আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

আবার বেড়েছে ডিমের দাম, স্বস্তি নেই চালে

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এক সপ্তাহের ব্যবধানে ডিমের দাম বেড়ে ১৩০ টাকা ডজন বিক্রি হচ্ছে। আর পাকিস্তানি মুরগির দামও সপ্তাহের ব্যবধানে ৩০ থেকে ৪০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৩২০ টাকা কেজি। সবজির দামও তেমন কমেনি। করল্লার কেজি ১০০ টাকা ও শসা ১২০ টাকা, পেঁপে ৩০ থেকে ৪০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। এভাবে প্রায় সব সবজিই বেশি দামে বিক্রি করা হচ্ছে। এদিকে সরকার শুল্ক কমালেও চালের দাম কমছে না। মিনিকেট চাল ৭২ থেকে ৮০ টাকা কেজি বিক্রি করা হচ্ছে। তবে আমদানি করা মোটা চালের দাম কমেছে কেজিতে দুই টাকা।

বিক্রেতারা জানান, আমাদের বেশি দামে কিনতে হচ্ছে। তাই বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। কম দামে পাওয়া গেলে তখন কম দামে খুচরা পর্যায়ে বিক্রি করা হবে।

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের টাউন হল বাজারে এমনই চিত্র দেখা গেছে। সবজি বিক্রেতারা জানান, টাউন হলের সবজির মান ভালো। তাই কারওয়ান বাজারের চেয়ে প্রায় সব সবজির দাম একটু বেশি।

সবজির দাম বেশি টাউন হল বাজারের সবজি বিক্রেতা আবুল জানান, করলা, বেগুনের কেজি ৮০ টাকা। গাজর ও টমেটোর কেজি ১২০ থেকে ১৩০ টাকা, শসা ৮০ থেকে ১২০ টাকা কেজি, শিম ১৬০ টাকা, পেঁপে ৩০ থেকে ৪০ টাকা কেজি, কচুমুখী ৬০ টাকা, লাউ ও চাল কুমড়ার দাম ৪০ থেকে ৬০ টাকা। মরিচের কেজি ১০০ থেকে ১২০ টাকা। তবে ঢেঁড়শ, ধুন্দল, চিচিঙ্গা ও পটলের দাম একটু কমে ৪০ টাকা কেজি বিক্রি করা হচ্ছে। সবজির দাম এত বেশি কেন- এমন প্রশ্নের জবাবে টাউন হল বাজারের সবজি বিক্রেতা জহির বলেন, এগুলো কলাতিয়ার পণ্য, ভালো পণ্য। তাই বেশি দামে কেনা, বিক্রিও করা হচেছ বেশি দামে।

টাউন হল বাজারের নিউ হক স্টোরের কর্মী রাজন বলেন, খোলা চিনির কেজি ৯০ টাকা ও প্যাকেট ১০০ টাকা বিক্রি করা হচ্ছ। নতুন রেটে সয়াবিন তেল বিক্রি করা হচ্ছে ৫ লিটার ৯৪০ টাকা, ২ লিটার ৩৮৪ টাকা ও ১ লিটার ১৯২ টাকা। মসুর ডাল ৯০ থেকে ১৩৫ টাকা কেজি।

টাউন হল বাজারে ইকবাল জেনারেলের মালিক ইকবাল বলেন, সরকার ট্যাক্স কমালেও চিকন চালের দাম কমছে না। মিনিকেট চালের কেজি ৮০ টাকা বিক্রি করা হচ্ছে‌ যা কেনা ৭৮ টাকা। ভারতের আমদানি করা মোটা চালের দাম ২/১ টাকা কমেছে, যা আমার কাছে নাই। আদা ১৩০ টাকা, পেঁয়াজ ৪৫ টাকা, রসুন ১২০ টাকা, প্যাকেট চিনি ৯৫ টাকা, ডাল ১৩৫ টাকা, ২৮ চাল ৬০ টাকা, নাজিরশাল ৯০ টাকা কেজি বিক্রি করা হচ্ছে। গত সপ্তাহে তেমন বাড়েনি কোনো জিনিসের দাম, যোগ করেন তিনি। তবে আনোয়ার রাইস স্টোরের মান্নান বলেন, মিনিকেট ৭০ থেকে ৭২ টাকা কেজি, আটাশ চাল ৫৫ থেকে ৫৮ টাকা এবং মোটা পাজাম ৫৪ টাকা বিক্রি করা হচ্ছে। কেজিতে কমেছে দুই থেকে তিন টাকা।

