আজঃ বুধবার ২৪ জুলাই 20২৪
শিরোনাম

আলোচিত জল্লাদ শাহজাহান মারা গেছেন

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জুন 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ৬ আসামিসহ ৬০ জনের ফাঁসির দড়ি টানা আলোচিত জল্লাদ শাহজাহান ভূঁইয়া মারা গেছেন।

সোমবার (২৪ জুন) ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

তার মৃত্যুর বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন ডিএমপির তেজগাঁও জোনের শের-এ-বাংলা নগর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মশিউর আজম।

তিনি বলেন, সাভারের হেমায়েতপুরের জাদুরচর এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন শাহজাহান। রোববার রাত সাড়ে ৩টার দিকে বুকে ব্যথা শুরু হলে তাকে ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

পরিবারের সূত্র জানায়, সোমবার ভোর ৫টা ৩০ মিনিটের দিকে তার মৃত্যু হয়। তার বোন ফিরোজা হাসপাতালে মরদেহ গ্রহণ করেন। আইনগত কার্যক্রম শেষে শাহজাহানের মরদেহ নরসিংদির পলাশ উপজেলার ইছাখালী গ্রামে দাফন করা হবে।

জল্লাদ শাহজাহানের পুরো নাম শাহজাহান ভূঁইয়া। তিনি নরসিংদী জেলার পলাশ উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের ইছাখালী গ্রামের মৃত হাছেন আলীর ছেলে। মায়ের নাম মেহের। তিন বোনের মধ্যে বর্তমানে এক বোন বেঁচে আছে শাহজাহানের। ১৯৫০ সালের ২৬ মার্চ জন্ম নেওয়া শাহজাহানের বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। যৌবনকালসহ জীবনের দীর্ঘ সময় কারাগারে বন্দি থাকায় ব্যক্তিগত জীবনেও তিনি অবিবাহিত ছিলেন। তবে, কারামুক্তির পর এক তরুণীকে বিয়ে করেন। সে সংসার টেকেনি। এ নিয়ে আইনি জটিলতায়ও পড়েন তিনি।

দীর্ঘ ৩১ বছর ৬ মাস ২ দিন কারাভোগের পর ২০২৩ সালের ১৮ জুন দুপুরে কারাগার থেকে মুক্তি পান শাহজাহান। ডাকাতি করতে গিয়ে হত্যা ও অস্ত্র আইনের দুই মামলায় তার ৪২ বছরের কারাদণ্ড হয়েছিল। কিন্তু কারাগারে জল্লাদের কাজ, সুশৃঙ্খল জীবনযাপন আর ভালো কাজের পুরস্কার হিসেবে তিনি ১০ বছর ৫ মাস ২৮ দিন রেয়াত (সাজা মওকুফ) পান। ওই দুই মামলায় তার পাঁচ হাজার টাকা করে মোট ১০ হাজার টাকা জরিমানা হয়। মুক্তির সময় কারা কর্তৃপক্ষ তা পরিশোধ করে দেয়।


আরও খবর
মেট্রোরেল চলাচল পুরোপুরি বন্ধ

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




প্রতিবাদের অধিকারের প্রতি সম্মান দেখাতে হবে: অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলনে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের দমনপীড়নে শিক্ষার্থীসহ অন্তত ২০ জন আহত হওয়ার খবরে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। যুক্তরাজ্যভিত্তিক আন্তর্জাতিক এই মানবাধিকার সংস্থার দক্ষিণ এশিয়া শাখা বৃহস্পতিবার রাতে ফেসবুকে এ নিয়ে পোস্ট দিয়েছে।

অ্যামনেস্টি বলেছে, বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই প্রতিবাদ করার অধিকারের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করতে হবে। পাশাপাশি শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের নিরাপত্তা প্রদান এবং অতিরিক্ত শক্তি প্রয়োগ বন্ধ করারও আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।

