আজঃ মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

ভারতে শিশুর দেহে বার্ড ফ্লু শনাক্ত

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে এক শিশুর দেহে বার্ড ফ্লু শনাক্ত হয়েছে। মঙ্গলবার (১১ জুন) বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

ডব্লিউএইচও জানায়, শনাক্ত হওয়া ভাইরাসটির ধরন এইচ৯এন২। আক্রান্ত শিশুটির বয়স চার বছর। সে ভারতের দ্বিতীয়জন হিসেবে ভাইরাসটির এ ধরনে আক্রান্ত হলো। এর আগে ২০১৯ সালে দেশটিতে প্রথমবারের মতো মানুষের দেহে ভাইরাসটির এ ধরন শনাক্ত হয়েছিল।

ভাইরাসটিতে আক্রান্ত শিশুটির হাল জানাতে গিয়ে ডব্লিউএইচও বলে, শিশুটি তীব্র শ্বাসকষ্ট, জ্বর ও পাকস্থলির সমস্যায় ভোগে। তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শিশুটির অবস্থা এতই নাজুক হয়ে পড়ে যে তাকে আইসিইউতে চিকিৎসা দেওয়া হয়। সে প্রায় তিন মাস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে বাড়ি ফেরার ছাড়পত্র পায়। এ ঘটনাটি গত ফেব্রুয়ারি মাসের বলেও জানায় ডব্লিউএইচও।

খবর পেয়ে শিশুটির ব্যাপারে খোঁজ নেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তারা কেস স্টাডি শুরু করে। জানা যায়, আক্রান্ত শিশুটির বাড়ির আশপাশে হাঁস-মুরগি আছে। এসবের সংস্পর্শে ছিল শিশুটি। তার পরিবারের লোকজনও এসব প্রাণির সংস্পর্শে আসে। তবে অন্য কারও দেহে ভাইরাসটির অস্তিত্ব মেলেনি।

এ মাসের শুরুতে ডব্লিউএইচও মেক্সিকোতে বার্ড ফ্লু ভাইরাসের নতুন ধরনে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর খবর জানায়। আক্রান্ত ব্যক্তির দেহে এইচ৫এন২ ধরন সংক্রমিত হয়েছিল। বিশ্বে প্রথমবারের মতো মানুষের দেহে ধরনটি শনাক্ত হয় এবং আক্রান্ত ব্যক্তি মারা যান।

৬ জুন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) বরাতে আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ২৪ এপ্রিল ৫৯ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি মারা যান। তার জ্বর, শ্বাসকষ্ট, ডায়রিয়া ও বমি বমি ভাবের লক্ষণ ছিল। তার অবস্থা খুব শোচনীয় হয়ে পড়ে। এতে তিন সপ্তাহ ধরে তিনি শয্যাশায়ী ছিলেন।

মারা যাওয়া ব্যক্তি আগে থেকে অন্যান্য রোগে আক্রান্ত ছিলেন। মেক্সিকোর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এ দাবি করেছে। তারা বলছে, ওই ব্যক্তি কিডনি রোগ, টাইপ-২ ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপে ভুগছিলেন।

আরেকটি তথ্য সংশ্লিষ্টদের ভাবিয়ে তুলেছে। ওই ব্যক্তির সরাসরি খামার বা অন্য প্রাণির সংস্পর্শে আসার ইতিহাস নেই। এতে ভাইরাসের উৎস খোঁজা আরও জটিল হয়ে গেছে। স্থানীয় কর্তৃপক্ষ তার বাড়ির আশপাশের খামার নজরদারিতে রেখেছে। ওই এলাকার গবাদিপশু-পাখি এবং মানুষের মধ্যে ভাইরাসটির উপস্থিতি আছে কি না তা যাচাইয়ের চেষ্টা চলছে।

এর আগেও মেক্সিকোর খামারগুলোতে এইচ৫এন২ ধরনের সংক্রমণ দেখা গেছে। তবে কোনো মানুষের এতে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা এটিই ছিল প্রথম।


