আজঃ মঙ্গলবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩
শিরোনাম

২০২২ সালে কর্মক্ষেত্রে নিহত ৯৬৭ জন

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২২ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

দেশে কর্মক্ষেত্রে ঝুঁকি কমছেই না। কর্মপরিবেশও হচ্ছে না শ্রমিকবান্ধব। এতে প্রতিদিনই সাধারণ শ্রমিকদের জীবনহানি হচ্ছে। অনেকে আহত বা পঙ্গুত্ব বরণ করছেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত বছরের তুলনায় এ বছর সারাদেশে কর্মক্ষেত্রে হতাহতের সংখ্যা বেড়েছে।

বাংলাদেশ ওশি (অক্যুপেশনাল সেইফটি, হেলথ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট) ফাউন্ডেশনের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, চলতি বছর অর্থাৎ ২০২২ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত সারাদেশে কর্মস্থলে হতাহত হয়েছেন এক হাজার ১৯৫ জন শ্রমিক। এরমধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ৯৬৭ জন এবং আহত হয়েছেন ২২৮ জন। গত বছর অর্থাৎ ২০২১ সালে কর্মক্ষেত্রে হতাহতের এ সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৮৯ জন।

শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনার এ তথ্য তুলে ধরে ওশি ফাউন্ডেশন।

প্রতি বছরের মতো এ বছরও সংস্থাটি জানিয়েছে, ২০২২ সালে প্রাতিষ্ঠানিক খাতে ২৪৬ জন শ্রমিক এবং অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতে ৯৪৯ জন শ্রমিক হতাহত হয়েছেন। এরমধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক খাতে মারা গেছেন ১৫২ জন এবং আহত হয়েছেন ৯৪ জন। আর অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতে ৮১৫ জনের মৃত্যু এবং আহত হয়েছেন ১৩৪ জন।

প্রাতিষ্ঠানিক ও অপ্রাতিষ্ঠানিক খাত মিলিয়ে মারা যাওয়া ৯৬৭ জনের মধ্যে নারী শ্রমিক ২৪ জন এবং পুরুষ শ্রমিক ৯৪৩ জন। আর এ দুই খাতে আহত ২২৮ জনের মধ্যে নারী শ্রমিক ছিলেন ২৮ জন এবং পুরুষ শ্রমিক ছিলেন ১৯০ জন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ওশি ফাউন্ডেশনের নির্বাহী কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক চায়না রহমান। ওশি ফাউন্ডেশনের পরিচালক (এডমিন) আলম হোসাইনের সঞ্চালনায় এতে লিখিত প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন প্রতিষ্ঠানের প্রকল্প সমন্বয়ক এমএম কবীর মামুন।

ওশি ফাউন্ডেশন জানায়, ২০২২ সালে প্রাতিষ্ঠানিক ও অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতে যে ৯৬৭ জন শ্রমিক নিহত হন তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি শ্রমিক মারা যান পরিবহন খাতে। বছরজুড়ে এ খাতে মোট হতাহতের সংখ্যা ৪৭৬ জন, যার মধ্যে ৪২৫ জন নিহত আর ৫১ জন আহত হয়েছেন। যা মোট হতাহতের ৪০ শতাংশ।

হতাহতের দিক দিয়ে পরিবহন খাতের পরেই রয়েছে সেবামূলক খাত। এ খাতে মোট ২৭০ জন শ্রমিক হতাহতের শিকার হয়েছেন, যার মধ্যে ২১১ জন মারা গেছেন আর ৫৯ জন আহত হয়েছেন। যা মোট হতাহতের ২৩ শতাংশ। এই সেবামূলক খাতের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে ওয়ার্কশপ, গ্যাস, বিদ্যুৎ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল, হোটেল/ রেস্টুরেন্ট, সরকারি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মী প্রভৃতি।

সেবাখাতের পর রয়েছে কৃষিখাত। এ খাতে মোট ১৩৯ জন শ্রমিক হতাহত হয়েছেন, যার মধ্যে ১২৪ জন মারা গেছেন আর ১৫ জন আহত হয়েছেন। যা মোট হতাহতের ১২ শতাংশ। ফসল উৎপাদন কর্মী, জেলে, চা শ্রমিক, গরু ও মুরগির খামারের শ্রমিক এ খাতের আওতাভুক্ত।

