কোনো ভ্রমণের পরিকল্পনা আজ স্থগিত হয়ে যেতে পারে। কর্মক্ষেত্রে দিনটি ভালোভাবে কাটবে। আপনার কাছে আজ কিছুটা অবসর সময় থাকবে। সেই সময়ে আপনি আপনার পুরোনো বন্ধুদের সাথে দেখা করতে পারেন। বিবাহিত জীবন নিঃসন্দেহে সুখের হবে।

প্রতিকার: পারিবারিক জীবনে সুখ এবং শান্তি বজায় রাখার লক্ষ্যে একটি পাঁচ বছরের শিশু কন্যাকে সবুজ রঙের মিষ্টি প্রদান করুন।

সিংহ রাশি: শরীরের প্রতি আজ অবশ্যই যত্নশীল হন এবং শরীরকে সুস্থ রাখতে কিছুটা বিশ্রাম গ্রহণ করুন। পাশাপাশি, পুষ্টিকর খাবার খান। কোনো পুরোনো বিনিয়োগের মাধ্যমে আজ আপনার লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আপনি আজ পূর্বপুরুষের সম্পত্তির উত্তরাধিকার পেতে পারেন। ভালোবাসার মানুষটির জন্য আজ আমি একটি বিশেষ পরিকল্পনা করবেন। জীবনসঙ্গীর সাথে দিনটি দুর্দান্তভাবে অতিবাহিত হবে।

প্রতিকার: শারীরিক দিক থেকে সুস্থ থাকার জন্য কোনো পবিত্র বা ধর্মীয় স্থানে পতাকা অথবা ব্যানার দান করুন।

কন্যা রাশি: এই রাশির ব্যবসায়ীরা তাঁদের কোনো বন্ধুর কাছ থেকে ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে কিভাবে লাভবান হতে হয় সেই সম্পর্কে পরামর্শ পেতে পারেন। পরিবারের সদস্যদের সাথে আজ অবশ্যই ঠান্ডা মাথায় কথা বলুন। কর্মক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনের জন্য আপনার কাজের মধ্যে নতুন নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার করুন। প্রেমের জীবন সুখের হবে। আপনি আজকে রাত্রিবেলায় কোনো পার্কে অথবা বাড়ির ছাদে একাকী হাঁটাহাঁটি করতে পছন্দ করবেন। অর্ধাঙ্গিনীর সাথে দিনটি ভালোভাবে অতিবাহিত হবে।

প্রতিকার: পারিবারিক জীবনে সুখ এবং শান্তি বজায় রাখার লক্ষ্যে শান্ত মনে প্রতিদিন ২৮ বার ওঁম মন্ত্রটি জপ করুন।

তুলা রাশি: আপনার মধ্যে আজ ভরপুর আত্মবিশ্বাস বজায় থাকবে। তাই, এই দিনটিকে সঠিকভাবে কাজে লাগান। আপনার আজ বিপুল অর্থব্যয়ের সম্ভাবনা রয়েছে। যার ফলে মানসিক চাপ বৃদ্ধি পেতে পারে। এই রাশির কিছু অভিভাবক তাঁদের সন্তানদের কোনো গুরুত্বপূর্ণ কৃতিত্বের মাধ্যমে অত্যন্ত গর্বিত হবেন। প্রেমের জীবনে আজ আপনি একটি চমকের সম্মুখীন হতে পারেন। কোনো কাজ শুরু করার আগে আজ সেই বিষয়ে অভিজ্ঞ ব্যক্তিদের সাথে পরামর্শ করুন। বিবাহিত জীবনে সুখ এবং শান্তি বজায় থাকবে।

প্রতিকার: আর্থিক অবস্থার উন্নতির জন্য বাড়ির দরজা এবং জানালায় পর্দা লাগান।

বৃশ্চিক রাশি: আপনি আজ দীর্ঘসময় ধরে চলা কোনো মানসিক চাপ থেকে পরিত্রাণ পেতে পারেন। আর্থিক দিক থেকে আজকের দিনটি খুব একটা ভালো নয়। তাই, অবশ্যই সতর্ক থাকুন। মনে রাখবেন, আমাদের জীবনে সময় হল অত্যন্ত মূল্যবান। তাই, অযথা সময় নষ্ট করা থেকে বিরত থাকুন। প্রেমের জীবনে আজ আপনি হতাশ হতে পারেন। সামগ্রিকভাবে আজকের দিনটি অত্যন্ত ব্যস্ততার মধ্যে কাটবে। বিবাহিত জীবনে কোনো সমস্যার সম্মুখীন হলে নিজেরাই তা মিটিয়ে ফেলার চেষ্টা করুন।

প্রতিকার: পারিবারিক জীবনে সুখ এবং শান্তি বজায় রাখার জন্য কাঁচা হলুদ ও পাঁচটি অশ্বত্থ গাছের পাতা রাতে ঘুমনোর সময়ে আপনার বালিশের তলায় রেখে দিন।

ধনু রাশি: আপনি আজ কোনো খেলাধূলায় ব্যস্ত থাকতে পারেন। কর্মক্ষেত্রে আপনার মূল্যবান জিনিসপত্রগুলিকে আজ সতর্কতার সাথে রাখুন। নাহলে সেগুলি চুরির সম্ভাবনা রয়েছে। শিশুদের সাথে আজ অবশ্যই কিছুটা সময় কাটান। এর ফলে আপনার মন ভালো হয়ে যাবে। কোথাও কোনো সমস্যার সম্মুখীন হলে আজ অভিজ্ঞ ব্যক্তিদের কাছ থেকে পরামর্শ গ্রহণ করুন। অর্ধাঙ্গিনীর কোনো আচরণ আজ আপনার খারাপ লাগতে পারে।

প্রতিকার: আর্থিক দিক থেকে উন্নতির লক্ষ্যে সাধু বা প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের খাটিয়া দান করুন।

মকর রাশি: আর্থিক দিক থেকে আজকের দিনটি খুব একটা খারাপ নয়। একজন দূর সম্পর্কের আত্মীয়ের কাছ থেকে আজ আপনি একটি অপ্রত্যাশিত সুসংবাদ পেতে পারেন। যার ফলে আপনার পুরো পরিবারে খুশির আমেজ বজায় থাকবে। প্রেমের জীবনে আজ আপনি একটি চমকের সম্মুখীন হবেন। কোনো নতুন প্রকল্পে যুক্ত হওয়ার আগে আজ সেই বিষয়ে সমস্ত তথ্য ভালোভাবে জেনে নেওয়ার চেষ্টা করুন। আপনার কাছে থাকা অবসর সময়টিকে সঠিকভাবে কাজে লাগান। অর্ধাঙ্গিনীর সাথে দিনটি ভালোভাবে অতিবাহিত হবে।

প্রতিকার: কর্মজীবনে উন্নতির জন্য প্রতিদিন সকালে বুধের গায়েত্রী মন্ত্র অর্থাৎ ওম চন্দ্রপুত্রায় বিদ্যাহে রোহিণীপ্রিয়ায় ধীমহি, ধন্য বুধয়া প্রচোদয়া-মন্ত্রটি জপ করুন।

কুম্ভ রাশি: শরীরকে সুস্থ রাখতে আজ অবশ্যই কিছুটা বিশ্রাম গ্রহণ করুন। কোনো কাজে আপনি ভাই-বোনদের কাছ থেকে সাহায্য পেতে পারেন। বন্ধুদের সাথে আজকের দিনটি দুর্দান্তভাবে অতিবাহিত হবে। গাড়ি চালানোর সময়ে আজ অবশ্যই সতর্ক থাকুন। প্রেমের জন্য আজকের দিনটি খুব একটা খারাপ নয়। কর্মক্ষেত্রে আপনি একটি চমকের সম্মুখীন হবেন। আপনার কাছে থাকা অবসর সময়টিকে আজ সঠিকভাবে কাজে লাগান। বিবাহিত জীবন নিঃসন্দেহে সুখের হবে।

প্রতিকার: পারিবারিক জীবনে সুখ এবং শান্তি বজায় রাখার লক্ষ্যে রুপোর তৈরি লকেট গলায় পড়ুন অথবা আপনার কাছে সবসময় রাখুন।