আরও খবর



অবশেষে চালু দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক

Image

দুই মাস ৮ দিন পর অবশেষে দেশের দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল (এসএমডব্লিউ-৫) চালু হয়েছে। গত ১৯ এপ্রিল বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবলস পিএলসির (বিএসসিপিএলসি) আওতাধীন দেশের দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবলটি সিঙ্গাপুর হতে পশ্চিম প্রান্তে ইন্দোনেশিয়ার জলসীমায় আকস্মিকভাবে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এই দীর্ঘসময়ের মধ্যে ক্যাবলটির মেরামত সম্পন্ন হয়েছে এবং সার্কিটগুলো চালু করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবলস পিএলসির (বিএসসিপিএলসি) মহাব্যবস্থাপক (চালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ) সাইদুর রহমান এ তথ্য জানান।

বিএসসিপিএলসি জানায়, গত ১৯ এপ্রিল দিবাগত রাত ১২টায় বিএসসিপিএলসির আওতাধীন দেশের দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবলটি (এসএমডব্লিউ-৫) সিঙ্গাপুর হতে পশ্চিমপ্রান্তে ইন্দোনেশিয়ার জলসীমায় আকস্মিকভাবে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এতে ইন্টারনেট সংযোগে বিঘ্ন ঘটে।

সাইদুর রহমান জানান, এসএমডব্লিউ-৫ কনসোর্টিয়াম শুক্রবার সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে ক্যাবলটির মেরামত কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করে। বিএসসিপিএলসির এসএমডব্লিউ-৫ এর মাধ্যমে সংযোগ করা সার্কিটগুলো চালু করা হয়েছে।

কক্সবাজারে অবস্থিত দেশের প্রথম সাবমেরিন ক্যাবল, কুয়াকাটায় অবস্থিত সাবমেরিন ক্যাবল এবং কয়েকটি আইটিসি বা ইন্টারন্যাশনাল টেরিস্ট্রিয়াল ক্যাবলের মাধ্যমে দেশে ইন্টারনেট সরবরাহ করা হয়ে থাকে।

বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো সাবমেরিন কেবল এসএমডব্লিউ-৪ এ যুক্ত হয় ২০০৫ সালে, যার মাধ্যমে ২৫০ জিবিপিএস (গিগাবাইট পার সেকেন্ড) ব্যান্ডউইথ পাওয়া যাচ্ছে।

এছাড়া বাংলাদেশ ছয়টি বিকল্প সাবমেরিন ক্যাবলের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। যেগুলোর মাধ্যমে ভারত থেকে ব্যান্ডউইথ আমদানি করা হয়।

আর ২০১৭ সালের ১০ সেপ্টেম্বর পটুয়াখালীর কুয়াকাটার কলাপাড়ায় চালু হয়েছে বাংলাদেশের দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল ল্যান্ডিং স্টেশন। এই ল্যান্ডিং স্টেশনের মাধ্যমে সাউথইস্ট এশিয়া-মিডলইস্ট-ওয়েস্টার্ন ইউরোপ (এসএমডব্লিউই-৫) আন্তর্জাতিক কনসোর্টিয়ামের সাবমেরিন ক্যাবল থেকে সেকেন্ডে ১ হাজার ৫০০ গিগাবাইট (জিবি) গতির ইন্টারনেট পাচ্ছে বাংলাদেশ।


আরও খবর



দুর্নীতিবাজ কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বাংলাদেশে দুর্নীতিবাজ কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না বলে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

শনিবার (২৯ জুন) বিকেলে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের আয়োজনে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

দলের নেতাকর্মীদেরও সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগকে প্রস্তুত হতে হবে। সারা বাংলাদেশে সবার উদ্দেশ্যে বলছি, বাড়াবাড়ি করবেন না। ক্ষমতার দাপট কেউ দেখাবেন না। কাউকে ক্ষমা করা হবে না। শেখ হাসিনার শূন্য সহিষ্ণুতা নীতি দুর্নীতির বিরুদ্ধে। 

তিনি বলেন, দুর্নীতিবাজরা এই দেশে বেশি দুর্নীতি দুর্নীতি করে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলে তাদের মধ্যে কত যে দুর্নীতিবাজ, একটু খুঁজে দেখেন, পেয়ে যাবেন। দুর্নীতিবাজ আছে আশে-পাশে। দুর্নীতিবাজের ক্ষমা নেই।

