আজঃ শনিবার ২২ জুন ২০২৪
শিরোনাম

৩ কারণ: গাড়ির চাকা এবং বিদ্যুতের খুঁটিতেই কেন প্রস্রাব করে কুকুররা

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ মে ২০২২ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাস্তায় বেরোলে প্রতি দিনই এমন কিছু ঘটনার সাক্ষী হতে হয়, যেগুলির কারণ সব সময়ে জানা যায় না। এই যেমন বাড়ির আশপাশে বা রাস্তাঘাটে একটু লক্ষ করলেই দেখা যায়, গাড়ির টায়ার এবং বিদ্যুতের খুঁটি, কুকুররা প্রস্রাব করার জন্য সব সময়ে এই দুটি জায়গা বেছে নেয়। রাস্তাঘাটে আকছার এই দৃশ্য দেখতে পাওয়া যায়। কিন্তু প্রস্রাব করতে কুকুররা এই দুটি জায়গা কেন বেছে নেয় জানেন?

১) কুকুর বিদ্যুতের খুঁটি বা গাড়ির চাকায় প্রস্রাব করে নিজেদের এলাকা চিহ্নিত করে রাখে। এটি তাদের অন্য সঙ্গীদের সঙ্গে যোগাযোগ করার উপায়। গাড়ির চাকায় বা বিদ্যুতের খুঁটিতে প্রস্রাব করার ফলে অন্য সঙ্গীরাও সেই গন্ধ শুঁকে বুঝে যায় যে, তারা দলছাড়া হয়নি। এক এলাকাতেই রয়েছে।

২) কুকুরদের একটি স্বভাবগত আচরণ হল, তারা সমতলের চেয়ে উঁচু কোনও জায়গায় প্রস্রাব করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে। প্রস্রাবের গন্ধ চাকার টায়ারে দীর্ঘ ক্ষণ স্থায়ী হয়। ফলে বাকি সঙ্গীদের বুঝতে সুবিধা হয়, কে কোথায় আছে। মাটিতে প্রস্রাব করলে, তার গন্ধ অল্প সময় পর মিলিয়ে যায়। তখন একে অপরের হদিস পেতে সমস্যা হয়।

৩) গাড়ির টায়ারে প্রস্রাব করার আরও একটি কারণ হল, কুকুররা টায়ারের গন্ধ বিশেষ পছন্দ করে। টায়ারের গন্ধের তীব্রতম আকর্ষণে কুকুররা তাই বার বারই গাড়ির টায়ারে প্রস্রাব করে।


আরও খবর



মোদিকে শেখ হাসিনার শুভেচ্ছা

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় জোট সরকার গঠন করতে চলেছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। গতকাল মঙ্গলবার (৪ জুন) এক চিঠির মাধ্যমে নরেন্দ্র মোদির বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট সরকারকে অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের জনগণ এবং আমার (প্রধানমন্ত্রী) পক্ষ থেকে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট সরকারকে ১৮তম ভারতীয় লোকসভা নির্বাচনে জয়ের জন্য আন্তরিক অভিনন্দন।

মোদিকে উদ্দেশ্য করে চিঠিতে লেখা হয়, বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রের নেতা হিসাবে, আপনি ভারতের জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতীক। আপনার বিজয় ভারতের জনগণের আপনার নেতৃত্ব, প্রতিশ্রুতি এবং দেশের জন্য আত্মোত্সর্গের প্রতি আস্থা ও আত্মবিশ্বাসের প্রমাণ। এটা আমার দৃঢ় বিশ্বাস, আমাদের বন্ধুত্বপূর্ণ এবং ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক সব ক্ষেত্রেই অব্যাহত থাকবে।

ভারতের বিশ্বস্ত বন্ধু হিসেবে বাংলাদেশ দুই দেশের জনগণের উন্নয়নের পাশাপাশি একটি সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ অঞ্চলের জন্য একসাথে কাজ করার প্রতিশ্রুতিও ব্যক্ত করা হয় চিঠিতে।


আরও খবর



নতুন কোচ নিয়োগ দিলো বিসিবি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

গত ফেব্রুয়ারিতে টাইগারদের ব্যাটিং কোচ হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন ডেভিড হেম্প। এরপর থেকেই এইচপির প্রধান কোচের পদটি ফাঁকা ছিলো। সেই পদ পূরণের জন্য কোচের খুঁজে ছিলো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। অবশেষে সেই পদে নতুন কোচ নিয়োগ করেছে বিসিবি।