দাম কমার কারণ জানতে চাইলে আনোয়ার রাইস স্টোরের মান্নান বলেন, আমদানি করা চাল বাজারে আসছে। তাই কম দামে কিনে কম দামে বিক্রি করা হচ্ছে। তবে পোলাও চালের দাম কমছে না। খোলা চাল ১২৫ টাকা ও প্রাণসহ অন্য কোম্পানির প্যাকেট চাল ১৫০ টাকা কেজি বিক্রি করা হচ্ছে।

এদিকে মাংসের চাহিদা না থাকায় আগের মতোই গরুর মাংস ৬৫০ টাকা, খাসির মাংস ৯০০ থেকে ৯৫০ টাকা বিক্রি করা হচ্ছে বলে জনপ্রিয় মাংস বিতানের জসিম জানান। তবে সপ্তাহের ব্যবধানে পাকিস্তানি মুরগির চাহিদা না থাকলেও সরবরাহ কমে যাওয়ায় কেজিতে ৩০ থেকে ৪০ টাকা বেড়েছে। তাজ ব্রয়লার হাউজের কুদ্দুস বলেন, পোল্ট্রি ১৭০ টাকা, পাকিস্তানি মুরগি ৩২০ টাকা ও দেশি মুরগি ৪৫০-৫০০ কেজি টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে। অন্যান্য মুরগির ব্যবসায়ীরা বলছেন, আমরা কী করব, বাজারে বেশি দাম, তাই বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। খাদ্য পরিবহনের দাম বাড়ায় পাকিস্তানি মুরগির দাম বেড়েছে। বর্ষার বড় মৌসুমে নদী-খাল বিলের মাছের সরবরাহ কম। তাই বেশি দামে বিক্রি করা হচ্ছে মাছ। ইলিশের কেজি এক হাজার থেকে ১৬০০ টাকা কেজি। টেংরা মাছ ৬০০ থকে ৮০০ টাকা, আইড় ১ হাজার টাকা, রুই ও কাতল ২৮০ থেকে ৪৫০ টাকা কেজি, চিংড়ি ৪০০ থেকে ৮০০ টাকা, বোয়াল ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা। এভাবে প্রায় সব মাছের দাম বেড়েছে।

নিউজ ট্যাগ: মুরগি

আরও খবর



গ্রামীণ ব্যাংকের কোনো প্রতিষ্ঠানে ড. ইউনূসের মালিকানা নেই : চেয়ারম্যান

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

গ্রামীণ ব্যাংক পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান ড. এ কে এম সাইফুল মজিদ বলেছেন, গ্রামীণ ব্যাংকের কোনো প্রতিষ্ঠানে ড. মুহাম্মদ ইউনূসের মালিকানা নেই। উনি শুধু একজন পূর্ণকালীন কর্মকর্তা ছিলেন। শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীতে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

ড. সাইফুল বলেন, পরিচালনা পর্ষদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গ্রামীণ টেলিকম, গ্রামীণ কল্যাণ, গ্রামীণ ফান্ডের চেয়ারম্যান পদ থেকে ড. ইউনূসকে সরানো হয়েছে। শান্তিতে নোবেল পুরস্কার দুই ভাগে দেয়া হয়েছে। অর্ধেক ড. ইউনূসের ব্যক্তিগত। আর বাকিটা গ্রামীণ ব্যাংকের।

তিনি বলেন, মানিলন্ডারিংয়ের আলামত আমরা পেয়েছি। এরই মধ্যে অনেক তথ্য সরিয়ে ফেলা হয়েছে। অনুসন্ধান শেষ হওয়ার আগে কাউকে দোষী করছি না। পরে এ নিয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

এসময় গ্রামীণ ব্যাংক পরিচালনা পর্ষদের প্রধান আইন কর্মকর্তা ব্যারিস্টার মাসুদ আকতার বলেন, ড. ইউনূস আইনের ব্যত্যয় ঘটিয়েছেন। সর্বোপরি, গ্রামীণ ব্যাংকের কোনও মালিকানা নেই। এটি দাতব্য প্রতিষ্ঠান। সদস্যদের কল্যাণে এ ব্যাংক কাজ করবে। এদেশের এক চতুর্থাংশ মানুষের ভাগ্য এ ব্যাংকের সঙ্গে জড়িত।