বিএনপির দুর্নীতি নিয়ে কথা বলার অধিকার নেই, দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিএনপির কোনো কথা বলার থাকে না। কারণ, বিএনপি মানেই দুর্নীতিবাজ। জাতীয়তাবাদী দুর্নীতিবাজ দল, আমরা শক্তি আমরা বল।

বিএনপি নেতা তারেক রহমানের দুর্নীতির বিষয়টি তুলে ধরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, তারেক রহমান পলাতক দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। কীসের অভিযোগ হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার। এখন বিএনপির নেতারা দুর্নীতির বিরেুদ্ধে কথা বলে। আপনাদের এক নাম্বার নেতাই তো দুর্নীতিবাজ, হাজার হাজার টাকা পাচার করে আরাম-আয়াশে দিন কাটাচ্ছে।

আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রাজ্জাক, মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, কামরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য শাহাবুদ্দিন ফরাজি, সাঈদ খোকন প্রমুখ। 


আরও খবর



৬০৯ কোটি টাকার এলএনজি কিনছে সরকার

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৩ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি আইন ২০১০ এর আওতায় স্পট মার্কেট থেকে এক কার্গো এলএনজি কেনার অনুমোদন দিয়েছে সরকার। এতে ব্যয় হবে ৬০৯ কোটি ২৭ লাখ ৬৫ হাজার ৮৯৭ টাকা ৷ 

বুধবার সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক এ প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে চলতি বছর মোট ২১টি কার্গো এলএনজি কেনার অনুমোদন দিল ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সমন্বয় ও সংস্কার সচিব মো. মাহমুদুল হোসাইন খান সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তিনি বলেন, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের এক প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মেসার্স এক্সিলেরেট এনার্জি এলপি থেকে এই এলএনজি আমদানির ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়। এতে ব্যয় হবে ৬০৯ কোটি ২৭ লাখ ৬৫ হাজার ৮৯৭ টাকা (ভ্যাট ও ট্যাক্সসহ)। প্রতি এমএমবিটিইউ এলএনজির দাম পড়বে ১৩ দশমিক ৫৬ মার্কিন ডলার, যা আগে ছিল ১২ দশমিক ৯৭ মার্কিন ডলার।

বৈঠকে রাষ্ট্রীয় চুক্তির মাধ্যমে ২০২৪-২৫ অর্থ বছরের জন্য সৌদি আরব ও রাশিয়া থেকে ৭০ হাজার মেট্রিক টন সার কেনার অনুমোদন দিয়েছে সরকার।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সমন্বয় ও সংস্কার সচিব জানান, এতে মোট ব্যয় হবে ৩৪৪ কোটি ৩৮ লাখ ৩০ হাজার টাকা। এরমধ্যে ৪০ হাজার মেট্রিক টন ডিএপি ও ৩০ হাজার মেট্রিক টন এমওপি সার রয়েছে। এছাড়া গাবতলী সিটি পল্লীতে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মীদের জন্য আবাসিক ভবন নির্মাণ' শীর্ষক প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত চারটি প্যাকেজের ব্যয় বাড়িয়েছে সরকার। চার প্যাকেজে মোট ব্যয় বেড়েছে ৪৭ কোটি ৭১ লাখ ৪৯ হাজার ৩৩০ টাকা।

এদিকে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে আগামী ৫ জুলাই শুক্রবার পদ্মা বহুমুখী সেতুর সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। এই অনুষ্ঠান উপলক্ষে যে কার্যক্রমগুলো নেওয়া হবে ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টের মাধ্যমে। এতে যে ব্যয় হবে তা সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে করার অনুমোদন দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।


