আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

আচরণবিধি লঙ্ঘন করলেন সাবেক ইসি সচিব ড. সাদিক

প্রকাশিত:রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:রবিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

নির্বাচনী আচরণবিধি ভাঙার অভিযোগে সুনামগঞ্জ-৪ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও পিএসসির (সরকারি কর্ম কমিশন) সাবেক চেয়ারম্যান এবং নির্বাচন কমিশনের সাবেক সচিব ড. মোহাম্মদ সাদিককে তলব করেছে নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটি। জেলা যুগ্ম ও দায়রা জজ নির্বাচন কমিটির দায়িত্ব পালন করছেন।

শনিবার (২ ডিসেম্বর) ওই প্রার্থীকে তলব ও শোকজ করা হয়েছে বলে জানা যায়।

ড. মোহাম্মদ সাদিককে দেওয়া চিঠিতে বলা হয়েছে, আপনি ড. মোহাম্মদ সাদিক সংসদীয় আসন সুনামগঞ্জ-৪ হতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত এমপি পদপ্রার্থী হিসেবে গত ২৯ নভেম্বর বুধবার দুপুরে সুনামগঞ্জ শহরের প্রধান প্রধান সড়কে মোটরসাইকেল শোভাযাত্রাসহ শোডাউন করে গাড়িবহর নিয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সমাবেশে মিলিত হন। শোডাউন করে জনগণের চলাচলের পথে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করেন, যা সুনামগঞ্জের স্থানীয় দৈনিক সুনামগঞ্জের সময়সহ বিভিন্ন পত্রিকায়, ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। এর মাধ্যমে আপনি সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালা, ২০০৮ এর ৬ (ঘ), ৮(ক), ১০(ক) এবং ১২ বিধির বর্ণিত বিধান লঙ্ঘন করেছেন।

আরো বলা হয়েছে, ভবিষ্যতে এ ধরনের নির্বাচন পূর্ব অনিয়ম সংঘটিত না হওয়ার বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য আপনাকে অনুরোধ করা হলো এবং ওইরূপ প্রকাশিত সংবাদ বিষয়ে তদন্ত করে কেন নির্বাচন কমিশনে প্রতিবেদন প্রেরণ করা হবে না তৎমর্মে নিম্ন স্বাক্ষরকারীর কার্যালয়ে (যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ ১ম আদালত, জেলা ও দায়রা জজ আদালত, সুনামগঞ্জ) আগামী ৪ ডিসেম্বর (সোমবার) বেলা ১১টায় আপনি স্বয়ং অথবা আপনার প্রতিনিধির মাধ্যমে লিখিত ব্যাখ্যা প্রদানের জন্য নির্দেশ প্রদান করা হলো।

নির্দেশনাটি দিয়েছেন সুনামগঞ্জের যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ কাঁকন দে।

এবারের সংসদ নির্বাচনে ২৯টি দল ও স্বতন্ত্র মিলে ২ হাজার ৭১২জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র বাছাই চলবে ৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত। রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কমিশনে আপিল দায়ের ও নিষ্পত্তি ৫ থেকে ১৫ ডিসেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ১৭ ডিসেম্বর। রিটার্নিং কর্মকর্তারা প্রতীক বরাদ্দ করবেন ১৮ ডিসেম্বর। নির্বাচনী প্রচার চলবে ৫ জানুয়ারি সকাল ৮টা পর্যন্ত। আর ভোটগ্রহণ হবে ৭ জানুয়ারি (রোববার)।


আরও খবর



মাদকপাচারের রুট হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

দেশে প্রায় ৩০ ধরনের মাদকের সেবন চলে, যার মধ্যে কোকেনের বাজারমূল্য অনেক বেশি, তাই চাহিদা ও বেচাকেনা কম। সরকারের জিরো টলারেন্স ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর জোর তৎপরতা সত্ত্বেও এসব মাদক পাচারের রুট হিসেবে বাংলাদেশকে ব্যবহার করছে আন্তর্জাতিক মাদক চোরাচালান চক্র।

গত বৃহস্পতিবার (২৫ জানুয়ারি) রাতে রাজধানীর উত্তরার একটি আবাসিক হোটেলে অভিযান চালিয়ে ২০০ গ্রাম কোকেনসহ তানজানিয়ার মোহাম্মদি আলী (৫৫) নামের এক নাগরিককে গ্রেপ্তার করা হয়। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর (ডিএনসি) ও বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) একটি দল তাদের ডগ স্কোয়াডের সহায়তায় এ অভিযান চালায়।