নির্মাণ খাতে বছরজুড়ে ১৩৪ জন শ্রমিক বিভিন্ন দুর্ঘটনায় হতাহত হয়েছেন, যার মধ্যে ১০৫ জন নিহত এবং ২৯ জন আহত হয়েছেন। যা মোট হতাহতের ১১ শতাংশ। আর ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে মোট হতাহতের সংখ্যা ১০০ জন, যার মধ্যে ৬৭ জন নিহত এবং ৩৩ জন আহত হয়েছেন। যা মোট হতাহতের ১৮ শতাংশ।

এ বছর তৈরি পোশাক শিল্প খাতে মোট ৫৪ জন শ্রমিক হতাহতের শিকার হন। এরমধ্যে ২৮ জন মারা যান এবং ২৬ জন আহত হন। যা মোট হতাহতের ৪ শতাংশ। বছরজুড়ে জাহাজভাঙা শিল্পে হতাহতের সংখ্যা ২২ জন, যার মধ্যে নিহত ৭ জন এবং আহত হন ১৫ জন। যা মোট হতাহতের ২ শতাংশ।

ওশি ফাউন্ডেশনের গবেষণায় দেখা যায়, গত এক দশকে (২০১৩-২২) মোট ১৫ হাজার ২৫৯ জন শ্রমিক কর্মক্ষেত্রে হতাহতের শিকার হন। এরমধ্যে ৯ হাজার ৫৫৮ জন নিহত এবং ৫ হাজার ৭০১ জন আহত হন। তবে ২০২০ সালে করোনা অভিঘাতের সময় এ সংক্রান্ত কোনো তথ্য সংগ্রহ করতে পারেনি ওসি ফাউন্ডেশন। ওই বছরের সেপ্টেম্বর থেকে ডিসেম্বর মাসের তথ্য গবেষণা প্রতিবেদনে সংযোজন করা হয়েছে।


আরও খবর
জয়পুরহাটে খাল থেকে কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার

মঙ্গলবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩




ব্রাহ্মণবাড়িয়া কসবা ইউপি চেয়ারম্যানের অপসারণ দাবিতে ঝাড়ু মিছিল

প্রকাশিত:বুধবার ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
মোঃ রাসেল আহমেদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

Image

জন্ম নিবন্ধন ও ওয়ারিশ সনদে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মেহারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন মুর্শিদের অপসারণের দাবিতে ঝাড়ু মিছিল ও মানববন্ধন করেছে কয়েক গ্রামের মানুষ।

আজ বুধবার দুপুরে ওই ইউনিয়নের ঈশাননগর চৌরাস্তার মোড়ে দাঁড়িয়ে এলাকাবাসী এ বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন।

স্থানীয় যমুনা গ্রামের বাসিন্দা এসএম শামীম আকতারের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ভুক্তভোগী ময়নাল হোসেন, কাদির মিয়া, দেলোয়ার হোসেন, মনির হোসেন, মমিনুল ইসলাম পারভেজ ও সুমন সরকার প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, মেহারী ইউনিয়ন পরিষদে জন্ম নিবন্ধন ও ওয়ারিশ সনদ নিতে গেলে এলাকাবাসীর কাছ থেকে এক থেকে আড়াই হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করা হয়।

এ ব্যাপারে এলাকার মানুষ জানতে চাইলে প্রশাসনের লোককে ম্যানেজ করতে টাকা নেন বলে অজুহাত দেখান ইউপি চেয়ারম্যান মুর্শিদ। ক্ষমতাসীন দলের প্রভাব দেখান বলে এলাকার সাধারণ মানুষ তার বিরুদ্ধে মুখ খোলার সাহস পায় না। মানববন্ধন শেষে এলাকাবাসী ঈশাননগর সড়কে ঝাড়ু ও জুতা হাতে মিছিল করেন। মিছিলে অংশ নেওয়া নারী-পুরুষ দুর্নীতিবাজ ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন মুর্শিদের অপসারণের দাবিতে শ্লোগান দেন।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে চাইলে অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন মুর্শিদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, অভিযোগকারীরা ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকে আমার বিরুদ্ধে এ ধরণের অভিযোগ করেছেন। সেবা নিতে কোন অতিরিক্ত অর্থ নেয়া হয় না মর্মে আমি সারা এলাকায় মাইকিং করে দিয়েছি চেয়ারম্যান হিসেবে শপথ নেয়ার পরপরই। এরপরও পরিষদের উদ্যোক্তার ব্যাপারে অভিযোগ ওঠায় আমি তাকে বহিষ্কার করেছি।