আন্তর্জাতিক এই মানবাধিকার সংস্থা বলেছে, আন্তর্জাতিক আইনের আওতায় ও নিজস্ব সংবিধান অনুযায়ী শান্তিপূর্ণ সমাবেশের স্বাধীনতার অধিকারের প্রতি বাংলাদেশ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

বৃহস্পতিবার কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের সামনের সড়কে সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পুলিশ ফাঁকা গুলি ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে সাংবাদিকসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন।


আরও খবর
মেট্রোরেল চলাচল পুরোপুরি বন্ধ

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




হানিফ ফ্লাইওভারের টোল প্লাজায় ফের আগুন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে হানিফ ফ্লাইওভারের টোল প্লাজায় ফের আগুন দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সেখানে আগুন দেন তারা। এ সময় বিক্ষোভকারীদের তোপের মুখে পিছু হটে পুলিশ। এর আগে বুধবার রাতে টোল প্লাজায় আগুন দেন আন্দোলনকারীরা।

এদিন বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কাজলা এলাকায় পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষে কাজলাসহ টোল প্লাজা এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, শত শত আন্দোলনকারী পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছেন। এ সময় পুলিশ আন্দোলনকারীদের লক্ষ্য করে মুহুর্মুহু টিয়ারশেল নিক্ষেপ করতে থাকে। আন্দোলনকারীরাও পুলিশের দিকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করছেন। তাদের হাতে লাঠিসোঁটাও দেখা গেছে।

এ সময় আন্দোলনকারীরা আমার ভাইয়ের রক্ত, বৃথা যেতে দেবো না; কোটা না মেধা, মেধা মেধা; চেয়েছিলাম অধিকার, হয়ে গেলাম রাজাকার- এমন নানান ধরনের স্লোগান দিতে থাকেন।

সংঘর্ষ চলাকালে আন্দোলনকারীরা একজনকে ব্যাপক মারধর ধরেন। তবে তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এছাড়া ১০৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের কার্যালয় ভাঙচুর করেন বিক্ষোভকারীরা।

এর আগে এদিন সকাল থেকে যাত্রাবাড়ীতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন আন্দোলনকারীরা। সকাল থেকেই সেখানে অবস্থান নেন বিক্ষোভকারীরা।

আন্দোলনকারীদের অবস্থানের কারণে কোনো যানবাহন ঢাকা থেকে বের হতে পারছে না। আবার কোনো যানবাহন ঢুকতেও পারছে না।

নিউজ ট্যাগ: হানিফ ফ্লাইওভার

আরও খবর



প্রশ্নফাঁসকাণ্ডে জড়িত পিএসসির এক ডজন রাঘববোয়াল

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) প্রশ্নফাঁসে এর ভেতর এবং বাইরে এক ডজন রাঘববোয়াল জড়িত রয়েছেন। তাদের কয়েকজন গ্রেফতার হলেও অন্যরা এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে। সন্দেহভাজন এসব রাঘববোয়ালের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ এবং অতীত কর্মকাণ্ডের বিষয়াদি পর্যালোচনা করছে সিআইডিসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক ইউনিট। তারা প্রশ্নফাঁস চক্রের মূলোৎপাটনের লক্ষ্যে তদন্ত অব্যাহত রেখেছেন।

সূত্র জানিয়েছে, প্রশ্নফাঁস চক্রে জড়িতদের প্রায় প্রত্যেকেই কোটি কোটি টাকার মালিক। আলোচিত সাবেক গাড়িচালক আবেদসহ গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং আইনে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে সিআইডি।