আরও খবর



কোপার ফাইনালের দিন কলম্বিয়ায় সরকারি ছুটি ঘোষণা

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

সবশেষ ২০০১ সালে কোপা আমেরিকার ফাইনাল খেলেছিল কলম্বিয়া। মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই শেষে সেবারই শিরোপা উৎসব করেছিল দেশটি। ২৩ বছর পর ফের শ্রেষ্ঠত্বের মঞ্চে উঠেছে তারা। নিজেদের ইতিহাসে দ্বিতীয়বার কোপা শিরোপা জয়ের জন্য মুখিয়ে আছে দলটি।

কোপা আমেরিকার ফাইনাল ম্যাচে সোমবার (১৫ জুলাই) আর্জেন্টিনার মুখোমুখি হবে কলম্বিয়া। মায়ামির হার্ড রক স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

এদিকে ফাইনালকে ঘিরে আশার সঞ্চার করছেন দেশটির ভক্ত-সমর্থকরা। তাই তো ফাইনালের দিন নাগরিক ছুটি ঘোষণা করেছেন দেশটির সরকার প্রধান গুস্তাভো পেত্রো।

সম্প্রতি জাতিসংঘের এক শান্তি মিশনে নিউইয়র্কে গিয়েছিলেন কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট। সেখানে সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন তিনি।

কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্টের ভাষ্য, কলম্বিয়ার জাতীয় দল একতার প্রতিনিধিত্ব করে, সংঘাত কিংবা মেরুকরণের নয়। কলম্বিয়ার পতাকাও একতার প্রতীক। তাই আমরা সোমবার, জয়ের দিনে নাগরিক ছুটির দিন উদযাপন করব।

পেত্রো আরও বলেন, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কার্যনির্বাহী কমিটিকে আমি উৎসাহ দিচ্ছি কর্মীদের নিয়ে একসঙ্গে কলম্বিয়ান ঐক্য উদযাপন করার জন্য। সরকারি এবং বেসরকারি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এদিন তাদের কর্মীদের আনন্দ করার সুযোগ করে দেবে। এক হয়ে থাকা যে সম্ভব, চলুন সেটা বিশ্বাস করি।


আরও খবর



অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে সুপার এইট শুরু বাংলাদেশের

প্রকাশিত:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

১৪০ রানের মামুলি পুঁজি দাঁড় করানোর পর দ্রুতই উইকেটের দরকার ছিল বাংলাদেশের। তবে সেটি পারেননি টাইগার বোলাররা। ওপেনিংয়ে হেড ও ওয়ার্নারের ৬৫ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ম্যাচ থেকেই ছিটকে যায় বাংলাদেশ। অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের ১১ দশমিক ২ ওভারের পর অ্যান্টিগায় বৃষ্টিতে আর খেলা হয়নি। ১১ দশমিক ২ ওভার পর ডিএলএস পদ্ধতিতে ২৮ রানে এগিয়ে ছিল অজিরা। শেষ পর্যন্ত ফলে সে ব্যবধানেই অজিদের কাছে হেরেছে বাংলাদেশ।

শুক্রবার (২১ জুন) স্যার ভিভিয়ান রিচার্ড স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নাজমুল হাসান শান্তর ৩৬ বলে ৪১ রান এবং হৃদয়ের ২৮ বলে ৪০ রানের ইনিংসে ভর করে ১৪০ রানের পুঁজি দাঁড় করায় বাংলাদেশ। জবাবে ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে ১১ দশমিক ২ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১০০ রান তোলে অজিরা। এরপর খেলা শুরু না হওয়ায় বৃষ্টি-আইনে ২৮ রানে জিতেছে মিচেল মার্শের দল।

তাওহীদ হৃদয়ের ক্যাচ মিসের সুবাদে উড়ন্ত সূচনা পায় অস্ট্রেলিয়া। তানজিমকে কাট করতে গিয়ে পয়েন্টে ক্যাচ তুলেছিলেন ওয়ার্নার। তবে ক্যারি করা সেই ক্যাচ লুফে নিতে পারেননি হৃদয়। এতে ৫ রানে জীবন পান এই ওপেনার।

জীবন পেয়েই আগ্রাসী হয়ে উঠেন ওয়ার্নার। ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে পাওয়ার প্লেতে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৫৯ রান তুলে নেন হেড-ওয়ার্নার জুটি।