তিনি বলেন, নতুন পরিচালনা পর্ষদ কাজ করতে চায়। টেলিকম ভবনসহ সবকিছু গ্রামীণ ব্যাংকের টাকা দিয়ে করা হয়েছে। এর বাইরে কিছু হলে সেটি আইনগত অপরাধ। গ্রামীণ ব্যাংকের ৭টি প্রতিষ্ঠানে যাদের চেয়ারম্যান ও পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে, তাদের নাম পরবর্তীতে চিঠি দিয়ে জানানো হবে।


আরও খবর



আত্মসমর্পণ করায় মিয়ানমারের তিন জেনারেলের মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ক্ষমতাসীন জান্তা বাহিনীর সাথে সংঘাতের এই পর্যায়ে বিদ্রোহী গোষ্ঠীর কাছে আত্মসমর্পণ ও শহরের নিয়ন্ত্রণ ছেড়ে দেওয়ায় মিয়ানমার সেনাবাহিনীর তিন শীর্ষ কর্মকর্তাকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে দেশটি। মিয়ানমারের ব্রিগেডিয়ার জেনারেল পদমর্যাদার কর্মকর্তা ছিলেন তারা।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বিদ্রোহীদের মুহুর্মুহু হামলার মুখে শান রাজ্যের লোক্কাই শহরের নিয়ন্ত্রণ ছাড়তে বাধ্য হয় জান্তা সেনারা। এছাড়া শত শত সেনা বিদ্রোহী জোট থ্রি ব্রাদারহুড অ্যালায়েন্সের যোদ্ধাদের কাছে আত্মসমর্পণ করে।

চীন সীমান্তের গুরুত্বপূর্ণ এই শহরের নিয়ন্ত্রণ কৌশলগতভাবে ছেড়ে দেয়ায় তাদের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে জান্তা সরকারের আদালত।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, শত শত সেনার এই আত্মসমর্পণ মিয়ানমার সামরিক বাহিনীর জন্য কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে বড় পরাজয় বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও আত্মসমর্পণের পর শহরের দায়িত্বে থাকা সেনা কমান্ডার ও সেনাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, মিয়ানমারের সামরিক আইনে শীর্ষ নেতৃত্বের অনুমতি ছাড়া সামরিক ঘাঁটি ত্যাগ দণ্ডনীয় অপরাধ। এর জন্য মৃত্যুদণ্ড হতে পারে। তবে সবশেষ মৃত্যুদণ্ডের ব্যাপারে মন্তব্যের জন্য জান্তা মুখপাত্রের সাথে যোগাযোগ করা হলেও কোনো জবাব পাওয়া যায়নি। এমনকি কোন আদালতে তাদের মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে তাও জানানো হয়নি।


আরও খবর



আবারো পাকিস্তানে সরকার গঠনের ঘোষণা দিল পিটিআই

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) দুদিন আগেই জানিয়েছিল, দেশটির নতুন সরকারের বিরোধী দলে থাকবে তারা, এবার আবারো সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে কেন্দ্রে সরকার গঠনের ঘোষণা দিল দলটি।

রোববার ইসলামাবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে পিটিআই মনোনীত প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী ওমর আইয়ুব খান এ ঘোষণা দিয়েছেন। তবে কিভাবে সরকার গঠন করবেন এ ব্যাপারে স্পষ্ট ব্যাখ্যা দেননি তিনি।

তিনি আরও বলেন, কেন্দ্র ও প্রদেশে সরকার গঠন করবে পিটিআই। দেশের জনগণ ইমরান খানকে চায়।

ওমর আইয়ুব খান এ সময় দাবি করেছেন, এখনও পুলিশ আমাদের নেতাকর্মীদের তুলে নিয়ে চাপ দিচ্ছে। এটা কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কাজ নয়। তারা নিজেদের সীমা অতিক্রম করেছে।