মীন রাশি: কোনো কাজে আপনার সঠিক পরিশ্রম এবং পরিবারের সদস্যদের সময়মতো সমর্থনের ফলে আপনি কাঙ্ক্ষিত সাফল্য অর্জন করতে পারেন। আজ আপনার কোথাও ভ্রমণের সম্ভাবনা থাকলে নিজের মূল্যবান জিনিসপত্রগুলির প্রতি সতর্ক থাকুন। নাহলে সেগুলি চুরির সম্ভাবনা রয়েছে। বাড়ির চারপাশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখুন। আজ আপনার ভালোবাসার মানুষটি কোনো বিষয়ের পরিপ্রেক্ষিতে অত্যন্ত রেগে থাকতে পারেন। তাঁকে শান্ত করার চেষ্টা করুন। কর্মক্ষেত্রে প্রতিটি কাজ সতর্কতার সাথে করতে হবে।

প্রতিকার: আর্থিক দিক থেকে উন্নতির জন্য আটার তৈরি রুটি পাখিদের খাওয়ান।


আরও খবর
খাতনা করার আগে-পরে যেসব বিষয় জানা জরুরি

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নারীর জন্য প্রয়োজনীয় পাঁচ ভিটামিন

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




জাতীয় সংসদে ১২টি স্থায়ী কমিটি গঠন

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

জাতীয় সংসদে আজ ১২টি গুরুত্বপূর্ণ সংসদীয় স্থায়ী কমিটি গঠিত হয়েছে। সরকারি শত ব্যস্ততার মাঝেও নিজের হাতে লিখে কমিটিগুলো গঠনে সহযোগিতা করায় প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

তিনি বলেন, জাতীয় সংসদে মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত মোট ৫০টি স্থায়ী কমিটি ইতোমধ্যে প্রস্তুত করা হয়েছে। গত ৩০ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদের অধিবেশন শুরু হওয়ার পর আজ দ্বিতীয় কার্য দিবসে সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজ হাতে স্থায়ী কমিটি গুলোর সদস্যদের নাম লিখে দিয়েছেন। এটা সংসদীয় গণতন্ত্রের ইতিহাসে একটা অনন্য দৃষ্টান্ত ও মাইলফলক। প্রধানমন্ত্রীর হাতে লেখা কমিটি গুলোর তালিকা মহামূল্যবান দলিল হিসেবে সংসদে সংরক্ষণ করা হবে।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে আজ জাতীয় সংসদে চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী কমিটি গঠনের প্রস্তাব করলে তা কণ্ঠভোটে সর্বসম্মতিক্রমে পাস হয়। ১২টি কমিটির মধ্যে সংসদ নেতার অনুমোদনক্রমে স্পিকার নিজে দুটি কমিটি গঠনের প্রস্তাব করেন।

জাতীয় পার্টির সদস্য হাফিজ উদ্দিন আহম্মেদকে সভাপতি করে সরকারি হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন-সাবেক অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, মোস্তাফিজুর রহমান, কামরুল ইসলাম, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, ফয়জুর রহমান, মুজিবুল হক, জাহিদ মালেক ও সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী।

আবুল কালাম আজাদকে সভাপতি করে সরকারি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন- মোরশেদ আলম, আশরাফ আলী খান খসরু, সৈয়দ মোহাম্মদ ইব্রাহিম, আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, নুরুজ্জামান আহমেদ, মো. সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারি ও আনোয়ারুল আশরাফ খান।

ক্যাপ্টেন (অব.) এ বি তাজুল ইসলামকে সভাপতি করে অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন- নূর-ই-আলম চৌধুরী, সালমান ফজলুর রহমান, মাহবুবউল আলম হানিফ, মো. রশিদুজ্জামান, মো. নজরুল ইসলাম, প্রাণ গোপাল দত্ত, মো. আব্দুল ওয়াদুদ ও শাহরিয়ার আলম।  

মোহাম্মদ সাদিককে সভাপতি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন-জনপ্রশাসন মন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, নূর-ই-আলম চৌধুরী, ড. বীরেন শিকদার, শরীফ আহম্মেদ, মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, শাহজাদ আকবর, মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান আসাদ ও শাহ সরওয়ার কবীর।

মুহিবুর রহমান মানিককে সভাপতি করে সরকারি প্রতিশ্রুতি সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন- মুজিবুল হক, মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম, কামাল আহমেদ মজুমদার, মো. শফিকুর রহমান, ওমর ফারুক চৌধুরী ও এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান।

গোলাম দস্তগীর গাজীকে সভাপতি করে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন- বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক, আনোয়ারুল আজিম আনার, আনোয়ারুল আশরাফ খান, আব্দুল মমিন মন্ডল, মো. ওয়াকিল উদ্দিন, খান আহম্মেদ শুভ, রাগেবুল আহসান রিপু ও নাসের শাহরিয়ার জায়েদী।