এদিকে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসক বরাবর আনীত অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক জিয়াউল হক মীর জানান, দায়িত্ব পেয়ে ইতোমধ্যেই সরেজমিনে একদিন গিয়ে এ বিষয়ে তদন্ত করেছি। তদন্ত কাজ আরো কিছুটা বাকি আছে। খুব শীঘ্রই এ বিষয়ে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়া হবে।


আরও খবর
জয়পুরহাটে খাল থেকে কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার

মঙ্গলবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩




লিবিয়ার বন্যায় মৃতের সংখ্যা ১১ হাজার ছাড়ালো

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

লিবিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় দারনা শহরে বাঁধভাঙা বন্যায় মৃতের সংখ্যা ১১ হাজার ছাড়িয়েছে। এই সংখ্যা শেষ পর্যন্ত ২০ হাজারে পৌঁছাতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন শহরটির মেয়র। কারণ এখনো বহু মানুষ নিখোঁজ রয়েছেন। সাগরের পানিতে ভেসে আসছে একের পর এক মরদেহ।

লিবীয় রেড ক্রিসেন্ট জানিয়েছে, গত রোববার (১০ সেপ্টেম্বর) দারনায় ঘূর্ণিঝড় ড্যানিয়েলের আঘাতের পর দুটি বাঁধ ধসে সৃষ্ট ভয়াবহ বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১ হাজার ৩০০তে দাঁড়িয়েছে। উদ্ধার তৎপরতা চলছে এবং কাঁদামাটির ভেতর থেকে একের পর এক মরদেহ উদ্ধার হওয়ায় এর সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

এই ঘটনায় নিহতদের মধ্যে অন্তত ৪০০ জন বিদেশি রয়েছেন। এদের বেশিরভাগই সুদান এবং মিসরের নাগরিক বলে জানিয়েছেন লিবিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। লিবিয়ার এই বন্যায় মারা গেছেন ছয় বাংলাদেশিও। এ ঘটনায় নিখোঁজদের মধ্যেও কিছু বাংলাদেশি থাকতে পারেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

দারনার মেয়র আবদুলমেনাম আল-গাইথির আশঙ্কা, মৃতের সংখ্যা শেষ পর্যন্ত ২০ হাজারে পৌঁছাতে পরে। কারণ বন্যায় শহরটির একটি অংশ পুরোপুরি নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে। ভূমধ্যসাগর পাড়ের দারনা শহরটিতে প্রায় এক লাখ মানুষ বসবাস করতো।

নিউজ ট্যাগ: লিবিয়া বন্যা

আরও খবর
গুয়াতেমালায় ভূমিধসে নিহত ৬, নিখোঁজ ১২

মঙ্গলবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩




১০০ পরিবারকে ১ কোটি রুপি দেবেন অভিনেতা বিজয়

প্রকাশিত:বুধবার ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

দক্ষিণি সিনেমার পরিচিত মুখ বিজয় দেবেরাকোন্ডা। তবে গত পাঁচ বছর ব্যর্থতার জালে আটকে ছিল তাঁর সিনেমাগুলো। বক্স অফিসে সফলতার মুখ দেখেনি একটিও। গত বছর লাইগার সিনেমা দিয়ে বলিউডে যাত্রা বিজয়ের। আশা ছিল, এবার বুঝি ভাগ্যের শিকেটা ছিঁড়বে। তা-ও হলো না। সব মিলিয়ে খারাপ সময়ই পার করছিলেন তিনি। টানা ব্যর্থতার পর ১ সেপ্টেম্বর থেকে তাঁর ভাগ্য ফিরতে শুরু করেছে। ওই দিন মুক্তি পেয়েছে বিজয়ের সিনেমা কুশি। দীর্ঘ সময় পর বক্স অফিসে এটি আলোর মুখ দেখছে। তাই সিনেমার সফলতায় খুশি হয়ে ভক্তদের উদ্দেশে অভিনেতা দিলেন ব্যতিক্রমী ঘোষণা। 