বিশেষজ্ঞদের মতে, দেশে যত মাদকদ্রব্য জব্দ করা হয়, এর চেয়ে অনেক বেশি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে সেবনকারীদের হাতে পৌঁছে যায়। দেশে মাদকদ্রব্য আসা রোধে আকাশ ও নৌপথ এবং স্থল সীমান্তে নজরদারি বাড়ানো জরুরি।

এ বিষয়ে বিমানবন্দর এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জিয়াউল হক জানান, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে এপিবিএন ও ডিএনসির যৌথ দল উত্তরার হোটেল এফোর্ড ইনে অভিযান চালায়। হোটেলে অবস্থান করা মোহাম্মদি আলীকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি মাদক থাকার কথা অস্বীকার করেন।

এর আগে গত বুধবার (২৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আট কেজি ৩০০ গ্রাম কোকেন জব্দসহ পূর্ব আফ্রিকার দেশ মালাবির নোমথেনডাজো তাওয়েরা সোকো (৩৫) নামের এক নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ডিএনসি জানায়, নোমথেনডাজো তাওয়েরা সোকো মালাবির নাগরিক এবং সেখানের একটি হাসপাতালে সেবিকা হিসেবে চাকরি করেন। তিনি বাংলাদেশি কারো কাছে ওই কোকেন পৌঁছে দিতে এসেছিলেন। কোকেন চোরাচালানে আন্তর্জাতিক চক্র বাংলাদেশকে ট্রানজিট হিসেবে ব্যবহার করতে সোকোর মাধ্যমে এই চালান এনেছিল।

পর পর দুদিনের অভিযানে শতকোটি টাকার বেশি কোকেনসহ দুই বিদেশি নাগরিককে গ্রেপ্তারের পর এসব তথ্য জানান সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। তবে কার মাধ্যমে কোন দেশে এসব কোকেন পাচার করা হচ্ছিল, তা জানতে তদন্ত করছে সংশ্লিষ্ট আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী।


আরও খবর



ব্রাজিলকে কাঁদিয়ে অলিম্পিকের মূল পর্বে আর্জেন্টিনা

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

প্যারিস অলিম্পিকের টিকিট পেতে এই ম্য্যাচে ব্রাজিলের বিপক্ষে জয়ের বিকল্প ছিল না আর্জেন্টিনার। অন্য দিকে ড্র করলেও আশা বেঁচে থাকত ব্রাজিলের। এমন সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের হারিয়ে দিয়েছে আর্জেন্টিনা। এতে বাছাইয়ে দারুণ শুরুর পরও মূল আসরে খেলার সুযোগ পেল না বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। সেলেসাওদের বিদায় করে ২০২৪ প্যারিস অলিম্পিকের মূলপর্বে জায়গা করে নিয়েছে আর্জেন্টিনা।

এস্তাদিও ন্যাসিওনাল স্টেডিয়ামে রোববার রাতের ম্যাচে ব্রাজিলের বিপক্ষে ১-০ গোলে জয় পেয়েছে আর্জেন্টিনা। তাতে ২০০৪ সালের পর প্রথমবার টানা তৃতীয় স্বর্ণ জয়ের স্বপ্ন ভাঙে ব্রাজিলের যুবাদের। ২০১৬ ও ২০২০ অলিম্পিকে সোনা জিতেছিল ব্রাজিল।

এদিন ম্যাচে আর্জেন্টিনার দাপটই ছিল বেশি। শুরু থেকেই আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে জমে ওঠে ম্যাচ। কিন্তু প্রথমার্ধে সফলতা পায় না কেউই। দ্বিতীয়ার্ধে ৭৮ মিনিটে দলকে জয় সূচক গোল উপহার দেন আর্জেন্টিনার লুসিয়ানো গন্ডু। তার একমাত্র গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আলবিসেলেস্তেরা। হাভিয়ের মাসচেরানোর আর্জেন্টিনা বল দখলে রাখে ৬১ শতাংশ এবং শট নেয় ১৪টি, যার মধ্যে ৩টি লক্ষ্যে ছিল। অন্যদিকে ব্রাজিল ৯টি শট নেয় এবং তারাও আর্জেন্টিনার মতো ৩টি শট লক্ষ্যে রাখে। কিন্তু প্রয়োজনীয় গোলটি আদায় করতে ব্যর্থ হয় দলটি।

ম্যাচ শেষে আর্জেন্টিনার একমাত্র গোলদাতা গুন্দো বলেছেন, সত্যি কথা হচ্ছে এ জয় আমাদের প্রাপ্য। আমরা কোনো ম্যাচ হারিনি। কোয়ালিফাই করতে পারাটা দারুণ ব্যাপার।