সাজ্জাদুল হাসানকে সভাপতি করে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন- বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী মোহাম্মদ ফারুক খান, আশেক উল্লাহ রফিক, আনোয়ার হোসেন খান, শেখ তন্ময়, মো. মহিউদ্দিন বাচ্চু, শফিউল আলম চৌধুরী ও মো. খসরু চৌধুরী।

আমির হোসেন আমুকে সভাপতি করে শিল্প মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন- শিল্প মন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, কামাল আহমেদ মজুমদার, মির্জা আজম, এ কে এম শামীম ওসমান, আব্দুল ওদুদ, আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী, মোহিত উর রহমান শান্ত ও এ বি এম আনিসুজ্জামান।

শফিকুল ইসলামকে সভাপতি করে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন- স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ, মোহাম্মদ সাঈদ খোকন, সানোয়ার হোসেন, মতিয়ার রহমান, ইকবাল হোসেন, রেজাউল হক চৌধুরী ও মোহাম্মদ আলী।

শাজাহান খানকে সভাপতি করে খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন- খাদ্য মন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার, মকবুল হোসেন, আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব, মোস্তফা আলম, আবুল কালাম মোহাম্মদ আহসানুল হক চৌধুরী, এস এম কামাল হোসেন, এস এ কে একরামুজ্জামান ও খাঁন মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ আল মেহেদী।

পদাধিকার বলে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীকে সভাপতি করে কার্য-উপদেষ্টা কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আমির হোসেন আমু, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, ওবায়দুল কাদের, রাশেদ খান মেনন, গোলাম মোহাম্মদ কাদের, আনিসুল হক, আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী, শামসুল হক টুকু, ডা. দীপু মনি, নূর-ই-আলম চৌধুরী ও এ কে এম রেজাউল করিম তানসেন।

চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরীকে সভাপতি করে সংসদ কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির সদস্যরা হলেন-র আ ম ওবায়দুল মোক্তাদির চৌধুরী, ইকবালুর রহিম, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, মো. আবু জাহির, আশিক উল্লাহ রফিক, কাজী নাবিল আহমেদ, সানোয়ার হোসেন, সাজ্জাদুল হাসান, এস এম শাহজাদা ও এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান।


আরও খবর



১৮ বিশিষ্ট ব্যক্তিকে একুশে পদক দিচ্ছে চসিক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

প্রতি বছরের মতো এবারও ২০২৪ সালের জন্য চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন একুশে পদক ঘোষণা করেছেন।

অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে কৃতি ব্যক্তিত্বদের সম্মাননা দিচ্ছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)। এবছর ১৮ কবি-ছড়াকার, সাংবাদিক, নাট্যব্যক্তিত্ব, গবেষক, শিক্ষবিদ, চিকিৎসকসহ সমাজের বিশিষ্টজনদের পদকে ভূষিত করছে চসিক।

আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) সিআরবি শিরীষতলায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন আয়োজিত একুশের বইমেলা মঞ্চে এসব গুণীজনদের হাতে পুরস্কার তুলে দেবেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন সিটি মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা এম রেজাউল করিম চৌধুরী।