এইচপির হেড কোচ চেয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিলো বিসিবি। যার প্রেক্ষিতে আগ্রহী প্রার্থীরা দিতে থাকে আবেদনপত্র। সেখান থেকে দুইজন প্রার্থীকে চূড়ান্ত সংক্ষিপ্ত তালিকায় রাখেন হেড অব প্রোগ্রাম ডেভিড মুর। এইচপির প্রধান কোচ হওয়ার দৌড়ে ছিলেন জিম্বাবুয়ের ডিওন ইব্রাহিম এবং অস্ট্রেলিয়ার নাথান মিচেল হরিতজ। দুজনের শেষ লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত জিতলেন নাথান।

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারকে প্রাধান্য দিয়ে বিসিবি শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার সাবেক স্পিনার নাথানকেই বেছে নিয়েছে এইচপির প্রধান কোচ হিসেবে। নতুন এই কোচ নিয়োগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবির এইচপি চেয়ারম্যান নাঈমুর রহমান দুর্জয়।

৪২ বছর বয়সী নাথান অস্ট্রেলিয়ার জার্সিতে ৫৮ ম্যাচ খেলে নিয়েছেন ৬৩ উইকেট। ১৭ টেস্টে তার রয়েছে ৬৩টি উইকেট। এছাড়া ক্যারিয়ারের শেষ দিকে তিন টি-টোয়েন্টি খেলার সুযোগও পেয়েছিলেন তিনি। ২০২৩ সালে আয়ারল্যান্ড জাতীয় দলের স্পিন বোলিং কোচ ছিলেন তিনি।


আরও খবর



পাড়া-মহল্লায় চলছে পশু কোরবানি

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

মহান আল্লাহর অপার অনুগ্রহ লাভের আশায় সারাদেশে উদযাপিত হচ্ছে মুসলমানদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা। মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা সামর্থ্য অনুযায়ী পশু কোরবানি করছেন।

আজ সোমবার সকালে মহল্লায় মহল্লায় নামাজ শেষে নিজ-নিজ পশু কোরবানি করছেন মুসলমানরা। ঢাকার প্রতিটি অলিগলিতেই পশু কোরবানির দৃশ্য চোখে পড়ে।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, কোথাও বাসার নিচের গ্যারেজে, কোথাও বাসার সামনের রাস্তায়, আবার কোথাও এলাকার ফাঁকা মাঠের মধ্যে পশু কোরবানি চলছে।

এদিকে, চুক্তিতে পশুর মাংস কাটতে আসা কসাইরাও ব্যস্ত সময় পাড় করছেন। একটার পর একটা পশুর চামড়া ছাড়িয়ে মাংস প্রস্তুত করে দিচ্ছেন তারা।

এদিকে, কোরবানির জন্য পশু কিনলেও সবাই আজকে কোরবানি করছেন না। কেউ কেউ ঈদের দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিনও পশু কোরবানি দেবেন। এরমধ্যে অধিকাংশই কসাই না পাওয়ায় প্রথম দিন পশু কোরবানি করছেন না।


আরও খবর



ট্রেনে ঈদযাত্রা: ১৪ জুনের টিকিট বিক্রি চলছে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে স্বাচ্ছন্দ্যে বাড়ি ফিরতে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। যাত্রীদের অনলাইনে টিকিট ক্রয় করতে হচ্ছে। আজ বিক্রি হচ্ছে ১৪ জুনের টিকিট।

মঙ্গলবার (৪ জুন) সকাল ৮টায় টিকিট বিক্রি শুরু হয়। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, যাত্রী সাধারণের টিকিট কেনা সহজলভ্য করার জন্য পশ্চিমাঞ্চলে চলাচলরত সব আন্তনগর ট্রেনের টিকিট বিক্রি সকাল ৮টায় শুরু হয়েছে। আর পূর্বাঞ্চলে চলাচলরত সব ট্রেনের টিকিট দুপুর ২টা থেকে বিক্রি শুরু হবে।

মঙ্গলবার যারা টিকিট ক্রয় করছেন তারা আগামী ১৪ জুন ভ্রমণ করতে পারবেন। একজন যাত্রী ঈদের আগে যাত্রা ও ফিরতিতে সর্বোচ্চ একবার টিকিট ক্রয় করতে পারবেন এবং সর্বাধিক ৪টি আসনের টিকিট ক্রয় করতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে যাত্রীর সর্বোচ্চ এই চারটি টিকিট ক্রয়ের ক্ষেত্রে সহযাত্রীদের নাম সংযুক্ত করে দেওয়ার ব্যবস্থা আছে। ঈদযাত্রার এই টিকিট রিফান্ড করা যাবে না। টিকিট কালোবাজারি প্রতিরোধে প্রতিবার টিকিট ক্রয়ের সময় নিবন্ধনকৃত মোবাইল নম্বরে ওটিপি প্রেরণের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। ঈদের চাঁদ দেখার ওপর নির্ভর করে ১৭, ১৮ ও ১৯ জুনের টিকিট বিক্রি করা হবে।

ঈদযাত্রার ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ১০ জুন। ১০ থেকে ১৪ জুন পর্যন্ত ২০ থেকে ২৪ জুনের ফিরতি অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে।

২০ জুনের অগ্রিম টিকিট দেওয়া হবে ১০ জুন। ২১ জুনের টিকিট দেওয়া হবে ১১ জুন। ২২ জুনের টিকিট দেওয়া হবে ১২ জুন। ২৩ জুনের টিকিট দেওয়া হবে ১৩ জুন। আর ২৪ জুনের টিকিট দেওয়া হবে ১৪ জুন।

ঈদযাত্রায় বাড়তি যাত্রীর চাপ সামাল দিতে পূর্বাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চলে সব মিলে ২০টি, অর্থাৎ ১০ জোড়া বিশেষ ট্রেন চালাবে রেলওয়ে। এসব বিশেষ ট্রেনের টিকিট যাত্রার আগে স্টেশনের কাউন্টারে বিক্রি করা হবে।

এবারের ঈদযাত্রায় প্রতিদিন ঢাকা থেকে বর্হিগামী ট্রেনের মোট আসন সংখ্যা হবে ৩৩ হাজার ৫০০টি।

এদিকে রেলের পশ্চিমাঞ্চলে কোরবানির পশু পরিবহনের জন্য ১২ থেকে ১৪ জুন পর্যন্ত ক্যাটল ট্রেন’ পরিচালনা করা হবে। আর পূর্বাঞ্চলে ক্যাটল ট্রেন চলবে ১২ জুন।


আরও খবর



আনার হত্যাকাণ্ড: ১০ আসামির ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য সরবরাহের আদেশ

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) আনোয়ারুল আজিম আনার হত্যার ঘটনা করা মামলায় গ্রেপ্তার তিন ও পলাতক সাত আসামির ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য সরবারাহ করার জন্য মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। আজ সোমবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন এ আদেশ দেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা, ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সহকারী কমিশনার মাহফুজুর রহমান এ আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত হেড অব বিএফআইইউকে (বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের হেড) আসামিদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য তদন্ত কর্মকর্তাকে সরবরাহের আদেশ দেন।

মামলার ১০ আসামি হলেন শিমুল ভূঁইঁয়া ওরফে শিহাব ওরফে ফজল মোহাম্মদ ভূঁইঁয়া ওরফে আমানুল্যাহ সাঈদ, তানভীর ভূঁইঁয়া, সেলেষ্টি রহমান ওরফে শেলেস্তি রহমান ওরফে শিলাস্তি রহমান, সিয়াম হোসেন, আক্তারুজ্জামান ওরফে শাহিন, মোস্তাফিজুর রহমান, ফয়সাল আলী সাজি, তাজ মোহাম্মদ খান ওরফে হাজী, চেলসি চেরি ওরফে আরিয়া ও জামাল হোসেন।

আবেদনে বলা হয়, মামলায় অজ্ঞাতনামা আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে মামলার ভিকটিম ঝিনাইদহ-০৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারকে পূর্ব-পরিকল্পিতভাবে অপহরণ করে ভারতের কলকাতা নিয়ে যায়। প্রাথমিক তদন্তে ও গ্রেপ্তার আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, আসামিরা ভিকটিমকে কলকাতার নিউটাউন এলাকার ভাড়া করা বাসায় নিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে এবং প্রমাণ নষ্ট করার উদ্দেশ্যে ভিকটিমের মৃতদেহের হাড় ও মাংস আলাদা করে মাংসপিণ্ড টয়লেটের কমোডে ফেলে দেয় এবং হাড়গুলো গারবেজ পলিথিনে ভরে ট্রলি ব্যাগে করে আশপাশের বর্জ্যখালে ফেলে দেয়।

আসামিরা দীর্ঘদিন যাবত ভিকটিমকে হত্যার পরিকল্পনা করে আসছিল। তারা পরিকল্পনা করে,মামলার ভিকটিমকে কীভাবে অপহরণ করবে ও টাকা-পয়সা আদায় করবে এবং টাকা-পয়সা নেওয়ার পর কীভাবে হত্যা তথা লাশ গুম করবে তার লোমহর্ষক বর্ণনা গ্রেপ্তার করা আসামিদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে এসেছে।

মামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত তিনজন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িত অন্যান্য পলাতক আসামিদের নাম-ঠিকানা সংগ্রহ তথা মামলাটি সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে বর্তমানে পুলিশ রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলমান আছে। মামলার মূল রহস্য উদ্‌ঘাটন ও সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ১০ আসামির এনআইডি ও পাসপোর্ট নম্বরের বিপরীতে কোনো ব্যাংকে কয়টা অ্যাকাউন্ট আছে তার তথ্য সরবরাহ করার জন্য বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট বরাবর আদেশ প্রদান করা একান্ত প্রয়োজন।


আরও খবর