আজঃ মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২
শিরোনাম

১৫ বছর কনডেম সেলে থাকা দুই ফাঁসির আসামি খালাস

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

১৬ বছর আগে রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে মা-মেয়ে খুনের মামলায় মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত দুই আসামিকে খালাস দিয়েছেন আপিল বিভাগ। এছাড়া অপর এক আসামিকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ কমিয়ে যাবজ্জীবন দণ্ড দিয়েছেন।

দুই আসামির আপিল মঞ্জুর এবং এক আসামির আপিল খারিজ করে বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ রায় দেন।

২০০৬ সালের ২০ অক্টোবর সন্ধ্যায় ইফতারের পর রাজশাহীর গোদাগাড়ীর ধুয়াপাড়া যৌবন গ্রামের সৌদি প্রবাসী মো. বজলুর রহমানের স্ত্রী মিলিয়ারা খাতুন ওরফে রোকসানা ওরফে মিলু (৩০) এবং তার মেয়ে পারভীন ওরফে সাবনুরকে (৯) গলা কেটে হত্যা করা হয়। পরদিন মিলির বাবা রফিকুল ইসলাম থানায় এজাহার দায়ের করেন।

এজাহারে বলা হয়, মিলির মাথা গোয়াল ঘরে এবং সাবনুরের মাথা ল্যাট্রিনে পাওয়া যায়। দুই বছর পর এ মামলার বিচার শেষে ২০০৮ সালের ২৩ জুলাই রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মেসবাউদ্দৌলা রায় দেন।

রায়ে ধুয়াপাড়া যৌবন লাইন পাড়ার মো. রফিকুল ইসলামের ছেলে সোনাদ্দি ওরফে সোনারুদ্দি, সিরাজুল ইসলামের ছেলে মো. ইসমাইল হোসেন বাবু, মো. এসলাম ডাকাতের ছেলে তরিকুল ইসলাম ভুতা এবং অপর আসামি মো. মোক্তারকে (পলাতক) মৃত্যুদণ্ড দেন। সেই থেকে তিন আসামি কনডেম সেলে রয়েছেন।

এরপর নিয়ম অনুসারে মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে পাঠানো হয়। পাশাপাশি তিন আসামি হাইকোর্টে আপিল করেন। 

শুনানি শেষে বিচারপতি শহিদুল ইসলাম ও বিচারপতি আবদুর রব ২০১৪ সালের ১৩ মার্চ রায় দেন। রায়ে আপিল খারিজ করে চার আসামির মৃত্যুদণ্ডাদেশে অনুমোদন দেন।

রায়ে পলাতক মোক্তারের বিষয়ে বলা হয়, সারেন্ডার বা গ্রেফতারের পর থেকে তার দণ্ড কার্যকর হবে। এরপর কারাবন্দী তিন আসামি আপিল বিভাগে আপিল করেন। তবে পলাতক থাকায় মোক্তার আপিল করেননি। ওই আপিলগুলোর শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার রায় দেন আপিল বিভাগ।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির আহমেদ। আসামি ইসমাইলের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এস এম শাহজাহান, সোনারুদ্দির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী হেলাল উদ্দিন মোল্লা এবং তরিকুলের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এস এম বকস কল্লোল।

পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির আহমেদ বলেন, শুধুমাত্র তরিকুলের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী ছিল। তাই তার আপিল খারিজ এবং দীর্ঘদিন কনডেম সেলে থাকার বিবেচনায় তার দণ্ড কমিয়ে যাবজ্জীবন সাজা দিয়েছেন।  


আরও খবর



১৩১ রান করলেই আইপিএলের নতুন চ্যাম্পিয়ন গুজরাট

প্রকাশিত:রবিবার ২৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৯ মে ২০২২ | ৪১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৩০ রানে শেষ হল রাজস্থানের ইনিংস। আইপিএল জিততে ১৩১ রান করতে হবে গুজরাতকে।

ফাইনালে এসেও একই ধরনের পারফরম্যান্স প্রদর্শণ করছে গুজরাট। আহমেদাবাদের মোতেরা স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় রাজস্থান রয়্যালস। কিন্তু ব্যাট করতে নেমে গুজরাটের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে মাত্র ১৩০ রানে থমকে যেতে হয়েছে রাজস্থানকে।

চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য মাত্র ১৩১ রানের লক্ষ্য পেয়েছে গুজরাট টাইটান্স। রাজস্থানের সবচেয়ে বড় ভরসার নাম ছিলেন জস বাটলার। যদিও তিনি এবারও সর্বোচ্চ ৩৯ রান করেছেন। ৩৫ বলে ৫টি বাউন্ডারির মার ছিল তার ইনিংসে।