সিআইডির একজন কর্মকর্তা বলেন, শুরু থেকেই মানুষের মাঝে একটা পারসেপশন ছিল বিসিএস এবং পিএসসির পরীক্ষাসমূহের সঙ্গে যুক্ত সবাই নীতিবান। যে কারণে এসব পরীক্ষায় কোনো দুর্নীতি হয় না, প্রশ্নপত্র ফাঁস হয় না। কিন্তু এক যুগ ধরে প্রশ্নফাঁসের যে অভিযোগ সামনে এসেছে-তা সত্যিই ভাবিয়ে তুলেছে। তিনি বলেন, এই চক্রকে নির্মূল করা না গেলে ক্ষতিগ্রস্ত হবে রাষ্ট্র। তিনি জানান, পিএসসি আইনে মামলার পাশাপাশি তাদের বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং আইনেও মামলার প্রস্তুতি রয়েছে।

রেলওয়ের একটি নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় গত সোমবার পিএসসির ছয় কর্মকর্তা কর্মচারীসহ ১৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এর মধ্যে আলোচিত ড্রাইভার আবেদ আলীকে ১০ বছর আগে প্রশ্নফাঁসের অভিযোগে চাকরিচ্যুত করা হয়েছিল। পল্টন থানায় দায়ের করা মামলায় মঙ্গলবার সাবেক গাড়িচালক আবেদ আলী, ডেসপাস রাইটার খলিলুর রহমান ও অফিস সহায়ক সাজেদুল ইসলামসহ ছয়জন দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। তারা গত এক যুগ ধরে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসসহ (বিসিএস) পিএসসির আরও কয়েকটি নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস করার কথা স্বীকার করেন। গ্রেফতার পিএসসির কর্মকর্তাসহ যারা স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দেননি তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে রিমান্ড আবেদন করেছে সিআইডি। সিআইডি সূত্র জানিয়েছে, তাদের আরেকবার রিমান্ডে পেলে ভেতরে বাইরে প্রশ্নফাঁস চক্রের যত রাঘববোয়াল আছে, তাদের চিহ্নিত করা সম্ভব হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, বিভিন্ন সময়ে প্রশ্নফাঁসে জড়িত পিএসসির বিভিন্ন পর্যায়ের আরও পাঁচ কর্মকর্তা-কর্মচারীর নাম সামনে এসেছে। তারাও বিভিন্ন সময়ে ক্যাডার ও নন-ক্যাডার পরীক্ষার প্রশ্নফাঁসে সংশ্লিষ্ট ছিলেন।

এদিকে মামলায় অভিযুক্ত সাবেক উপ-সহকারী পরিচালক নিখিল চন্দ্র রায়সহ ১৪ জনকে গ্রেফতারে সিআইডির অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তবে এখনো তাদের গ্রেফতারের আওতায় আনা যায়নি। সূত্র জানিয়েছে, এই চক্রের সদস্য সংখ্যা ৬০ জনের অধিক। এর মধ্যে ডজনের অধিক রাঘববোয়াল। তাদের কেউ কেউ পিএসসিতে বহালতবিয়তে আছেন। আবার কেউ অবসরে গেছেন বা চাকরিচ্যুত হয়েছেন। আর চক্রের অন্য যারা আছেন, তারা মূলত কেউ প্রার্থী জোগাড় করেন, কেউবা দরদাম ঠিক করেন। কেউবা আবার পরীক্ষার্থীদের গোপন আস্তানায় নিয়ে পড়ান।

তদন্তসংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, পিএসসির উপ-পরিচালক মো. আবু জাফর ও মো. জাহাঙ্গীর আলম এবং সহকারী পরিচালক মো. আলমগীর কবিরকে রিমান্ডে পেলে প্রশ্নফাঁসে জড়িত অন্য রাঘববোয়ালদের নাম সামনে আসতে পারে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জুয়েল চাকমা বলেন, মামলা তদন্তাধীন। এই মুহূর্তে কোনো মন্তব্য করা সমীচীন হবে না। তদন্ত শেষ হলে বিস্তারিত জানানো হবে।

পিএসসির যুগ্ম সচিব আবদুল আলীম খান বলেন, আমরাও তদন্ত চলমান রেখেছি। সবাইকে সন্দেহের তালিকায় রেখেই আমরা কাজ এগিয়ে নিচ্ছি। আশা করি তদন্ত প্রতিবেদনে ভালো কিছু দিতে পারব। তিনি বলেন, তদন্তকাজ আমরা স্বাধীনভাবেই চালিয়ে যাচ্ছি।

এদিকে গত মঙ্গলবার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে সাবেক গাড়িচালক আবেদ আলীসহ ছয়জন প্রশ্নফাঁস চক্রের অনেক তথ্যই ফাঁস করে দিয়েছেন। তাদের স্বীকারোক্তিতে বেরিয়ে এসেছে রাঘববোয়াল অনেকের নামও। এসব তথ্য সামনে রেখে কাজ করছে সিআইডি।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, পিএসসিতে কর্মকর্তা পর্যায়ের কিছু লোক প্রশ্ন ফাঁস করতেন। আর তাদের সহযোগী হিসাবে কাজ করতেন কর্মচারীরা। চক্রে বাইরের যারা জড়িত তারা প্রার্থী সংগ্রহ, টাকার চুক্তিসহ বিভিন্ন দায়িত্বে ছিলেন। অডিটর প্রিয়নাথ রায় আবেদ আলীকে বিভিন্ন পরীক্ষার সাড়ে ৪০০ প্রার্থী জোগাড় করে দিয়েছেন বলে তিনি আদালতের কাছে স্বীকার করেছেন। এসব প্রার্থীর প্রত্যেকের সঙ্গে ১৮ থেকে ২০ লাখ টাকায় চুক্তি করেছেন প্রিয়নাথ। গ্রেফতার নোমান সিদ্দিকী লক্ষ্মীপুরের রামগতি থানার চর আলগি গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে। ২০০৪ সালে পিএসসির প্রশ্নপত্র ফাঁসকারী চক্রের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন চাকরির তদবির করতেন তিনি। তখন এক বন্ধুর মাধ্যমে পরিচয় হয় অডিটর প্রিয়নাথ রায়ের সঙ্গে। এরপর ফাঁস হওয়া প্রশ্ন বিক্রি করে নোমান ঢাকার পাশেই একটি গার্মেন্টস কারখানার মালিক হয়েছেন। এছাড়া তার রয়েছে প্লট, ফ্ল্যাটসহ বিপুল সম্পদ।

পিএসসির অফিস সহায়ক সাজেদুল ইসলামের সঙ্গে বন্ধুত্ব ছিল পানির ফিল্টার ব্যবসায়ী সাখাওয়াত হোসেনের। সাজেদুলের প্ররোচনায় সাখাওয়াত ও তার ভাই সায়েম হোসেন এই চক্রের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। ৪৬ জন চাকরিপ্রত্যাশীকে সাখাওয়াতের গুদামে নিয়ে ফাঁস করা রেলওয়ের প্রশ্ন পড়ানো হয়।

আর সাবেক গাড়িচালক সৈয়দ আবেদ আলী তো প্রশ্ন ফাঁস করে বনে গেছেন শতকোটি টাকার মালিক। প্রশ্নফাঁসে গ্রেফতার পিএসসির উপপরিচালক মো. আবু জাফরের বাড়ি পটুয়াখালীর গলাচিপার কলাগাছিয়ায়।

আবু জাফর বেশ কয়েক বছর ধরে স্ত্রী জ্যোতির নামে মালিবাগের চৌধুরী পাড়ায় একটি কোচিং সেন্টার চালাচ্ছেন। যেখানে সরকারি চাকরিপ্রত্যাশীরা কোচিং করতেন।

উল্লেখ্য, প্রশ্নফাঁসের অভিযোগে গত ৮ জুলাই রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে আবেদ আলীসহ মোট ১৭ জনকে গ্রেফতার করে সিআইডি। প্রশ্নফাঁসের ঘটনায় ওই রাতে রাজধানীর পল্টন থানায় বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন আইনে সিআইডির এসআই নিপ্পন চন্দ্র চন্দ মামলা করেন। মামলায় ৩১ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৫০-৬০ জনকে আসামি করা হয়েছে।