এর আগে চূড়ান্ত পর্বের প্রথম দুই ম্যাচে ভেনেজুয়েলা ও প্যারাগুয়ের সঙ্গে ড্র করে আর্জেন্টিনা। অন্যদিকে প্রথম ম্যাচে প্যারাগুয়ের কাছে ১-০ গোলে হেরে যাওয়া ব্রাজিল দ্বিতীয় ম্যাচে ভেনেজুয়েলাকে হারায় ২-১ গোলে। লাতিন আমেরিকা অঞ্চল থেকে প্যারিস অলিম্পিকের টিকেট পাওয়া অন্য দল প্যারাগুয়ে। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই সেই যোগ্যতা অর্জন করেছে দলটি। এদিন তারা ভেনেজুয়েলাকে হারায় ২-০ গোলে।


আরও খবর
হাথুরুসিংহেকে ‘শোকজ’ করবেন পাপন!

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত বাতাস ঢাকায়

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা রোববার সকালে বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত শহরগুলোর তালিকার শীর্ষে উঠে আসে। ১০০ শহরের মধ্যে ঢাকার বাতাস আজ সবচেয়ে বেশি অস্বাস্থ্যকর। রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টা ২৮ মিনিটে বায়ুর মান পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের (আইকিউএয়ার) সূচক থেকে জানা গেছে এ তথ্য।

তালিকার শীর্ষে অবস্থান করা ঢাকার বায়ুর মানের স্কোর হচ্ছে ৩৯৪। এর অর্থ দাঁড়ায় এখানকার বায়ু আজ খুবই অস্বাস্থ্যকর। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারতের দিল্লি। এই শহরটির স্কোর হচ্ছে ২৪৪ অর্থাৎ সেখানকার বায়ুর মানও খুবই অস্বাস্থ্যকর। এদিকে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারতের মুম্বাই। শহরটির দূষণ স্কোর ২৩৩ অর্থাৎ সেখানকার বায়ুর মানও খুবই অস্বাস্থ্যকর

আইকিউএয়ারের মানদণ্ড অনুযায়ী, স্কোর শূন্য থেকে ৫০ এর মধ্যে থাকলে বায়ুর মান ভালো বলে বিবেচিত হয়। ৫১ থেকে ১০০ হলে মাঝারি বা সহনীয় ধরা হয় বায়ুর মান। সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর হিসেবে বিবেচিত হয় ১০১ থেকে ১৫০ স্কোর। ১৫১ থেকে ২০০ পর্যন্ত অস্বাস্থ্যকর হিসেবে বিবেচিত হয়। স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে খুবই অস্বাস্থ্যকর বলে বিবেচনা করা হয়। এছাড়া ৩০১-এর বেশি হলে তা দুর্যোগপূর্ণ বলে বিবেচিত হয়।


আরও খবর
ছুটির দিনেও ঢাকার বায়ু ‌‘অস্বাস্থ্যকর’

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




তানজিদের ঝোড়ো সেঞ্চুরিতে খুলনার টার্গেট ১৯৩

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

ওপেনার মোহাম্মদ ওয়াসিম ফিরেছিলেন ১ রানে। তবে হাল ধরেন আরেক ওপেনার তানজিদ হাসান। আউট হয়ে ড্রেসিংরুমে ফেরার পথে সতীর্থ, টিম ম্যানেজমেন্টের সদস্যরা করতালিতে বরণ করে নিলেন তাকে। কেউ পিঠ চাপড়ে দিলেন তো কেউ বুকে টেনে নিলেন। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের ওপেনার তানজিদ হাসান তামিম ড্রেসিংরুমে ফেরার আগে খুলনা টাইগার্সের বোলারদের ওপর তাণ্ডব চালিয়ে যে সেঞ্চুরি তুলে নেন। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী এই ওপেনারের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এটিই প্রথম শতক।

বিপিএলের দশম আসরে এটি তৃতীয় সেঞ্চুরি। এমনিতে বেশ শান্ত মেজাজের, তবে ব্যাট হাতে ঠিক তার বিপরীত তানজিদ। আক্রমণাত্মক ব্যাটিংকেই শেষ কথা মানেন এই তরুণ।

যার একটা ঝলক আজ দেখলেন তিনি। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম তানজিদ মাতান দারুণ সব চার-ছক্কায়। সেই ঝড় থামে ১১৬ রানে। ৬৫ বলের ইনিংসটি সমান ৮টি করে চার ও ছক্কার সাহায্যে।