এরপর উইকেটের খোঁজে রিশাদকে আক্রমণে এনেছিলেন শান্ত। তবে বেরসিক বৃষ্টিতে বন্ধ হয়ে যায় খেলা। প্রায় ৩০ মিনিট পর ফের খেলা শুরু হয়। এই ওভারের পঞ্চম বলে রিশাদের হাত ধরে প্রথম উইকেটের দেখা পায় বাংলাদেশ। ট্রাভিস হেডের বিদায়ে ভাঙে তাদের ৬৫ রানের জুটি।

হেডের পর অজি অধিনায়কের উইকেটও নিজের ঝুলিতে পুরেন রিশাদ। সুইপের চেষ্টা করে এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়েন মার্শ। রিভিউ নিলেও তা কাজে আসেনি। আম্পায়ার্স কলে প্যাভিলিয়নে পথ ধরেন তিনি। এতে ৪ রানের মধ্যে ২ উইকেট হারায় অজিরা। এরপর বিশ্বমঞ্চে নিজের অষ্টম ফিফটি তুলে নেন ওয়ার্নার। ৩৪ বলে এই মাইলফলকে পৌঁছান অজি ওপেনার।

অজিদের দলীয় ১০০-এর পরই ফের হানা দেয় বৃষ্টি। ১১ দশমিক ২ ওভার শেষে ডিএলএস পদ্ধতিতে ২৮ রানে এগিয়ে ছিল অস্ট্রেলিয়া। পরে বৃষ্টিতে আর খেলা না হওয়ায় ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে সে ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে অজিরা।

এর আগে, টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি লাল-সবুজ শিবিরের। রানের খাতা খোলার আগেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন ওপেনার তানজিদ। মিচেল স্টার্কের প্রথম দুটি বল লো ফুলটস ছিল, তৃতীয়টি ফুললেংথে। তাতে ব্যাট নামিয়েও আটকাতে পারেননি তরুণ এই ওপেনার। ব্যাটের নিচের অংশে লেগে সরাসরি স্ট্যাম্পে ঢুকে বল।

দ্বিতীয় উইকেটে লিটনকে নিয়ে ৫৮ রানের জুটি গড়েন শান্ত। তবে দশম বলে রানের দেখা পাওয়া লিটনও বেশিক্ষণ টেকেননি। ২৫ বলে মাত্র ১৬ রান করে ফেরেন তিনি। জাম্পার ওপর চড়াও হতে গিয়ে স্লগ সুইপের চেষ্টা করেছিলেন। মিস হয়ে বলটি ঢুকে স্ট্যাম্পে।

সারপ্রাইজ প্যাকেজ হিসেবে চারে ব্যাট করতে রিশাদ হোসেনকে পাঠানো হয়েছিল। তিনিও সুবিধা করতে পারেননি। ম্যাক্সওয়েলকে জোরের ওপর খেলতে গিয়ে ক্যাচ দিয়ে থাকেন তিনি।

এরপর ৫ চার ও এক ছক্কায় ৩৬ বলে ৪১ রান করে শান্ত বিদায় নিলে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। জাম্পাকে সুইপ করতে গিয়ে ব্যাটে-বলে হয়নি শান্তর। আবেদনে সাড়া দেন রিচার্ড ইলিংওর্থ। তবে আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত রিভিউ করার প্রয়োজন বোধ করেননি বাংলাদেশের অধিনায়ক।

এরপর ১০ বল মোকাবিলা করেও দুই অঙ্কের কোটা পেরোতে পারেননি সাকিব। এদিন মাত্র ৩ বল থিতু হতে পেরেছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। চলতি টুর্নামেন্টে প্রথমবার সুযোগ পেয়ে গোল্ডেন ডাক উপহার দেন মেহেদী হাসান।

শেষ ওভারে সতীর্থদের আসা-যাওয়ার মিছিলে রানের চাকা সচল রাখা হৃদয়কে ফিরিয়ে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন কামিন্স। হৃদয়ের দুটি করে চার-ছক্কায় ২৮ বলে ৪০ রানে ভর করে টেনেটুনে সম্মানজনক পুঁজি পায় টাইগাররা।


আরও খবর