আরও খবর



যশোর-মাগুরা সড়কে ১৩ কোটি টাকার সোনা জব্দ

প্রকাশিত:বুধবার ০১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০১ জুন ২০২২ | ৪৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

যশোরে ১৩ কোটি টাকা মূল্যের ১৩৫টি সোনার বারসহ ৬ জনকে আটক করেছে বিজিবি। বুধবার (০১ জুন) দুপুর ১টার দিকে যশোর-মাগুরা সড়কের বাহাদুরপুর প্রাথমিক স্কুলের সামনে তিনটি প্রাইভেটকার তল্লাশি করে ওই সোনার বারগুলো উদ্ধার করা হয়। এ সময় ৬ জন চোরাচালানকারীকে আটক করা হয়।

উদ্ধারকৃত বারগুলোর ওজন ১৫ কেজি ৮০০ গ্রাম। যার আনুমানিক বাজার মূল্য ১৩ কোটি টাকা ৫৮ লাখ ৮০ হাজার।

যশোর ৪৯ বিজিবি অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শাহেদ মিনহাজ ছিদ্দিকী জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারেন ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে ঢাকা থেকে ৩টি প্রাইভেটকারযোগে সোনার চালান বেনাপোল সীমান্তে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এরপর বিজিবির একটি টিম যশোর-মাগুরা সড়কের বাহাদুরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে অবস্থান নেয়। দুপুর ১টার দিকে ওই তিন প্রাইভেটকারের গতিরোধ করে বিজিবি সদস্যরা। এরপর প্রাইভেটকার ৩টি তল্লাশি করে মোট ১৩৫ পিস সোনার বার উদ্ধার করা হয়। এছাড়া প্রাইভেটকারের চালকসহ ৬ জনকে আটক করা হয়।

বিজিবির অধিনায়ক আরও জানান, সোনার বারগুলো প্রাইভেটকারের সম্মুখভাগে অভিনব কায়দায় প্রস্তুতকৃত বিশেষ বক্সে বহন করা হচ্ছিল। আটককৃতদের সোনার বারগুলো সীমান্ত এলাকায় পৌঁছে দিয়ে ডলার নিয়ে ফেরত যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল।

আটককৃতরা হলেন- যশোরের আব্দুল জব্বারের ছেলে জাহিদুল ইসলাম ও আতিউর রহমানের ছেলে নাজমুল হোসেন, চাঁদপুরের রশিদ মিয়াজীর ছেলে আরিফ মিয়াজী, কুমিল্লার সিরাজুল ব্যাপারীর ছেলে শাহাজালাল, মাদারীপুরের কামাল হোসেনের ছেলে আবু হায়াত জনি ও নারায়ণগঞ্জের অলিউল্লাহ ব্যাপারীর ছেলে রবিউল আলম রাব্বি।

নিউজ ট্যাগ: সোনা জব্দ

আরও খবর



রূপগঞ্জের গঙ্গানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে থৈ থৈ পানি

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | ৩৯৫জন দেখেছেন

Image

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি:

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার মুড়াপাড়া ইউনিয়নের গঙ্গানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে থৈ থৈ পানি। সামান্য বৃষ্টিতে মাঠে হাঁটু পানি জমে থাকে। তাতে পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কমে যাচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বিদ্যালয় মাঠে পানি থৈ থৈ করছে। শিক্ষার্থীরা প্যান্ট হাঁটু পর্যন্ত গুটিয়ে শ্রেণিকক্ষে যাওয়া আসা করছে। কারো কারো কাপড় ভিজে গেছে। বিদ্যালয়ের তিন দিকে বহুতল ভবন। পশ্চিম দিকে রূপসী-মুড়াপাড়া-কাঞ্চন সড়ক। তাতে পানি বের হওয়ার ব্যবস্থা নেই। নিস্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় সারা বছরই মাঠে পানি জমে থাকে। মাঝে মধ্যেই মাঠে হাঁস সাঁতার কাটে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসিমা সুলতানা বলেন, ১৯৭৩ সালে গঙ্গানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপিত হয়। বর্তমানে এখানে ২৭৪ জন শিক্ষার্থী লেখাপাড়া করছে। পাঠদানের জন্য রয়েছে ৬ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা। ফলাফলও ভালো। জলাবদ্ধতা দূর করতে  মাঠে মাটি ভরাট করা হলেও পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় জলাবদ্ধতা স্থায়ী রূপ নিচ্ছে। তাতে বিদ্যালয়ের নিয়মিত শিক্ষার্থীদের সমাবেশ কিংবা অ্যাসেম্বলি হয় না । খেলাধুলাসহ স্বাভাবিক হাঁটা চলা করতে পারে না তারা। স্কুলের শ্রেণিকক্ষে প্রবেশ করে শিক্ষার্থীদের বন্দি হয়ে থাকতে হয়। জলাবদ্ধতার কারণে শিক্ষার্থীরা খেলাধুলা ও অ্যাসেম্বলী থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এছাড়া বিদ্যালয়ের ভবন অত্যান্ত ঝুঁকিপূর্ণ। ভবনের দেয়াল ও ছাদ থেকে পলেস্তেরা খসে পড়ছে। দুর্ঘটনার ভয়েও শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে উপস্থিতি দিনদিন কমে যাচ্ছে।