অথচ কদিন আগে ডাউন ফর্মের কারণে একাদশের বাইরে থাকতে হয় তাকে। তবে চট্টগ্রামে পর্বে ফিরে রানের ফোয়ারা ছোটাচ্ছেন এই বাঁহাতি ব্যাটার। আজকের শতকের আগে ৭০, ১৩ ও ৪১ রানের তিনটি ইনিংস খেলেন তানজিদ।

আজ ১৭৮.৪৬ স্ট্রাইকরেটের ইনিংসে একবারই তানজিদ স্নায়ু চাপে ভুগেছেন বলে মনে হয়েছে। ৯৯ রানে দাঁড়িয়ে জেসন হোল্ডারের বল ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে ঠেলে ১ রান নিতে চেয়েছিলেন, কিন্তু পারেননি।

পরের বলে অবশ্য আসে সেই মুহূর্ত। সিঙ্গেল নিয়ে তানজিদ পৌঁছে যান তিন অঙ্কের ম্যাজিক ফিগারে। রানটা সম্পূর্ণ করে বুনো উদযাপনই করেন তানজিদ।

তানজিদের সেঞ্চুরি আর টম ব্রুসের অপরাজিত ৩৬ রানের ইনিংসে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে বড় সংগ্রহ পেয়েছে চট্টগ্রাম। আগে ব্যাট করে ৪ উইকেটে তাদের ইনিংস থামে ১৯২ রানে। প্লে-অফের লড়াইয়ে ভালোভাবে টিকে থাকতে আজ জয় প্রয়োজন চট্টগ্রামের।


আরও খবর
হাথুরুসিংহেকে ‘শোকজ’ করবেন পাপন!

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মমতাকে মিমির ‘ইস্তফা’ পত্র, ছেড়ে দিতে চান রাজনীতিও

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

ভারতের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী তার নিজ নির্বাচনী আসন যাদবপুরের সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন। বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘরে গিয়ে তিনি সাংসদ পদ ছাড়ার কথা জানান। বিধানসভা থেকে বেরিয়ে নিজেই তা ঘোষণা করেছেন। মিমি জানান, তিনি লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থী হতে চান না।

বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বিধানসভায় মমতা যখন বক্তৃতা করছেন, তখনই তার ঘরে ঢুকে গিয়েছিলেন মিমি। কিছু ক্ষণ পর ওই ঘরে ঢোকেন তৃণমূলের দুই তারকা বিধায়ক সোহম চক্রবর্তী এবং জুন মালিয়া। মুখ্যমন্ত্রীর বক্তৃতা শেষ হলে তিনি নিজের ঘরে যান। তার পর মিমি এবং বাকিদের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক হয়।

সেখান থেকে বেরিয়ে মিমি জানান, তিনি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন। তবে মুখ্যমন্ত্রী এখনও সেই ইস্তফা গ্রহণ করেননি। মিমি এ-ও জানান, মুখ্যমন্ত্রী ইস্তফা গ্রহণ করলে তিনি লোকসভার স্পিকারের কাছে গিয়ে ইস্তফাপত্র দিয়ে আসবেন।

সম্প্রতি সংসদের দুটি স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্যপদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন মিমি। সংসদের শিল্পবিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য ছিলেন তিনি। ছিলেন কেন্দ্রীয় শক্তি মন্ত্রণালয় এবং নবীন ও পুনর্নবীকরণযোগ্য বিদ্যুৎ মন্ত্রকের যৌথ কমিটির সদস্যও। এই দুটি পদ থেকেই তিনি ইস্তফা দেন। এর পর জানা যায়, যাদবপুর লোকসভার অধীন নলমুড়ি এবং জিরানগাছা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারপার্সন পদও মিমি ছেড়ে দিয়েছেন। তার পর থেকেই তার রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ ঘিরে জল্পনা শুরু হয়েছে।

প্রশ্ন উঠেছে, ২০২৪ সালে যাদবপুর থেকে আর কি প্রার্থী হবেন মিমি? নিজের ধারাবাহিক পদত্যাগ প্রসঙ্গে অবশ্য এর আগে তিনি মুখ খোলেননি। বৃহস্পতিবার জানিয়ে দিলেন, আর সাংসদ থাকতেই চান না তিনি। মিমি বলেন, আমার যা বলার ছিল, দিদিকে বলেছি। অনেকে বলছিলেন, আমি পরবর্তী টিকিট পাকা করার জন্য এটা করছি। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি, রাজনীতি আমার জন্য নয়।


আরও খবর
ফের বিয়ে করছেন অনুপম রায়, পাত্রী কে?

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