আরও পড়ুন>> দ্বিতীয় সিনেমায় নাম লেখালেন সাইফপুত্র ইব্রাহিম

কুশি সিনেমা মুক্তির পঞ্চম দিনে শুধু ভারতেই আয় করেছে ৪০ দশমিক ২৪ কোটি রুপি। বহুদিন পর সিনেমার সাফল্যে বেশ খুশি অভিনেতা। এরই মধ্যে ভারতের অন্ধ্র প্রদেশের বিশাখাপট্টনমে সিনেমার প্রচার অনুষ্ঠানে যোগ দেন বিজয়। প্রচারে গিয়ে অসচ্ছল ১০০ পরিবারকে ১ কোটি রুপি উপহার দেওয়ার ঘোষণা দেন বিজয়।

অনুষ্ঠানে বিজয় বলেন, আপনারা খুশি হলেই আমি ভালো থাকি। আপনাদের জন্য একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কুশি সিনেমায় আমার আয় থেকে ১ কোটি রুপি আপনাদের ১০০ পরিবারের মধ্যে ভাগ করে দেব। আগামী ১০ দিনের মধ্যে অনলাইনে একটি ফরম দেওয়া হবে, সেখান থেকেই বেছে নেওয়া হবে বিজয়ী ১০০ পরিবারকে। প্রতিটি পরিবার ১ লাখ রুপির চেক পাবে। আমার সফলতা, আমার আনন্দ, আমার বেতন আপনাদের সঙ্গে ভাগ করে নেব।’ 

আরও পড়ুন>> সালমান শাহ’র ২৭তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

রোমান্টিক ধাঁচের সিনেমা কুশি নির্মাণ করেছেন শিব নির্ভানা। সিনেমায় বিজয় দেবেরাকোন্ডার বিপরীতে রয়েছেন সামান্থা রুথ প্রভু। ৫০ কোটি রুপি বাজেটের সিনেমাটি সারা বিশ্বে এ পর্যন্ত আয় করেছে ৭০ কোটি রুপি। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা আশা করছেন, এই আয় এখানেই থামছে না। অঙ্কটা বাড়বে আরও বেশি।


আরও খবর
চেহারা বদলের বিষয়ে মুখ খুললেন এমি জ্যাকসন

মঙ্গলবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩




জ্বালানি তেল বিক্রেতাদের কমিশন এজেন্ট ঘোষণা

প্রকাশিত:শনিবার ০২ সেপ্টেম্বর 2০২3 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ সেপ্টেম্বর 2০২3 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

জ্বালানি তেল বিপণনে সরকার ও বিপিসির অনুমতিপ্রাপ্ত জ্বালানি তেল ব্যবসায়ী এবং ডিলারদের কমিশন এজেন্ট ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করেছে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ। শনিবার (২ সেপ্টেম্বর) জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব শেখ মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সরকার নিম্নোক্ত শর্তে নতুন ফিলিং স্টেশন/সার্ভিস স্টেশন সংক্রান্ত নীতিমালা (সংশোধিত), ২০১৪ অনুযায়ী এবং জ্বালানি তেল বিপণনে সরকার/বিপিসি কর্তৃক অনুমতিপ্রাপ্ত জ্বালানি তেল ব্যবসায়ী/ডিলারদের কমিশন এজেন্ট ঘোষণা করল।

শর্তগুলো হলো

১. জ্বালানি তেলের ক্রয়মূল্য এবং বিক্রয়মূল্য সরকার/বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি) কর্তৃক নির্ধারিত হবে। জ্বালানি তেলের কমিশন এজেন্ট শুধু সরকার/বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি)/জ্বালানি তেল বিপণন কোম্পানি কর্তৃক সরবরাহকৃত জ্বালানি তেল বিক্রয় করার জন্য নির্ধারিত কমিশন ভোগ করবে।

২. জ্বালানি তেলের কমিশন এজেন্টরা তেল বিপণন কোম্পানির কাছে তেলের মূল্য পরিশোধ সাপেক্ষে জ্বালানি তেল গ্রহণ করে শুধু গ্রাহকের কাছে বিক্রয়/সরবরাহ করবে। এর দ্বারা কমিশন এজেন্টরা বিপণন কোম্পানির মালিকানা বা সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় কোনো অংশীদার বিবেচিত হবে না।

৩. জ্বালানি তেলের কমিশন এজেন্টরা জ্বালানি তেল বিপণনে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি) এবং জ্বালানি তেল বিপণন কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি মোতাবেক/নির্দেশনা অনুসারে বিপণন/সরবরাহ কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

৪. কমিশন এজেন্টদের জন্য জ্বালানি তেল ব্যবস্থাপনাসহ দেশে প্রচলিত যাবতীয় আইন, বিধিবিধান এবং নীতিমালা প্রযোজ্য হবে। তবে দেশে প্রচলিত কোনো আইন, বিধিবিধান এ প্রজ্ঞাপনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক হলে সংশ্লিষ্ট আইন, বিধিবিধান প্রাধান্য পাবে।

তবে পেট্রোল পাম্প মালিক সমিতির প্রধান দাবি কমিশন বৃদ্ধির বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত প্রজ্ঞাপনে আসেনি। তাদের দাবিগুলো ছিল

১. জ্বালানি তেল বিক্রয় কমিশন ৭.৫০ শতাংশ নির্ধারণ করা।

২. পেট্রোল পাম্পের ব্যবসায়ীরা যে কমিশন এজেন্ট তা গেজেট আকারে প্রকাশ করা।

৩. (ক) ট্যাংকলরী ভাড়ার ওপর ভ্যাট সংযুক্ত নয়, এ বিষয়ে সুস্পষ্ট গেজেট প্রকাশ করতে হবে।

(খ) ২৫ বছরের ঊর্ধ্বে ট্যাংকলরীর ইকোনমিক লাইফের জন্য পৃথকভাবে সুস্পষ্ট গেজেট প্রকাশ করতে হবে।


আরও খবর
যেভাবেই হোক নির্বাচন হতে হবে: ইসি আলমগীর

মঙ্গলবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩




বরগুনায় শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী উদযাপিত

প্রকাশিত:বুধবার ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
অলিউল্লাহ্ ইমরান, বরগুনা

Image

বরগুনায় শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী আলোচনা সভা, বর্নাঢ্য শোভাযাত্রা, সঙ্গীতানুষ্ঠান ও পূজাপাঠসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে উদযাপন করা হয়।

বুধবার (৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় সার্বজনীন আখড়া মন্দির প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত র‍্যালি পূর্ব আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুখ রঞ্জন শীল।

প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা মেজিস্ট্রেট শুভ্রা দাস, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) আব্দুল হালিম, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান, পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভাকেট ভুবন চন্দ্র হাওলাদার,আখড়াবাড়ি মন্দির কমিটির সভাপতি সহ ধর্মীয় সম্প্রদায়ের বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ।

সনাতন ধর্মীয় বক্তারা বলেন, ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্ম হয়েছিল মানুষের মঙ্গলের জন্য, মানুষের শান্তির জন্য, ভগবান শ্রীকৃষ্ণ বলেন পৃথিবীতে ধর্ম নিয়ে কোন ভেদাভেদ নাই, হিন্দু ধর্ম সকল ধরনের মানুষকে শ্রদ্ধা ও সম্মান করে।

বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) আব্দুল হালিম বলেন, ধর্ম নিয়ে কোন ভেদাভেদ নাই, আমাদের মানতে হবে আমরা সবাই এক বাংলাদেশের মানুষ, আমরা সবাই বাংলাদেশকে ভালবাসি, এই দেশে কোন ধরনের শান্তি শৃঙ্খলার অবনতি হতে দেয়া যাবে না।

বরগুনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শুভ্রদাস বলেন, আমরা সকলেই জানি যে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ এই ভাদ্র মাসের অষ্টমীতে মানুষরূপে পৃথিবীতে অবতরন করেন দুষ্টুদের দমনের জন্য এবং স্ধুদের পরিত্রাণের জন্য।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ. রফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা সবাই যে যার ধর্ম শান্তিপূর্ণভাবে পালন করবো, ধর্ম নিয়ে এদেশে কোন অশান্তি বা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি যাতে না হয় সে বিষয় সবাই লক্ষ রাখবো।

আলোচনা শেষে সার্বজনীন আখড়াবাড়ি থেকে আনন্দ শোভাযাত্রা প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে  পুনরায় আখড়াবাড়ি এসে অনুষ্ঠান শেষ হয়।


আরও খবর
জয়পুরহাটে খাল থেকে কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার

মঙ্গলবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