বিদ্যালয়ের ২৩ শতাংশ জমির অধিকাংশই এখন বেদখল হয়ে গেছে। বিদ্যালয়ের নামে নামজারি করা ১২ শতাংশ জমিই এখন দখলে রয়েছে। এ বিদ্যালয়টি স্থানীয় ও সংসদ নির্বাচনী ভোট কেন্দ্র। সেই হিসেবে আগামী নির্বাচনের আগেই নতুন ভবন নির্মাণ করার প্রয়োজন বলে এলাকাবাসী মনে করছে। রূপগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে ম্যানেজ করতে না পারায় দীর্ঘ দিনেও গঙ্গানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণে বরাদ্দ পাওয়া যাচ্ছে না। অগ্রিম অর্থ নিয়ে নতুন ভবন নির্মাণের তালিকা করা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।

রূপগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিসার জায়েদা আখতার তাঁর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিদ্যালয় ভবনটি পুরাতন এবং জরাজীর্ণ হওয়ায় কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। শিগগিরই নতুন ভবন নির্মাণ ও জলাবদ্ধতা নিরসনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার অহীন্দ্র কুমার মন্ডল বলেন, সরেজমিন পরিদর্শন করে কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। অগ্রাধীকার ভিত্তিতে গঙ্গানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণ করা হবে।

নিউজ ট্যাগ: নারায়ণগঞ্জ

আরও খবর



বিশ্বজুড়ে বাড়তে যাচ্ছে জ্বালানি তেলের চাহিদা

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | ৩১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জ্বালানি তেলের চাহিদা বাড়তে যাচ্ছে। জানা গেছে, ২০২৩ সালে বিশ্বজুড়ে তেলের চাহিদা দুই শতাংশের বেশি বাড়বে। এ সময় প্রতিদিন প্রায় ১০ কোটি ২০ লাখ ব্যারেল তেলের প্রয়োজন হবে। কিন্তু এরই মধ্যে দেশে দেশে তেলের দাম বেড়েছে। দেখা দিয়েছে উচ্চ মূল্যস্ফীতি। বুধবার (১৫ জুন) আন্তর্জাতিক জ্বালানি সংস্থা (আইইএ) এ তথ্য জানিয়েছে।

প্যারিসিভিত্তিক জ্বালানি সংস্থাটি মাসিক প্রতিবেদনে জানায়, রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করায় সরবরাহ ব্যবস্থায় ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

আইইএ জানায়, অর্থনৈতিক ঝুঁকি ক্রমেই বাড়ছে, এরই মধ্যে অনেক আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান সম্প্রতি নিম্নমুখী পর্যবেক্ষণ দিয়েছে। এসময় ২০২২ সালের তুলনায় ২০২৩ সালে তেলের চাহিদা বাড়তে পারে দুই দশমিক দুই শতাংশ। অর্থাৎ চাহিদা করোনা মহামারির আগের পর্যায়ে চলে যেতে পারে। অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের উন্নত অর্থনীতিগুলো ২০২২ সালে সর্বাধিক চাহিদা বৃদ্ধির জন্য দায়ী হবে। এক্ষেত্রে ২০২৩ সালে নেতৃত্ব দিতে পারে চীন। কারণ দেশটি করোনা বিধিনিষেধ থেকে বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে।

চাহিদা পুনরুদ্ধার ও সরবরাহ ব্যবস্থায় ঘাটতি ও রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞার ফলে বিশ্বজুড়ে এরই মধ্যে তেলের দাম বেড়েছে। মার্চে ব্যারেল প্রতি তেলের দাম রেকর্ড ১৩৯ ডলারে দাঁড়ায়। বুধবার (১৫ জুন) ব্রেন্ট ক্রুডের মূল্য দাঁড়ায় ১২০ ডলার।

নিউজ ট্যাগ: জ্বালানি তেল

আরও খবর



কাঠের ঘানিতে বাদাম তেল, মাসে বিথীর আয় আড়াই লাখ টাকা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১০ জুন ২০২২ | ৬০৫জন দেখেছেন

Image

জয়পুরহাট প্রতিনিধি:

২০১৯ সালে জয়পুরহাট সরকারি কলেজ থেকে ইসলামের ইতিহাস বিষয়ে মাস্টার্স পাস করেন বিথী পারভিন। এরপর বাড়িতেই বসে ছিলেন। হঠাৎ বাদাম থেকে তেল উৎপাদনের বিষয়টি মাথায় আসে। এরপর স্বামীর সঙ্গে আলোচনা করে ২০২০ সালের আগস্টে কাজ শুরু করেন। এখন প্রতিদিন গড়ে ১০ লিটার তেল উৎপাদন করছেন। তার মাসিক আয় আড়াই লাখ টাকার বেশি।

জয়পুরহাট সদরের দক্ষিণ রাঘবপুর গ্রামের বাসিন্দা ওয়ালীউল হাসান রিপনের স্ত্রী বিথী পারভিন। নিজের প্রতিষ্ঠানের নাম দিয়েছেন জয়পুরী অর্গানিক ফুড

বিথী পারভিন বলেন, কাঠের ঘানি মেশিনে উৎপাদন বাদাম তেল উৎপাদন করছি। এক কেজি বাদাম থেকে ২৫০ গ্রাম তেল হয়। প্রতিদিন ১০ লিটার তেল উৎপাদন হচ্ছে। এই তেল কিনতে জেলা ও দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ আসছেন। সরিষা, কালজিরা ও সূর্যমুখী থেকেও তেল উৎপাদনের পরিকল্পনা রয়েছে।

ওয়ালীউল হাসান রিপন বলেন, বিথীর কথায় আমি কয়েকজনের সঙ্গে পরামর্শ করি। এরপর কাঠের ঘানিতে করা যায় কিনা ভাবি এবং ইউটিউবে এ নিয়ে ভিডিও দেখি। পরে কাঠের ঘানি বানিয়ে নিই। এখানে বাদাম তেল তৈরি করছি। যে তেলটি কোল্ড প্রেস অর্থাৎ মেশিনে ভাঙা তেলের মতো গরম হবে না।

তিনি আরো বলেন, বাদাম তেলের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। কারণ, এই তেলের গুণাগুণ অক্ষুণœ থাকে। অনেকেই রান্না, ত্বকের পরিচর্যা, চুলে দেওয়া ও বাচ্চাদের বিভিন্ন খাবার তৈরির জন্য কিনছেন। বর্তমান বাজার দর হিসেবে ৮৯০ টাকা লিটার বাদাম তেল বিক্রি হচ্ছে। একদম নির্ভেজাল ও খাঁটি তেল গ্রাহকদের সরবরাহের জন্য চেষ্টা করছি।

জয়পুরী অর্গানিক ফুড নিয়মিত বাদাম তেল কেনেন জয়পুরহাট শহরের খঞ্জনপুর এলাকার নুরুজ্জামান বাবু।

তিনি বলেন, আমরা কাঠের ঘানিতে ভাঙা কোল্ড প্রেস বাদাম তেল পাচ্ছি। এই তেল স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভালো। ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য অনেক উপকারী। নিজেরাও এটা ব্যবহার করছি এবং প্রতিবেশী-স্বজনদেরও ব্যবহার করতে উদ্বুদ্ধ করছি।

জয়পুরহাট শহরের মাসুদ রানা বলেন, আগে অনলাইনের মাধ্যমে বাইরে থেকে বাদাম তেল কিনতাম। পরে জানতে পারলাম, জয়পুরহাটেই এই তেল উৎপাদন হচ্ছে। তাই নিজে চোখে দেখে কাঠের ঘানি দিয়ে তৈরি বাদাম তেল কিনছি।

বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক) জেলা কার্যালয়ের উপ-ব্যবস্থাপক লিটন চন্দ্র ঘোষ  বলেন, জয়পুরহাটের মেয়ে বিথী পারভিন ঘানিতে করে বাদাম থেকে তেল তৈরি করছেন। তিনি যেটা শুরু করেছেন, সেটা অন্য তেল যেমন সরিষা, সয়াবিনের ঘারতি পূরণ করা সম্ভব। এছাড়া এই তেলে রয়েছে স্বাস্থ্যের জন্য প্রচুর উপকারী প্রোটিন। যেটা আমাদের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করবে।

তিনি আরো বলেন, বিথী পারভিন চাইলে যেকোনও সহযোগিতা করা হবে। সেই সঙ্গে বিএসটিআই নিবন্ধনেরও ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে।


আরও খবর