আইয়ুব খান আরো বলেন, ইমরান খান এর আগে যা বলেছিলেন জমিয়ত নেতা ফজলুর রেহমান তা এখন বলেছেন। পিটিআইয়ের বিরুদ্ধে যে অনাস্থা ভোট আনা হয়েছিল, তা পরিকল্পিত ছিল। ফজলুর রেহমান এখন এটা স্বীকার করেছেন এবং এটাই সবচেয়ে বড় সমর্থন।

তিনি বলেন, দেশের ৩ কোটি মানুষ পিটিআই ও ইমরান খানকে ভোট দিয়েছে। কারণ তারাই পাকিস্তানকে এই মন্দা থেকে বের করে সঠিক পথে আনতে সক্ষম।

এদিকে পিটিআইয়ের চেয়ারম্যান গহর আলী খান ইসলামাবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে রাওয়ালপিন্ডির এক নির্বাচন কমিশনার ভোট জালিয়াতির স্বীকারোক্তি দিয়ে পদত্যাগ করায় তার প্রশংসা করেছেন। তিনি বলেন, এই প্রথম একজন কমিশনার তার বিবেকের দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

তিনি নির্বাচনে পিটিআই প্রার্থী জয়ী হলেও কারচুপির মাধ্যমে তাকে হারিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন। একই সঙ্গে এই অপরাধের দায়ে নিজেকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছেন তিনি।


আরও খবর



যৌন হয়রানির অভিযোগে ভিকারুননিসার শিক্ষক প্রত্যাহার

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের আজিমপুর ক্যাম্পাসের দিবা শাখার এক সিনিয়র শিক্ষককে যৌন হয়রানির অভিযোগে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কেকা রায় চৌধুরীর সই করা এক অফিস আদেশে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের প্রাথমিকভাবে সত্যতা পাওয়া গেছে। এ কারণে শিক্ষার পরিবেশ স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে এবং এ বিষয়ে আইনানুগ পদক্ষেপ নেয়ার জন্য ওই শিক্ষককে আজ থেকে অধ্যক্ষের কার্যালয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এ আদেশ বলবৎ থাকবে।

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা জানান, অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের নাম মুরাদ হোসেন সরকার। তাদের অভিযোগ, ওই শিক্ষক কোচিংয়ে পড়ানোর সময় ছাত্রীদের ওপর যৌন নিপীড়ন চালাতেন।

অবশ্য ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ কী, তা অফিস আদেশে উল্লেখ করা হয়নি।


আরও খবর
জাবির ‘ডি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




তিস্তা সংকট ২০২৬ সালের মধ্যে মিটে যাবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ তিস্তা নদীর পানি বণ্টন চুক্তি নিয়ে প্রতিবেশী দেশ ভারতের সঙ্গে চলমান সংকট ২০২৬ সালের মধ্যে মিটে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন।

ভারতে তিনদিনের সফর শেষে দেশে ফেরার আগে গতকাল শুক্রবার কলকাতায় বাংলাদেশ উপদূতাবাস আয়োজিত ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি মন্তব্য করেন।

এ সময় তিনি বলেন, তিস্তা নিয়ে ভারত সরকারের কোনো অসুবিধা নেই। সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের। তবে আলোচনা করেছি, আশা করছি ভারতের জাতীয় নির্বাচনের পর একটা সমাধানে পৌঁছাতে পারবো। ২০২৬ সালে গঙ্গা চুক্তিও আছে। আশা করছি তার মধ্যেই তিস্তার পানি চুক্তির সমাধান হবে।

সাংবাদিকরা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে জানতে চান, তিস্তা চুক্তি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে বাংলাদেশ কোনো কথা বলবে কি না। উত্তরে ড. হাছান বলেন, এটি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়, আমাদের কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে বিজনেস করতে হবে। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার এখন কীভাবে রাজ্য সরকারের সঙ্গে বোঝাপড়া করবে সেটি তাদের বিষয়।

বাংলাদেশ অংশে তিস্তার উপরে ব্যারেজ নিয়ে আলোচনা হয়েছে কি না- সাংবাদিকদের এ প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন আলোচনা হয়নি, এটি নিয়ে আমরা চিন্তাভাবনা করছি। এটির প্রয়োজন আছে। কিন্তু এ নিয়ে এখনো সেভাবে কথা হয়নি।

এসময় কলকাতায় নিযুক্ত বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশনার আন্দালিব ইলিয়াসসহ মিশনের অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর