আজঃ শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

১৫ লাখ টন জ্বালানি কিনবে সরকার

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের (বিপিসি) মাধ্যমে জি-টু-জি ভিত্তিতে ৭টি রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান থেকে ১৫ লাখ ৮০ হাজার টন পরিশোধিত জ্বালানি তেল কিনবে সরকার। এ লক্ষ্যে দুটি পৃথক প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানগুলো ভারত, চীন, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, আরব আমিরাত ও থাইল্যান্ডের। এতে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৮ হাজার ৯২৯ কোটি ৭১ লাখ টাকা।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) দুপুরে অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে ভার্চ্যুয়ালি অর্থনৈতিক বিষয়ক সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় এ প্রস্তাবগুলোর অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠক শেষে অনুমোদিত প্রস্তাবগুলোর বিস্তারিত সাংবাদিকদের তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে অতিরিক্ত সচিব মো. সামসুল আরেফিন।

অতিরিক্ত সচিব মো. সামসুল আরেফিন জানান, আজ অর্থনৈতিক বিষয়ক সংক্রান্ত কমিটির অনুমোদনের জন্য ১টি এবং ক্রয় সংক্রান্ত কমিটির অনুমোদনের জন্য ১৩টি প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়েছে। ক্রয় প্রস্তাবনাগুলোর মধ্যে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের ৭টি, বিদ্যুৎ বিভাগের ৩টি, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের ২টি এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ১টি প্রস্তাবনা ছিল। ক্রয় কমিটির অনুমোদিত ১৩টি প্রস্তাবে মোট অর্থের পরিমাণ ১০ হাজার ৭৯৪ কোটি ৮৪ লাখ ৮৩ হাজার ২৯৮ টাকা। মোট অর্থায়নের মধ্যে জিওবি হতে ব্যয় হবে ৯ হাজার ৫৮৯ কোটি ৬৬ লাখ ২৬ হাজার ৭৭ টাকা এবং ভারত হতে ঋণ ১,২০৫ কোটি ১৮ লাখ ৫৭ হাজার ২২১ টাকা।

এছাড়া ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান নুমালীগড় রিফাইনারী লিমিটেডের (এনআরএল) কাছ থেকে ৯০ হাজার মেট্রিক টন ডিজেল (০.০০৫% সালফার) ৫১২ কোটি ৪৮ লাখ টাকায় আমদানির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: অর্থমন্ত্রী

আরও খবর
কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে

বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২

মিশ্র প্রবণতায় চলছে পুঁজিবাজারের লেনদেন

বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২




বুস্টার ডোজ ওমিক্রনের বিস্তার থামাতে পারবে না : ভারতীয় বিশেষজ্ঞ

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কোভিড-১৯-এর ওমিক্রন ধরন প্রায় অপ্রতিরোধ্য এবং প্রত্যেকে এটি দ্বারা আক্রান্ত হবেন, ভারতের শীর্ষস্থানীয় স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ এ কথা বলেন। তিনি বলেন, করোনা টিকার বুস্টার ডোজ ভাইরাসটির দ্রুত বিস্তার থামাতে পারবে না।

বুস্টার ডোজ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটি কোনো পার্থক্য তৈরি করে না। সংক্রমণ ঘটবে। এটি সারা বিশ্বে নির্বিশেষে ছড়াবে।

তিনি জোর দিয়ে বলেন, কোভিড আর কোনো ভয়ঙ্কর রোগ নয়। নতুন ধরনটি মৃদু এবং হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যাও কম।

ড. জয়প্রকাশ মুলীয়িল আরও বলেন, আমরা সবাই যেমনটা জানি, এটি ডেল্টার চেয়ে অনেক বেশি মৃদু, শুধু তাই নয়, বাস্তবিকভাবে এটি অপ্রতিরোধ্য। ওমিক্রন সাধারণ ঠাণ্ডাজ্বরের মতোই হয়ে উঠেছে।

তিনি ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্স (আইসিএমআর)-এর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অন এপিডেমিওলজিস্টের সায়েন্টিফিক অ্যাডভাইসরি কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বরত আছেন।

 


আরও খবর
করোনায় আরও ২০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫৪৪০

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২

করোনায় মৃত্যু ১৫, শনাক্ত ১৫ হাজার ৮০৭ জন

বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারী ২০২২




বিশ্ব দরবারে পাওয়া মর্যাদা ধরে রাখার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | ৩১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিশ্ব দরবারে যে মর্যাদা পেয়েছে, সেটি ধরে রাখার লক্ষ্য নিয়ে সবাইকে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।বুধবার (১৯ জানুয়ারি) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজ (ডিএসসিএসসি) কোর্সের ২০২১-২০২২ গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে তিনি এই আহ্বান জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, এক সময় বাংলাদেশ সম্পর্কে বিদেশে অনেক নেতিবাচক কথা ছিল। তবে এখনও কিছু কিছু লোক আছে বাংলাদেশ সম্পর্কে বদনাম করতেই বেশি পছন্দ করে। কিন্তু আমাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের ফলে এবং আন্তর্জাতিক শান্তি রক্ষা এবং দেশের অভ্যন্তরে সন্ত্র্যাস, জঙ্গিবাদ দমনে আমরা যে দক্ষতা দেখিয়েছি, তার ফলে আজকে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি বিশ্বে উজ্জ্বল হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ঠিক ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে জয়লাভ করার পর যে সম্মান আমরা আন্তর্জাতিকভাবে পেয়েছিলাম, ১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্টের পর যে সম্মান আমরা হারিয়েছিলাম, আজকে আবার সেই সম্মান আমরা পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছি। এখন আর বাংলাদেশকে কেউ অবহেলা করতে পারে না। বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিশ্ব দরবারে মর্যাদা পেয়েছে। এই মর্যাদা ধরে রাখতে হবে।

২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশের কাতারে পৌঁছে ২০৭১ সালে স্বাধীনতার শতবর্ষ উদযাপনের স্বপ্নের কথা জানিয়ে নবীন কর্মকর্তাদের উদ্দেশে শেখ হাসিনা বলেন, উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তোলার সৈনিক হিসেবে কাজ করতে হবে। সব সময় মাথা উঁচু করে চলতে হবে এবং দেশকে ভালোবাসতে হবে, দেশের মানুষকে ভালোবাসতে হবে। দেশের জন্য নিবেদিতপ্রাণ হতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আজকে স্বাধীন দেশ। বাংলাদেশের এই অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা আর কখনো কেউ থামিয়ে দিতে পারবে না, সেই ভাবেই বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে সামনের দিকে।

নিজেকে সেনা পরিবারের একজন সদস্য বলেই মনে করেন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানে বলেন, আমার দুই ভাই সেনাবাহিনীর সদস্য ছিল। ক্যাপ্টেন শেখ কামাল এবং লেফটেন্যান্ট শেখ জামাল। কামাল মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশ প্রথম যুদ্ধ প্রশিক্ষণ কোর্স শেষ করে যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে। পরে তাকে মুক্তিযুদ্ধকালীন প্রধান সেনাপতির এডিসি হিসেবে আমাদের সরকার দায়িত্ব দেয় এবং সেই দায়িত্ব সে পালন করে। আর জামাল সরাসরি মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে। আমার চাচা শেখ আবু নাসেরের সাথে ৯ নম্বর সেক্টরে যুদ্ধ করেছিল।

মুক্তিযুদ্ধের দিনগুলোর কথা স্মরণ করে বঙ্গবন্ধুর মেয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৭১ সালে আমার মা, জামাল, রেহানা, রাসেল এবং আমি; আমরা গ্রেপ্তার হয়েছিলাম। জামাল গেরিলা কায়দায় সেখান থেকে পালিয়ে যায় এবং পালিয়ে গিয়ে সে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে। তার ওই বন্দিখানা থেকে বের হয়ে যাওয়াটা মুক্তিযুদ্ধে যখন ট্রেনিং দেওয়া হয়, তখন সেটা খুব ভালোভাবে প্রচার করা হত এবং প্রশিক্ষণের একটা অংশ হিসেবে ব্যবহার করা হতো। পরে ব্রিটিশ রয়্যাল মিলিটারি অ্যাকাডেমি, স্যান্ডহার্স্ট থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে স্বাধীনতার পর সে সরাসরি আমাদের সেনাবাহিনীতে কমিশন লাভ করেছিল।

ছোট ভাই রাসেলের ইচ্ছার কথা স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, তার একটা আকাঙ্ক্ষাই ছিল ছোটবেলা থেকে, যে সে বড় হলে সামরিক বাহিনীর অফিসার হবে। কিন্তু সেই আকাঙ্ক্ষা তার আর পূরণ হয়নি।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু পরিবারের প্রায় সবাইকে হত্যা করে একদল সেনা সদস্য। দেশের বাইরে থাকায় বেঁচে যান কেবল শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা।

সশস্ত্র বাহিনীর উন্নয়ন ও আধুনিকায়নে আওয়ামী লীগ সরকারের নেওয়া নানা পদক্ষেপের কথাও অনুষ্ঠানে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ডিএসসিএসসি এ পর্যন্ত সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী এবং বিমান বাহিনীর মোট ১২৮টি কোর্স পরিচালনা করেছে এবং ৫ হাজার ৬৮৬ জনকে ডিগ্রি দিয়েছে। ৪৩টি দেশের ১ হাজার ২৫৫ জন অফিসার সেখান থেকে ডিগ্রি নিয়ে নিজ দেশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। আমি আনন্দিত, এবারও ১৮টি দেশের ৪৭ জন বিদেশি কর্মকর্তা এবং বাংলাদেশ পুলিশের তিনজন কর্মকর্তাসহ মোট ২৫১ জন পিএসসি ডিগ্রি লাভ করলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, চলতি ডিএসসিএসসি কোর্সে সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনী থেকে নারীদের জন্য ৫টি আসন সংরক্ষণের নির্দেশ তিনি দিয়েছিলেন। প্রকৃতপক্ষে আমরা ১০টি আসন সংরক্ষণ করি পরে। আমাদের সশস্ত্র বাহিনীতে নারীর ক্ষমতায়ন ত্বরান্বিত হয়েছে। অংশগ্রহণকারী অফিসারদের স্পাউসরাও প্রশিক্ষণের অংশ হিসেবে বিভিন্ন গঠনমূলক ও সামাজিক কর্মকাণ্ডে অংশ নিচ্ছেন, আমি মনে করি প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে তারাও অবদান রাখতে পারছেন।


আরও খবর



শিল্পী সমিতি নির্বাচন

ইলিয়াস-নিপুণ প্যানেলে নির্বাচন করছেন যারা

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে পূর্ণাঙ্গ প্যানেল নিয়ে নির্বাচন করতে যাচ্ছেন চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন ও চিত্রনায়িকা নিপুণ আক্তার।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষদিন ছিল।

এদিন বিকেলে সমিতির কার্যালয়ে পুরো প্যানেলের মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ইলিয়াস-নিপুন। এবারের নির্বাচনে সভাপতি পদে প্রার্থী হচ্ছেন ইলিয়াস কাঞ্চন ও সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য লড়বেন নিপুণ আক্তার।

ইলিয়াস-নিপুণ প্যানেলে অন্যান্য পদে যারা প্রার্থী হয়েছেন, তাদের তালিকা এসেছে গণমাধ্যমের কাছে।

তারকাবহুল এই প্যানেলে যারা রয়েছেন: সহ-সভাপতি চিত্রনায়ক রিয়াজ আহমেদ ও ডি এ তায়েব, সহ-সাধারণ সম্পাদক চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক, সাংগঠনিক সম্পাদক অভিনেত্রী শাহনুর, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক চিত্রনায়ক নিরব হোসেন, দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক অভিনেতা আরমান, সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক চিত্রনায়ক মামনুন হাসান ইমন ও কোষাধ্যক্ষ পদে প্রার্থী হয়েছেন অভিনেতা আজাদ খান।

একই প্যানেলের কার্যকরী পরিষদের সদস্য পদে প্রার্থী হয়েছেন: খল-অভিনেতা অমিত হাসান, চিত্রনায়ক ফেরদৌস, চিত্রনায়ক শাকিল খান, অভিনেতা নানা শাহ, কমেডিয়ান আফজাল শরীফ, খল-অভিনেতা সাংকো পাঞ্জা, অভিনেত্রী জেসমীন, চিত্রনায়িকা কেয়া, পরীমনি, খল-অভিনেতা গাঙ্গুয়া ও সীমান্ত।

আগামী ২৮ জানুয়ারি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (বিএফডিসি) শিল্পী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।  ইলিয়াস কাঞ্চন ও নিপুণ প্যানেলের বিপক্ষে লড়বে জায়েদ খান ও মিশা সওদাগর প্যানেল।


আরও খবর
টাকা দিয়ে ভোট কিনছেন জায়েদ খান : নিপুণ

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২




ফুটবলাররা টিকা না নেওয়ায় ইন্দোনেশিয়ায় খেলা হচ্ছে না বাংলাদেশের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
ইন্দোনেশিয়া থেকে বলা হয়, দলের খেলোয়াড় ও সব কর্মকর্তার দুই ডোজ টিকা সম্পন্ন থাকতে হবে। কিন্তু আমাদের দলের সব খেলোয়াড়ের দুই ডোজ টিকা নেওয়া হয়নি

খেলতে হলে প্রত্যেক ফুটবলারের নেওয়া থাকতে হবে করোনা প্রতিরোধক দুই ডোজ টিকা, ইন্দোনেশিয়ার এমন শর্তে মাথায় হাত পড়ার অবস্থা বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে)। শেষ পর্যন্ত দেখা গেল মেলানো যাচ্ছে না শর্ত। তাই ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গে খেলার ইচ্ছা বাতিলই করতে হলো বাংলাদেশ ফুটবল দলকে।

জানুয়ারির ফিফা উইন্ডোতে ২৪ ও ২৭ তারিখে র‍্যাঙ্কিংয়ে ১৬৪তম স্থানে থাকা ইন্দোনেশিয়ার বিপক্ষে তাদের মাটিতেই দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলার কথা ছিল জামাল ভূঁইয়াদের৷ কিন্তু ইন্দোনেশিয়ার দাবি ছিল তাদের মাঠে খেলতে হলে সব ফুটবলার ও কর্মকর্তাকে দুই ডোজ টিকার আওতায় থাকতে হবে। সব ফুটবলারের দুই ডোজ করে করোনা টিকা না নেওয়ায় খেলা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান জাতীয় দল কমিটির চেয়ারম্যান কাজী নাবিল আহমেদ।

এক ভিডিও বার্তায় নাবিল বলেছেন, 'আমরা এ দুই ম্যাচ খেলার জন্য স ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। কোচও ১৫ তারিখে চলে আসবেন, স্কোয়াডও চূড়ান্ত করেছিলাম কিন্তু ইন্দোনেশিয়া থেকে বলা হয়, দলের খেলোয়াড় ও সব কর্মকর্তার দুই ডোজ টিকা সম্পন্ন থাকতে হবে। কিন্তু আমাদের দলের সব খেলোয়াড়ের দুই ডোজ টিকা নেওয়া হয়নি। ১৫ ফুটবলার দুই ডোজ নিলেও এক ডোজ নিয়েছেন সাতজন এবং ছয় ফুটবলার এখনো টিকাই গ্রহণ করেননি! এর ফলে আমাদের ইন্দোনেশিয়ায় যাওয়া হচ্ছে না।'

জানুয়ারির উইন্ডোতে কোনো ম্যাচ না খেলতে পারলেও মার্চের উইন্ডোতে ম্যাচ খেলার ব্যাপারে আশাবাদী কাজী নাবিল আহমেদ। মার্চের আগেই জাতীয় দল ও অনূর্ধ্ব-২৩ দল মিলিয়ে প্রায় ৪০ জনের একটা তালিকা করে সবাইকে টিকার আওতায় আনা হবে বলে জানান কাজী নাবিল আহমেদ।

গত সপ্তাহে বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব পেয়েছেন স্প্যানিশ হাভিয়ের কাবরেরা। ১৫ জানুয়ারি ঢাকায় আসবেন তিনি। ইন্দোনেশিয়া সফর দিয়েই বাংলাদেশের ডাগআউটে বসার কথা ছিল তাঁর। সফর বাতিল হওয়ায় আপাতত কিছুদিন বেকারই থাকতে হবে কাবরেরাকে।


আরও খবর
সাড়ে ৩ বছর নিষিদ্ধ ব্রেন্ডন টেলর

শুক্রবার ২৮ জানুয়ারী ২০২২




দাবি না মানলে কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়ার হুশিয়ারি রাশিয়ার

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নিজেদের নিরাপত্তা রক্ষায় কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া। এ বিষয়ে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো যদি আমাদের দাবি মেনে না নেয় তাহলে আমাদের নিরাপত্তার স্বার্থে যা করার দরকার তাই করা হবে। আমরা যে দাবি বা প্রস্তাব দিয়েছি তা দ্রুত মেনে নিতে হবে। অনন্ত সময়ের জন্য এ বিষয় নিয়ে আলোচনা চালিয়ে যেতে রাজী নই আমরা।

রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম রিয়া নোভোসতিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও যুক্তরাষ্ট্রের  প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের মধ্যে ফোনালাপ হওয়ার পর এমন হুশিয়ারি দিয়েছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

গত কয়েকদিন ধরে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বেশ উত্তপ্ত পরিস্থিতি চলছে। কারণ রাশিয়া তাদের প্রতিবেশী দেশ ইউক্রেনের সীমান্তে প্রায় লাখ খানেক সৈন্য মোতায়েন করেছে। ফলে আশঙ্কা করা হচ্ছে ইউক্রেনে আক্রমণ করবে রাশিয়া।

তারা মূলত এটি করছে কারণ ইউক্রেন পশ্চিমা দেশগুলোর সামরিক জোট ন্যাটোতে যোগ দিতে চাচ্ছে ও যুক্তরাষ্ট্র তাদের সামরিক বাহিনীকে রাশিয়ার আরো কাছাকাছি নিয়ে আসছে। এখন ইউক্রেন যদি ন্যাটোর সদস্য হয় তাহলে সেখানে ন্যাটোর সৈন্যরা যেতে পারবে। আর এ বিষয়টিকে নিজেদের নিরাপত্তার হুমকি মনে করছে রাশিয়া।

তাই রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন যুক্তরাষ্ট্রকে বলেছেন পশ্চিম ইউরোপে যেন তারা না আগানোর চেষ্টা করে এবং যুক্তরাষ্ট্র এদিকে আসবে না এমন নিশ্চয়তা চেয়েছেন পুতিন। 

এখন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন যা সিদ্ধান্ত নেয়া দরকার তা যেন খুব দ্রুত নেয়া হয়।  কারণ এরপর নিজেদের নিরাপত্তার জন্য যা করার দরকার তা করবে তারা।



আরও খবর