চসিক একুশে পদকপ্রাপ্তরা হলেন- মো: নাছির উদ্দিন (শিল্প উন্নয়ন ও সমাজসেবায়)। রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী শ্রেয়সী রায়, (সংস্কৃতিতে), শহীদ সাইফুদ্দিন খালেদ, (মুক্তিযুদ্ধ-স্বাধীনতা আন্দোলনে), আসহাব উদ্দিন আহমদ, (ভাষা আন্দোলনে), প্রফেসর প্রদীপ চক্রবর্তী-শিক্ষায় (চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান), সম্পাদক রুশো মাহমুদ (সংবাদ পত্র শিল্পের বিকাশ ও মনোন্নয়নে), প্রফেসর ডা. মহাম্মদ গোফরানুল হক (চিকিৎসায়), জসীম চৌধুরী সবুজ (সাংবাদিকতায়), নাট্যব্যক্তিত্ব শিশির দত্ত (নাটকে), শৈবাল চৌধুরী (স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ ও গবেষণা), ফজিলাতুল কদর (নারী জাগরণ ও নারী নেতৃত্বে), জাকির হোসেন লুলু (ক্রীড়ায়), শামসুল আরেফীন (লোকসাহিত্য গবেষণা) ও ড. শামসুদ্দিন শিশির(প্রবন্ধ গবেষণা), কবি আবসার হাবীব ও কবি ভাগ্যধন বড়ুয়া (কবিতায়), শিশুসাহিত্যিক অরুণ শীল ও শিশুসাহিত্যিক শিবুকান্তি দাশ (শিশুসাহিত্যে)।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পর্যায়ক্রমে সব উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম তৈরি করা হবে: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানিয়েছেন, পর্যায়ক্রমে সব উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম তৈরি করা হবে। তিনি বলেন, এর মূল লক্ষ্য সব ধরনের খেলার পাশাপাশি দেশীয় খেলাগুলো যেন হারিয়ে না যায়, সেটির চর্চা বাড়ানোর উদ্যোগ নিতে হবে। আজকের শিশুরা যাতে লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলার মাধ্যমে সুস্থ নাগরিক হয়ে পরিবার, সমাজ এবং দেশের জন্য অবদান রাখতে পারে।

বুধবার (০৭ ফেব্রুয়ারি) ৫২তম শীতকালীন জাতীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা-২০২৪ এর চূড়ান্তপর্বের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী দেশীয় খেলাগুলো যেন হারিয়ে না যায়, যেমন হাডুডু থেকে শুরু করে সব ধরনের দেশীয় খেলার চর্চা বাড়ানোর আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের ছেলে-মেয়েরা মেধাবী। সুযোগ করে দিলে তারা আরও ভালো করতে পারবে। সব ধরনের খেলাকে আমাদের হাতে আনতে হবে। আমাদের কিছু দেশীয় খেলা, সেই ডাংগুলি থেকে শুরু করে, বিভিন্ন খেলাধুলা আগে প্রচলিত ছিল। সেগুলো আমাদের আবার চালু করা উচিত। আমাদের নিজস্ব দেশীয় খেলাগুলো, হাডুডু থেকে শুরু করে সবগুলো খেলা সক্রিয় রাখতে উদ্যোগ নিতে হবে। আমাদের ছেলে-মেয়েরাসহ সবাই মিলে উদ্যোগ নেবে, যেন দেশীয় খেলাগুলো হারিয়ে না যায়।

তিনি আরও বলেন, খেলাধুলাকে আমাদের সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। আমি চাই, আমাদের ছেলেমেয়েরা আরও বেশি উন্নত প্রশিক্ষণ নিক। তাদের উন্নত প্রশিক্ষণ দরকার। কাজেই আগে প্রশিক্ষক তৈরি করা একান্তভাবে দরকার। প্রতিটি বিভাগে ক্রীড়া প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি) গড়ে তোলা হবে। যেন আমাদের ছোট্ট শিশুরা খেলাধুলায় আরও বেশি পারদর্শী হতে পারে। ছোট বেলা থেকে যদি শিশুদের খেলাধুলায় প্রশিক্ষণ দেয়া যায়, তাহলে তারা আগামীতে দক্ষতার পরিচয় দিতে পারবে।

তিনি বলেন, উপজেলা পর্যায়ে কয়েকটি মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণ করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সব উপজেলায় এটি তৈরি করা হবে। যাতে লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলার মাধ্যমে সুস্থ নাগরিক হয়ে পরিবার, সমাজ এবং দেশের জন্য অবদান রাখতে পারে আজকের শিশুরা। এটা (স্টেডিয়াম) তৈরি করার মূল লক্ষ্য হলো, তারা যেন কোনো নো কোনো খেলার সাথে সারা বছর যুক্ত থাকতে পারে। ক্রিকেট ও ফুটবল স্টেডিয়াম তো আছে সেগুলো আলাদা। কিন্তু উপজেলা পর্যায়ে কয়েকটি মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণ করার একটা লক্ষ্য হচ্ছে, সেখানে সব ধরনের খেলাধুলা হবে, প্রতিযোগিতা হবে। আন্তঃস্কুল, আন্তঃকলেজ ও আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় খেলার প্রতিযোগিতার আয়োজন করার জন্য।


আরও খবর