আরও খবর
মেট্রোরেল চলাচল পুরোপুরি বন্ধ

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




শনিবারও চলবে ডিএনসিসির উচ্ছেদ অভিযান

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৮ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

মোহাম্মদপুরের সাতমসজিদ হাউজিং এলাকায় আগামীকাল শনিবারও সকাল সাড়ে ১০টা থেকে উচ্ছেদ অভিযান ও খাল খনন কাজ পরিচালনা করবে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)।

এদিকে উদ্ধার হওয়া জমি দখলমুক্ত রাখতে ছুটির দিনেও অভিযান পরিচালনা করে খাল খননের কাজ করছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)। শুক্রবার সাদিক অ্যাগ্রোর দখলে থাকা উদ্ধার করা অংশে খাল খননের কাজ শুরু করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)।

শুক্রবার (২৮ জুন) মোহাম্মদপুরের সাতমসজিদ হাউজিং এলাকায় থেকে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। মাঝে জুমার নামাজের বিরতির পর আবারও খনন কাজ চলে। একইভাবে আগামীকাল শনিবার ফের উচ্ছেদ, খাল খনন করবে ডিএনসিসি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের তথ্য কর্মকর্তা পিয়াল হাছান বলেন, ডিএনসিসির খাল উদ্ধারে টানা তিনদিন ওই এলাকায় অভিযান চলছে। গতকাল বৃহস্পতিবার অভিযান পরিচালনা করে ৬০টি অবৈধ স্থাপনা ভেঙে দিয়ে ১০ বিঘা জমি উদ্ধার করে ডিএনসিসি। সাদিক অ্যাগ্রোর উদ্ধার করা অংশে খাল খনন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। মোহাম্মদপুরের সাতমসজিদ হাউজিং এলাকা শুক্রবার দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে খাল খনন কার্যক্রম পরিচালনা করছে ডিএনসিসি। আগামীকালও এই কার্যক্রম চলবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) ডিএনসিসির নিজস্ব জমি, খাল ও রাস্তা দখল করে গড়ে তোলা ৬০টির বেশি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে প্রায় ১০ বিঘা নিজস্ব সম্পত্তি উদ্ধার করা হয়। যার মধ্যে সাদিক অ্যাগ্রোর দখল করা খালের অংশও ছিল।

উচ্ছেদ করা স্থাপনাগুলোর মধ্যে রয়েছে দোকানপাট, রেস্টুরেন্ট, কাঠের মিল, রাজনৈতিক দলের অফিস ও একটি গবাদি পশুর বাণিজ্যিক ফার্মের স্থাপনা। উচ্ছেদ শেষে উন্মুক্ত নিলামে জব্দ করা মালামাল ৬৭ হাজার ৫০০ টাকায় বিক্রি করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।


আরও খবর



ঢাকাসহ ১৫ জেলায় ঝড়ের আশঙ্কা

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঢাকাসহ দেশের ১৫ জেলায় ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

শনিবার (৬ জুলাই) দিনগত রাত ১টার মধ্যে দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দর সমূহের জন্য দেওয়া এক পূর্বাভাসে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, রংপুর, রাজশাহী, পাবনা, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, যশোর, কুষ্টিয়া ফরিদপুর, খুলনা, ঢাকা, বরিশাল, পটুয়াখালী, কুমিল্লা, নোয়াখালী এবং সিলেট অঞ্চলসমূহের ওপর দিয়ে রাত ১টার মধ্যে দক্ষিণ অথবা দক্ষিণ-পূর্বদিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

এসব এলাকার নদীবন্দর সমূহকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এদিকে, রোববার সকাল ৯টা পর্যন্ত আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি থেকে প্রবল অবস্থায় রয়েছে।

এ অবস্থায় রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং ঢাকা ও খুলনা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।


আরও খবর