আজঃ মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

চেয়ারম্যান প্রার্থীর আচরণবিধি লঙ্ঘন, ৭ পাতিল খিচুড়ি জব্দ

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৮ মে ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মামুন হোসেন, পাবনা

Image

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে খিচুড়ি রান্না করায় এক চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এসময় ৭ পাতিল খিচুড়ি জব্দ করা হয়েছে।

ঈশ্বরদী উপজেলা আচরণবিধি ম্যাজিস্ট্রেট শাহাদাত হোসেন খান এর নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়।

আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী এমদাদুল হক রানা সরদারের সমর্থনে শুক্রবার (১৭ মে) সন্ধ্যায় পাকশী ইউনিয়নের দিয়ার বাঘইল গ্রামে উপজেলা আওয়ামী লীগের সমাজ কল্যাণ সম্পাদক তরিকুল ইসলাম ভাদুর বাড়িতে নির্বাচনী সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এই সমাবেশে উপস্থিত ভোটারের জন্য খিচুড়ি খাওয়ার আয়োজন করা হয়। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে উপজেলা আচরণবিধি ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) শাহাদাত হোসেন খান ওই বাড়ির পাশের খোলায় অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় ৭ পাতিল খিচুড়ি জব্দের পাশাপাশি তরিকুল ইসলাম ভাদুকে দশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

উপজেলা আচরণবিধি ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) শাহাদাত হোসেন খান খিচুড়ি জব্দ ও জরিমানার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সমাবেশের জন্য ভাদুর বাড়ি পাশের খোলায় খিচুড়ি রান্না হয়েছিল। পরে জব্দকৃত খিচুড়ি পাকশী ফুরফুরা শরীফ এতিমখানায় বিতরণ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত: গত ১৩ মে আনারস প্রতীকের সমর্থনে শোডাউন ও মিছিল করা হয়। এরই প্রেক্ষিতে ১৪ মে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগের ভিত্তিতে চেয়ারম্যান প্রার্থীকে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন শোকজ করেন। কারণ দর্শানোর নোটিশের জবাবে প্রার্থী এমদাদুল হক রানা সরদার ভুল স্বীকার করে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। রিটার্নিং অফিসার প্রথমবারের মতো ক্ষমা করেন।


আরও খবর



এবার রাশিয়ায় নিষিদ্ধ হলো নিকাব

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

পশ্চিমা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মুসলিম নারীদের হিজাব ও নিকাবের ওপর নিষেধাজ্ঞার কথা হয়তো সবারই জানা। এসবের বিপরীতে ধর্মীয় স্বাধীনতা ইস্যুতে প্রায়ই মুখ খুলতে দেখা যায় রাশিয়াকে। এবার সেই রাশিয়াই নিকাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। এমন ঘটনা ঘটেছে রাশিয়ার দাগেস্তান রিপাবলিক অঞ্চলে। স্থানীয় সেক্যুলার সরকারের আপত্তি ওঠার পর এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

রুশ সংবাদমাধ্যম আরটি-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দাগেস্তান রিপাবলিকের ইসলামিক কর্তৃপক্ষ মুসলিম নারীদের নিকাব পরিধানের ওপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। গত মাসে অঞ্চলটিতে একটি সশস্ত্র হামলার পর এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

নিকাব হলো মুসলিম নারীদের একটি পোশাক যা তাদের পুরো মুখ ঢেকে রাখে শুধু চোখ ব্যতীত। মুসলিম ধর্মপণ্ডিতরা বলে থাকেন, এ ধরনের পোশাক নারীদের পর্দার অনুষঙ্গ। যদিও মুসলিম বিশ্বের সব জায়গায় তা মানা হয় না।

টেলিগ্রাম চ্যানেলে দেয়া এক বিবৃতিতে দাগেস্তানের ডেপুটি হেড মুফতি আব্দুল্লাহ সালিমভ জানান, দাগেস্তান প্রজাতন্ত্রের জনগণের ওপর নিরাপত্তা হুমকি কমিয়ে আনার লক্ষ্যে রাশিয়ার জাতীয় নীতিমালা ও ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একটি আবেদনের প্রেক্ষিতে দাগেস্তানের ধর্মীয় নেতারা নিকাব নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সালিমভ জানান, মুফতি কাউন্সিল এক জরুরি বার্তায় জানাচ্ছে যে- চলমান হুমকি বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত দাগেস্তানে মুসলিম নারীদের সাময়িকভাবে নিকাব পরিধানের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে একটি ফতোয়াও জারি করেছে স্থানীয় ইসলামি কর্তৃপক্ষ।

এর আগে মঙ্গলবার (২ জুলাই) ফতোয়া বিভাগের প্রধান আখমেদ-খাদজি ইসায়েভ জানান, মুসলিম নারীদের নিকাব পরার ব্যাপারে ইসলামী আলেমদের মধ্যে কোনো সাধারণ ঐকমত্য নেই। এ সময় বিভিন্ন ধর্মীয় ব্যাখ্যা ও ফতোয়ার আলোকে দাগেস্তানের মুফতিরা নিকাবের ওপর সর্বজনীন নিষেধাজ্ঞা দেয়ার মতো কোনো বিষয় খুঁজে পাননি বলেও জানান তিনি।

ইসায়েভ জানান, স্থানীয় পরিস্থিতির আলোকে নিকাবের ওপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা দেয়া যেতে পারে। তবে স্থায়ীভাবে নিকাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়ারও বিরোধিতা করেন ফতোয়া বিভাগের প্রধান। গত মাসের শেষের দিকে দাগেস্তানের গভর্নর সের্গেই মেলিকভ নিকাব নিষিদ্ধ করার পক্ষে কথা বলেছিলেন। এ সময় তিনি যুক্তি দিয়েছিলেন যে, এ ধরনের পোশাক ককেশাসের জনগণের মধ্যে এতিহ্যগতভাবে প্রচলিত নয়। দাগেস্তান গভর্নর জানান, এ ধরনের পোশাক পুরুষদে লুকিয়ে থাকতে সাহায্য করে এবং নারীদের এর আড়ালে অবৈধ জিনিস বহনে সহযোগিতা করে।

গত ২৩ জুনে দাগেস্তানে সন্ত্রাসবাদী হামলার পর নেকাব নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়। ওই দিন বেশ কয়েকজন বন্দুকধারী অর্থোডক্স গির্জা এবং একটি উপাসনালয়কে লক্ষ্য করে হামলা চালায়। হামলায় নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যসহ অন্তত ২০ জন নিহত হন। আহত হন আরও অসংখ্য।


আরও খবর



জাজিরায় জেলেদের মাঝে ছাগল ও খোয়ার ঘর বিতরণ

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৬ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
শাওন মিয়া (জাজিরা) শরীয়তপুর

Image

শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলায় ২০২৩-২০২৪ অর্থ বছরে দেশীয় প্রজাতির মাছ এবং শামুক সংরক্ষণ উন্নয়ন প্রকল্প এর আওতায় নিবন্ধিত জেলেদের মাঝে বিকল্প কর্মসংস্থানের উপকরণ হিসেব ছাগল বিতরণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ জুন) দুপুরে উপজেলা পরিষদ চত্বরে নিবন্ধনধারী অসহায় ২০জন প্রকৃত জেলেদের মাঝে দুটি করে ৪০টি ছাগল ও ২০টি খোয়ার ঘরসহ অন্যান্য উপকরণ বিতরণ করা হয়।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ ইদ্রিস ফরাজী-এর সভাপতিত্বে উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জাজিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া ইসলাম লুনা।

উপজেলা মৎস্য অফিসার মোঃ রেজাউল শরীফ, উপজেলা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো: নজরুল ইসলামসহ অন্যান্যরা।

এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া ইসলাম লুনা বলেন, দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ১০ জেলায় দেশিয় প্রজাতির মাছ, শামুক সংরক্ষণ ও উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করেছে মৎস্য বিভাগ। দেশীয় প্রজাতির মাছ, পুষ্টিগুণের আধার, প্রকৃতির বন্ধু শামুক এ স্লোগানকে সামনে রেখে খাল-বিল বেষ্টিত ৪৯ উপজেলায় প্রাথমিকভাবে চার বছর মেয়াদী দেশীয় প্রজাতির মাছ, শামুক সংরক্ষণ ও উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।

কৃষি উৎপাদন ঠিক রেখে মৎস্য বিভাগ প্রকল্প এলাকায় ১লাখ ৮হাজার ৮৪৭ জন সুফলভোগীর দক্ষতা উন্নয়নে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে বলেও তিনি জানান।


আরও খবর



পরীক্ষাকেন্দ্রে অনিয়মের অভিযোগ, ৭ শিক্ষককে স্থায়ী বহিষ্কার

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
অলিউল্লাহ্ ইমরান, বরগুনা

Image

বরগুনা দারুল উলুম নেছারিয়া (কামিল) মাদ্রাসায় এইচএসসি পরীক্ষায় অনিয়মের অভিযোগে চারটি মাদ্রাসার অধ্যক্ষসহ সাত শিক্ষককে হল থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) নির্দেশে তাদের বহিষ্কার করেন হল সুপার বরগুনা দারুল উলুম সিনিয়র নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মো. মামুন অর রশীদ। বহিষ্কৃত শিক্ষকরা ভবিষ্যতে কোনো পরীক্ষায় দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না।

বহিষ্কৃতরা হলেন বদরখালী ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আশরাফ আলী, কেওড়াবুনিয়া ইসহাকিয়া আলিম মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ রেজাউল ইসলাম, পূর্ব গুদিঘাটা কামিল মাদ্রাসার সহকারী অধ্যক্ষ সগির হোসাইন ও বেলাল হোসাইন। এ ৩টি মাদ্রাসার প্রভাষক বেলাল হোসেন, মোহাম্মদ ইসমাইল ও মিজানুর রহমান। তবে অনৈতিক সুবিধা নেওয়া ৮০ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেননি তারা।

বরগুনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শামীম মিঞা বলেন, বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষায় সদরের আলিয়া মাদ্রাসার ৬, ৭ ও ৯ নম্বর হলে ৮০ জন পরীক্ষার্থীকে অনৈতিক সুবিধা দেওয়ার জন্য নৈর্ব্যত্তিকের কোড পরিবর্তন করে প্রশ্নপত্র দেয় ওই ৭ শিক্ষক। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে অনিয়মের প্রমাণ পেয়ে ৭ শিক্ষককে স্থায়ী বহিষ্কার করা হয়।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষকরা বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ এনে বহিষ্কার করা হয়েছে তা সঠিক নয়।


আরও খবর



যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়ার একটি বাড়িতে আগুনে পুড়ে ৬ জন নিহত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের একটি বাড়িতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে। এতে তিন শিশুসহ ছয়জন নিহত ও পাঁচজন আহত হয়েছেন। সোমবার স্থানীয় কর্তৃপক্ষর বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে সিনহুয়া নিউজ এজেন্সি।

জর্জিয়ার স্থানীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, নিহতদের বয়স ৬ থেকে ৭৪ বছর। তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ছাড়া আহতদের উদ্ধার করে আটলান্টার একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর।

সিনহুয়ার প্রতিকেদনে বলা হয়েছে, স্থানীয় সময় সোমবার ভোর ৫টার দিকে আটলান্টার দক্ষিণ-পশ্চিমের কোয়েটা কাউন্টির একটি বাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পাওয়া মাত্র ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছায়।

কীভাবে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছে, তা এখনও জানা যায়নি। অগ্নিকাণ্ডের সময় বাড়িটিতে ১১ জন বাসিন্দা ছিলেন বলে জানা গেছে।


আরও খবর



রাজু ভাস্কর্যে অবস্থান নিয়েছেন শিক্ষার্থীরা, মাঠ না ছাড়ার ঘোষণা

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

স্বাধীনতাকে কটাক্ষ, একাত্তরের ঘৃণীত গণহত্যাকারী রাজাকারদের প্রতি সাফাই এবং আন্দোলনের নামে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরির প্রতিবাদে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। সোমবার বিকেল ৩টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যদের পাদদেশে তাদের এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। তবে রাজু ভাস্কর্য এলাকা দখল করে রেখেছেন আন্দোলনরত সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

সোমবার (১৫ জুলাই) দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে সরেজমিনে রাজু ভাস্কর্য এলাকায় দেখা যায়, চলমান ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া বক্তব্য প্রত্যাহার এবং সরকারি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থা সংস্কারের একদফা দাবিতে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

সাধারণ শিক্ষার্থীরা বলছেন, যত বাধা আসুক তারা মাঠ ছাড়বে না। তারা তাদের অবস্থান ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করবেন।

এসময় ঘোষণা মঞ্চ থেকে বলা হয়, ছাত্রলীগ এলেও আমরা সরবো না। রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবো। আমরা দেখছি আমাদের ওপর হামলা করার জন্য ক্যাম্পাসে টোকাইদের জড়ো করা হচ্ছে। আমরা ভয় পাবো না। আমরা মাঠ ছাড়বো না।

এদিকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজী মুহম্মদ মহসীন হলের মাঠে অবস্থান নিয়েছেন।


আরও খবর